Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/09/how-to-recognize-a-good-laptop.html

ভালো ল্যাপটপ চেনার উপায়

ভালো ল্যাপটপ চেনার উপায় — ল্যাপটপ কেনার পূর্ব আমাদের জানা উচিত একটি ভালো ল্যাপটপের বৈশিষ্ট্য ও চেনার উপায়। তা নাহলে অজ্ঞতা বশত ল্যাপটপ কিনতে গেলে আমরা আমাদের প্রয়োজন অনুযায়ী ল্যাপটপ কিনতে পারবো না। সাধারনত বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় যে, আমাদের ল্যাপটপের বিষয়ে ভালো জ্ঞান না থাকার কারণে দোকানের সেলসম্যানের তথ্য অনুযায়ী ল্যাপটপ ক্রয় করি। কিন্তু সেলসম্যান আপনার কথা বিবেচনা না করে, তার ব্যবসার লাভের কথা বিবেচনা করে আপনাকে ল্যাপটপ দিবে। এধরনের ল্যাপটপে কিছুদিনের মধ্যেই নানা সমস্যা দেখা দেয়।

ভালো ল্যাপটপ চেনার উপায়

প্রশ্ন হলো বাজারে কোন ল্যাপটপ সবথেকে ভালো। সাধারণত প্রশ্নটির নির্দষ্ট কোনো উত্তর নেই। বর্তমান বাজারে বিভিন্ন ধরণের ল্যাপটপ আছে যেগুলো একটি আরেকটি থেকে দামে এবং কনফিগারেশনে সম্পুর্ণ আলাদা। কোন ল্যাপটপ সবথেকে ভালো? এটির উত্তর দেয়ার আগে জানা উচিত, আপনি কি কাজ করার জন্য ল্যাপটপ কিনবেন ও কেমন বাজেটের মধ্যে ল্যাপটপ কিনবেন।

আপনি যদি সাধরণ কাজের জন্য ল্যাপটপ কিনতে চান। যেমনঃ গান শোনা, মুভি দেখা, ইউটিউব চালানো ইত্যাদি। তাহলে, আপনি ৩০ হাজারের মধ্যেই ভালো ল্যাপটপ পেয়ে যাবেন। কিন্তু আপনি যদি ল্যাপটপ কিনতে চান ভিডিও গেম খেলা, গ্রাফিক্স ডিজাইন ইত্যাদি বড় বড় কাজের জন্য। তাহলে ভালো ল্যাপটপ কিনতে গেলে আপনার বাজেট রাখতে হবে সর্বোনিম্ন ৪০ হাজার। আমি দাম সম্বন্ধে কাথা বলবো না। একটু ধারণা দিলাম মাত্র।

ল্যাপটপ কেনার আগে আমাদের মনে অনেক প্রশ্ন আসে। যেমনঃ কোন ল্যাপটপ কিনবো Core i3 প্রসেসর নিবো নাকি Core i5 নিবো নাকি Core i7 নিবো, এই সব প্রশ্ন চিন্তা করি। আবার র‌্যামের ক্ষেত্রে সকলের সাধারণ প্রশ্ন হচ্ছে যে ৪ জিবি ব্যবহার করলে ভালো হবে নাকি ৮ জিবি র‍্যাম নিলে ভালো হবে? ভালো ল্যাপটপ চিনতে গেলে যে যে বিষয়ের উপর খেয়াল রাখতে হবেঃ

ল্যাপটপের আকার

ল্যাপটপ কেনার সময় প্রধান বিষয় হয় যদি বহন করা তাহলে নোটবুক কেনা উচিত। নোটবুক কেনার সময় ওজন দেখে নেওয়া দরকার। এক্ষেত্রে যেগুলো আল্ট্রবুক হিসেবে চিহ্নিত সেগুলো কেনাই ভালো। এগুলো যেমন হালকা তেমনই সরু। সধারণত যেসকল ল্যাপটপের স্ক্রিন সাইজ ১২.৫-১৩.৩ সেগুলোর ওজন ১ থেকে ১.৫ কেজি হয়ে থাকে। তবে আপনি যদি আল্ট্রাবুক কিনতে চান তাহলে আপনাকে বাজেট নিয়ে রাখতে হবে ৪০ হাজারের উপরে।

আরও পড়ুনঃ ন্যানো টেকনোলজি কি | ন্যানো টেকনোলজি কিভাবে কাজ করে

ডিসপ্লে রেজুলেশন

1366 x 768 সাইজের ডিসপ্লে হচ্ছে হাফ এইচডি এবং 1920 x 1080 সাইজের ডিসপ্লে ফুল এইচডি। বর্তমান সময়ে হাফ এইচডি ডিসপ্লের চাহিদা নেই বললেই চলে। সেজন্য নতুন ল্যাপটপ কেনার ক্ষেত্রে অবশ্যই ফুল এইচডি ডিসপ্লের ল্যাপটপ কেনার চেষ্টা করবেন। তাহলে হাই রেজিউলেশনের ভিডিও দেখা, গেমিং করা এবং গ্রাফিক্সের কাজ করার ক্ষেত্রে অনেক স্বচ্ছ এবং ঝকঝকে ছবি দেখতে পারবেন।

প্রসেসর | ভালো ল্যাপটপ চেনার উপায়

প্রসেসরের মধ্যে ভালো হবে Intel এর প্রসেসর। কিন্তু, প্রসেসরের ক্ষেত্রে আপনি AMD এর প্রসেসর কিনবেন নাকি Intel এর প্রসেসর কিনবেন? আসলে এটি বাজেটের উপর নির্ভর করে। আপনি কি রকম দামের ল্যাপটপ কিনবেন তার উপর নির্ভর করে যে, আপনার জন্য AMD প্রসেসর ভালো হবে নাকি Intel এর প্রসেসর ভালো হবে? 

আপনার বাজেট যদি ৩০ হাজার টাকার উপরে হয়। তাহলে আপনি Intel এর প্রসেসর যুক্ত ল্যাপটপ নিতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনি AMD প্রসেসরের থেকে ভালো পারফরম্যান্স পাবেন। Intel এর প্রসেসর তুলনামূলকভাবে অন্য সকল প্রসেসরের চাইতে কম শক্তি অপচয় করে। কিন্তু আপনার বাজেট যদি ৩০ হজারের নিচে হয়। তাহলে আপনাকে AMD এর প্রসেসর যুক্ত ল্যাপটপ নিতে হবে। 

কেননা, এই বাজেটের মধ্যে Inlel এর প্রসেসর যুক্ত ল্যাপটপ ভালো হবেনা। এবার ল্যাপটপ কেনার ক্ষেত্রে সবচেয়ে প্রশ্ন হলো কোন ধরণের প্রসেসর যুক্ত ল্যাপটপ কিনবো। বর্তমানে বাজারে Pentium, Dual Core, Core i3, Core i5, Core i7 এবং সর্বশেষ Core i9 প্রসেসরের ল্যাপটপ পাওয়া যায়। কোনটি আপনার জন্যে পারফেক্ট হবে সেটা জানার পূর্বে Core কি, সেটা জেনে নিলে আপনার জন্যে Core i3 নাকি Core i5 ভালো হবে সেটা নিজে নিজেই বুঝতে পারবেন। 

Core হচ্ছে কম্পিউটার প্রসেসর এর শক্তি। একটি প্রসেসরে যত বেশি Core থাকে সেই প্রসেসর তত শক্তিশালী হয় এবং কম্পিউটার দ্রুত কাজ করে। Core i5 Core i3 এগুলো হলো একেকটি জেনারেশন। Core i5 এর প্রসেসরের প্রসেস করার শক্তি Core i3 থেকে দ্বিগুন। তবে জেনারেশন যত বেশি হবে ল্যাপটপের দাম ততো বেশি হবে।

র‌্যাম (RAM)

র‌্যাম হলো ল্যাপটপের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। প্রসেসর যতই শক্তিশালী হোক না কেনো র‌্যাম যদি তুলনামূলক কম হয় তাহলে কোনো গতি পাওয়া যাবেনা। তাই প্রসেসরের শক্তি অনুযায়ী র‌্যাম কম বেশি হয়ে থাকে। আপনি যদি Core i3 ল্যাপটপ কিনেন তাহলে অবশ্যই ৪ জিবি র‌্যামের ল্যাপটপ কিনবেন। কিন্তু Core i5 প্রসেসরের ল্যাপটপ কিনলে ৮ জিবি এবং Core i7 প্রসেসরের ক্ষেত্রে অবশ্যই ১৬ জিবি র‌্যামের ল্যাপটপ কিনতে হবে। সেই সঙ্গে 8th, 9th এবং 10th জেনারেশনের ল্যাপটপের ক্ষেত্রে অবশ্যই DDR4 র‌্যামের ল্যাপটপ ক্রয় করবেন। কেননা DDR4 র‌্যাম অনেক শক্তিশালী হয়।

আরও পড়ুনঃ কমন ইন্টারভিউ প্রশ্ন Tell Yourself এর উত্তর কি হবে

হার্ড ডিস্ক 

হার্ড ডিস্ক বা রম ল্যাপটপ কেনার সময় বেশি দেখে কেনা উচিত। যাতে করে পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় তথ্য সংরক্ষণের জন্য জায়গার অভাবে ভুগতে না হয়। সাধারণত হার্ড ডিস্ক সময়ের সাথে স্লো হয়ে যায়। বাজেট একটু বেশি হলে, হার্ডডিস্কের পরিবর্তে এসএসডি স্টোরেজ নিতে পারেন। ২৫০ জিবি এসএসডি স্টোরেজের দাম পড়বে ৮ হাজার টাকা। একটি 1TB হার্ড ডিস্ক এর পাশাপাশি একটি 128GB কিংবা 256GB SSD যুক্ত ল্যাপটপ কিনলে ল্যাপটপের স্পিড অনেক বেশি পাবেন। কারণ SSD এর মধ্যে Windows ইনস্টল করে রাখলে ল্যাপটপ অনেক দ্রুত কাজ করবে।

ব্যাটারি ক্যাপাসিটি | ভালো ল্যাপটপ চেনার উপায়

ল্যাপটপের ব্যাটারির গায়ে যে রেটিং দেওয়া থাকে। এটি দেখে ল্যাপটপের ব্যাটারি কেনা উচিত। যে সকল ব্যাটারীর গায়ে লেখা থাকে 44Wh বা 50Wh সেগুলো বেশি সময় ধরে চার্জ সংরক্ষণ করতে পারে। ল্যাপটপের ডকুমেন্ট দেখে এর ব্যাটারি ব্যাকআপ টাইম সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নেবেন। বেশিক্ষণ ব্যাটারি ব্যাকআপ পাওয়া যায় এমন ল্যাপটপ কিনবেন।

অপারেটিং সিস্টেম (সফটওয়্যার)

অপারেটিং সিস্টেমের ক্ষেত্রে সবসময় Windows অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা ভালো। কারণ এটি খুবই অল্প দামে কিনতে পাওয়া যায়। এছাড়া ইন্টারনেট থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন।

ফুল সাইজের এসডি কার্ডের পোর্ট

ল্যাপটপে অনেক সময় এসডি কার্ড লাগানোর প্রয়োজন পড়ে। এজন্য ল্যাপটপের সাথে এসডি কার্ডের স্লট আছে কিনা তা দেখে নেওয়া উচিত।

ওয়্যারলেস কানেকশন এবং ব্লুটুথ

ডুয়াল ব্যান্ডের যেসকল অ্যাডাপ্টর পাওয়া যায় সেগুলো ভালো মানের হয়ে থাকে। ব্লুটুথের ক্ষেত্রে এখন বাজারে ব্লুটুথ ৪.০ সবচেয়ে ভালো।ওয়াই ফাই অ্যাডাপ্টরের ক্ষমতা দেখে ল্যাপটপ কিনতে হবে যাতে নির্বিঘ্নে ওয়্যারলেস নেটওয়ার্ক চালনো যায়।

কোন ব্রান্ডের ল্যাপটপ কিনবেন?

ল্যাপটপ কেনার ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো ব্রান্ড। ল্যাপটপ কেনার আগে আমরা এটা ঠিক করতে পারিনা যে, কোন ব্রন্ডের ল্যাপটপ কিনব। কেউ বলে Dell, কেউ বলে HP, কেউ বা বলে ASUS ইত্যাদি। ব্রান্ডের ক্ষেত্রে আমি সরাসরি বলবো যে, সবথেকে ভালো ব্রান্ডের ল্যাপটপ হচ্ছে Apple অ্যাপলের ল্যাপটপ। কিন্তু অ্যাপলের ল্যাপটপ অনেক দামি হওয়ার কারণে সবাই কিনতে পারেনা।

এই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়লে আমার মনে হয়না যে, ভালো ল্যাপটপ সিলেক্ট করতে আপনাদের সমস্যা হবে। যারা মনোযোগ সহকারে পোস্টটি পড়েছেন তারা এখন অন্যের সাহায্য ছাড়াই ভালো ল্যাপটপ কিনতে পারবে।

আরও পড়ুনঃ স্মার্ট টিভি এবং এন্ড্রয়েড টিভির মধ্যে পার্থক্য

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া