Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2022/03/meyeder-jonno-job.html

মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

মেয়েদের জন্য অনলাইন জব – মেয়েদের ঘরে বসে আয় করার উপায় - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব 2022 — আপনার যদি কিছু অতিরিক্ত আয়ের প্রয়োজন হয় এবং প্যাসিভ ইনকাম করতে চান তাহলে সবচেয়ে ভালো উপায় হল ঘরে বসে অনলাইন জব করা। অনলাইনে কাজ শুরু করার জন্য কোনো বিনিয়োগ করার প্রয়োজন নেই এবং আপনি আপনার বাড়ি, অফিস বা যেকোনো সুবিধাজনক জায়গা থেকে কাজ করতে পারবেন। আর এই ২০২২ সালে মেয়েদের জন্য অনলাইন জব একটি ভালো অপশন হতে পারে, যে মহিলারা বাড়ির বাইরে যেতে পারেন না বা বাড়ি থেকে কাজ করতে চান তাদের জন্য।

মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

পেজ সূচীপত্রঃ

বর্তমান সময়ে ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েদের জন্য অনলাইন জব আছে ব্যাপক। ছেলেদের পাশাপাশি এখন মেয়েদের ঘরে বসে অনলাইনে ইনকাম করার প্রচলন দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। মেয়েদের জন্য অনলাইন থেকে আয় করার হাজার মাধ্যম ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে। আজকে এই পোস্টে আমি ঘরে বসে আয় করার মেয়েদের জন্য অনলাইন জব সম্পর্কে আলোচনা করেছি।

ঘরে বসে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার প্রচলনটা দিন দিন যেমনটা বৃদ্ধি পাচ্ছে তুলনামূলক ভাবে ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েরাও বর্তমানে এই কাজে পিছিয়ে নেই। আমাদের দেশে অনেক পরিবারে শিক্ষিত গৃহিণী আছেন যারা শুধুমাত্র ঘরের কাজ করে বাকি সময়টুকু টিভি সিরিয়াল কিংবা অন্য কিছু করে সময় পার দেন। সংসারের কাজ করার পাশাপাশি কিছু সময় অনলাইনকে কাজে লাগিয়ে কাজ করে যদি ঘরে বসে কিছু বাড়তি টাকা ইনকাম করা যায় তবে কেমন হয়?

আজকের এই পোস্টে আমি এমনই ১০টি অনলাইনের মাধ্যমে ইনকাম করার মাধ্যম উপায় নিয়ে এসেছি যে মাধ্যমগুলো অনুসরণ করে একজন মেয়ে ঘরে বসে খুবই সহজে আয় করতে পারবে। মেয়েদের জন্য অনলাইন জব গুলো অন্যান্য সকল কাজের তুলনায় অনেকটা সহজ। তাহলে বন্ধুরা চলুন দেখে নিই মেয়েদের জন্য অনলাইন জব কোন গুলো। যদি আপনি ঘরে বসে টাকা ইনকাম করতে চান তবে অবশ্যই আর্টিকেলটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ে নিবেন।

আপনি যদি মেয়েদের জন্য অনলাইন জব খুঁজে থাকেন, তাহলে আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। আজকের এই পোস্টের মাধ্যমে আমি আপনাদের মাঝে তুলে ধরবো কিভাবে আপনারা অনলাইন থেকে আয় করবেন বা মেয়েদের জন্য অনলাইন জব কোনগুলো আর খুব সহজেই ঘরে বসে মেয়েরা সেই অনলাইন জব করতে পারবেন।

আপনাদের মাঝে যে সকল মেয়েরা এই পোস্টটি এই মুহূর্তে পড়ছেন বা মেয়েদের জন্য অনলাইন জব খুঁজছেন তাদের জন্যে আমি আজকের এই পোস্টটিতে শেয়ার করেছি মেয়েরা কিভাবে অনলাইন জব গুলো করতে পারবেন? তাহলে চলুন আর দেরি না করে সম্পূর্ণ প্রসেসটি জেনে নেওয়া যাক কিভাবে মেয়েরা অনলাইন জব খুঁজবেন? মেয়েদের জন্য অনলাইন জব আছে কি-না এবং আপনারা কিভাবে অনলাইন থেকে আয় করবেন সেই সম্পর্কে এখানে সম্পূর্ণ তথ্য দিয়েছি।

আরো পড়ুনঃ নেটওয়ার্ক মার্কেটিং - নেটওয়ার্ক মার্কেটিং কি

মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

আমি পূর্বেই আলোচনা করেছি বর্তমান সময়ে অনলাইনে ইনকাম করার প্রচুর মাধ্যম আছে। মেয়েদের জন্য অনলাইন জব যেগুলো তুলনামূলক ভাবে সহজ এবং মেয়েরা সাংসারিক কাজের পাশাপাশি খুব সহজে অনলাইনে কাজ করতে পারবে উক্ত মাধ্যমগুলো নিয়েই আমরা আজকের লেখায় বলার চেষ্টা করেছি। চলুন জেনে নেই মেয়েদের জন্য অনলাইন জব কি কিঃ

১। ব্লগিং - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

মেয়েদের জন্য অনলাইন জব এর যে সকল কাজ আছে তন্মধ্যে আমি প্রথমেই রাখতে চাই ব্লগিংকে। ব্লগিং হলো একটি মজার পেশা। ব্লগিং পেশায় আপনি দিনের যেকোনো সময়ে যেকোনো ভাবে কাজ করতে পারেন। অর্থাৎ আপনার যখন ইচ্ছে হবে তখন কাজ করবেন যখন ইচ্ছে হবেনা তখন কাজ করার কোনো প্রয়োজন নেই। এখানে আপনি আপনার নিজের ইচ্ছামতো যেকোনো সময় কাজ করতে পারবেন। আর এই ব্লগিং পেশায় রয়েছে প্রচুর সম্ভাবনা।

ব্লগিং হচ্ছে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার আমার সবচেয়ে প্রিয় উপায় এবং যখনই কেউ আমাকে অনলাইন কাজ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করে আমি শুধুমাত্র ব্লগিং করার পরামর্শ দিই। আপনি যদি ফুল টাইম বা পার্ট টাইম চাকরিতে কিছু বাড়তি আয় করতে চান বা উচ্চ বেতনের অনলাইন চাকরি খুঁজতে চান তাহলে ব্লগিং সবচেয়ে ভালো।

ব্লগিং শুরু করার আগে, আপনার একটি ভালো বিষয় নির্বাচন করা উচিত। ব্লগিং হল 2022 সালে মেয়েদের জন্য অনলাইন জব এর সেরা কাজ। এমন অনেক বিষয় রয়েছে যার উপর আমি মনে করি আপনার স্বাস্থ্য টিপস, সৌন্দর্য, ফ্যাশন, ক্যারিয়ার গাইড, ব্যবসায়িক ধারণা, সামাজিক নিয়ম, সম্পর্কের সমস্যা ইত্যাদি লেখা উচিত। একটি ব্যক্তিগত ব্লগ একটি ভালো ধারণা হতে পারে।

বর্তমান সময়ে আমাদের দেশে ছেলেদের পাশাপাশি অনেক মেয়েরা ব্লগিং করে ঘরে বসে প্রতিমাসে মিনিমাম ১৫ হাজার টাকা থেকে শুরু করে কয়েক লাখ টাকা পর্যন্ত আয় করছেন। জেনে রাখা ভালো, ব্লগিং করে আনলিমিটেড টাকা ইনকাম করা যায় এটার কোনো সীমাবদ্ধতা নেই আপনি যতবেশি কাজ করবেন ততবেশি ইনকাম করতে পারবেন।

অনলাইনে টাকা ইনকাম করার যে সমস্ত কাজ আছে তন্মধ্যে সবচেয়ে সহজ এবং স্বাধীন কাজ হচ্ছে ব্লগিং। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো ব্লগিং এ আপনি একবার একটি কাজ করলে উক্ত কাজের বেনিফিট যতদিন আপনার ওয়েবসাইট আছে ততদিন পেতে থাকবেন। মেয়েদের জন্য অনলাইন জব হিসেবে ব্লগিং প্ল্যাটফর্ম একটি অসাধারণ মাধ্যম হিসেবে কাজ করতে পারে। তাই আপনি চাইলেই ঘরে বসেই অনলাইনে ইনকাম করতে পারেন এই ব্লগিং প্ল্যাটফর্মকে ব্যবহার করে।

আরো পড়ুনঃ ফ্রিল্যান্সিং কি - ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো

২। গ্রাফিক্স ডিজাইন - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

ফ্রিল্যান্সিং করে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার কথা মাথায় আসলে মনে হয় গ্রাফিক্স ডিজাইনের কথা। অর্থাৎ গ্রাফিক্স ডিজাইন ব্যতীত ফ্রীলান্সিং যেন অচল। তাহলে বুঝতেই পারলেন বর্তমান সময়ে মার্কেটপ্লেস গুলোতে গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা কেমন। গ্রাফিক্স ডিজাইন হলোঃ কোনো একটি বিষয় কিংবা প্রডাক্টকে ট্যাক্স এবং ইমেজের কম্বিনেশনে একটি সুন্দর ডিজাইন দিয়ে ফুটিয়ে তোলার নামই হচ্ছে গ্রাফিক্স ডিজাইন।

আপনাদের মধ্যে যেসকল মেয়েরা একটু আঁকাআঁকি ভালো পছন্দ করেন কিংবা ভালোবাসেন সে সমস্ত মেয়েদের জন্য অনলাইন জব হিসেবে আছে গ্রাফিক্স ডিজাইন সেক্টরটি। আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইনের আপনার স্কিল বানিয়ে গ্রাফিক্স সম্পর্কিত বিভিন্ন কাজ করে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। মেয়েদের জন্য অনলাইন জব হিসাবে এই গ্রাফিক্স ডিজাইন সেক্টরে আছে অকল্পনীয় সম্ভাবনা।

গ্রাফিক্স ডিজাইন মূলত কোনো পণ্য বা সার্ভিসের বিজ্ঞাপন এবং প্রচার প্রচারণার জন্যে ব্যবহার করা হয়। বর্তমান সময়ে অনলাইন মার্কেটপ্লেস গুলোতে গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা অনেক। একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার প্রতিমাসে অনলাইন মার্কেটপ্লেস গুলো থেকে ৫০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে কয়েক লাখ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করে থাকেন।

তবে হ্যাঁ আপনি যদি প্রতিমাসে ঘরে বসে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করতে চান তবে সেজন্য আপনাকে অবশ্যই একজন দক্ষ গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে হবে। অন্যথায় বর্তমান সময়ে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে টিকে থাকতে পারবেন না। একজন মোটামুটি প্রফেশনাল মানের গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে ৩ মাস থেকে শুরু করে ১ বছর পর্যন্ত সময় লাগতে পারে। তাই মেয়েদের জন্য অনলাইন জব হিসেবে গ্রাফিক্স ডিজাইন হতে পারে আপনার জন্য সেরা একটি মাধ্যম।

আরো পড়ুনঃ অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

৩। ডিজিটাল মার্কেটিং - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে সেখান থেকে টাকা ইনকাম করার মাধ্যমকেই ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়। অর্থাৎ ডিজিটাল মার্কেটিং হচ্ছে একটি প্রোডাক্ট বা কোনো একটি সার্ভিসকে অনলাইনের মাধ্যমে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, বিজ্ঞাপন এবং ওয়েবসাইট ব্যবহার করে প্রচার-প্রচারণা করা। মেয়েদের জন্য অনলাইনে জব ঘরে বসে করার জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং হচ্ছে একটি অন্যতম মাধ্যম।

আপনি যদি অনলাইন থেকে আয় কিংবা মেয়েদের জন্য অনলাইন জব সম্পর্কে খুঁজে থাকেন তাহলে হয়তোবা বুঝতে পারবেন ডিজিটাল মার্কেটিং এর কি পরিমাণ গুরুত্ব। কারণ এখন আপনি যেখানে জব সার্চ করছেন সেটি হচ্ছে একটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম। আর অনেকেই এই প্লাটফর্ম গুলোকে ব্যবহার করে তাদের প্রোডাক্ট বা সার্ভিস মার্কেটিং করার মাধ্যমে সেল করে এখান থেকে টাকা ইনকাম করছেন। 

বর্তমান সময়ে কোনো প্রোডাক্ট প্রমোশন করার জন্যে অন্যতম ও যুগোপযোগী মাধ্যম হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং। তাই মেয়েদের জন্য অনলাইন জব হিসেবে ডিজিটাল মার্কেটিং অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি প্ল্যাটফর্ম। আপনারা এই ডিজিটাল মার্কেটিং এর উপরে নিজেদের স্কিল ডেভেলপ করে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন অনেক সহজেই। 

৪। কনটেন্ট রাইটিং - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

যদি আপনি ভেবে থাকেন ঘরে বসে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে চাই অথবা কিভাবে অনলাইনে টাকা ইনকাম করা যায় কিংবা মেয়েদের জন্য অনলাইন জব খুঁজে থাকেন তাহলে আপনার জন্য সেরা একটি মাধ্যম হচ্ছে কনটেন্ট রাইটিং। আপনি যদি কনটেন্ট রাইটিং বা বিভিন্ন বিষয়ের উপরে লেখালেখি করতে ভালোবাসেন তাহলে আপনার জন্য কনটেন্ট রাইটিং হতে পারে অন্যতম অনলাইনে টাকা ইনকামের একটি উৎস। 

বর্তমান সময়ে ইংরেজি আর্টিকেলের পাশাপাশি বাংলা আর্টিকেলের প্রচুর চাহিদা আছে। যদি আপনি বিভিন্ন বিষয়ে রিসার্চ বা লেখালেখি করতে ভালোবাসেন তবে এই আর্টিকেল রাইটিং পেশাটি আপনার জন্য সেরা একটি অনলাইন পেশা হতে পারে।

নিজের ওয়েবসাইটের জন্যে লেখালেখি কররা পাশাপাশি আপনি চাইলে যেকোনো কোম্পানি কিংবা ব্র্যান্ডের জন্য বিভিন্ন টপিকের উপরে লিখতে পারেন। আর হ্যাঁ এই কনটেন্ট রাইটিং জবটি অফিসে না গিয়েও আপনি ঘরে বসে করতে পারবেন। কনটেন্ট রাইটার হিসেবে বর্তমানে অনেকেই আছেন যারা তাদের নিজেদের ওয়েবসাইটের জন্যে কিংবা নিউজ পোর্টালের জন্য কনটেন্ট রাইটার নিয়োগ দিতে চান। আর আপনি চাইলে এই কন্টেন্ট রাইটার হিসেবে কাজ করে অনলাইন থেকে আয় করতে পারেন খুব সহজেই।

তাই আপনারা যারা মেয়েদের জন্য অনলাইন জব খুঁজছেন অথবা কিভাবে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায় তা নিয়ে চিন্তা করছেন তারা কিন্ত কনটেন্ট রাইটার হিসেবে কোনো প্রতিষ্ঠান যোগদান করতে পারেন। এছাড়াও যদি আপনি নিজেকে একজন কনটেন্ট রাইটার হিসেবে উপযুক্ত মনে করেন, সেক্ষেত্রে আপনি এখন যে ওয়েবসাইটটিতে বর্তমানে এই মেয়েদের জন্য অনলাইন জব আর্টিকেলটি পড়ছেন চাইলে এখানে আপনি আপনার লেখা বিভিন্ন কন্টেন্ট পাবলিশ করতে পারেন একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকার বিনিময়ে কিংবা মাসিক সেলারির মাধ্যমে।

আপনার আর্টিকেলের গুণগত মান এবং কোয়ালিটির উপরে নির্ভর করে আপনি প্রতিটি আর্টিকেলের জন্য ৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০০ টাকা পর্যন্ত পেতে পারেন। ভালোমানের কোয়ালিটি সম্পন্ন একটি আর্টিকেল লিখতে মিনিমাম ৪ থেকে ৬ ঘণ্টা পর্যন্ত সময় লাগতে পারে।

আরো পড়ুনঃ আর্টিকেল লিখে আয় পেমেন্ট বিকাশ

৫। ওয়েব ডিজাইন - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

অনলাইন মার্কেটপ্লেস গুলোতে গ্রাফিক্স ডিজাইনের পাশাপাশি ওয়েব ডিজাইনের চাহিদাও অনেক। যদি আপনি একজন ওয়েব ডিজাইনার হয়ে থাকেন বা ওয়েব ডিজাইন করতে পারেন তবে আপনি অনেক সহজেই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন এটি সত্যি। বর্তমান সময়ে ছোটো থেকে বড় প্রতিটি ব্যবসা কিংবা প্রতিষ্ঠানের জন্যে একটি করে ওয়েবসাইটের দরকার আছে। 

আর বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভিন্নতা অনুযায়ী ওয়েবসাইটের ধরণ ভিন্ন ভিন্ন। আপনি সেই সমস্ত প্রতিষ্ঠানের জন্যে একটি ওয়েবসাইট ডিজাইন করে সেখান থেকে ঘরে বসে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন যা কি-না মেয়েদের জন্য অনলাইন জব হিসেবে একটি গুরুত্বপূর্ণ সেক্টর।

আপনি হ্যাঁ যদি আপনি একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার হয়ে থাকেন তবে প্রতিমাসে ৫০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে কয়েক লাখ টাকা পর্যন্ত চোখ বুঝে আয় করতে পারবেন। আবার বলছি আপনার দক্ষতা না থাকে তাহলে বর্তমান সময়ে মার্কেটপ্লেসে থেকে টাকা আয় করা সম্ভব না।

আরো পড়ুনঃ অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট

৬। এফিলিয়েট মার্কেটিং - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

মেয়েদের জন্য অনলাইন জব করার জন্য আরও একটি জনপ্রিয় ও সহজ মাধ্যম হচ্ছে এফিলিয়েট মার্কেটিং। এফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে যেকোনো একটি প্রোডাক্ট বা কোনো সার্ভিস, আপনি ফেসবুকে, মেসেঞ্জার অথবা কোনো ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রচার করে বিক্রি করে সেখান থেকে কিছু কমিশন নিতে পারবেন। 

যখন আপনি প্রচার করে কোনো প্রোডাক্ট বা সার্ভিস বিক্রি করবেন তখন সেই প্রডাক্ট বা সার্ভিস হোল্ডার আপনাকে পার্সেন্টেজ হারে টাকা পেমেন্ট করবে। মেয়েরা চাইলে ঘরে বসে ফেসবুক অথবা অন্য যেকোনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোর মাধ্যমে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

অর্থাৎ যদি আপনি ফেসবুকে প্রচার করে একটি প্রোডাক্ট ৫০০ টাকা বিক্রি করতে পারেন এবং প্রোডাক্টটির কমিশন যদি ১০% হয়, তবে আপনি ৫০০ টাকার ১০% অর্থাৎ ৫০ টাকা সঙ্গে সঙ্গে আপনার একাউন্ট পেয়ে যাবেন।

সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আপনি যত ইচ্ছা তত বিক্রি করতে পারবেন। এখানে আপনার নিজস্ব কোনো প্রোডাক্ট কিংবা সার্ভিসের প্রয়োজন হবেনা। এমনকি আপনি শুধুমাত্র প্রোডাক্টটি অর্ডার প্লেস করিয়ে দিবেন ডেলিভারি এবং অন্যান্য যাবতীয় খুঁটিনাটি যত কাজ আছে সেগুলো সেই প্রডাক্ট বা সার্ভিস হোল্ডার তারাই করে দিবে।

তাই যদি আপনি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে জেনে থাকেন বা জ্ঞান অর্জন করে থাকেন তাহলে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আর যদি এই সম্পর্কে কোনো ধারণা না থাকে তাহলে ইউটিউব থেকে অথবা বিভিন্ন আইটি সেন্টার থেকে শিখে নিতে পারেন। মেয়েদের জন্য অনলাইন জব এর মধ্যে সহজ ও সেরা হচ্ছে এফিলিয়েট মার্কেটিং।

৭। এসইও করে অনলাইন থেকে আয় - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

যদি আপনি অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে চান কিংবা মেয়েদের জন্য অনলাইন জব খুঁজে থাকেন। আর যদি আপনার এসইও (সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন) সম্পর্কে জানা থাকে, তবে আপনি এসইও এর কাজ করে অনলাইন থেকে অনেক সহজেই প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

আপনি একটি ওয়েবসাইটের এসইও (সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন) করে প্রচুর পরিমাণে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন শুধুমাত্র এই একটি সেক্টর থেকেই যা মেয়েদের জন্য অনলাইন জব হিসেবে অনেক গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। আর যদি এসইও সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকে তাহলে ইউটিউব অথবা বিভিন্ন আইটি সেন্টার থেকে কোর্স করে কাজ শিখতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ বাংলা আর্টিকেল লিখে আয় করার সাইট

৮। অনলাইন টিউশন - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

করোনাকালীন সময়ে অনলাইন টিউশন অনেক বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করছে। শিক্ষার্থীরা বর্তমান সময়ে আগের মতো আর স্কুলে গিয়ে ক্লাস করতে পারছে না। তারা পারছে না কোচিং থেকেও ক্লাস করতে। তাই এখন তাদের একমাত্র নির্ভরতা হচ্ছে অনলাইন ক্লাসে। 

উচ্চ মাধ্যমিক থেকে অনার্স পড়ুয়া অনেক কলেজ শিক্ষার্থী এটাকে বেছে নিয়েছে মোক্ষম সুযোগ হিসাবে। বিশেষ করে মেয়েরা চাইলে এই সময়টিতে অনলাইনে ক্লাস নিয়ে ভালো পরিমাণে টাকা আয় করতে পারেন। আর এটি খুবই কঠিন কিছুই নয়।

৯। অনলাইন বিজনেস - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

চাইলেই আপনি আপনার বিজনেসকে অনলাইনে দাঁড় করাতে পারেন। বর্তমান সময়ে এই ডিজিটাল যুগে এসে অনেকেই অনলাইনের উপর অনেক বেশি নির্ভরশীল হয়ে পড়েছেন। একটু ভালোভাবে খেয়াল করে দেখলেই বুঝতে পারবেন যে আমরা নিজেরাই কিন্ত অনলাইনের উপরে কতটা নির্ভরশীল। 

খাবার কেনাকাটা থেকে শুরু করে নিত্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন জিনিস কিন্ত আমরা অনলাইনের মাধ্যমে অর্ডার দিয়ে থাকি। তাই আপনি অনলাইনে একটি প্লাটফর্ম তৈরি করে সেখানে আপনার নিজস্ব প্রোডাক্ট নিয়ে অনলাইন বিজনেস শুরু করে দিতে পারেন। অনলাইন বিজনেস মেয়েদের জন্য অনলাইন জব হিসেবে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

আরো পড়ুনঃ অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায়

১০। বিউটি প্রোডাক্ট সেল - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

আপনি কি সাঁজতে ভালোবাসেন? কেইনা নিজেকে সাঁজাতে ভালোবাসে? মেয়ে মাত্রই সে সাঁজতে অনেক বেশি ভালোবাসে। পৃথিবীর প্রত্যেকটি মেয়ে চায় নিজেকে আরেকজনের সামনে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে। আর নিজেকে অন্যের সামনে সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করার এবং সুন্দর করে দেখানোর জন্য প্রধান উপকরণ হচ্ছে মেকআপ এবং অন্যান্য বিউটি প্রোডাক্ট। আপনি চাইলেই মেয়েদের এই প্রয়োজনীয়তাকে কাজে লাগিয়ে নিজের একটি ছোটো খাটো বিজনেস গড়ে তুলতে পারেন।

বিউটি প্রোডাক্ট সেল মেয়েদের জন্য অনলাইন জব চমৎকার এবং সম্ভাবনাময় এই কাজটি হতে পারে। মেকআপ ইনস্ট্রুমেন্ট সেল করার জন্য আপনার একজন মডেলের প্রয়োজন হবে, যার উপরে মেকআপ এপ্লাই করে আপনি সবাইকে দেখিয়ে দিবেন। বর্তমান সময়ে বেশিরভাগ মেয়েরা অন্য কোনো মডেল নয়, বরং নিজেই নিজের মডেল হিসেবে কাজ করে থাকে।

ফেসবুক পেজে বিভিন্ন বিউটি প্রোডাক্ট সম্পর্কে লাইভ প্রমোশন করুন। ফেসবুকে এমনই অনেক জনপ্রিয় উদ্যোক্তা আছেন যারা তাদের প্রোডাক্ট সম্পর্কে পেজে লাইভে এসে প্রমোশন করেন। আপনার লাইভে আলোচনা করা প্রসাধনীর ভালো ফলাফল দেখে অনেক কাস্টমার আপনাকে অর্ডার করবে। আর এভাবেই আপনি আপনার বিজনেসকে আরো বেশি এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন এবং অনেকটা ইনকাম করতে পারবেন।

কি লাগবে এই ব্যবসার জন্যঃ ১। স্মার্টফোন ২। অসীম আগ্রহ ৩। অল্প কিছু পুজি ৪। ইন্টারনেট সংযোগ ৫। স্মার্টফোন রাখার ট্রাইপড বা স্ট্যান্ড। বিউটি প্রোডাক্ট সেল করার ব্যবসার সবচেয়ে ভালো দিক হলো, আপনারা এটাকে ঘরে বসে থেকে শুরু করতে পারবেন। অর্থাৎ আপনাকে না কোনো অফিস ভাড়া নিতে হবে, না আপনাকে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরতে হবে। ঘরে বসে থেকে প্রোডাক্টগুলোর প্রোমোশন তৈরি করুন, অর্ডার নিন আর কুরিয়ারের মাধ্যমে ডেলিভারি যথাযথ দিন।

১১। ভয়েস ওভার সার্ভিস

মেয়েদের জন্য অনলাইন জব এর মাঝে জনপ্রিয় একটি কাজ হলো ভয়েস অভার সার্ভিস। আমরা ইউটিউবে চ্যানেলে বিভিন্ন ধরনের ভিডিও দেখে থাকি। বেশিরভাগ ভিডিওতেই কারো না কারো রেকর্ড করা ভয়েস শুনতে পাই। আর বেশিরভাগ ইউটিউবাররা এই সমস্ত ভয়েস বিভিন্ন আর্টিস্টদের কাছ থেকে কিনে নিয়ে থাকে।

অর্থাৎ কোনো একজন ইউটিউবার কিংবা কোনো একটি কাজের জন্যে কারোর ভালো ধরনের মেয়ের ভয়েস দরকার হয়। এই অবস্থায় ক্লায়েন্ট আপনাকে স্ক্রিপ্ট দিয়ে দিয়ে দিবে আপনি শুধুমাত্র সেই স্ক্রিপ্টটা রেকর্ড করে ভয়েস পাঠিয়ে দিবেন। ভয়েস ওভার আর্টিস্ট হিসাবে কাজ করে প্রতি মিনিটের জন্য ৩০ টাকা থেকে শুরু করে ১০০ টাকা পর্যন্ত নেওয়া যেতে পারে।

অর্থাৎ যদি আপনি ভয়েস ওভার আর্টিস্ট হিসাবে কাজ করেন তবে ১০ মিনিটের একটি ভয়েস রেকর্ডের জন্য ৪০০ টাকা থেকে ২ হাজার টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে পারেন। ভয়েস ওভার সার্ভিস কাজ কোথায় পাবেনঃ ফেসবুক, ই-মেইল, মেসেন্জার, গ্রুপ এবং বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে এই ধরনের অনেক কাজ পাওয়া যায়।

আরো পড়ুনঃ সার্ভে কি - অনলাইন সার্ভে করে আয়

১২। ডাটা এন্ট্রি - মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

মেয়েদের জন্য তুলনামূলক সহজ একটি কাজ হলো ডাটা এন্ট্রি। কম্পিউটারের বেসিক লেভেলের কিছু কাজ সম্পর্কে জানলেই আপনি ডাটা এন্ট্রির কাজ করতে পারবেন। যদি আপনি মাইক্রোসফট অফিস, মাইক্রোসফ্ট অ্যাপ্লিকেশন, মাইক্রোসফট ইক্সেল, মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্ট ইত্যাদি বিষয়ে এক্সপার্ট হয়ে থাকেন। তাহলে আপনি অনলাইন থেকে এই রিলেটেড কাজগুলো করে অনলাইন থেকে আয় করতে পারেন। ডাটা এন্ট্রির মধ্যে আছে ডকুমেন্ট টাইপিং, PDF বা JPG ফাইলের লেখা ডকুমেন্টে কনভার্ট করা এবং ক্ষেত্র বিশেষে হিসাব-নিকাশ করা।

অনেক প্রতিষ্ঠান আছে যারা তাদের ডাটাগুলোকে ম্যানুয়ালি এন্ট্রি করার জন্যে কিছু লোককে হায়ার করে থাকেন উপরোক্ত কাজগুলো সম্পাদন করার কাজে। ডাটা এন্ট্রি হচ্ছে মেয়েদের জন্য অনলাইন জব করার একটি অন্যতম প্ল্যাটফর্ম। ডাটা এন্ট্রির কাজ করার জন্য খুব বেশি কিছু জানার প্রয়োজন হয়না তাই আপনি চাইলে ডাটা এন্ট্রির কাজ শিখে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন এবং মেয়েদের জন্য অনলাইন জব হিসেবে ডাটা এন্ট্রি খুব সহজ একটি মাধ্যম।

ফাইবার, আপওয়ার্ক এবং ফ্রিল্যান্সার ডটকম ওয়েবসাইটের মতো বেশ কিছু মার্কেটপ্লেস আছে, যেখানে আপনি ডাটা এন্ট্রি করে প্রতিদিন $২০-$৫০ ডলার বা তারবেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আর এই কাজটি সম্পূর্ণ নির্ভর করবে আপনার দক্ষতার উপরে। বহির্বিশ্বেই শুধু না, এসকল আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে বাংলাদেশি অনেক মেয়েরা সফলতার সঙ্গে প্রতিনিধিত্ব করে আসছেন।

ডেটা এন্ট্রিতে কি করতে বলা হয়? ১। বিভিন্ন লেখা টাইপ করা ২। ছবির লেখা ডকুমেন্টে কনভার্ট করা ৩। কোন কাগজের লেখা ডকুমেন্টে কনভার্ট করা ৪। গাণিতিক হিসাব নিকাশ করা। মাইক্রোসফটের বেশকিছু সফটওয়্যার আছে যা দিয়ে আপনি উল্লেখিত কাজগুলো শিখে নিতে পারেন। যেমন MS Word, MS Excell, Acrobat Reader ইত্যাদি। তাই অনলাইনে কোনো মার্কেটপ্লেসে কাজ শুরু করার আগে এই সফটওয়্যার গুলোর উপরে বেসিক কিছু ধারণা রাখাটা জরুরি।

শেষ কথাঃ মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

বন্ধুরা আমরা আজকের এই আর্টিকেলে যে বিষয়গুলো সম্পর্কে ধারণা দিয়েছি এগুলো সম্পূর্ণ বাস্তব ও বিশ্বাসযোগ্য কাজ। আমাদের এখানে দেখানো এই সকল কাজ গুলোতে আপনার কোনো ধরনের ইনভেস্টমেন্ট করার দরকার নেই। শুধুমাত্র দক্ষতা অর্জন করেই মাসে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস গুলো থেকে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

প্রিয় পাঠক আমাদের এই সাইটটি আপনাদেরকে সঠিক দিক নির্দেশনা দেয়ার জন্য ডেভেলপ করা হয়েছে। আমাদের এই মেয়েদের জন্য অনলাইন জব লেখাটি পড়ে আপনি যদি কোনো উপকৃত হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই কমেন্টে জানাবেন। আর যদি এই মেয়েদের জন্য অনলাইন জব পোস্ট সম্পর্কে আপনার কোনো মতামত কিংবা পরামর্শ থাকে তবে সেটিও অবশ্যই আমাদের কমেন্টে জানাবেন।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?