Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2022/04/chul-pora-kivabe-bondho-korbo.html

কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয়

কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয় - চুল পড়ার কারণ ও সমাধান — চুল সকল মানুষের সৌন্দর্যকে বৃদ্ধি করে। চুল পড়ার সমস্যা নারী এবং পুরুষ সকলের জন্যই বেশ বিব্রতকর কিংবা নারী-পুরুষ নির্বিশেষ সবার জন্যই চুল পড়া বেশ চিন্তার। যার মাথাতে টাক পড়ে শুধুমাত্র তিনিই কেবল বোঝেন চুলের মর্ম। প্রতিদিনই হয়তো ঝরে যাচ্ছে আপনার মাথার চুল। অনেক কিছু করার পরেও হয়তোবা চুল পড়া বন্ধ করতে পারছেন না। চুল পড়া কমানোর জন্য আমরা অনেকেই বিভিন্ন ঘরোয়া প্রতিকার, নামি দামি প্রোডাক্ট ব্যবহার করে থাকি, কিন্তু কিছুতেই চুল পড়া কমানোর জন্য ভালো কোনো ফল মেলে না।

কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয়

পেজ সূচীপত্রঃ কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয়

চুলের স্বাস্থ্যের জন্য খুশকি অনেক বড় একটি সমস্যা। অতিরিক্ত চুল পড়া রুক্ষতাসহ স্ক্যাল্প ইনফেকশন জন্যে বেশিরভাগ সময় খুশকিই দায়ী। তবে হ্যাঁ চুল পড়া, বিশেষ করে টাক হওয়া রোধে নানাবিধ ওষুধ এবং চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে কোনো কাজে আসছে না। তবে হ্যাঁ আপনি কি জানেন? কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো খেলে আপনার চুল পড়া বন্ধ করা সম্ভব। 

আমাদের স্বাস্থ্য ও ত্বকের মতো, চুলের স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রেও কিন্ত ভিটামিন, প্রোটিনের দরকার হয়। তাই খাবার তালিকায় এমন কিছু খাবার রাখুন যা আপনার চুল পড়া তো কমাবেই, সাথে চুলকে করে তুলবে স্বাস্থ্যকর ও ঝলমলে। আজকের এই আর্টিকেল থেকে দেখে নিন, কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয় এবং কোন কোন খাবার আপনার খাদ্য তালিকায় রাখা রাখবেন।

চুল পড়ার সমস্যা নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে ধীরে ধীরে তা বৃদ্ধি হতে থাকে। আমাদের চুল পড়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে ভুল খাদ্যাভ্যাস। আমরা না বুঝেই এমন সকল ধরনের খাবার গ্রহণ করি যা চুলের জন্য ক্ষতিকর। চুলের জন্য প্রয়োজনীয় সকল পুষ্টিগুণ শরীরে না পৌঁছালে চুল পড়ে যাওয়ার প্রবণতা বাড়তে থাকে। তাই আমাদের এমনকিছু খাবার খাওয়া দরকার যা আমাদের চুলের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। তাহলে চলুন জেনে নিই কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয়। কিংবা আসুন জেনে নেই এমন কিছু খাবার সম্পর্কে যা আপনার চুল পড়া কমাতে পারে।

আরো পড়ুনঃ কিডনি রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার

চুল পড়ার কারণ - অতিরিক্ত চুল পড়ার কারণ

প্রিয় পাঠক কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয় তা জানার আগে চলুন জেনে নেই কি কি খাবার চুল পড়ার প্রধান কারণ হিসেবে কাজ করে। ঠিক মতো যত্ন না নিলেই যে কেবল চুল পড়ে, এমন নয়। কয়েকটি খাবারও হতে পারে আপনার চুল পড়ার কারণ। চিরুনি দিয়ে আঁচড়াতে গিয়ে দেখলেন আপনার মাথা থেকে প্রচুর চুল পড়ছে। এখন চিন্তা হওয়াটাই স্বাভাবিক ব্যাপার। 

সাধারণত যত্ন না নিলে চুল পড়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়। কিন্তু হয়তোবা আপনি নিয়মিত চুলে তেল, শ্যাম্পু, কন্ডিশনিং সব কিছুই করেন। তবুও কেন চুল পড়ছে? বিশেষ কোনো অসুখ হলে বিষয়টি কিন্ত আলাদা। এমন সমস্যা হলে চোখ রাখুন খাবারের দিকে। কিছু কিছু খাবার খেলে চুল পড়ার মাত্রা বৃদ্ধি পায়।

১। চিনি - চুল পড়ার কারণঃ আপনি কি প্রচুর চিনি কিংবা মিষ্টিজাতীয় পদার্থ খান? তবে হ্যাঁ এটিই কিন্ত হতে পারে আপনার চুল পড়ার কারণ। বেশি পরিমাণে চিনি কিংবা মিষ্টিজাতীয় খাবার খাওয়ার ফলে টাকও হয়ে যেতে পারেন। তাই যদি আপনি মিষ্টি খেতে ভালোবাসেন তবে সেটা পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে খান।

২। ভাজাভুজি - চুল পড়ার কারণঃ ভাজাপোড়া খেতে ভালবাসে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া সত্যিই মুশকিল! কিন্ত এই ধরনের ভাজাপোড়া খাবার খেলে হৃদ্‌রোগের আশঙ্কা এবং ওজন বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যাও দেখা দিতে পারে। ভাজাপোড়া খেলে মাথার ত্বক বেশি তৈলাক্ত হয়ে যায় এবং মাথার ত্বকের ছিদ্রগুলোও বন্ধ হয়ে যায়। যার ফলস্বরূপ চুল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

আরো পড়ুনঃ গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাসের খাবার তালিকা

৩। নেশাজাত দ্রব্য - চুল পড়ার কারণঃ তরল পানীয়তে চুমুক দেয়ার সময় আপনি কি একবারও ভাবছেন তা থেকে আপনার চুলের বড় ধরনের ক্ষতি হতে পারে? হ্যাঁ বিভিন্ন গবেষণা কিন্ত সে রকমটাই বলছে। অতিরিক্ত পরিমাণে মদ্যপান বা নেশাজাত দ্রব্য পান করলে হেয়ার ফলিকল নষ্ট হয়ে যায়। কিন্ত পরিমিত মদ্যপানেও ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যায় চুল। অ্যালকোহল খাওয়ার কারণে চুলের স্বাভাবিক প্রোটিন কেরাটিনকে নষ্ট করে দেয় যার চুলকে দুর্বল করে।

৪। ময়দা - চুল পড়ার কারণ কিঃ আপনি কি বাড়িতে লুচি বা পরোটা খেতে খুব বেশী ভালোবাসেন? ময়দা দিয়ে তৈরি করা এই সকল লুচি বা পরোটাই কিন্ত আপনার চুলের ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। কেননা এতে ময়দাতে রয়েছে গ্লাইসেমিক ইনডেক্স কিংবা জিআই-এর পরিমাণ যা হরমোনের সমতা নষ্ট করে। যার কারণে তা থেকে চুল পড়ার কিংবা মাথা থেকে চুল উঠে যাওয়ার আশঙ্কা সৃষ্টি করে। চুল পড়ার কারণ এর জন্য শুধুমাত্র ময়দা নয়, একই কারণে খাবারের তালিকায় আপনাকে বাদ দিতে হবে পাঁউরুটি এর মতো খাবার।

কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয়

প্রিয় পাঠকবৃন্দ এতোক্ষণ আমরা দেখলাম চুল পড়ার কারণগুলো কি কি। কোন কোন খাবার গুলো খাওয়ার কারণে আমাদের মাথার চুল পড়ার সম্ভাবনা থাকে। এবার আমরা জানবো কি খেলে চুল পড়া বন্ধ হয় এবং কোন কোন খাবার আপনার খাদ্য তালিকায় রাখা উচিত হবে।

১। ডিমঃ চুলের যত্নে সবচেয়ে উপকারী হচ্ছে ডিম। অর্থাৎ চুল পড়া বন্ধ করতে আপনার খাবার তালিকায় ডিম রাখুন। ডিম হচ্ছে প্রাকৃতিক প্রোটিনের অন্যতম সেরা উৎস। ডিম প্রোটিন, বায়োটিন, ভিটামিন বি-১২, আয়রন, জিংক এবং ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিডের অন্যতম সেরা উৎস যা চুলের জন্য বিশেষভাবে জরুরি।। এই সকল ভিটামিন এবং খনিজ উপাদানগুলোর মধ্যে যেকোনো একটির অভাব দেখা দিলে, চুলের গুণমান খারাপ বা নষ্ট হতে পারে। তাই চুল পড়া বন্ধ করার জন্য খাবার তালিকায় ডিম অবশ্যই রাখবেন। এছাড়া প্রতিদিনের খাবার তালিকায় যাতে করে প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার থাকে সেদিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে উদ্যোক্তা হওয়া যায়

২। সবুজ শাকসবজিঃ পালং শাক, বাঁধাকপি এবং ব্রকলি ভিটামিন, মিনারেলস (খনিজ) এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের সব থেকে ভালো উৎস। চুল পড়া বন্ধ করার জন্য এই সকল খাবারগুলো প্রতিদিন খেতে পারেন। উক্ত খাবার গুলো চুলের গোড়াকে মজবুদ করে। এছাড়াও চুল পড়া কমাতে সাহায্য করে।

আয়রনের অভাবে অনেক সময় দেখা যায় চুল পড়তে শুরু করে। যখন শরীরে আয়রনের ঘাটতি দেখা দেয় তখন চুলের গোড়ায় পুষ্টির অভাব সৃষ্টি হয়, চুলের গোড়া আলগা হয়ে চুল পড়তে শুরু করে। তাই আয়রনের অভাব পূরণ করতে নিয়মিত সবুজ শাক-সবজি খান। সবুজ শাক-সবজিতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও মিনারেল এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। যা চুলের গোঁড়া মজবুত করতে সাহায্য করে এবং মাথার ত্বক ভালো রাখে। তাই চুল পড়া বন্ধ করতে বেশি বেশি শাঁকসবজি খান।

৩। মাছঃ মাছ হচ্ছে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ একটি খাবার। চুল পড়া কমানোর জন্য সামুদ্রিক মাছ এবং ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড আছে খাবার খেতে পারেন। ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড চুলের গোঁড়া মজবুত করতে সাহায্য করে এবং আপনার চুল পড়া বন্ধে সহায়তা করবে। প্রতি সপ্তাহে ৩ থেকে ৪ দিন ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ মাছ খেলে চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে। তাই খাবার তালিকায় চেষ্টা করবেন সপ্তাহে অন্তত ৩-৪ দিন মাছ রাখার।

৪। গাজরঃ গাজর হচ্ছে একটি সুস্বাদু সবজি যা সহজেই আমাদের হাতের কাছেই পাওয়া যায়। গাজর শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে চুল এবং ত্বকের যত্ন নেয়। গাজর কেবলমাত্র চোখের ক্ষেত্রে নয়, ত্বক এবং চুলের ক্ষেত্রেও অত্যন্ত উপকারী। গাজরে আছে প্রচুর পরিমাণে বেটা ক্যারোটিন এবং ভিটামিন-এ। গাজরে ভিটামিন-এ থাকে যা চুলের গোঁড়ায় প্রাকৃতিক তেল তৈরি করে। গাজর স্ক্যাল্পে পুষ্টি সরবরাহ করে। চুলের গোড়া শক্ত করে, চুলকে ময়শ্চারাইজড রাখে।

যা চুলের গোঁড়া মজবুদ করে এবং চুল পড়া বন্ধ করে। গাজরে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-এ থাকার কারণে যা চুলের ফলিকলকে মজবুত করে এবং চুলকে পাতলা হয়ে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে। পাতলা চুলে পড়ে যাওয়ার প্রবণতা বেশি থাকে। তাই চুল পড়া বন্ধ করার জন্য নিয়মিত বেশি বেশি গাজর খান। চুল পড়া বন্ধ করতে গাজরকে অবশ্যই খাবার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করুন।

আরো পড়ুনঃ গ্যাস্ট্রিক দূর করার উপায়

৫। পালং শাকঃ পালংশাক হচ্ছে ভিটামিন-এ, ভিটামিন-সি এবং ফোলেট ও আয়রনের উৎস। আর এই পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ খাবারটি চুলের স্বাভাবিক বৃদ্ধির জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। যদি আপনি চুল পড়া বন্ধ করতে চান, তবে পালংশাক অবশ্যই আপনার খাবার তালিকায় রাখুন। চুল পড়া বন্ধ করতে পালংশাক বেশ উপকারি একটি খাবার।

৬। মেথি বীজঃ মেথির বীজ হচ্ছে ফলিক অ্যাসিড, ভিটামিন-এ, ভিটামিন-সি, ভিটামিন-কে সমৃদ্ধ। যা চুল পড়া বন্ধ করতে অত্যন্ত প্রয়োজনীয় প্রতিকার হিসেবে ধরা হয়। এছাড়াও বাদাম, ফ্লাক্স সীড, আখরোট, তিল প্রভৃতিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড। যা চুলের ভেঙে যাওয়া প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। নিয়মিত লেবুর রসের শরবত খেলে তা চুল পড়া বন্ধ করতে দারুণ কার্যকরী হবে। কমলায় প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-সি পাওয়া যায়।

৭। মিষ্টি আলুঃ মিষ্টি আলু ভিটামিন-এ শোষণ করতে পারে। এছাড়াও মিষ্টি আলু বিটা-ক্যারোটিন সমৃদ্ধ। চুলের ঘনত্ব ও সিবাম উৎপাদনের জন্য ভিটামিন-এ অপরিহার্য, যা চুলকে সুস্থ এবং প্রাকৃতিক ভাবে আর্দ্র রাখে। তাই আপনি ডায়েটে মিষ্টি আলু অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ লম্বা হওয়ার উপায় ও ব্যায়াম

৮। লো ফ্যাট ডেয়ারি প্রোডাক্টঃ চুলের বৃদ্ধির জন্য প্রোটিন এবং ক্যালসিয়াম অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি উপাদান। তাই আপনার প্রতিদিনের খাবার তালিকায় অবশ্যই দই বা পনির অন্তর্ভুক্ত করুন। ভালো ফলাফল পেতে হলে জিংক এবং ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ আখরোট অথবা ফ্ল্যাক্সসিডও যুক্ত করতে পারেন। কিছুদিন খাওয়ার পরে নিজেই বুঝতে পারবেন আপনার চুল পড়া কতটুকু বন্ধ হয়েছে।

৯। দুধ এবং দুগ্ধজাত খাবারঃ দুধ এবং দুগ্ধজাত খাবারে প্রোটিনের পাশাপাশি আছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম। যা চুলের বেড়ে উঠা এবং নতুন চুল গজানোর জন্য সবথেকে বেশি জরুরি। তাই চুলের সুস্থতা চাইলে প্রতিদিন দুধ বা দুগ্ধজাত খাবার বেশি বেশি পান করুন।

১০। সবুজ কড়াইশুঁটিঃ চুলের স্বাস্থ্যের জন্য সবুজ কড়াই শুটি অত্যন্ত উপকারী একটি খাবার। সবুজ কড়াই শুঁটি ভিটামিন বি ও জিংক এবং আয়রনের উৎস। স্বাস্থ্যকর চুল বজায় রাখার জন্যে উক্ত উপাদান গুলো অপরিহার্য। তাই খাবার তালিকায় অন্যান্য সকল শাঁক সবজির পাশাপাশি, সবুজ কড়াই শুঁটি রেখে দিন।

১১। ওটসঃ ওটস শুধুমাত্র ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার নয়, এতে রয়েছে জিংক, আয়রন এবং ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিডের মতো অন্যান্য প্রয়োজনীয় সকল পুষ্টিকর উপাদান। ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড ত্বক ভালো রাখতে সাহায্য করে, এবং এটি চুলের বৃদ্ধিতেও অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি খাবার। তাই আপনার প্রতিদিনের ব্রেকফাস্টের তালিকায় ওটস খাবারটি অন্তর্ভুক্ত করুন। যা আপনার চুল পড়া বন্ধ করতে সাহায্য করবে।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?