Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2022/04/puraton-laptop.html

পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয়

পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয় — আমাদের বহন করার প্রতিটি জিনিসকে সহজলভ্য করে তুলসে তথ্যপ্রযুক্তি। ল্যাপটপ যখন ছিলনা তখন ডেস্কটপ কম্পিউটার ব্যবহার করতে হতো। যেটা প্রয়োজনীয় সময়ে অন্য কোথাও বহন করে নিয়ে যাওয়া অনেক বেশী কষ্টসাধ্য।

পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয়

আজকের আর্টিকেলে পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে যে সকল জিনিস গুলো মাথায় রাখবেন সেগুলো নিয়ে ধারণা দিবো। বর্তমানে ল্যাপটপ ব্যবহার এর জনপ্রিয় তা অনেক বেশী। আর সবার পক্ষে একটি নতুন ল্যাপটপ ক্রয় করা সম্ভব নয়।

পেজ সূচীপত্রঃ পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয়

পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয়

আমরা বিভিন্ন কাজের জন্য ল্যাপটপ ক্রয় করে ব্যবহার করে থাকি। অনেক সময়ে আমাদের বাজেটের মধ্যে ভালো একটি ল্যাপটপ ক্রয় করা সম্ভব হয়না। তখন আমাদের পুরাতন কোনো ল্যাপটপের দোকান থেকে ক্রয় করতে হয় পুরাতন ল্যাপটপ। বিশেষ করে, পুরাতন ল্যাপটপ কেনার পরে অনেকেই নানান সমস্যার মধ্যে পড়ে যান। এর কারণ হলো ল্যাপটপ সম্পর্কে স্বচ্ছ কোনো ধারণা না থাকা।

আপনি যদি কোনো পুরাতন ল্যাপটপ ক্রয় করতে যান কিছু কিছু বিষয় আপনাকে ভালোভাবে চেক করে নিতে হবে। আপনি তো আর বার বার ল্যাপটপ কিনতে পারবেন না। একবার কিনবেন সেটা একটু ভালোভাবে দেখেশুনে কেনা অনেক ভালো। আর পুরাতন ল্যাপটপ কেনার কারণে অনেক রিস্ক থেকেই যায়। এসব বিষয় গুলো এড়াতে নিচের দেয়া নিয়ম গুলো অনুযায়ী পুরাতন ল্যাপটপ দেখে শুনে মিলিয়ে তারপরে ক্রয় করুন। শতভাগ নিশ্চিত থাকুন আপনি ভালো টাই কিনতে পারবেন সাধ্যের মধ্যে।

১। ল্যাপটপের ব্যাটারি চেকঃ ল্যাপটপে ব্যাটারি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। ল্যাপটপে যদি চার্জিং ব্যাকআপ ভালো না পাওয়া যায়। তাহলে আপনাকে পরে আবার নতুন ব্যাটারি লাগাতে হবে। নতুন ল্যাপটপ কিনতে গেলে ব্যাটারি নিয়ে চিন্তা কর‍তে হয় না, কারণ নতুন ল্যাপটপে ওয়ারেন্টি থাকে। তাছাড়াও নতুন ল্যাপটপে নতুন ব্যাটারি পাওয়া যায়।

একটি ল্যাপটপ যতবেশি পুরাতন হওয়া শুরু করে ব্যাটারির কার্যক্ষমতা ততবেশি লোপ পেতে শুরু করে। সাধারণত, একটি পুরাতন ল্যাপটপ ফুল চার্জ করলে অন্তত ৩ ঘন্টা ভালো ভাবেই ব্যবহার করা যায়। পুরাতন ল্যাপটপ কেনার পূর্বে আপনি ফুল চার্জ দিয়ে কত ঘন্টা চার্জিং ব্যাকআপ সেটাকে চেক করে নিবেন। যদি ১ ঘন্টার কম সময় ব্যাকআপ দেয় সেটা না কেনাই আপনার জন্য ভালো।

আরো পড়ুনঃ কম্পিউটার হঠাৎ বন্ধ হওয়ার কারণ

২। স্পিকার ভালো আছে কিনা দেখে নিনঃ ল্যাপটপের একটি কমন সমস্যা হলো এর ২ পাশে থাকা স্পিকার গুলো কিছুদিন পরেই নষ্ট হয়ে যায়। তখন আবার নতুন করে স্পিকার গুলো লাগিয়ে নিতে হয়। আপনি তো আর পুরাতন ল্যাপটপ কিনেই সার্ভিসিং করাবেন না। তাই ভালোভাবে দেখে নিন ২ স্পিকার ভালোভাবে কাজ করে কিনা।

৩। কীবোর্ড ও টাচপ্যাড ঠিকভাবে কাজ করে কি-না দেখে নিনঃ ল্যাপটপের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে টাচপ্যাড। সবখানে আপনি ল্যাপটপ বহন করতে পারবেন। কিন্তু যদি আপনার ল্যাপটপে টাচপ্যাড ও কীবোর্ড সঠিকভাবে কাজ না করে তাহলে আপনার ক্রয় করে কোনো লাভ নেই। সবখানে আপনি অতিরিক্ত কীবোর্ড বা মাউস নিয়ে চলাচল করতে পারবেন না। ল্যাপটপ পুরানো হলে কীবোর্ডের বিভিন্ন "কি" গুলো কাজ করতে চায় না। তাই চেষ্টা করুন প্রতিটি অক্ষর টাইপ করে সব গুলা সঠিকভাবে কাজ করে কিনা।

৪। পারফরমেন্স দেখে নিনঃ পুরাতন জিনিস গুলোর পারফরমেন্স অতিমাত্রায় ভালো কখনোই থাকেনা। তবে একদম খারাপ পারফরমেন্স করা ল্যাপটপ দিয়ে আপনি কোনো কাজই করতে পারবেন না। আপনি যে কাজের জন্য ল্যাপটপ কিনবেন সে কাজটি সঠিকভাবে করা যাচ্ছে কিনা সেটা ভালোভাবে দেখে নিন। ধরুন, আপনি গেম খেলার জন্য পুরাতন ল্যাপটপ কিনবেন। কেনার পূর্বে আপনি যে গেম খেলবেন সেটা খেলে দেখুন সঠিকভাবে গ্রাফিক্স পাচ্ছেন কি না। কোনো প্রকার ল্যাগ দেখা যাচ্ছে কিনা।

৫। পোর্টসগুলো কাজ করে কিনা দেখে নিনঃ একটি ল্যাপটপ অনেক গুলো পোর্টসের সমন্বয়ে গঠিত হয়ে থাকে। এক একটি পোর্টস এর আলাদা আলাদা কাজ। আর ল্যাপটপে কাজ করতে হলে প্রতিটা পোর্ট এর কার্যকক্ষমতা অনেক বেশী জরুরি। যদি আপনার টাচপ্যাড কাজ না করে মাউস দিয়ে কাজ করতে হলে ইউএসবি পোর্ট দিয়ে কানেক্ট করতে হবে। আলাদা স্পিকারের জন্য আলাদা পোর্ট। স্ক্রিন শেয়ার করার জন্য আলাদা HDMI পোর্ট। আপনি যদি কোনো পুরাতন ল্যাপটপ ক্রয় করতে অবশ্যই সবগুলো পোর্ট কাজ করে কিনা ভালোভাবে দেখে নিবেন।

৬। ডিসপ্লে ঠিক আছে কিনা চেক করে নিনঃ ল্যাপটপের স্ক্রিন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। পুরাতন ল্যাপটপ গুলোতে বিভিন্ন কারনে দাগ, স্পট পরে যায়। অনেক সময় বিভিন্ন জিনিসের ধাক্কার ফলে ডিসপ্লের ভিতর ঘোলা অংশ বা আলাদা আলাদা রেখা দেখা যায়। যেগুলো দিন দিন বাড়তে থাকে একসময় সম্পুর্ণ ভাবে নষ্ট হয়ে যায়। পুরাতন ল্যাপটপ কেনার পূর্বে এই জিনিস গুলো খুব ভালোবে দেখে নিবেন। ডিসপ্লেতে কোনো সমস্যা আছে কিনা।

৭। সার্ভিসিং করানো হয়েছে কিনা চেক করে নিনঃ পুরাতন ল্যাপটপ গুলো অনেক সময় বিক্রির পূর্বে অরিজিনাল পার্টস গুলো খুলে ডুপ্লিকেট পার্টস গুলো দিয়ে দেয়া হয়। যার ফলে কিছুদিন পর আর কাজ করে না। পুরাতন ল্যাপটপ কেনার পূর্বে এটা অবশ্যই খুব ভালো করে দেখে নিবেন।

৮। ব্রান্ড ও কনফিগারেশন দেখে নিনঃ আমরা সবাই ল্যাপটপ ক্রয় করি বিভিন্ন কাজের জন্য। কাজ করার মাত্রা অতি দ্রুত করার জন্য ল্যাপটপ অনবদ্য ভুমিকা পালন করে থাকে। আপনি যে কাজগুলো করবেন সে কাজের চাপ অনুযায়ী যদি ল্যাপটপের কনফিগারেশন না থাকে। তবে আপনি কখনোই কাজ করতে পারবেন না। কারণ, ল্যাপটপ একটি নির্দিষ্ট পরিমান কাজ করতেই সক্ষম। আপনি যদি পিসির সাথে কমপেয়ার করেন তাহলে আপনি ঠকবেন। পিসির চেয়েও অনেকাংশে কম কাজ করে যদি ও এক রকম কনফিগারেশন হয়।

শেষ কথা

পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয় এই ৮ বিষয়কে ভালোভাবে দেখে নিন। পুরাতন ল্যাপটপের নাম নির্ধারিত করা হয় সেটার কার্যক্ষমতা বিচার করে। আপনি খুজে খুজে যত বেশী সমস্যা বের করতে পারবেন আপনার হেরে আসার চান্স অনেক কম। পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয় পোষ্টটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?