মাশাআল্লাহ অর্থ কি

মাশাআল্লাহ অর্থ কি – মাশাআল্লাহ শব্দের বাংলা অর্থ — প্রিয় পাঠকবৃন্দ সবাইকে আসসালামু আলাইকুম। আজকে আমরা আপনাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি টপিক নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। আশা করি আজকের আলোচনার বিষয় সম্বন্ধে আপনারা ইতিমধ্যে টাইটেল দেখে জানতে পারছেন। আজকের আর্টিকেলের আলোচ্য বিষয় হচ্ছে মাশাআল্লাহ অর্থ কি। মাশাআল্লাহ অর্থ কি সেটা সম্পর্কে আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন তারা সঠিক জানেন না। 

মাশাআল্লাহ অর্থ কি

পেজ সূচীপত্রঃ

আবার অনেকেই কমবেশি মাশাআল্লাহ অর্থ কি এবং মাশাআল্লাহ বলার ফজিলত সম্পর্কে জানি। কিন্তু মাশাআল্লাহ ব্যবহার ও মাশাআল্লাহ কখন বলতে হয় সেটা সম্পর্কে আবার হয়তোবা অনেকেই পুরোপুরি ভাবে জানিনা। এছাড়া অনেকেই আছি যারা বিভিন্ন ক্ষেত্রে মাশাআল্লাহ শব্দটি ব্যবহার করে থাকি। 

মাশাআল্লাহ হচ্ছে মূলত একটি আরবি শব্দ এর বাংলা প্রতিশব্দ কি এবং মাশাআল্লাহ শব্দের বাংলা অর্থ কি তা একজন মুসলিম হিসেবে আমাদের অবশ্যই জানার প্রয়োজনীয়তা আছে। আপনি যদি মাশাআল্লাহ শব্দের অর্থ কি এবং মাশাআল্লাহ কখন বলতে হয় তা সম্পর্কে জানতে আগ্রহী হোন তবে তা এই পোস্টটি থেকে জানতে পারবেন।

আজকের এই পোস্ট থেকে আপনারা যা পাবেনঃ মাশাআল্লাহ অর্থ কি, মাশাআল্লাহ বললে কি বলতে হয়, মাশাআল্লাহ এর জবাব কি, মাশাআল্লাহ সঠিক বানান, মাশাআল্লাহ তাবারাক আল্লাহ, মাশাআল্লাহ ছবি, মাশাআল্লাহ সুবহানাল্লাহ, মাশাআল্লাহ in english, মাশাআল্লাহ মানে কি, মাশাল্লাহ মিনিং ইন বাঙ্গালী ইত্যাদি।

আরো পড়ুনঃ আয়াতুল কুরসি বাংলা উচ্চারণ

একজন মুসলমান ব্যক্তির অবশ্যই উপরোক্ত বিষয় গুলো সম্পর্কে জানার প্রয়োজনীয়তা আছে। এক্ষেত্রে আমরা আজকের এই পোস্টটি নিয়ে উপস্থিত হয়েছি সুতরাং আপনারা যারা মাশাআল্লাহ অর্থ কি এই বিষয়ে জানতে আগ্রহী তারা এই পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ে নিন। 

অনেকেই মাশাআল্লাহ অর্থ কি বিষয়টি জানতে আগ্রহী তাই জানার জন্য অনলাইন চলে আসছেন। আর এই মাশাআল্লাহ অর্থ কি সম্পর্কে জানতে আমাদের এই পোস্টটি অবশ্যই শেষ পর্যন্ত পড়ে নিবেন। অর্থাৎ আপনাদের প্রয়োজনীয় তথ্য নিম্নে তুলে ধরা হয়েছে। মাশাআল্লাহ অর্থ কি সেটা সম্পর্কে আমরা আজকের এই আর্টিকেলটি থেকে বিস্তারিত জেনে নিবো। 

মাশাআল্লাহ সম্পর্কিত সকল বিষয় পরিপূর্ণভাবে কুরআন ও হাদিসের আলোকে আপনাদের জানানোর চেষ্টা করবো ইনশাল্লাহ। আমরা মুসলমান হিসেবে কয়েকটি আরবি শব্দ সবসময় বলে থাকি। তন্মধ্যে একটি শব্দ হচ্ছে মাশাআল্লাহ। চলুন তাহলে আর দেরি না করে জেনে নেই মাশাআল্লাহ অর্থ কি বা মাশাআল্লাহ শব্দের বাংলা অর্থ কি। 

মাশাআল্লাহ অর্থ কি

আপনি কি জানেন মাশাআল্লাহ অর্থ কি? মাশাআল্লাহ অর্থ সম্পর্কে না জেনে থাকলে আজকের এই পোস্টটি থেকে জেনে নিতে পারবেন। মাশাআল্লাহ অর্থ হচ্ছে আল্লাহ যেমন চেয়েছেনকিংবা মাশাআল্লাহ শব্দের বাংলা অর্থ হলোঃ আল্লাহর যা ইচ্ছা তাই করেন। যেকোনো সুন্দর এবং ভালো বিষয়ের ব্যাপারে মাশাআল্লাহ বলা হয়। 

মাশাআল্লাহ শব্দটি আলহামদুলিল্লাহ শব্দের মতোই ব্যবহৃত হয়ে থাকে। অর্থাৎ যেকোনো সুন্দর এবং ভালো জিনিসের ব্যাপারে এটি বলা হয়। যেমনঃ মাশাআল্লাহ তুমি তো অনেক বড় হয়ে গেছো। অথবা মাশাআল্লাহ তুমি তো অনেক সুন্দর হয়েছো। এমন সব শব্দের ব্যবহার আমরা বর্তমানে প্রায় ভুলেই গিয়েছি। অনেকেই আবার নিজের মধ্যে অহংকার দেখিয়ে এমন শব্দের উচ্চারণ করেন না।

আরো পড়ুনঃ রমজান মাসের ফজিলত

মাশাআল্লাহ কখন বলতে হবে

অনেকেই আছেন যারা জানেন না মাশাআল্লাহ কখন বলতে হয়? যারা মাশাআল্লাহ কখন বলতে হয় জানেন না তাদের উদ্দেশ্যে আমরা এই পোস্টে উল্লেখ করছি মাশাআল্লাহ আপনি কখন বলবেন। অনেকেই মাশাআল্লাহ শব্দটির ব্যবহার সম্পর্কে জানেন না যার কারণে সঠিক জায়গায় ব্যবহার না করার পরিবর্তে অনেক ক্ষেত্রেই ভুল যায়গায় এটি ব্যবহার করেন। তাই যারা জানেন না তাদের উদ্দেশ্যে আমরা মাশাআল্লাহ অর্থ এবং ব্যবহার সম্পর্কে জানাতে এই পোস্টটি লিখেছি। একজন মুসলমান হিসেবে অবশ্যই মাশাআল্লাহ শব্দের ব্যবহার সম্পর্কে জানার প্রয়োজনীয়তা আছে। নিম্নে মাশাআল্লাহ শব্দের ব্যবহার উল্লেখ করা হয়েছে।

মাশাআল্লাহ আরবি শব্দ। মাশাআল্লাহ অর্থ হচ্ছেঃ আল্লাহ যা ইচ্ছে করেন তাই হয়। মাশাআল্লাহ এটা বলতে হয়ঃ ১। সুন্দর কোনো কিছু দেখলে ২। কেউ কোনো ভালো কাজ করলে ৩। কারো সফলতা দেখলে বা ভালো কোনো সংবাদ পেলে। ইসলামের মতে নজর খুবই খারাপ জিনিস। কারো উপর নজর লাগলে, সেটা খুবই বিপদ। তাই আমাদের উচিৎ কোনো কিছু দেখলে কিংবা কেউ ভালো কিছু করলে মাশাআল্লাহ বলা। এতে করে নজর লাগেনা এবং মানুষ নিরাপদ থাকে। আমরা মাশাআল্লাহ বলে থাকি যার অর্থ যাহা আল্লাহর ইচ্ছা কিংবা আল্লাহ যাহা চান তাই করেন। 

আরো পড়ুনঃ ২০২২ সালের রমজানের সময় সূচি

মাশাআল্লাহ এর জবাব কি - মাশাআল্লাহ বললে কি বলতে হয়

মাশাআল্লাহ বলার জবাবে আপনি বলতে পারেন জাযাকাল্লাহ ও জাযাকাল্লাহু খায়রান কিংবা শুকরান। তবে হ্যাঁ জাযাকাল্লাহু খায়রান বলাটাই উত্তম। কারণ শুধু জাযাকাল্লাহু এর অর্থ হচ্ছে “আল্লাহ আপনাকে প্রতিদান দিন এবং জাযাকাল্লাহু খায়রান এর অর্থ হচ্ছে “আল্লাহ আপনাকে উত্তম প্রতিদান দিন” আর শুকরান শব্দের অর্থ হচ্ছে ধন্যবাদ। যাহা আরবি ভাষায় কাউকে সাধারণত ধন্যবাদ দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়।

পোষ্ট ক্যাটাগরি: