Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2022/03/subhanallah-meaning-bangla.html

সুবহানাল্লাহ অর্থ কি

সুবহানাল্লাহ অর্থ কি — সুবহানাল্লাহ অর্থ কি ও সুবহানাল্লাহ বলার ফজিলত সম্পর্কে আমরা সকলেই কমবেশি জানি। কিন্তু সুবহানাল্লাহ ব্যবহার এবং সুবহানাল্লাহ কখন বলতে হয় সেটা সম্পর্কে আবার হয়তো অনেকেই পুরোপুরি ভাবে জানিনা। সুবহানাল্লাহ অর্থ কি সেটা সম্পর্কে আমরা আজকের এই পোস্ট থেকে বিস্তারিত জেনে নিবো। 

সুবহানাল্লাহ অর্থ কি

আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনারা যা পাবেনঃ সুবহানাল্লাহ অর্থ, সুবহানাল্লাহ অর্থ কি, সুবহানাল্লাহ এর ফজিলত, সুবহানাল্লাহ এর অর্থ কি, সুবহানাল্লাহ আলহামদুলিল্লাহ লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ লিরিক্স সম্পর্কে বিস্তারিত। প্রিয় পাঠক আশা করি সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ সহাকারে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়বেন।

সুবহানাল্লাহ সম্পর্কিত সকল বিষয় পরিপূর্ণ ভাবে হাদিস এবং কুরআনের আলোকে জানানোর চেষ্টা করবো ইনশাল্লাহ। আমরা মুসলমান হিসেবে কয়েকটি আরবি শব্দ সবসময় বলে থাকি। তন্মধ্যে একটি শব্দ হচ্ছে সুবহানাল্লাহ। চলুন তাহলে আর দেরি না করে জেনে নেই সুবহানাল্লাহ অর্থ কি বা সুবহানাল্লাহ আরবি শব্দটির বাংলা অর্থ কি।

সুবহানাল্লাহ অর্থ কি

'সুবহানআল্লাহ' অর্থ → আল্লাহ তায়ালা মহান ও পবিত্র। কিংবা এইভাবেও বলতে পারেন সুবহানআল্লাহ মানে বরকতময় আল্লাহ বা প্রশংসা সেই আল্লাহর! হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, সুবহানআল্লাহ অর্থ হলোঃ আল্লাহ পবিত্র অর্থাৎ আল্লাহ তাআলা যাবতীয় মন্দ এবং সকল প্রকার দোষ-ত্রুটি থেকে সম্পূর্ণ পবিত্র।

সুবহানাল্লাহ কখন বলতে হয়

সুবহানাল্লাহ অর্থ কি তা আমরা উপরোক্ত আলোচনা থেকে জানতে পারলাম। 'সুবহানাল্লাহ' এর অর্থ হচ্ছেঃ সকল পবিত্রতা আল্লাহর। সুবহানাল্লাহ বলার জন্য নির্দিষ্ট কোন সময় বা নিয়ম নেই, তবে অনেকেই সুবহানাল্লাহ শব্দটি ভুল করে বিভিন্ন যায়গায় বলেন। সুবহানাল্লাহ কখন কোন সময় কোন অবস্থাতে বলতে হয় তা অনেকেই ভুল করে বসে এবং ভুল করার ফলে লাভের চেয়ে ক্ষতি বেশি হয়।

সেজন্য আমি কোরআন ও হাদিস থেকে এই সুবহানাল্লাহ কখন বলবেন সেই বিষয়ে আমি আপনাদের কিছু উদাহরণ হিসেবে নিচে দিয়ে দিলাম। চলুন তাহলে জেনে নেই আমরা কখন কোন কোন অবস্থাতে সুবহানাল্লাহ শব্দটি বলতে হয়ঃ ১। আল্লাহর মহিমা শুনে ২। ভালো কথা শ্রবণ করে ৩। সুন্দর ফল ও ফুল দেখে ৪। আশ্চার্যজনক কোনো কথা শুনে ৫। দৃষ্টিপাত বৈধ এমন কোনো সুন্দর জিনিস দেখে ইত্যাদি ক্ষেত্রে সুবহানাল্লাহ বলতে হয়।

সুবহানাল্লাহ এর ফজিলত

১। হযরত সাদ ইবনে আবি ওয়াক্কাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেনঃ আমরা রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নিকট ছিলাম। তিনি বললেন, তোমাদের কোনো ব্যক্তি প্রত্যেক দিন ১০০০ নেকি অর্জন করতে সক্ষম কি? তন্মধ্যে একজন বললেন, আমাদের মধ্যে কোনো ব্যক্তি কিভাবে ১০০০ হাজার নেকি অর্জন করবে? তখন রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, ১০০ বার সুবহানাল্লাহ বললে, তার জন্য ১০০০ হাজার নেকি লেখা হবে। অথবা তার ১০০০ পাপ মোচন করা হবে। (মুসলিম, ৪/২০৭৩ মিশকাত)

২। নবী করিম (সা.) বলেনঃ ‘সুবহানাল্লাহি ওয়াবিহামদিহি সুবহানাল্লিল আজিম’ এই কালেমা গুলো উচ্চারণে খুব সহজ, মিজানের পাল্লায় ভারী এবং দয়াময় আল্লাহ তায়ালার নিকট অতি প্রিয়। (সহিহ বোখারিঃ ৭/১৬৮)

৩। যে ব্যক্তি ‘সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি’ প্রতিদিন ১০০ বার পাঠ করবে সমুদ্রের ফেনা পরিমাণ (সগিরা) গুনাহ থাকলেও তাকে মাফ করে দেওয়া হবে। (সহিহ বোখারিঃ ৭/১৬৮)

৪। যে ব্যক্তি ‘সুবহানাল্লাহিল আজিমি ওয়াবিহামদিহি’ পাঠ করবে প্রতিবারে তার জন্য জান্নাতে একটি করে জান্নাতি খেজুর গাছ রোপন করা হবে। (তিরমিজিঃ ৫/৫১১)

আরো পড়ুনঃ রমজানের সময় সূচি 2022

সুবহানাল্লাহ আলহামদুলিল্লাহ লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ লিরিক্স

0 Comments