Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/12/adsense-account-kholar-niyom.html

এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম

এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম — আপনি যদি একজন ব্লগার হয়ে থাকেন এবং যদি আপনি আপনার ব্লগসাইট দিয়ে গুগলের মাধ্যমে টাকা আয় করার কথা ভেবে থাকেন। তাহলে আপনার জন্য একটি গুগল এডসেন্স একাউন্ট তৈরি করা হবে প্রথম গুরুত্বপূর্ণ লক্ষ্য। আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইটে ভালো পরিমাণে ভিজিটর পান তবেই আপনার উচিত একটি গুগল এডসেন্স অ্যাকাউন্ট তৈরি করা। অন্যথায় অযথা গুগল এডসেন্স একাউন্ট তৈরি করা উচিত নয়। 

এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম

যদিওবা গুগল এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম অনেক সহজ কিন্ত ওয়েবসাইটে এডসেন্সের অ্যাপরুভাল পাওয়া মোটেও সহজ কাজ নয়। আজকের এই আর্টিকেলে আমরা কিভাবে গুগল এডসেন্স একাউন্ট খুলব? এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম, গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়, কিভাবে এডসেন্স থেকে টাকা তুলবো এবং কিভাবে একটি ইউটিউ চ্যানেল দিয়ে এডসেন্স একাউন্ট খুলতে হয় সেই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো। প্রিয় পাঠক আর রোবোটিক কথাবার্তা না বলে চলুন জেনে নেই এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে। যদি আপনারা গুগল থেকে টাকা আয় করতে চান তাহলে এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে পোস্টটি মনোযোগ সহকারে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ে নিন।

পেজ সূচীপত্রঃ

গুগল এডসেন্স কি — গুগল এডসেন্স অ্যাকাউন্ট কি

আপনারা নিশ্চয় জেনে রাখবেন যে, গুগল এডসেন্স হচ্ছে মূলত অনলাইন ভিত্তিক একটি অ্যাডভার্টাইজমেন্ট সংস্থা যা মূলত গুগল নিজেই পরিচালনা করে আসছে। অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য যত ধরনের উপায় আছে তন্মধ্যে আমার কাছে মনে হয় গুগল এডসেন্স হচ্ছে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। 

গুগল বিভিন্ন বিজ্ঞাপন প্রদানকারী কোম্পানির কাছে থেকে টাকার বিনিময়ে তাদের আওতাধীন যতগুলো ওয়েবসাইট রয়েছে সেগুলোতে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা ইনকাম করে। গুগল এডসেন্স বিজ্ঞাপন থেকে যত টাকা ইনকাম করে তারমধ্যে ৬৮ শতাংশ টাকা ওয়েবসাইটের মালিকদেরকে দিয়ে থাকে এবং বাকী ৩২ শতাংশ টাকা গুগল নিজে রেখে দেন। যদিও আপনারা এই ৩২ শতাংশ টাকা কেটে নেওয়ার পদ্ধতি দেখতে পারবেন না।

আরও পড়ুনঃ গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট এপ্রুভ হচ্ছে না | গুগল অ্যাডসেন্স কিভাবে এপ্রুভ করবেন

এডসেন্স একাউন্ট খোলার জন্য কি কি লাগে

যদি আপনি গুগল এডসেন্স একাউন্ট খুলতে চান তাহলে আপনাকে গুগল এডসেন্সের কিছু নিয়ম কানুন অনুসরণ করতে হবে। গুগলে এডসেন্সের নিয়ম-কানুন অনুসরণ না করে গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করলে সেই এডসেন্স আপ্রুভাল পাবেনা। আর কিছু কিছু নিয়ম-কানুন আছে যেগুলো ব্যতীত গুগল এডসেন্স একাউন্ট খোলা যায়না। গুগল এডসেন্স একাউন্ট খোলার জন্যে আপনাকে নিম্নোক্ত কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ শর্ত এবং নিয়ম অনুসরণ করতে হবে। যেমনঃ

১। জিমেইল আইডি – একটি গুগল আইডি যা ব্যবহার করে এডসেন্স একাউন্ট খোলা যাবে ২। আপনার বয়স কমপক্ষে ১৮ বছর হতে হবে ৩। মোবাইল নাম্বার – একটি ভ্যালিড মোবাইল নাম্বার দিতে হবে যে নাম্বারে অ্যাড্রেস ভেরিফাই করা লাগবে ৪। ব্লগে পর্যাপ্ত আর্টিকেল থাকতে হবে ৫। ভ্যালিড অ্যাড্রেস প্রুফ – আপনার পেমেন্ট অ্যাড্রেস প্রুফ লাগবে যে ঠিকানায় ভেরিফিকেশন পিন চিঠি পাঠানো হবে। তবে ভাই মনে রাখবেন, এডসেন্স একাউন্ট তৈরি করার সময়ে কোনো ধরণের ভুল ইনফরমেশন দিবেন না। নিজের নাম, অ্যাড্রেস, মোবাইল নাম্বার ইত্যাদি সবগুলো ভালো করে যুক্ত করবেন। কেননা ভবিষ্যতে এই সকল তথ্যগুলো verify করা হবে ৬। ইউটিউব চ্যানেল/ব্লগ/ওয়েবসাইট – এগুলোতে এডসেন্সের দ্বারা বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করা হবে।

এছাড়াও একটি এডসেন্স একাউন্ট তৈরি করার জন্য আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হচ্ছেঃ আপনাকে এমন একটি ওয়েবসাইট ডিজাইন করতে হবে, যে ওয়েবসাইটটি গুগল এডসেন্সের প্রত্যেকটি নিয়ম-কানুন অনুসরণ করে। কেননা যদি আপনারা গুগল এডসেন্সের নিয়ম-কানুন অনুসরণ না করেই একটি এডসেন্স একাউন্ট ক্রিয়েট করেন। সেক্ষেত্রে সাইটের জন্য গুগল এডসেন্স আপ্রুভাল পাওয়াটা অনেক ঝামেলার সৃষ্টি হবে। 

তাছাড়াও যদিওবা সাইটটি আপ্রুভাল পেয়ে যায়, ভবিষ্যতে উক্ত একাউন্টি অক্ষম বা স্থগিত হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। মনে রাখবেন আপনি একটি ডিভাইসে কেবলমাত্র একটি এডসেন্স একাউন্ট ব্যবহার করতে পারেন। কেননা গুগল কেবলমাত্র একটি ডিভাইসে আপনাকে একটিমাত্র এডসেন্স একাউন্ট তৈরি করতে দেয়। আর এই একটি এডসেন্স একাউন্টে আপনারা ৫০০ এর মতো ওয়েবসাইট ও চ্যানেল ব্যবহার করতে পারবেন।

উপরোক্ত বিষয়গুলো আপনার কাছে থাকলেই আপনি নিজে নিজেই এডসেন্স একাউন্ট খুলতে পাবেন।তবে এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে জানার পূর্বে আপনাকে অবশ্যই এডসেন্সের জন্যে কোন সময় আবেদন করতে হবে সেটা জেনে নিতে হবে। 

আরও পড়ুনঃ ওয়ার্ডপ্রেস শিখে আয় করুন ঘরে বসেই | ওয়ার্ডপ্রেস থিম কাস্টমাইজেশন কোর্স

এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম, এডসেন্সের জন্যে আবেদন কখন করবেন

আমাদের মাঝে অনেকেই আছেন যারা একটি ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইট তৈরি করে সেই সাইটিকে কোনো ভাবে ডিজাইন করে তারপরে সেখানে সামান্য কয়েকটি পোস্ট পাবলিশ করার পরে থেকেই কোনো কিছু না দেখেই গুগল এডসেন্স একাউন্টের জন্যে আবেদন শুরু করে দেয়। আর এটি হচ্ছে মূলত ব্লগসাইটে বা ওয়েবসাইটে এডসেন্স অ্যাপ্রুভ না হওয়ার একটি বড় কারণ। আমি নিজেই আমার ব্লগিং ক্যারিয়ারের অভিজ্ঞতা থেকে বলতে চাই যে, যদি আপনি ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইটের জন্য এডসেন্সের আবেদন করতে চান তবে আপনাকে অবশ্যই কয়েকটি বিষয়ের উপর খেয়াল রাখতে হবে সেগুলো হচ্ছেঃ

ওয়েবসাইটের মধ্যে মিনিমাম ২০ থেকে ২৫ টি আর্টিকেল পাবলিশ করতে হবে। পোস্টগুলো অবশ্যই ইউনিক এবং ১০০% কোয়ালিটি সম্পূর্ণ হতে হবে। যদি আপনার ওয়েবসাইটে কয়েকটি ক্যাটাগরি উল্লেখ করা থাকে তবে প্রত্যেক ক্যাটাগরিতে কমপক্ষে ৪ থেকে ৫ টি করে পোস্ট রাখতে হবে। ওয়েবসাইটের প্রত্যেকটি গুরুত্বপূর্ণ পেজগুলোকে যেমনঃ About us, Privacy policy, Contact us থাকতে হবে। গুগল এডসেন্সের প্রোগ্রাম নীতিগুলো কি কি এবং সেগুলোর লঙ্ঘন যাতে না হয় সে সম্পর্কে বিস্তারিত পরে নিন।

অনেকেই বলেন যে, গুগল এডসেন্স একাউন্টের জন্যে আবেদন করার সময়ে ওয়েবসাইটে ভিজিটরের পরিমাণ দেখা যায়না। তবে আমি বলবো ডেইলি যখন আপনার ওয়েবসাইটে মিনিমাম ১০০-২০০ ভিজিটর সার্চ ইঞ্জিন থেকে আসবে, তখন আপনার একটি গুগল এডসেন্স একাউন্ট তৈরি করে নিন। এতে করে খুবই সহজে ওয়েবসাইটের জন্য আপনারা এডসেন্স এপ্রুভাল পেয়ে যাবেন। প্রিয় পাঠক এবার চলুন আসা যাক মূল আলোচনা এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়মঃ

এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম

গুগল এডসেন্স থেকে আয় করতে হলে গুগল এডসেন্স একাউন্ট কিভাবে খুলতে হয় সর্বপ্রথম সেই সম্পর্কে আপনাকে জানতে হবে। অনেকের ওয়েবসাইটে কোয়ালিটিফুল আর্টিকেল থাকার পরেও তারা শুধুমাত্র গুগল এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে না জানার কারণে প্রথমবার গুগল এডসেন্সের জন্যে এপ্লাই করে তাদের সাইটে এডসেন্স এপ্রুভ করতে পারেনা। এডসেন্স একাউন্ট কিভাবে তৈরি করবেন, আজকের এই আর্টিকেলে আমরা সেই সম্পর্কে বিস্তারিত জানবো। প্রথমেই আমরা জানবো একটি ওয়েবসাইটের জন্যে কিভাবে গুগল এডসেন্স একাউন্ট খুলতে হয়? তারপরে আমরা জানবো কিভাবে ইউটিউব চ্যানেলের জন্যে এডসেন্স একাউন্ট খুলতে হয়?

আরও পড়ুনঃ সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেন কি | গুগলে ওয়েবসাইট র‍্যাংক করার উপায়

এডসেন্স একাউন্ট খোলার জন্য তিনটি মূল ভাগ আছেঃ 

প্রিয় পাঠক নিম্নে আমরা সরাসরি একটি এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে আলাচনা করেছি। জেনে রাখা ভালো এডসেন্স একাউন্ট খোলার সময় কোনো ধরণের ভুল তথ্য প্রদান করবেন না। আপনার সঠিক নাম, সঠিক এড্রেস, মোবাইল নাম্বার ইত্যাদি ভালোভাবে যুক্ত করুন। কেননা এই তথ্যগুলো ভবিষ্যতে যাচাই করার প্রয়োজন হবে। একটি সম্পূর্ণ এডসেন্স একাউন্ট খোলার জন্য ৩ টি প্রধান অংশ আছে। এডসেন্স একাউন্ট খোলার জন্য প্রধান ৩ টি অংশগুলো হলোঃ 1. Sign Up For AdSense 2. Add AdSense Ad Code To Your Blog 3. Wait For Account Review Process। এই তিনটি বিষয় সম্পর্কে আপনারা নিচে পরলেই জানতে পারবেন।

১. Sign Up For AdSense Account

এডসেন্স একাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম adsense.com এই ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে হবে। উক্ত ওয়েবসাইট থেকে আপনাকে Sign Up Now নামের একটি অপশন দেখতে পারবেন।

ধাপ ১। Go to sign up page

গুগল এডসেন্স একাউন্ট খোলার জন্য সরাসরি sign up এই অপশনের মধ্যে ক্লিক করুন। অথবা, প্রথমেই ভিজিট করুন এখানে – sign up for Google AdSense। তারপর আপনি একটি পেজ দেখতে পারবেন সেখানে একটি ফর্ম করা থাকবে সেই ফর্মটি সঠিকভাবে ফিলাপ করতে হবে।

তারপর, উপরের মতো ছবিতে আপনি অবশ্যই দেখতে পাচ্ছেন যে ফর্মের মাঝে কি কি প্রদান করতে হবে।

Your website – এখানে আপনি যে ওয়েবসাইটের জন্য গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করবেন সেই ওয়েবসাইট/ব্লগের ডোমেইন নেম প্রদান করুন।

Your email address – এরপর আপনাকে একটি জিমেল আইডি দিতে হবে। যে জিমেইল আইডি দিয়ে আপনি গুগল এডসেন্স একাউন্ট ক্রিয়েট করতে চান।

Get helpful AdSense info at the email address – এখানে আপনাকে “Yes” অপশনে টিকমার্ক দিতে হবে।

তারপর নিম্নে এই Save And Continue বাটনে ক্লিক করে দিন।

আরও পড়ুনঃ ব্লগে পোস্ট করার নিয়ম | ব্লগ সাইটে SEO friendly পোস্ট করার নিয়ম

ধাপ ২। Select Your Country

তারপর পরবর্তী পেজে আপনি আরেকটি ফর্ম দেখতে পারবেন যেখানে আপনাকে আপনার দেশ সিলেক্ট করতে হবে।

Select Your Country or Territory এই লেখাটি যেখানে আছে তার নিচে থেকে নিজের দেশটিকে সিলেক্ট করে নিন।

তারপর, একটু নিচেই আপনি accept terms and conditions এই ধরনের একটি অপশন দেখতে পারবেন।

Please Review And Accept Our Terms And Conditions লেখার নিচে আপনারা গুগল এডসেন্সের কিছু নিয়ম কানুন ও শর্তাবলী সম্পর্কে লেখা থাকবে।

আপনি সেখানে Yes, I have read and accept the agreement এই অপশনটিকে সিলেক্ট করে নিবেন।

তারপর আপনি Create account এই লিংকে ক্লিক করে নিন।

উপরোক্ত কাজগুলো করার পরে আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্ট ক্রিয়েট করার প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ ভাবে হয়ে যাবে।

তবে হ্যাঁ মনে রাখা ভালো, গুগল এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া এখনো কিন্তু পুরোপরি শেষ হয়নি।

ধাপ ৩। Add Payment Address & Phone

উপরোক্ত কাজগুলো করার পরে আপনার নিজেই ক্রিয়েট করা নতুন AdSense Account Dashboard এ ভিজিট করুন, সেখানে ভিজিট করার পর আপনি Get started নামের একটি অপশন দেখতে পারবেন সেখানে ক্লিক করুন।

তারপর, আপনাকে একটি Payment Profile তৈরি করার জন্য বলা হবে।

উপরে ছবিতে আপনি অবশ্যই দেখতে পাচ্ছেন যে, আপনাকে কি কি ইনফরমেশন গুলো ব্যবহার একটি Payment Profile তৈরি করে নিতে হবে।

Account Type – এখানে আপনাকে Individual অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে।

Name and Address – এখন Name এর জায়গাতে আপনার নিজের সঠিক নাম প্রদান করুন এবং তারপরে Address জায়গাতে নিজের সঠিক অ্যাড্রেস টাইপ করুন। Postal Code, City, State সবগুলো ঠিকঠাক ভাবে প্রদান করতে হবে।

Phone Number – নিজের একটি সঠিক সচল ফোন নাম্বার এখানে প্রদান করুন।

Submit – এই কাজগুলো করার পরে Submit এই অপশনে ক্লিক করুন।

Submit বাটনে ক্লিক করার পরে পরবর্তী পেইজে আপনাকে আপনার সচল ফোন নাম্বারটি ভেরিফাই করতে হবে। ফোন নাম্বারের অপশনে নিজের সচল মোবাইল নাম্বার দিতে হবে এবং নিচে Text Message নির্বাচন করে Get Verification Code এই অপশনে ক্লিক করুন। তারপর আপনার প্রদান করা মোবাইলে গুগল থেকে একটি ভেরিফিকেশন কোড চলে আসবে। গুগল থেকে আসা উক্ত ভেরিফিকেশন কোডটি নেক্সট পেজে আপনি Enter verification code এই বক্সে প্রদান করে নিচে থাকা সাবমিট এখানে ক্লিক করতে হবে।

আরও পড়ুনঃ ব্লগারদের জন্য ২৫টি প্রয়োজনীয় ব্লগিং টুলস

ধাপ ৪। Blog/Website Review Process

মোবাইল নাম্বার ভেরিফাই করার সঙ্গে সঙ্গে আপনারা পরবর্তী পেজে একটি আলাদা ধরনের জিনিস দেখতে পারবেন।

সেখানে আপনাকে একটি HTML Code প্রদান করে হবে। সেই HTML Code টিকে কপি করে নিজের ব্লগ/ওয়েবসাইটের <Head> সেকশনের মাঝে বসিয়ে দিতে হবে।

Connect Your Site To AdSense এই লেখার নিচে আপনারা সেই HTML Code দেখতে পাবেন।

Your AdSense Code লেখার নিচেই HTML Code দেয়া আছে।

উক্ত HTML Code কপি করে নিন এবং নিজের ব্লগ/ওয়েবসাইটের <head></head> সেকশনের মাঝে পেস্ট করে দিন। কোডগুলো পেস্ট করার পরে ব্লগের থিমে সেভ অপশনে ক্লিক করতে হবে। ব্লগার সসাইটের মাঝে মধ্যে HTML Code টিকে পেস্ট করে সেভ করার পরে এডসেন্স ড্যাসবোর্ডে এসে I’ve Pasted The Code Into My Site এখানে টিকমার্ক দিন। তারপর নিচে থাকা Done বাটনে ক্লিক করুন।

ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটে কিভাবে এডসেন্স কোড বসাবেন

আপনার ওয়েবসাইটটি যদি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ডিজাইন করা হয়ে থাকে, তাহলে গুগল এডসেন্স কোড বসানোর কোনো প্রয়োজন নেই। তাহলে উপরোক্ত নিয়ম অনুযায়ী একটি গুগল এডসেন্স একাউন্ট খুলতে হবে। সাইটে শুধুমাত্র Site Kit Plugin ইনস্টল করতে হবে। আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স প্লাগিন ইনস্টল করতে পারেন না, তাহলে আপনি কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেসে প্লাগিন ইনস্টল করতে সেই সম্পর্কে দেখে নিন।

সাইটে Site Kit By Google প্লাগিন Install করে নিনঃ

১। ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের ড্যাসবোর্ড থেকে Site Kit > Settings এই অপশনে যেতে হবে। তারপরে CONNECT MORE SERVICES এই ট্যাবে ক্লিক করতে হবে। এরপর Setup adsense এখানে ক্লিক করুন।

২। এরপর Sign in With Google অপশনে ক্লিক করুন। আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্টটি যে জিমেইল আইডি ক্রিয়েট করেছেন সেই জিমেইল দিয়ে সাইন ইন করুন।

৩। Sign in With Google অপশনে ক্লিক করুন।

৪। উপরোক্ত কাজগুলো করার পরে যত ধরনের পপআপ চলে আসবে সবগুলো Allow করে দিবেন।

৫। Proceed অপশনে ক্লিক করুন।

৬। তারপর Add site এখানে ক্লিক করুন।

৭। এরপর Go to My Dashboard এই অপশনে ক্লিক করুন।

৮। এডসেন্সের Connect Service অপশনে ক্লিক করুন।

৯। Go to AdSense Account এখানে ক্লিক করুন। ক্লিক করার পরে আপনাকে সরাসরি গুগল এডসেন্সের ড্যাসবোর্ডে নিয়ে যাবে।

১০। সেখানে চেকবক্সে টিকমার্ক দিয়ে Done অপশনে ক্লিক করুন।

যদি আপনার উপরোক্ত কাজগুলো সবকিছুই ঠিকঠাক থাকে তবে নিম্নে দেখানো ছবির মতো করে নোটিফিকেশন চলে আসবে।

আপনার গুগল এডসেন্স অ্যাকাউন্ট কানেক্ট হয়ে গেছে। ২ সপ্তাহের মাঝে গুগল আপনার ওয়েবসাইটটিকে রিভিউ রাখবে এবং সবকিছুই যদি ঠিক থাকে তাহলে সাইটে বিজ্ঞাপন দেখাবো শুরু করবে।

আরও পড়ুনঃ ব্লগার থেকে টাকা আয় করার উপায় | ব্লগ দিয়ে ইনকাম করার উপায়

এডসেন্সের জন্য ব্লগ/ওয়েবসাইট সাবমিট করার পর কি করবেন

আপনি উপরোক্ত কাজগুলো করার মাধ্যমে সফলতার সাথে একটি নতুন গুগল এডসেন্স একাউন্ট ক্রিয়েট করেছেন এবং নিজের ব্লগ/ওয়েবসাইট টিকেও ভেরিফাই করার জন্য অনুরোধ করছেন। আপনি আপনার কাছে থেকে সকল কিছু করে দিয়েছেন এবং এখন আপনার তরফ থেকে আর কোনো কিছুই করার প্রয়োজন হবেনা। গুগল এডসেন্সের কারণে আপনার প্রদান করা ব্লগ/ওয়েবসাইটটিকে গুগল এডসেন্সের টিম ভালো ভাবে পর্যবেক্ষণ করবে ও যাচাই করবে। এই যাচাই বাছাই করার প্রক্রিয়াটিকে বলা হয়ে থাকে রিভিউ আছে। 

গুগল এডসেন্সের নিয়ম ও শর্তাবলীর মতে, আপনার ওয়েবসাইটের আর্টিকেলের কোয়ালিটি ভালো থাকলে এবং আপনার ওয়েবসাইটের দ্বারা গুগল এডসেন্সের নিয়ম-কানুন শর্তাবলীগুলো ঠিকঠাক ভাবে পালন করলে, তাহলে অবশ্যই তারা ২ সপ্তাহের মধ্যে আপনার ওয়েবসাইট/ব্লগটিকে এপ্রুভাল দেওয়া হবে। গুগল এডসেন্স অ্যাপ্রুভাল পাওয়ার পরে আপনি AdSense ad code গুলো নিজের ওয়েবসাইটে কোডিংয়ের মধ্যে পেস্ট করে দিন। এই কোডগুলো আপনার ওয়েবসাইটের বসানোর মাধ্যমে সাইটের বিজ্ঞাপন দেখানোর মাধ্যমে আপনি ডলার আয় করতে পারবেন। মনে রাখা ভালো আপনার ওয়েবসাইটটি গুগল এডসেন্সের জন্য অ্যাপরুভাল হবে কি হবেনা সেই সম্পর্কে আপনাকে আপনার জিমেইলের মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হবে।

ওয়েবসাইটে দ্রুত গুগল এডসেন্স পাওয়ার সহজ উপায়

নিম্নে আলোচনা করা বিষয়গুলো যদি আপনি আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগ অনুসরণ করতে পারেন তাহলে কোনো রকম ঝামেলা ছাড়াই গুগল এডসেন্সের আপ্প্রুভাল পেয়ে যাবেন।

আপনার ওয়েবসাইট/ব্লগে যেন কোনো বট ভিজিটর না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। ওয়েবসাইট/ব্লগে কোন ধরনের পেইড ট্র্যাফিক ব্যবহার করা যাবেনা। প্রতিদিন গুগল সার্চ থেকে যাতে করে আপনার ওয়েবসাইটে মিনিমাম ৮০-২০০ ইউনিক ভিজিটর আসলেই হবে।

অন্য কোনো ওয়েবসাইট থেকে আর্টিকেল কপি করে নিজের ওয়েবসাইটে ব্যবহার করা যাবে না। ওয়েবসাইটে কমপক্ষে ২০ থেকে ৩০ টি আর্টিকেল পাবলিশ করতে হবে এবং আর্টিকেলগুলোতে যেন কোয়ালিটিফুল এবং সকল বিষয়ে বিস্তারিত উল্লেখ করা থাকে। আপনার ওয়েবসাইটে যেন কোনো ধরনের অনৈতিক আর্টিকেল না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। ওয়েবসাইটের About Us, Contact Us, Privacy Policy রাখতে হবে। এছাড়াও গুগল এডসেন্স আরো অনেক নিয়ম-কানুন ও রুলস রয়েছে যেগুলোকে আপনার সাইটকে মানতেই হবে। এই বিষয়গুলো আপনি অনুসরণ করতে পারলেই খুবই সহজে গুগল এডসেন্স পেয়ে যাবেন।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম বা কিভাবে এডসেন্স একাউন্ট খুলতে হয় সে সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য আমি আপনাদেরকে দিলাম। এডসেন্স একাউন্ট খোলার নিয়ম পদ্ধতি একেবারে সহজ এবং আমাদের এই পোস্টটি পড়ার পরে আরো সহজেই আপনি গুগল এডসেন্স একাউন্ট খুলতে পারবেন। আশাকরি আপনার বুঝতে কোনো ধরনের সমস্যা হবেনা। 

যদি আমাদের আর্টিকেলটি আপনার কাছে ভালো লাগে তাহলে আর্টিকেলটি অবশ্যই আপনার টাইমলাইনে শেয়ার করবেন। তারপরেও যদি কোনো ধরনের সমস্যা হয় তাহলে আমাদেরকে কমেন্টে জানিয়ে দিন। আমাদের টেকনিক্যাল কেয়ার বিডি টিম আপনাকে নতুন এডসেন্স একাউন্ট ক্রিয়েট করতে সকল ধরনের সাহায্য করার চেষ্টা করবে।

আরও পড়ুনঃ ব্লগার নাকি ওয়ার্ডপ্রেস? ব্লগিং এর জন্য কোনটি সেরা?

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?