Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2022/03/graphic-design-kivabe-korbo.html

গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি - গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব - গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স — বর্তমান সময়ের ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের এই যুগে গ্রাফিক্স ডিজাইন ছাড়া পুরো মার্কেটিং ডিপার্টমেন্টই কিন্ত বলা চলে অচল। কেননা এটার কারণ বিদ্যমান আপনার চোখের সামনেই। ডিজিটাল মার্কেটিং করার জন্য যা কিছু প্রয়োজন একটা কোম্পানির তারবেশির ভাগই কিন্ত গ্রাফিক্স ডিজাইনাররা তৈরি করে থাকে। পোষ্টার ডিজাইন, ব্যানার ডিজাইন, বিজনেস কার্ড, বিলবোর্ড ডিজাইন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কভার ইমেজ, বিভিন্ন বিজ্ঞাপনের ছবি, টেলিভিশন কমার্শিয়াল ইত্যাদির সবকিছুই গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজের মধ্যে পড়ে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব

পেজ সূচীপত্রঃ গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব

মূলত এসকল কারণেই গ্রাফিক্স ডিজাইনের গুরুত্ব প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি হতেই চলেছে। তাই যদি আপনি সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন যে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখবেন, তবে অবশ্যই এটি আপনার জীবনে নেয়া অন্যতম একটা ফলপ্রসূ সিদ্ধান্ত হতে পারে। আর গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব জানার জন্য আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য অনেক বেশি জরুরি। যাইহোক, আমাদের আজকের আলোচ্য বিষয় হচ্ছে, গ্রাফিক্স ডিজাইন কি এবং গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব। আশাকরি আপনাদের সকল প্রশ্নের উত্তর এই পোস্টটি থেকেই জানতে পারবেন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব এই প্রশ্নটি যারা আমাদের কাছে সরাসরি ও কমেন্টে জানতে চেয়েছেন, মূলত তাদের জন্য আজকের পোস্টে থাকবে গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার কমপ্লিট গাইডলাইন। এমনকি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে কিভাবে নিজের ক্যারিয়ার গড়বেন সে সম্পর্কেও থাকবে এখানে বিস্তারিত।

আমাদের প্রত্যেকের কাছেই বিভিন্ন ধরনের ক্যারিয়ার অপশন আছে। তারমধ্যে অন্যতম একটি ক্যারিয়ার হচ্ছে গ্রাফিক্স ডিজাইন। আর এই গ্রাফিক্স ডিজাইন বর্তমান সময়ে অনেকবেশি জনপ্রিয় প্রচলিত। গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স করার পরে আপনার চাকরির সুযোগ থাকবে অনেক বেশি। তাহলে চলুন নিচে থেকে জেনে নেই গ্রাফিক্স ডিজাইন কি এবং গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব। প্রিয় পাঠক গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব জানার আগে চলুন জেনে নিই গ্রাফিক্স ডিজাইন জিনিসটা মূলত কি?

আরো পড়ুনঃ টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি

গ্রাফিক্স ডিজাইন হলো একটি আর্ট বা শিল্প। এখানে একজন শিল্পী কম্পিউটার সফটওয়্যারের মাধ্যমে কল্পনা, তথ্য এবং গ্রাহকদের ধারণা গুলির সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য, দৃশ্যমান ধারণা তৈরি করে। মূলত গ্রাফিক্স ডিজাইন হচ্ছে এমন একটি প্রক্রিয়া যেখানে আপনি আপনার নিজের শিল্প, ধারণা ও দক্ষতাকে ব্যবহার করে ছবি, শব্দ লেখার মিশ্রণ করে একটি আলাদা বা সম্পূর্ণ নতুন ছবি তৈরি করাকে বোঝায়। 

অর্থাৎ গ্রাফিক্স ডিজাইন হলো কোনো একটি ম্যাসেজ কিংবা তথ্যকে সৃজনশীলতা দিয়ে রং, রেখা এবং বিভিন্ন রকম সেপের মাধ্যমে মানুষের সামনে তুলে ধরাকে বোঝায়। লেখা, ছবি অথবা ধারণার মিশ্রনের দ্বারা তৈরি হওয়া এই নতুন ছবি বা গ্রাফিক্স বিভিন্ন বিজ্ঞাপন, পত্রিকা, বই, ওয়েবসাইট কিংবা লোগো ডিজাইনের জন্য বা তৈরি করার জন্য ব্যবহার করা হয়।

গ্রাফিক্স শব্দটি জার্মান শব্দ থেকে আসছে। এক কথায় চিত্র দ্বারা নকশা তৈরি করাকেই বলা হয় গ্রাফিক্স ডিজাইন। এটি এমন একটি জনপ্রিয় ও সৃজনশীল প্রক্রিয়া যেখানে আপনি নিজের ক্রিয়েটিভিটিকে প্রফেশনে বদলে দিতে পারেন। নিজের আইডিয়া, কর্ম দক্ষতা এবং ইউনিক কিছু ডিজাইন, সহজ এবং সিক্রেট কিছু টিপস জানা থাকলেই আপনার পেশার মূল্যবোধকে আরো দ্বিগুণ করে দিতে পারবেন স্বল্প পরিশ্রমেই। 

প্রতিটি কোম্পানিতে এখন ছবি এডিটিং, লোগো ডিজাইন, প্রোডাক্ট ডিজাইন, ব্যানার ডিজাইন, ফেস্টুন ডিজাইন, ওয়েবসাইটের ইউজার ইন্টারফেস ডিজাইন সহ আরও অনেক গ্রাফিকাল কাজ হয়ে থাকে, যেগুলো তাদের প্রফেশনাল দিক থেকে আরো বেশি প্রক্রিয়াশীল করে তুলছে। সুতরাং প্রতিটি কর্মক্ষেত্রেই গ্রাফিক্স ডিজাইনার বিশেষ একটি “রোল মডেল” হিসেবে পরিচিত। 

সর্বোপরি বর্তমান সময়ের মার্কেটপ্লেসে, ফ্রিল্যান্সিং প্লাটফর্ম গুলোতে সবচেয়ে চাহিদা বহুল পেশা হচ্ছে এখন গ্রাফিক্স ডিজাইন। প্রিয় পাঠক আমরা এখন জানলাম গ্রাফিক্স ডিজাইন কি। এবার চলুন জেনে নেই গ্রাফিক্স ডিজাইন কত প্রকার ও কি কি?

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

গ্রাফিক্স ডিজাইন কত প্রকার

প্রথমত গ্রাফিক্স ডিজাইন ২টি ভাগে বিভক্ত যথাঃ ১। স্টিল ইমেজ গ্রাফিক্স ২। মোশন গ্রাফিক্স। মূলত স্টিল ইমেজ গ্রাফিক্স আবার ৪ প্রকার যথাঃ ১। রাস্টার ইমেজ (পিক্সেল বেসিস) ২। ভেক্টর ইমেজ (পিক্সেল ইন্ডিপেন্ডেন্ট) ৩। টাইপোগ্রাফি (২ রকমের হয়ে থাকে)। এছাড়াও মোশন গ্রাফিক্স প্রধানত ২ প্রকার যথাঃ ১। অ্যানিমেশন গ্রাফিক্স ২। ভিডিও গ্রাফিক্স

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে কতদিন লাগবে

আসলে সত্যি কথা বলতে আপনার গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে কত দিন লাগবে সেটি একমাত্র আপনার পক্ষেই বলা সম্ভব। আপনি কোনো কলেজ বা ইন্সিটিউট থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপরে ব্যাচেলর ডিজাইন কোর্স করে থাকেন তাহলে এই কাজের জন্য ৩ বছর থেকে ৪ বছর পর্যন্ত সময় লাগবে। তবে হ্যাঁ ব্যাচেলর কোর্স করা আপনার জন্য অনেক বেশি উত্তম হবে। তাহলে এই কোর্স করার শেষে তারা আপনাকে একটি ডিজাইন সার্টিফিকেট প্রদান করবে।

আর এই সার্টিফিকেট পরবর্তীতে বিভিন্ন কোম্পানিতে চাকুরি করার সময় আপনার জন্য বেশ কাজে লাগবে। আপনি চাইলে ব্যাচেলর ডিজাইন কোর্স করার পরে ডিজাইনের উপরে মাস্টার ডিগ্রী করে নিতে পারেন। এটি করার কারণে তারা আপনাকে প্রফেশনাল বানিয়ে দিবে। এই উচ্চতর কোর্স করার জন্য আপনার আবার সময় লাগবে ২ বছর।

এছাড়াও যদি আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর ডিপ্লোমা কোর্স করার কথা ভাবেন তাহলে তার জন্য সময় লাগবে ৬ মাস থেকে ৯ মাস। এছাড়াও আপনি ঘরে বসে ব্লগ ওয়েবসাইট, ইউটিউব এবং বিভিন্ন ইন্সিটিউট কিংবা আইটি প্রতিষ্ঠান থেকে শিখতে পারবেন। গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার স্থিতিকাল সম্পূর্ণ নির্ভর করবে মূলত আপনার উপরেই। গ্রাফিক্স ডিজাইনের প্রতি আপনার যদি আগ্রহ থাকে, তাহলে হয়তো আপনি ১ মাসের মধ্যেই গ্রাফিক্স ডিজাইনে অনেক দূর শিখে ফেলতে পারবেন। 

কিন্তু আপনি যদি শুধুমাত্র অর্থ উপার্জনের জন্য গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে থাকেন, আপনার যদি কাজের প্রতি কোনো রকম আগ্রহ না থাকে এই ব্যাপারে, তাহলে হয়তো আপনার গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে অনেকটা সময়ের প্রয়োজন পড়বে। আশা করি আপনি বুঝতে পারছেন গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে কতদিন লাগবে কিংবা গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে কত দিন লাগে।

আরো পড়ুনঃ ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব

গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব

গ্রাফিক্স ডিজাইন আপনি বিভিন্ন উপায়ে শিখতে পারবেন। যেমনঃ ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারবেন এবং অফলাইনে বিভিন্ন আইটি প্রতিষ্ঠান থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারবেন সহজেই। ঘরে বসে অনলাইনে গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার জন্য দুইটি উপায় আছে। সেগুলো হলোঃ ইউটিউবে গ্রাফিক্স ডিজাইন ভিডিও দেখে শিখা এবং বিভিন্ন গ্রাফিক্স ডিজাইন সম্পর্কিত টিউটোরিয়াল ওয়েবসাইট থেকে আর্টিকেল পড়ে। যেমনঃ Udemy এর মাধ্যমে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারবেন।

ক্যারিয়ার হিসেবে গ্রাফিক্স ডিজাইন নির্ধারণ করার পরে প্রথম যে জিনিসটি সর্ম্পকে মনে প্রশ্ন আসে সেটি হলো গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব। প্রধানত ২টি উপায় আছে গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার জন্য। প্রথমত, আপনি চাইলে গুগল থেকে বিভিন্ন রিসোর্স সংগ্রহ করে সেগুলো পড়ে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারেন। এরপরেই চলে আসে ইউটিউব। 

ইউটিউবে বিভিন্ন টিউটোরিয়াল ভিডিও পেয়ে যাবেন গ্রাফিক্স ডিজাইন সম্পর্কিত। এগুলো মধ্যে যেকোনো একটি ইউটিউব চ্যানেল অনুসরণ করলেই আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারবেন। এছাড়াও বিভিন্ন ইনস্টিটিউট বা আইটি প্রতিষ্ঠান এবং ওয়েবসাইট রয়েছে যারা অনলাইন ভিত্তিক এবং অফলাইন বিভিন্ন কোর্স করিয়ে থাকে। ঐসকল কোর্স গুলো করেও শিখতে পারেন গ্রাফিক্স ডিজাইন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স

যদি আপনি একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে চান সেক্ষেত্রে আপনাকে গ্রাফিক্স ডিজাইন সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান লাভ করতে হবে। গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে আপনাকে আগে একটি গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর কোর্স করতে হবে। বর্তমানে অনেক ভালো ভালো ইনস্টিটিউট বা আইটি প্রতিষ্ঠান হয়েছে যেগুলো গ্রাফিক্স ডিজাইন সহ বিভিন্ন অনলাইন কোর্স করিয়ে থাকেন। অর্থাৎ গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে হলে আপনাকে অবশ্যই কোন ভালো প্রতিষ্ঠান থেকে কোর্স করতে হবে।

আপনি যদি কোনো টাকা-পয়সা খরচ না করে একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার হবেন সেক্ষেত্রেও আপনার দ্বারা সম্ভব হবে গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখা। যদিও সময় একটু বেশি লাগবে। আপনি চাইলে গুগোল ইউটিউব থেকে বিভিন্ন গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর দেখে দেখে কাজ শিখতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনাকে আগে জানতে হবে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে হলে কি কি লাগে গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর কোন কোন কাজগুলো সেই ভালো। তারপর আপনি step-by-step গুগোল ইউটিউব সার্চ করে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে নিতে পারেন। 

অবশ্য আমরা বলব আপনি যদি একেবারে নতুন হয়ে থাকেন গ্রাফিক্স ডিজাইন কি এবং কিভাবে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখব সে বিষয়গুলো সম্পর্কে না জানেন তাহলে আপনি কোন একটি ইনস্টিটিউট থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর একটি কোর্স করে নেওয়া ভালো হবে। কারণ তারা আপনাকে স্টেপ বাই স্টেপ ভালোভাবে শিখিয়ে দেবে এবং যে যে সফটওয়্যারগুলো প্রয়োজন সেগুলো তার আপনাকে দিয়ে দেবে। 

তাই আমাদের মতে আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইন কি এবং গ্রাফিক্স ডিজাইন সম্পর্কে একেবারে নতুন জেনে থাকেন কিন্তু আপনি চাচ্ছেন একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার হবেন এবং আপনার পেশা হিসেবে বেছে নেবেন সে ক্ষেত্রে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর টাকা দিয়ে একটি কোর্স করে নেবেন।

আরো পড়ুনঃ অনলাইনে ইনকাম করার উপায় ২০২২

Creative IT Institute থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স করুন

বাংলাদেশের জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হচ্ছে ক্রিয়েটিভ আইটি ইন্সিটিউট। আন্তর্জাতিক মানের প্রকল্প গুলোর জন্যে ক্রিয়েটিভ আইটি ইন্সিটিউট তাদের ফ্রিল্যান্সারদের সফল ট্রেনিং দিয়ে থাকে। অল্পদামে তাদের ক্রিয়েটিভ আইটি ইন্সিটিউট থেকে ফ্রিল্যান্সিংয়ের অনেকগুলো ভালো ভালো কোর্স করা সম্ভব। 

কোর্স গুলো হলো- গ্রাফিক্স ডিজাইন, মোশন গ্রাফিক্স, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, 3D অ্যানিমেশন, ওয়েব ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং ইত্যাদি। আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে এক্সপার্ট হতে চান এবং প্রচুর পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে ক্রিয়েটিভ আইটি ইন্সিটিউট থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্সটি করতে পারেন। ক্রিয়েটিভ আইটিতে আপনি অনলাইন এবং অফলাইন দুটি শিফটে কোর্স করতে পারবেন। 

ই-শিখন ডটকম থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখুন

বাংলাদেশের মধ্যে আরেকটি জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হলো ই-শিখন ডটকম। ই-শিখন থেকে আপনি শুধুমাত্র অনলাইনের মাধ্যমে কোর্স করতে পারবেন। গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ শেখানোর জন্য ব্যবহৃত তারা কিছু সফটওয়্যার ব্যবহার- Adobe Photoshop, Adobe Illustrator করে। তাদের এই কোর্সটি কম্পিউটার সম্পর্কে বেসিক জানা থাকলে যেকেউ গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্সে অংশগ্রহন করতে পারবে। এছাড়াও এখান থেকে আরো বিভিন্ন বিষয়ের উপরে কোর্স পাওয়া যায়।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্সটি কাদের জন্যঃ ১। যারা গ্রাফিক্স ডিজাইন হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে চান ২। অনলাইন উদ্যোক্তা বা আইটি স্পেশালিস্ট হতে চান ৩। ডিজাইন, আর্ট, ওয়েব গ্রাফিক্স, ইউটিউবার কিংবা ফটোগ্রাফার ৪। যারা পড়াশুনার পাশাপাশি পার্টটাইম কিছু করে পড়াশুনা চালিয়ে নিতে চান।

ই-শিখন গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্সে কি কি শেখানো হবে? ১। বিজনেস কার্ড ডিজাইন ২। আইডি কার্ড ডিজাইন ৩। ব্যানার ডিজাইন ৪। লোগো ডিজাইন ৫। একজন প্রোফেশনাল ডিজাইনার হওয়া ৬। ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজেকে তৈরী করা ৭। ফ্রিল্যান্সিং মার্কসেট প্লেসে কাজ করার পূর্ণাঙ্গ গাইডলাইন।

ই-শিখন থেকে ডিজিটাল মার্কেটিং কোর্স শুরুর পূর্বে যা প্রয়োজনঃ ১। Graphic Design কোর্সটি শুরু করার পূর্বে অন্য কোন বিষয়ের উপর ধারনা থাকার প্রয়োজন নেই, তবে অবশ্যই কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট পরিচালনায় কিছুটা দক্ষ হতে হবে ২। ইন্টারনেট কানেকশসহ একটি কম্পিউটার ৩। একটি হেডফোন (ল্যাপটপ হলে হেডফোন আবশ্যক নয়। ই-শিখন ডটকম থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্সের বর্তমান বাজার মূল্য ৩৯৯০ টাকা। যদি আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে চান তাহলে শেখার ক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন এই জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং প্লাটফর্ম ই-শিখন ডটকম সাইটটিকে।

আরো পড়ুনঃ বিকাশের মালিকানা পরিবর্তন

ইউটিউব থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখুন

ইউটিউব থেকে বিভিন্ন ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখে আপনি অনেক সহজেই গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারবেন। বর্তমানে অনেক ইউটিউবার রয়েছে যারা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে গ্রাফিক্স ডিজাইনের ভিডিও টিউটোরিয়াল শেয়ার করে যাচ্ছে। সেই ভিডিও গুলো দেখে আপনি নিজের স্কিল, দক্ষতা, নলেজ তৈরি করে নিতে পারবেন। এছাড়াও আরো অনেক পেইড কোর্স আছে যাদের কাছ থেকে আপনি ভিডিও কিনে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারবেন।

Udemy কোর্স এর মাধ্যমে শিখুন

udemy হচ্ছে একটি অনলাইন লার্নিং এবং টিচিং ওয়েবসাইট বা মার্কেটপ্লেস। এই ওয়েবসাইটে আপনি সকল বিষয়ের উপরে বিভিন্ন শিক্ষকদের ভিডিও টিউটোরিয়ালের মাধ্যমে যেকোনো বিষয় সম্পর্কে শিখতে পারবেন। এই ওয়েবসাইটে আপনি ১০০০০০ এর বেশি অনলাইন ভিডিও কোর্স পাবেন। আপনি এখানে গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্সটিও পেয়ে যাবেন। কিন্ত হ্যাঁ মনে রাখা ভালো এই ওয়েবসাইটের সকল কোর্স ভিডিওগুলো সম্পূর্ণ ইংলিশ ভাষায় তৈরি করা। এই কোর্সগুলোর মূল্য ৪০০ টাকা থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে নেয়া হয়। আপনি এখান থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইনের কোর্স কিনে শিখতে পারবেন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার উপায়

বর্তমানে আমরা অনেকেই চাই ঘরে বসে কাজ করে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে। আর তাই আমরা সকলেই কিন্তু চাইলে ঘরে বসে থেকে নিজেদের সময় গুলোকে অযথা নষ্ট না করে মূল্যবান সময়কে কাজে লাগিয়ে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে ফেলতে পারি। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের একটি অন্যতম ভালোমানের গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স হিসেবে আপনি চাইলে এগুলো দেখতে পারেন। গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে এখানে ক্লিক করুন। অনুগ্রহ করে এই গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্সটি কারো কাছে বিক্রি করবেন না।

এখানে আপনি একই সঙ্গে গ্রাফিক্স ডিজাইনের বেসিক থেকে অ্যাডভান্সড পর্যন্ত সবগুলো বিষয় সর্ম্পকে খুঁটিনাটি জানতে পারবেন। তাছাড়া গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে কিভাবে আপনি অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করবেন, সে ব্যাপারেও আছে একটি পূর্ণাঙ্গ কোর্স। এছাড়াও বর্তমানে টি-শার্ট ডিজাইনের কাজ করেও অনেকেই বেশ ভালো পরিমাণে ইনকাম করছে। যদি আপনিও সে ধরনের কোনো কাজ করে টাকা ইনকাম করতে চান, তবে এই গ্রাফিক্স ডিজাইনের কোর্সগুলো আপনার জন্য অনেক উপকারী হতে পারে। গ্রাফিক্স ডিজাইন কাজ শিখুন এখানে ক্লিক করে

ওয়েবসাইটের মাধ্যমে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখুন

ইন্টারনেটে এমন অনেক ওয়েবসাইট আছে যেখানে আপনি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে তাদের আর্টিকেল পড়ে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে নিতে পারবেন। সেজন্য আপনি গুগলে গিয়ে সার্চ করুন গ্রাফিক্স ডিজাইন টিউটোরিয়াল, আপনি দেখতে পারবেন অনেকগুলো ওয়েবসাইট বা গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার বই পেয়ে যাবেন। তাছাড়া আমাদের এই টেকনিক্যাল কেয়ার বিডি ওয়েবসাইটের পক্ষ্য থেকে সম্পূর্ণ ফ্রিতে গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স শেয়ার করা হবে এখানে। গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স শিখুন এখানে ক্লিক করে।

আরো পড়ুনঃ প্রপোজ করার রোমান্টিক কথা

গ্রাফিক্স ডিজাইন ক্যারিয়ারে চাকরির সুযোগ

গ্রাফিক্স ডিজাইন ডিগ্রী অর্জন করার পরে আপনি অনেক ধরনের চাকরি করার সুযোগ পাবেন। সেগুলো হচ্ছেঃ ১। লোগো ডিজাইনার হিসেবে ২। বিভিন্ন এডভার্টাইজমেন্ট কোম্পানিতে ৩। ওয়েব ডিজাইন হিসেবে ৪। ডিজাইন মার্কেটিং এজেন্সিতে ৫। নিউজ পেপার কোম্পানিতে ৬। অ্যাপলিকেশন এবং গেম ডেভেলপমেন্ট কোম্পানিতে ৭। মিডিয়া পাবলিশার কোম্পানিতে। এছাড়া আরও বিভিন্ন কোম্পানি আছে যেখানে আপনি একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে কাজ করতে পারবেন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি কি কাজে ব্যবহার করা হয়

বর্তমানে প্রায় সকল কাজেই গ্রাফিক্স ডিজাইন ব্যবহার করা হয়। সেগুলো আমি নিচে উল্লেখ করেছি। যেমনঃ ১। কোম্পানির ব্যান্ড পরিচয় বা লগো তৈরি করার কাজে ২। ব্যানার বিজ্ঞাপন তৈরি করা ৩। ভিজিটিং কার্ড এর ডিজাইন ৪। প্রিন্ট করা জিসিস যেমন বই, নিউজ পেপার, ম্যাগাজিন ৫। T-shirt জামা কাপড় ডিজাইন ৬। অ্যালবাম কভার তৈরি 

৭। পানির বোতল থেকে শুরু করে বিভিন্ন খাবারের প্রডাক্ট ডিজাইন করা ৮। ডিজিটাল বিজ্ঞাপন তৈরি করা ৯। অনলাইন টিভিতে ব্যবহার করা ডিজাইন। এছাড়াও আরো বিভিন্ন ধরনের কাজে গ্রাফিক্স ডিজাইন ব্যবহার করা হয়। এক কথায় বলতে গেলে প্রায় সকল কাজেই গ্রাফিক্স ডিজাইন ব্যবহার করা হয়।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে উদ্যোক্তা হওয়া যায়

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে কত টাকা আয় করা যায়

আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে চাকরির কথা ভাবেন তাহলে কাজ শিখে বেশ ভালো পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে চাকরির মাধ্যমে আপনি বাংলাদেশের ভালো ভালো কোম্পানিতে একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে ৩০,০০০ টাকা থেকে ৫০,০০০ টাকার বেশি বেতন পেতে পারেন। আপনার স্কিল, দক্ষতা যতবেশি হবে ততবেশি আপনার ইনকাম বাড়তে থাকবে। 

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে আপনি ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন। যদি আপনি ফ্রিল্যান্সার মার্কেটপ্লেস গুলোতে গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর ফুল টাইম অথবা পার্ট টাইম জব করেন। তাহলে এখান থেকে প্রচুর পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এখানে কাজের কোনো ধরনের চাপ নেই। আপনি ক্লায়েন্ট/বায়ারের কাজ করে দিবেন বিনিময়ে অর্থ পাবেন। তবে হ্যাঁ, এখানে কতটাকা ইনকাম করবেন সেটা নির্ভর করবে আপনার কাজের উপরে। মানে আপনি কত টাকার কাজ করলেন তার উপরে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কেন শিখবো

গ্রাফিক্স ডিজাইন হচ্ছে একটি ক্রমসম্প্রসারণশীল ইন্ডাস্ট্রি। যদি আপনি একটি লক্ষ করেন তাহলে দেখতে পারবেন যে, পৃথিবীতে এমন কোনো বিজনেস নেই যার গ্রাফিক্স ডিজাইন লাগেনা। তাহলে আপনি বুঝতেই পারলেন ভবিষ্যৎতে গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা কতবেশি!

গ্রাফিক্স ডিজাইন ক্যারিয়ার হিসেবে কেন এতো বেশি জনপ্রিয়?

ক্যারিয়ার হিসাবে গ্রাফিক্স ডিজাইন কেন এতবেশি জনপ্রিয় সেটা অনেক মানুষেরই কৌতূহল। মূলত সত্যি কথা বলতে গেলে গ্রাফিক্স ডিজাইন জনপ্রিয় হওয়ার অসংখ্য কারণ আছে। কারণ যেকেউই চাইবে এমন একটি পেশা নির্ধারণ করার জন্যে যার ভবিষ্যৎ অনেকবেশি উজ্জ্বল। চলুন তাহলে জেনে নেই গ্রাফিক্স ডিজাইন ক্যারিয়ার হিসেবে কেন এতবেশি জনপ্রিয়ঃ

১। উচ্চতর চাহিদাঃ বর্তমান বিশ্বে ভিজুয়াল কনটেন্ট সবচেয়ে বেশি পপুলার হচ্ছে। যার সাথে সাথে গ্রাফিক্স ডিজাইনেরও অনেক বেশি চাহিদাপূর্ণ হয়ে উঠছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে থেকে শুরু করে ওয়েবসাইটের কাজের জন্য বর্তমানে গ্রাফিক্স ডিজাইন অপরিহার্য একটি বিষয় হয়ে উঠেছে।

গ্রাফিক্স ডিজাইনের প্রয়োজনীয়তা বা চাহিদা প্রতিনিয় বৃদ্ধি হতেই চলছে, কেননা এই ইন্ডাস্ট্রিতে পেশাগত মানুষ হাতে গোনা কয়েকজন। যদি আপনি নিজেকে গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজে পারদর্শী করে তুলতে পারেন তবে আপনি বিশ্বের অনেক বড় বড় কোম্পানি গুলোতে চাকরি করার সুযোগ পেতে পারেন। যে কোম্পানিগুলোতে বেতনের পরিমাণ তুলনামূলক ভাবে অনেক বেশি হয়ে থাকে।

২। উচ্চ শিক্ষার প্রয়োজন নেইঃ গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার জন্যে আপনাকে কোন ধরনের উচ্চতর ডিগ্রি ধারী হওয়ার প্রয়োজন নেই। ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে অনেক মানুষজন রয়েছে যারা স্কুলের গন্ডি পর্যন্ত ঠিকমতো করে পার করতে পারেননি। ছাত্র থেকে শুরু করে গৃহিণীরা পর্যন্ত এখন গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজের সঙ্গে সংযুক্ত।

এই কাজের জন্য তেমন কোন ধরনের রিকোয়ারমেন্ট থাকেনা এডুকেশনাল ব্যাকগ্রাউন্ড নিয়ে। তবে হ্যাঁ জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে কাজ করার জন্য আপনার ইংলিশে দক্ষতা অর্জন করতে হবে। আর যদি ইংলিশে দক্ষ না হোন তবে লোকাল মার্কেটপ্লেসে কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন।

তাই বুঝতেই পারলেন আপনি খুববেশি একটা শিক্ষিত না হয়েও গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে ভালো একটি ক্যারিয়ার গড়তে পারেন। এখানে আপনার কাছে কেউ শুনতে চাইবে না যে আপনি কতদূর পর্যন্ত পড়াশুনা করেছেন। অর্থাৎ মার্কেটপ্লেসে আপনার ক্লায়েন্ট বা বায়াররা শুধুমাত্র দেখতে চাইবে আপনার কাজের প্রতি দক্ষতা কেমন।

আরো পড়ুনঃ ক্যান্সার প্রতিরোধ করে যেসব খাবার

৩। অধিক আয়ের সুযোগঃ যেহেতু বর্তমান বিশ্ব ভিজুয়্যাল কন্টেন্টের দিকে ঝুকে পড়ছে, তাই আপনি চাইলেই এখনই গ্রাফিক্স ডিজাইন উপরে কাজ শিখে অধিক পরিমাণে ইনকাম নিশ্চিত করতে পারেন। আপনি হয়তোবা জানেনই না যে অনেক কোম্পানি রয়েছে যারা শুধুমাত্র লোগো ডিজাইন করার জন্য লাখ লাখা টাকা খরচ করে।

যদি আপনি ভালভাবে গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজ শিখতে পারেন তবে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইনের বিভিন্ন সেক্টর গুলোতে কাজ করতে পারবেন। এছাড়াও অনেক ই-কমার্স কোম্পানি রয়েছে যারা শুধুমাত্র তাদের প্রোডাক্ট গুলোকে ভালো ভাবে তাদের ওয়েবসাইটে ফুটিয়ে তোলার জন্য গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের হায়ার করে থাকে। আর এই ভাবে কাজ করে প্রতিমাসে অনেক টাকা ইনকাম করা যায়।

৪। ঘরে বসে কাজের সুযোগঃ গ্রাফিক্স ডিজাইন সেক্টরে কাজ করার সবথেকে বড় সুবিধা হলো, আপনি যেকোনো জায়গাতে বসে এই কাজটি করতে পারবেন। গ্রাফিক্স ডিজাইন করার জন্য আপনাকে কোনো অফিসে বসে কাজ করার প্রয়োজন হবেনা। আপনি চাইলেই ঘরে বসে থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ করতে পারেন।

ঘরে বসে কাজ করার জন্য শুধুমাত্র একটি ল্যাপটপ এবং প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার ইনস্টল করেই আপনি কাজ শুরু করতে পারবেন যেকোনো জায়াগায় বসে। এই পেশাটা সম্পূর্ণরূপে কাজের পারদর্শিতার উপর নির্ভর করে। আপনি যদি পারদর্শী হোন, তাহলেই আপনি এই সেক্টরে কাজ করতে পারবেন।

৫। ভবিষ্যৎ সম্ভাবনাঃ আরো বড় একটি আশার বাণী হলো গ্রাফিক্স ডিজাইন এই খাতের ভবিষ্যত সম্ভাবনা অনেক বেশি পরিমাণে। এখন এমন একটি সময় আসছে যেখানে আমরা মার্কেটিং বলতে শুধুমাত্র ডিজিটাল মার্কেটিংকেই বুঝে থাকি। একটা সময় গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাত্রা এবং আওতা আরো বৃদ্ধি পাবে। নতুন নতুন ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের মেথড বাহির হবে যেগুলো মুলত গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপরে নির্ভরশীল হবে। তাই যারা এই গ্রাফিক্স ডিজাইন সেক্টরে নিজেদের ক্যারিয়ারকে দাঁড় করানোর কথা ভাবছেন, তারা নিঃসন্দেহে অনেক সুদূরপ্রসারী একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে ইউটিউব ভিডিও ভাইরাল করা যায়

৬। ফ্রিলান্সিং ও আউটসোর্সিংঃ ফ্রিলান্সিং এবং আউটসোর্সিং অনেক জনপ্রিয় একটি পেশা বর্তমান সময়ে। হাজার হাজার বেকার যুবকের কর্মসংস্থানের সুযোগ হয়েছে এই গ্রাফিক্স ডিজাইন সেক্টরের মাধ্যমে। আপনি যদি একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার হোন তাহলে চাইলেই আপনি ঘরে বসে থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলো থেকে।

এই ফ্রিলান্সিংয়ের খুবই বড় একটি অংশ জুড়ে আছে গ্রাফিক্স ডিজাইন। ছোট একটি লোগো থেকে শুরু করে টেলিভিশন কমার্শিয়াল তৈরি করা সহ ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের সকল মার্কেটিং সামগ্রী তৈরির ক্ষেত্রেই রয়েছে গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা। সেজন্য মার্কেটপ্লেস গুলোতে এই গ্রাফিক্স ডিজাইন রিলেটেড কাজ অনেক বেশি পরিমাণে পাওয়া যায়। উপরোক্ত কারণগুলো ছাড়াও আরো অনেক কারণ রয়েছে যেগুলো গ্রাফিক্স ডিজাইনকে ক্যারিয়ার হিসেবে নেয়ার জন্য অন্যতম ভুমিকা পালন করে। 

গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার

এখন বলি গ্রাফিক্স ডিজাইন কার করার জন্য কোন সফটওয়্যার প্রয়োজন? প্রথমে ১। এ্যালিমেন্টস এবং ২। ইকুইপমেন্ট। গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার জন্য এবং গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ করার জন্য যে বিশেষ সফটওয়্যার গুলো প্রয়োজন হয় তা নিম্নে দেওয়া হলোঃ ১। Adobe Photoshop ২। Adobe Illustrator ৩। Adobe In design ৪। CorelDraw Graphics Suite X5 ৫। Adobe Flash ৬। Corel Paint Shop Photo Pro X3 আরো ইত্যাদি গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার ব্যবহার করে গ্রাফিক্স ডিজাইনের আকর্ষনীয় কাজগুলো করা সম্ভব।

শেষ কথা - গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব

তাহলে প্রিয় পাঠক আজকের এই আর্টিকেলে আমরা জানতে পারলাম গ্রাফিক্স ডিজাইন কি বা গ্রাফিক্স ডিজাইন কাকে বলে এবং গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব। আশাকরি সকল কিছু অনেক সুন্দর ভাবে বুঝতে পারছেন। এখন সময় হচ্ছে কাজে লেগে পড়ার। উপরোক্ত যেকোনো একটা পন্থা নির্বাচন করে নিয়ে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে ফেলুন এবং জব মার্কেটে ঢুকে পড়ুন।

এখানে আলোচ্য গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব বিষয় থেকে চাকরি এবং এটার চাহিদা কেমন আছে সেটা সম্পর্কে জানতে পারলেন। গ্রাফিক্স ডিজাইন সম্পর্কে আর কোনো বিষয়ে জানতে চাইলে নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিন এবং আমার গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব লেখাটি কেমন লেগেছে অবশ্যই জানাবেন এবং পোস্টটি বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?