Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/12/how-to-get-loan-easily-online.html

অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায়

অনলাইনে লোন করার উপায় — ব্যবসা কিংবা ব্যক্তিগত কাজ যার কথাই বলুন না কেন, আমাদের জীবনে মাঝে মাঝেই প্রয়োজন পড়ে লোনের। প্রয়োজনের তাগিদে অনেক সময় দুয়ারে দুয়ারে ঘুরে বেড়াতে হয় লোনের আশায়। কি? খুব জলদি কি আপনার টাকার প্রয়োজন? যদি তাই হয়ে থাকে তাহলে এখন আপনাকে সাহায্য করবে অনলাইন লোন। শুনে অবাক হচ্ছেন, তবে অবাক হলেও এটাই সত্যি।

অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায়

দিন পাল্টেছে, সময় বদলেছে। কারণ, বর্তমান যুগ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির যুগ। যা আমাদের নিয়ে গেছে উন্নয়নের শীর্ষে। কথায় আছে বিপদে বন্ধুর পরিচয়, তাই আপনি যখন আর্থিক সংকটে পড়বেন তখন আপনাকে সবার আগে সাহায্য করতে এগিয়ে আসবে অনলাইনে লোনের সেবা নামক এই বন্ধুটি। 

তবে আপনার আর আমার মাঝে, আমরা এমন অনেকেই আছি যারা এখনো পর্যন্ত জানি না, কি কি উপায় অবলম্বন করলে অনলাইনে লোন পাওয়া সম্ভব। তো দর্শক বন্ধুরা, আমাদের আজকের আর্টিকেলটি সেসকল ব্যাক্তি বর্গের জন্য যারা বিপদে পড়ে আছেন, আর অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায় না জেনে "অনলাইন লোনের সেবা" বা অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায় নামক বন্ধুটিকে কাজে লাগাতে পারছেন না। তো দেরি না করে চলুন দেখে আসা যাক, অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায় সমূহ সম্পর্কে।

অনলাইনে লোন নেওয়ার অন্যতম একটি উপায় পার্সোনাল লোন। বর্তমানে ইন্টারনেটের প্লে স্টোরে অনেক অ্যাপস আছে, যে অ্যাপসগুলো আপনাকে সঙ্গে সঙ্গে লোন দিয়ে দেবে। বলতে পারেন, সময় লাগবে মাত্র ২ মিনিট। অবাক হবেন না কথাটা সত্যি। এই ধরুন যেমন আপনি অনলাইনে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট দুই মিনিটের মধ্যে আধার কার্ড দিয়ে খুলতে পারেন, ঠিক একইভাবে আপনি অনলাইনে আধার কার্ড আর প্যান কার্ড দিয়ে দুই মিনিটের মধ্যে লোন গ্রহণ করতেও পারেন। 

তবে হ্যাঁ, মনে রাখবেন, সবকিছুরই একটি নির্দিষ্ট শর্তাবলী/নিয়মাবলী থাকে। যেগুলো আপনাকে অবশ্যই মেনে চলতে হবে। তাই অনলাইনে আপনি যদি পার্সোনাল লোন নিতে চান তাহলে সঙ্গে সঙ্গে জমা দিতে হবে কিছু জরুরী ডকুমেন্ট। যেমন ধরুনঃ 

আপনি মাসিক কত টাকা আয় করেন? আপনার ক্রেডিট স্কোর কেমন? আবার ক্রেডিট স্কোর ছাড়া ব্যক্তির লোন পরিশোধ করার ইতিহাস! সেইসাথে ব্যাংকের সঙ্গে আপনার সম্পর্কের ওপর নির্ভর করবে পার্সোনাল লোন পাওয়ার সম্ভাবনা। পাশাপাশি আপনি যে কোম্পানিতে কাজ করেন সেই কোম্পানির সুনাম এর ওপরও নির্ভর করে অনলাইনে পার্সোনাল লোন দেওয়া হয়ে থাকে। অর্থাৎ মাসিক আয়, ক্রেডিট স্কোর, কোম্পানির সুনাম, লোন শোধ করার ইতিহাস ও ব্যাংকের সঙ্গে সম্পর্কের ডকুমেন্ট।

অনলাইনে লোন নেওয়ার সেরা অ্যাপস কি কি?

আমরা ইতোমধ্যে আপনাদেরকে জানিয়েছি বর্তমান সময়ে এমন অনেক মোবাইল অ্যাপস রয়েছে যেগুলো অনলাইনে লোন পাওয়ার জন্য কার্যকর ভূমিকা প্রদান করে সেই অ্যাপসমূহ গুলো হলোঃ ১। KreditBee (ক্রেডিট বি) ২। LazyPay (লেজি পে) ৩। Indiabulls Dhani (ইন্ডিয়াবুলস ধানি) ৪। mPokket (এম পকেট) ৫। ZestMoney (জেস্ট মানি)

আরো পড়ুনঃ ভুল করেও এই ৫টি জায়গায় স্মার্টফোন রাখবেন না

অনলাইনে কোথায় আবেদন করবেন?

আপনি যদি পার্সোনাল লোনের জন্য আবেদন করতে চান তাহলে, যে ব্যাংকে সেলারি একাউন্ট রয়েছে সেই ব্যাংক থেকে পার্সোনাল লোন নিতে হবে। আর এই লোন নেওয়ার জন্য তেমন কোন নিয়ম বর্ধিত নেই। আপনার মন চাইলে আপনি অন্য যেকোনো ব্যাংকের ওয়েবসাইটে পার্সোনাল লোনের জন্য আবেদন করতে পারেন। 

আর আপনি অনলাইন লোন আবেদন করতে যদি অ্যাপস ব্যবহার করেন। তাহলে প্রথমত, আপনাকে সেই অ্যাপসটি ডাউনলোড করতে হবে। আর এর পরবর্তীতে আপনার কোন কোন স্টেপ গুলো অনুসরণ করতে হবে সেগুলো অ্যাপসটিতে ক্লিক করলেই আপনি দেখতে পাবেন। অর্থাৎ অ্যাপস এর মধ্যে আপনাকে যা যা করতে বলা হবে আপনি করবেন এবং পরবর্তীতে পেয়ে যাবেন আপনার কাঙ্ক্ষিত লোন।

অনলাইনে লোন নিতে আপনাকে সংরক্ষণ করতে হবে যে সকল ডকুমেন্টঃ ১। আধার কার্ড (আধার কার্ডের সাথে যুক্ত মোবাইল নাম্বার) ২। প্যান কার্ড ৩। একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট। মনে রাখবেন উল্লেখিত ডকুমেন্টগুলো থাকলে আপনি অনলাইনে লোন আবেদন করার জন্য উপযুক্ত হিসেবে বিবেচিত হবেন। নতুবা ব্যর্থ হবেন।

কি? এখন নিশ্চয়ই আপনার কাছে অনলাইনে লোন পাওয়ার বিষয়টা খুব সহজ হয়ে গেছে তাইনা? আপনাদেরকে আরো সহজ ভাবে বোঝানোর জন্য এবার চলুন জেনে নেওয়া যাক মোবাইল অ্যাপস গুলোর বিস্তারিত কিছু তথ্য।

KreditBee (ক্রেডিট বি)

ক্রেডিট বি অন্যতম সেরা তাৎক্ষণিক লোন অ্যাপ্লিকেশন। আর এই অ্যাপসটি ব্যবহার করে আপনি শুধুমাত্র ৫ মিনিট থেকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যেকোনো জায়গা থেকে লোন নিতে সক্ষম হবেন। এতে লোন এর পরিসীমা ১০০০ টাকা থেকে ১ লক্ষ টাকা।

LazyPay (লেজি পে)

লেজি পে অনলাইন লোন অ্যাপ্লিকেশনটি হলো ভারতের শীর্ষস্থানীয় লোন অ্যাপ্লিকেশন অ্যাপস। এই অ্যাপটি ব্যবহার করে আপনি ১০,০০০ থেকে ১ লাখ টাকার মধ্যে লোন নিতে সক্ষম হবেন। তাই আপনার যদি এই মুহূর্তে খুব বেশি টাকার প্রয়োজন পড়ে তাহলে এখনি এই অ্যাপসটিতে গিয়ে আপনি আপনার কাঙ্খিত অ্যামাউন্ট বসিয়ে লোন নিতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ ইনস্টাগ্রামে ফলোয়ার বাড়ানোর উপায়

Indiabulls Dhani (ইন্ডিয়াবুলস ধানি)

এবার চলুন জেনে নেওয়া যাক ইন্ডিয়াবুলস ধানি এপ্সটি সম্পর্কে। এটিও একটি অন্যতম সেরা ব্যক্তিগত লোন অ্যাপ্লিকেশন। এখান থেকে আপনি লোন নিতে পারেন ১ হাজার থেকে ১৫ লক্ষ টাকা। বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ Indiabulls Dhani অ্যাপসটি গুগল প্লে স্টোর থেকে আপনি বিনামূল্যে ডাউনলোড করতে পারবেন।

mPokket (এম পকেট)

এটিও একটি কার্যকরী মোবাইল অ্যাপস। এম পকেট এর উদ্দেশ্য হলো প্রয়োজনের সময় যেকোনো মুহূর্তে তাৎক্ষণিক লোন দেওয়া। আর এখান থেকে শুধুমাত্র ভারতের কলেজ ছাত্র-ছাত্রীরা লোন গ্রহণ করতে সক্ষম। তাই আপনি যদি ভারতের কোন স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন, তাহলে প্রয়োজনের সময় ব্যবহার করতে পারেন এমপকেট নামক অনলাইন লোন মোবাইল অ্যাপসটি।

ZestMoney (জেস্ট মানি)

জেস্ট মানি ও একটি মোবাইল অ্যাপস। আপনি যদি অনলাইনে লোন সেবা গ্রহণ করতে চান তাহলে ক্রেডিট কার্ড ছাড়াই এই অ্যাপসটি থেকে অনলাইনে EMI তে শপিং করার সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন। বিশেষ দ্রষ্টব্য: আপনি মূলত জেস্ট মানি দিয়ে ফ্লিপকার্ট, অ্যামাজন থেকে ইএমআই তে মোবাইল, ল্যাপটপ ইত্যাদি জিনিস কিনতে লোন গ্রহণ করতে পারবেন।

তো বন্ধুরা এই ছিল আমাদের আজকের অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায় নিয়ে বিস্তারিত তথ্য। তো এই পোস্টটি আপনাদের কেমন লেগেছে, আর কতটা উপকারে এসেছে? সেটা কিন্তু আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাতে ভুলবেন না। সেই সাথে এমন আরও নিত্তনৈমিত্তিক প্রয়োজনীয় গুরুত্বপূর্ণ তথ্যাবলী জানতে অবশ্যই আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করবেন। আজ এ পর্যন্তই সবাই ভাল থাকবেন আল্লাহ হাফেজ।

আরো পড়ুনঃ মোবাইল টাওয়ারের ক্ষতিকর দিক

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?