Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2022/03/taka-income-korar-website.html

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট — আপনি কি টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাচ্ছেন? বর্তমানে অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে চায় সবাই। কিন্ত অনলাইনে টাকা ইনকাম করার বিষয়ে সঠিক গাইডলাইন না পাওয়ার ফলে মরুভূমির চোরাবালির মতোন ধোঁকা খেতে থাকে। কারণ এখন অনলাইনে প্রচুর পরিমাণে ধোকাবাজ আছে। আর যদি আপনি কোনো রকম ধারণা ছাড়াই এবং নির্দিষ্ট কোনো গাইডলাইন ব্যতীত অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে চান তবে আপনি পদে পদে ধোকার শিকার হতে পারেন।

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

পেজ সূচীপত্রঃ

অতএব আপনাদের সুবিধার জন্য আজকের এই পোস্টে আমি টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট সম্বন্ধে বিস্তারিত ভাবে আলোচনার করার চেষ্টা করবো। এখানে টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট সম্পর্কে আলোচনা করা পদ্ধতি অনুসরণ করলে কোনো ধরনের ধোঁকা ছাড়াই অল্পসময়ে একটু পরিশ্রম করে অনলাইন থেকে ভালো পরিমাণে টাকা আয় করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট বলতে সাধারণ অর্থে বোঝায়, যেসকল ওয়েবসাইটে কাজের বিনিময়ে টাকা ইনকাম করা যায়। অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করার জন্য ওয়েবসাইট এখন প্রধান অবলম্বন। যদিওবা বর্তমানে টাকা ইনকাম করার অনেক অ্যাপস রয়েছে, তবে বেশিরভাগ টাকা ইনকাম করার অ্যাপস এসকল ওয়েবসাইটের আওতাধীন হয়ে থাকে। সুতরাং, টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট খুঁজে পেলে অ্যাপসও খুবই সহজে পাওয়া যাবে।

এই পোস্টে টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট সম্পর্কে আলোচনা করেছি, যার মধ্যে কিছু কিছু বিদেশী সাইট এবং বেশিরভাগ গুলোই বাংলাদেশি ওয়েবসাইট। সুতরাং, পেমেন্ট নিয়ে আপনার আর কোনো বাড়তি চিন্তা করতে হবেনা। এখানে নির্ভরযোগ্য কয়েকটি টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট এর নাম উল্লেখ করেছি। যেগুলো থেকে ১০০% টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তাহলে চলুন টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট গুলোর সাথে পরিচিত হই।

১। Microworkers - টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

এই টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইটটি অনেক নামকরা এবং বিশ্বত। Microworkers টাকা ইনকাম ইনকাম করার ওয়েবসাইট এ আপনি ছোটো ছোটো কাজ সম্পূর্ণ করার মাধ্যমে ভালো পরিমাণে ইনকাম করতে পারবেন। এই ওয়েবসাইটে বর্তমানে প্রায় ১ থেকে ২ মিলিয়ন মানুষ কাজ করে টাকা ইনকাম করছে। ওয়েবসাইটটিতে আপনি নিজের যেকোনো ধরনের কাজ করে নিতে পারবেন পাশাপাশি আপনি নিজেও এখানে কাজ করে আয় করতে পারবেন। 

Microworkers ওয়েবসাইটের আপনি যে সকল কাজ করতে পারবেন যথাঃ ১। ফেসবুক ইউটিউব একাউন্ট খোলা ২। ইউটিউব ভিডিও দেখা এবং চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করা ৩। বিভিন্ন জায়গায় রেটিং দেওয়া ৪। জিমেইল একাউন্ট তৈরি করা ৫। ওয়েবসাইট ভিজিট করা ৬। অ্যাপ ইন্সটল করা ইত্যাদি। 

এই ধরনের আরো অনেক ছোটো ছোটো কাজ পাওয়া যায় এই ওয়েবসাইটে। যদি আপনি সঠিকভাবে এখানে কাজ করতে পারেন তবে আপনি অবশ্যই এখান থেকে পেমেন্ট পেয়ে পাবেন। Microworkers টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট থেকে পেমেন্ট নিতে হয় ব্যাংক ট্রান্সফারের মাধ্যমে, পেপাল এবং স্কিল ইত্যাদির মাধ্যমে।

আরো পড়ুনঃ ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব

২। Picoworkers - টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট 

Picoworkers এই টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট হচ্ছে বর্তমান সময়ের অনেক জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইটে আপনি ছোটো ছোটো কাজ করে অনেক ভালো পরিমাণ টাকা আয় করতে পারবেন। ওয়েবসাইটটিতে বর্তমানে প্রতিদিন লাখ লাখ মানুষ কাজ করে টাকা ইনকাম করে যাচ্ছে। টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট এ আপনারা যে সমস্ত কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেনঃ

১। জিমেইল অ্যাকাউন্ট তৈরি করা ২। ইউটিউব ভিডিও দেখে লাইক করা এবং ভিডিও শেয়ার করা ৩। ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলা ৪। ফেসবুক পেজ খোলা ৫। টুইটার অ্যাকাউন্ট খোলা ৬। ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট খোলা ৭। ওয়েবসাইটে অ্যাকাউন্ট খোলা ৮। মার্কেটিং করা ইত্যাদি এই ধরনের আরো বিভিন্ন ধরনের কাজ করে এই টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট থেকে টাকা ইনকাম করা যায়। 

যদি নিয়মিত এই ওয়েবসাইটে কাজ করতে পারেন তবে প্রতিদিন ৫ থেকে ১০ ডলার সহজেই ইনকাম করতে পারবেন। আর হ্যাঁ যদি আপনি ভালোভাবে কাজ করেন তবে ১০০% এখান থেকে পেমেন্ট তুলতে পারবেন। টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট Picoworkers থেকে ব্যাংক টান্সফার, পেপাল, স্কিল ইত্যাদির মাধ্যমে পেমেন্ট নিতে পারবেন। অতএব আপনি এখানে নির্ভয়ে কাজ করতে পারেন।

৩। Swagbucks - টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট হিসেবে এই Swagbucks ওয়েবসাইটটি অনেক জনপ্রিয়, বিশ্বত এবং বহুল পুরনো। ওয়েবসাইটটিতে আপনি কাজ করার মাধ্যমে পয়েন্ট উপার্জন করতে পারবেন। টাকা ইনকাম করার জন্য বা এই ওয়েবসাইটে কাজ করার জন্যে আপনাকে একাউন্ট খুলতে হবে। আর মজার ব্যাপার হচ্ছেঃ এখানে একাউন্ট খোলার সঙ্গে সঙ্গে আপনি ৫ ডলার ফ্রি পাবেন। এখানে ইনকাম করা পয়েন্টগুলো পেপালের মাধ্যমে ডলার হিসেবে নিতে পারবেন। টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট এ যেসকল কাজ করা যায় যথাঃ 

১। সার্ভে করে ইনকাম ২। ভিডিও অ্যাড দেখে টাকা ইনকাম ৩। গেম খেলে টাকা ইনকাম ৪। শপিং করে টাকা ইনকাম ৫। ইন্টারনেটে সার্চ করে টাকা ইনকাম ইত্যাদি। এই ওয়েবসাইট থেকে টাকা তোলার জন্য সর্বনিম্ন ৩ ডলার হতে হবে। আপনি অনেক সহজেই ব্যাংক ট্রান্সফার, পেপাল, অ্যামাজন গিফট কার্ড ইত্যাদির মাধ্যমে আপনার পয়েন্টগুলো ডলারে রূপান্তরিত করে ডলার তুলতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

৪। Inboxdollars.com - টাকা আয় করার ওয়েবসাইট

আমার কাছে টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট হিসেবে inboxdollars.com হচ্ছে অনেক চমৎকার একটি ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি অনেক সহজেই টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এই ওয়েবসাইটে কাজ করার জন্য আপনাকে রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে। আর ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করার জন্য আপনি পাবেন ৫ ডলার বোনাস। তবে মনে রাখা ভালো এই টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট এ আপনি বাংলাদেশ থেকে ঢুকতে বা কাজ করতে পারবেন না। 

তাই কাজ করার জন্য ভিপিএন (ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক) ব্যবহার করতে হবে বা ভিপিএন ব্যবহার করে ওয়েবসাইটে ঢুকতে হবে। আর যখনি আপনি বাংলাদেশ থেকে কাজ করতে চান না কেন তখন আপনাকে ভিপিএন ব্যবহার করেই কাজ করতে হবে। ওয়েবসাইটটিতে আপনারা যেসকল কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেনঃ 

১। সার্ভে করে ইনকাম করতে পারবেন ২। বিজ্ঞাপন দেখে ইনকাম করতে পারবেন ৩। গেম খেলে ইনকাম করতে পারবে ৪। শপিং করার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন ৫। বিভিন্ন ধরনের অফার পূরণ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আর হ্যাঁ টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট থেকে টাকা তোলার জন্য আপনার একাউন্টে সর্বনিম্ন ৩০ ডলার থাকতে হবে। আর এই টাকা আপনি অনেক সহজেই ব্যাংক ট্র্যান্সফার, পেপাল এবং গিফট কার্ডের মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ আর্টিকেল লিখে আয় পেমেন্ট বিকাশ

৫। Upwork - টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

আপওয়ার্ক সম্পর্কে কেইবা না জানে? আমরা সকলেই জানি, এটি হচ্ছে একটি জনপ্রিয় ট্রাস্টেড ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইটে কাজ করার জন্যে অবশ্যই আপনাকে যেকোনো একটা কাজের উপরে ভালোভাবে দক্ষ হতে হবে। তাছাড়া আপনি এই ওয়েবসাইটে কাজ করে সফলতা অর্জন করতে পারবেন না। Upwork ওয়েবসাইটে আপনারা যেসকল কাজ করতে পারবেনঃ 

১। ওয়েবসাইট ডিজাইনিং ২। ব্লগ রাইটিং - আর্টিকেল রাইটিং ৩। ডিজিটাল মার্কেটিং ৪। গ্রাফিক্স ডিজাইন ৫। একাউন্টিং ৬। এসইও এক্সপার্ট ইত্যাদি কাজ করে এখান থেকে টাকা ইনকাম করা যায়। আপওয়ার্ক জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটে নিজের ক্যারিয়ার গড়তে বিশেষত টেকনিক্যাল স্কিল অর্থাৎ দক্ষতার প্রয়োজন রয়েছে।

Upwork ওয়েবসাইটে এমন অসংখ্য লোকজন রয়েছে, যারা প্রতিমাসে ৫০০ ডলার থেকে ১০ হাজার ডলারের বেশি ইনকাম করে থাকেন। বিশেষ করে আমাদের দেশে তরুণ সমাজে ফ্রিল্যান্সিং জনপ্রিয়তা অনেক বেশি। একইভাবে Upwork কাজ করাও সবার মাঝে অনেক বেশি জনপ্রিয়। 

অতএব আপনি এই টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইটে কাজ করতে পারেন নির্দ্বিধায়। যদি আপনি এখানে ভালোভাবে কাজ করতে পারেন ভালো সার্ভিস প্রদান করতে পারেন তাহলে এখান থেকে মোটা অংকের টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এখান থেকে যদি কেউ ১০০ টাকা ইনকাম করে থাকেন তবে তার ইনকাম থেকে ১০% কমিশন আপওয়ার্ক সাইটটি নিজেই নিয়ে নেয়।

আরো পড়ুনঃ ফ্রিল্যান্সিং কি - ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো

৬। Fiverr - টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

ফাইবার হচ্ছে অন্যান্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলো থেকে একটু ভিন্ন রকম। কারণ অন্যান্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটে গুলোতে বিড করে একটি প্রোজেক্টে জয়েন দিতে হয় এবং সবার সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে নিজস্ব প্রোজেক্ট সাবমিট করতে হয়। কিন্তু ফাইবারে ওয়েবসাইটে নিজ থেকেই একটি গিগ ক্রিয়েট করতে পারবেন এবং কাস্টে মাররা আপনার কাছে এসে বিভিন্ন সার্ভিস বা প্রোজেক্ট করে নিবে। আর এই সার্ভিস বা প্রোজেক্ট করে নেয়ার বিনিময় আপনাকে টাকা দিবে। 

ফাইবার ওয়েবসাইটে প্রতিমাসে ১০০০ ডলার থেকে ১০ হাজার ডলার পর্যন্ত আয় করেন এমন অনেক বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সার আছেন। ফাইবার টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট এ আপনি কনটেন্ট রাইটিং, ওয়েবসাইট ডিজাইনিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ডাটা এন্ট্রি, অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, ডিজিটাল মার্কেটিং ইত্যাদি সহ সকল ধরনের সার্ভিস দিতে পারবেন। 

আপনি অনলাইনে যে কাজটিতে অভিজ্ঞ, সেটি বর্ণনা করে একটি গিগ খুলতে পারবেন এবং সেটিতে কাজের জন্য কত এমাউন্ট নিবেন তা উল্লেখ করতে পারবেন। আর যখন কেউ আপনার সার্ভিসটি নিবে, তখন সেটার বিনিময়ে আপনাকে ডলার বা সার্ভিস ফি দিবে। এটা হচ্ছে অনলাইনে আয় করার জন্য অনেক সহজ একটি উপায়।

৭। Kolotibablo - টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

এই Kolotibablo ওয়েবসাইটটি বর্তমানে অনেক বেশী জনপ্রিয়। এই ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ধরনের ক্যাপচা পূরণ করে টাকা ইনকাম করা যায়। এখানে আপনি যতবেশি ক্যাপচা পূরণ করতে পারবেন ততবেশী টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনি যদি এখানে ভালোভাবে কাজ করতে পারেন তবে এখান থেকে অবশ্যই পেমেন্ট পেয়ে যাবেন।

আরো পড়ুনঃ অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট

৮। miPic

আপনি কি কোনো আর্টিস্ট বা ফটোগ্রাফার? আপনার তোলা সামান্য ফটো গুলির দাম এই ওয়েবসাইট দিতে রাজি। আপনার তোলা ফটোগ্রাফি বিক্রি করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। যদি আপনি কোয়ালিটিফুল এবং ইউনিক ফটো তুলতে পারেন, তাহলে তার কদর এই ওয়েবসাইটে রয়েছে। এটি হচ্ছে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার প্ল্যাটফর্ম। এই ওয়েবসাইটে ফটোগ্রাফারদের ছবি, প্রিন্ট করা পিকচার এবং বিভিন্ন আর্ট বিক্রি করে টাকা ইনকাম করে থাকে।

এখানে বিভিন্ন ধরনের হাইকোয়ালিটির ছবি, প্রিন্ট এবং ফটো দেখা যায়। বিভিন্ন ফটোগ্রাফাররা নিজেদের তোলা ফটো ভালোদামে সেল করতে পারে এখানে। এই ওয়েবসাইটে একটি ফটোর দাম সর্বনিম্ন ৫ ডলার থেকে শুরু করে ৫০০ ডলার পর্যন্ত হয়ে থাকে। ওয়েবসাইটটিতে ক্যানভা, টি-শার্ট প্রিন্টিং, বিভিন্ন ওয়েবসাইট ডিজাইন এবং লোগো ইত্যাদি ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। 

চাইলে আপনি যেকোনো ফ্যাশনেবল আইটেমের ডিজাইন বিক্রি করেই এখান থেকে টাকা ইনকাম করতে পারেন। এটি হচ্ছে একটি ভালোমানের টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট। যেখান থেকে দারুন উপায়ে টাকা ইনকাম করা যাবে। আপনার নিজস্ব তোলা ফটো এখানে যথেষ্ট মূল্যায়ন পাবে।

টাকা ইনকাম করার বাংলাদেশি ওয়েবসাইট

আমাদের সকলের জন্য সুখবর হচ্ছে বাংলাদেশ তথ্য প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। যার কারণে আমাদের দেশে বর্তমানে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট তৈরি হয়েছে। আপনি চাইলেই আপনার মেধা এবং দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে আমাদের দেশীয় এধরনের ওয়েবসাইট থেকে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

সাম্প্রতিক সময়ে আমাদের দেশে নতুন কয়েকটি টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট তৈরি হয়েছে। মূলত অনলাইনে টাকা ইনকাম করার অনেক পদ্ধতি থাকলেও যারা বাংলাদেশে বসবাস করেন তাদের প্রধান সমস্যা হলো তারা টাকা কিভাবে সহজেই তুলতে পারবেন। ধরুন আপনি বিদেশি একজন ক্লায়েন্টের কাজ পেয়েছেন বিদেশি একটা ওয়েবসাইট থেকে কিন্তু আপনার সমস্যা হলো টাকা উইথড্র করবেন কিভাবে।

আর এই সমস্যার সমাধান করার জন্য আমাদের দেশীয় ডেভলপাররা কয়েকটি নিজস্ব দেশীয় টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট তৈরি করেছেন। আপনি চাইলেই উক্ত ওয়েবসাইট গুলোতে নিয়মিত কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আজকের এই আর্টিকেলে আমরা আপনাদেরকে বেশ কিছু বাংলাদেশি টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট সম্পর্কে ধারণা দিবো যেসকল ওয়েবসাইটে কাজ করে আপনি টাকা সহজেই ইনকাম করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ বাংলা আর্টিকেল লিখে আয় করার সাইট

১। বিল্যান্সার ডটকম - টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

বিল্যান্সার হচ্ছে মূলত একটি বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট। বিল্যান্সার ডটকম ঐ সকল ব্যক্তিদের জন্যই যারা বড় বড় জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে কাজের সুযোগ পাচ্ছেন না কিংবা চান্স পাচ্ছে না অথবা ইংরেজিতে পারদর্শী না। তাদের জন্য কাজের সেরা সুযোগ হতে পারে এই বিল্যান্সার ডটকম ওয়েবসাইটটি। এই ওয়েবসাইটে আপনি ছোটো ছোটো কাজ করে মোটা অংকের টাকা আয় করতে পারবেন। 

বিল্যান্সার ওয়েবসাইটটিতে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন, কনটেন্ট রাইটিং, ওয়েব, মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ও সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, ডাটা এন্ট্রি, ফেসবুক পেজ খোলা, এসইও, ওয়েব ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং, সেলস এন্ড মার্কেটিং, কাস্টমার সাপোর্ট ইত্যাদি এর মতো সহজ কাজ থেকে শুরু করে ওয়েবসাইট তৈরির মতো স্কিল বেজড কাজও পাওয়া যায় এখানে। বিল্যান্সার ওয়েবসাইটে পেপাল, ক্রেডিট কার্ড, বিকাশ ইত্যাদির মাধ্যমে পেমেন্ট করা হয়।

২। Dealancer - টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

Dealancer হচ্ছে একটি বাংলাদেশী জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইটটি ফাইবার এবং আপওয়ার্কের মতো জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট। বাংলাদেশি এই ওয়েবসাইটটি হচ্ছে ঐ সকল মানুষদের জন্য যারা বড় বড় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে চান্স পাচ্ছেন না কিংবা সফলতা পাচ্ছেন না। তারা এই টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইটে কাজ করে অনেক সহজেই সফলতার দেখা পেতে পারেন। কেননা এই ওয়েবসাইটের বেশিরভাগ ক্লায়েন্ট হচ্ছেন বাংলাদেশি। আর দেশীয় ক্লায়েন্ট হওয়ার কারণে তাদের সঙ্গে সাথে নিজের ভাষায় কথা বলে প্রতিটি কাজ ভালোভাবে বুঝে তা সম্পূর্ণ করা সম্ভব।

এই ওয়েবসাইটে নিম্নোক্ত কাজ গুলো করে টাকা ইনকাম করা যায়ঃ ১। ওয়েব ডিজাইন ২। ডিজিটাল মার্কেটিং ৩। ফেসবুক সার্ভিস ৪। ইউটিউব সার্ভিস ৫। এসইও এক্সপার্ট ৬। আর্টিকেল রাইটার - কনটেন্ট রাইটিং ৭। সাইট স্পিড অপটিমাইজ ইত্যাদি। অতএব এখানে আপনি আপনার যোগ্যতা ও দক্ষতা অনুসারে যেকোনো ধরনের কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এখানে ইনকাম করা টাকা আপনারা নগদ, বিকাশ, মাস্টার কার্ড, ডেবিট কার্ড ইত্যাদি যেকোনো মাধ্যমে অনেক সহজেই নিতে পারবেন।

Dealancer টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট এ কাজ করার সিস্টেমঃ এই ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটে কাজ করার জন্যে আপনাকে অবশ্যই এখানে রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে। তারপর আপনি যে কাজের উপরে পারদর্শী উক্ত কাজের উপরে একটি গিগ খুলতে হবে। আর গিগের মাঝে অবশ্যই কাজের নমুনা পাশাপাশি কতটাকা চার্জ নিবেন এগুলো উল্লেখ করতে হবে। আর এভাবেই আপনি খুবি সহজে এখান থেকে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ ইউটিউব থেকে আয় করার ৫টি উপায়

৩। জে আই টি

জেআইটি হচ্ছে বাংলা আর্টিকেল লিখে টাকা ইনকাম করার জন্য জনপ্রিয় একটি সাইট। এই ওয়েবসাইটে আপনি অনলাইন ইনকাম, প্রযুক্তি, ইউটিউব, স্বাস্থ্য, ক্যারিয়ার, ব্লগিং প্রভৃতি বিষয়ে আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারবেন। তবে হ্যাঁ জে আই টিতে সরাসরি কন্টেন্ট পাবলিশ করার জন্যে পেমেন্ট প্রদান করেনা। দেশীয় এই টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট থেকে আপনি কত টাকা আয় করতে পারবেন, সেটা আপনার আর্টিকেল ভিউয়ের উপরে নির্ভর করবে। আর্টিকেল প্রতি ১০০ ভিউয়ের জন্য ৫০ টাকা দেওয়া হয় অর্থাৎ আর্টিকেল ১০০০ ভিউ হলে আপনাকে ৫০০ টাকা পেমেন্ট করা হবে।

৪। প্রতিবর্তন

আপনি কি ঘরে বসে থেকে বিভিন্ন বিষয়ের উপরে কন্টেন্ট লিখে ইনকাম করতে চান? তবে আপনি প্রতিবর্তন ওয়েবসাইটের সঙ্গে যুক্ত হোন। ছাত্র-ছাত্রী থেকে শুরু করে গৃহিনী অনেকেই আছেন যারা প্রতিবর্তন ওয়েবসাইটের সঙ্গে কাজ করে প্রতিমাসে মোটা অংকের টাকা করে আয় করছেন। প্রতিবর্তন ওয়েবসাইটে আর্টিকেল লেখার প্লাটফর্ম হিসাবে সকলের জন্য উম্মুক্ত। যদি আপনি কোয়ালিটিফুল আর্টিকেল লিখতে পারেন, তাহলে এই পরিবর্তন ওয়েবসাইটে কাজ করার যথেষ্ট সুযোগ আছে। বাংলা আর্টিকেল লিখে আয় করার ওয়েবসাইট আরো অনেক দেখতে পাবেন, তবে হ্যাঁ প্রতিবর্তন ২টি দিক দিয়ে একটু ভিন্ন রকম।

প্রথমত, আপনি আর্টিকেল লিখে পেমেন্ট নেয়ার জন্য আর কোথাও ইনস্ট্যান্ট পেমেন্ট পাবেন না। দ্বিতীয়ত হচ্ছে, কন্ট্রাক্টে আর্টিকেল রাইটার হিসেবে কাজ করার সুযোগ। এখানে আর্টিকেল পাবলিশ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আপনি পেমেন্ট পেয়ে যাবেন এটা নির্ভর করবে কন্টেন্টটি পাবলিশ হওয়ার পরে আপনি কত দ্রুততার সাথে যোগাযোগ করছেন। আর কন্ট্রাক্ট আর্টিকেলের বিষয়টা হচ্ছে, প্রতিবর্তন ওয়েবসাইটের আর্টিকেল শপ আছে, যার মাধ্যমে অন্যান্য ওয়েবসাইটের জন্য অর্ডার নেয়া হয়।

কন্ট্রাক্ট আর্টিকেলের দাম যেহেতু বেশি, তাই আপনিও এই কারণে বেশ ভালোমানের সম্মানী পেয়ে যাবেন। তবে হ্যাঁ, কন্ট্রাক্ট আর্টিকেল তারাই পেয়ে জান, যারা বিশ্বস্ততা অর্জন করে নিয়ম মাফিক প্রতিবর্তন ওয়েবসাইটে লেখালেখি করেছেন। প্রতিবর্তন ওয়েবসাইটের সঙ্গে কাজ করার পূর্বে অবশ্যই তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে ও কথাবার্তা বলে নিন।

আরো পড়ুনঃ অনলাইন সার্ভে করে আয়

প্রতিটি টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট কি বিশ্বস্ত

হ্যাঁ অবশ্যই। প্রতিটি ওয়েবসাইট গ্রহণযোগ্য ও বিশ্বস্ত। আজকের এই লেখায় আমি সর্বোচ্চ বিশ্বস্ত টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট গুলো নিয়ে আলোচনা করেছি। এই ওয়েবসাইট গুলোর বিশ্বস্থতা নিয়ে কোনো প্রশ্ন আসতে পারেনা।তাই আপনি এখানে নির্দ্বিধায় কাজ করতে পারেন কোনো ধরনের সন্দেহ ছাড়াই।

আবার অনেকের মনে প্রশ্ন কাজ করার আগে ওয়েবসাইট গুলোকে কি যাচাই করা আবশ্যক? জি অবশ্যই। আপনাকে কাজ করার আগে ওয়েবসাইট গুলোকে যাচাই বাছাই করতে হবে। কারণ অনেক সময় ওয়েবসাইট স্ক্যাম করে থাকে বিভিন্ন কারণে। যদিওবা ওয়েবসাইট গুলো ট্রাস্টেট তবুও একটু যাচাই বাছাই করবেন কাজ করার আগে। যাতে করে আপনার কষ্ট বিফলে যাবেনা।

টাকা ইনকাম করার সাইট নিয়ে শেষ কথা

উপরোক্ত আলোচনায় আমরা টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করলাম। আশা করি, টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট গুলো আপনার টাকা ইনকাম শুরু করতে কাজে দিবে। আর এখানে আলোচনার করার বাইরেও যদি কোনো টাকা ইনকাম করার ভালো ওয়েবসাইট সম্পর্কে জেনে থাকেন তাহলে আমাদের সঙ্গে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?