অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন

অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন - প্রিয় বন্ধুরা আজকের এই পোস্টে আমরা অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন কীভাবে করবেন এই বিষয় সর্ম্পকে জানাবো। এখন আমাদের প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ রয়েছে। কিন্তু এমন জায়গায় রয়েছে যেখানে এখনও বিদ্যুৎ পৌঁছায়নি। এবং ডিজিটাল মিটারের জন্য অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন করতে হয়। এখন আমরা অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন কিভাবে করবেন এ বিষয়টি তুলে ধরবো।

সূচিপত্রঃ অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন

আপনি যদি অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানতে চান তাহলে সম্পূর্ণ পোস্ট জুড়ে আমাদের সঙ্গে থাকুন। তাহলে চলুন দেরি না করে অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

ভূমিকাঃ অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন

এখন সকল কাজ আপনি বাড়িতে বসে অনলাইনের মাধ্যমে করতে পারবেন। যেমন বাড়ির বিদ্যুতের বিল বাড়িতে বসে দেওয়া যায় তেমন আপনি চাইলে অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন করতে পারবেন। যদিও বাংলাদেশের প্রায় সকল জায়গাতে বিদ্যুৎ পৌঁছে গিয়েছে তবুও কিছু কিছু জায়গায় রয়েছে যেখানে এখনও বিদ্যুৎ পৌঁছায়নি। আপনি অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন কিভাবে করবেন আজকের এই আর্টিকেল আপনাদের জানাবো।

আরো পড়ুনঃ অনলাইনে বিমানের টিকেট কাটার নিয়ম

পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করার শর্ত

অনলাইনে পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করার জন্য কিছু শর্ত রয়েছে যেগুলো বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি নির্দেশনা দিয়েছেন। আপনাকে অবশ্যই এই শর্তগুলো পূরণ করতে হবে তারপরেই আপনি বিদ্যুৎ সংযোগ আবেদন এবং নিতে পারবেন। তাহলে চলুন পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করার শর্ত সমূহ জেনে নেই।

১। পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করার সময় আপনাকে আপনার ছবি এবং জাতীয় পরিচয় পত্র স্ক্যান কপি সংযুক্ত করতে হবে।

২। সার্ভিস ড্রপের দূরত্ব ১৩০ ফুটের মধ্যে হতে হবে। আপনাকে সঠিকভাবে মেপে তারপর সার্ভিস ড্রপ এর দূরত্ব প্রদান করতে হবে। ভুল তথ্য দিলে আপনার আবেদন সংগ্রহ করা হবে না।

৩। আপনার বাসায় লোড ৮০ কিলোওয়াট এর বেশি হলে এটি সংযোগের নিয়মাবলী প্রযোজ্য হবে। এর জন্য আপনাকে এইচ টি সংযোগের জন্য আবেদন করতে হবে।

৪। অনলাইনে সার্ভে করার জন্য আপনাকে প্রয়োজনীয় ফি জমা দিতে হবে। এসকল বিষয় আপনাকে এসএমএস এর মাধ্যমে জানানো হবে।

পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করতে যা যা প্রয়োজন

আপনি যদি পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন করতে চান তাহলে আপনাকে প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্র থাকতে হবে। এগুলো যদি আপনার না থাকে তাহলে আপনি আবেদন করতে পারবেন না এবং আপনার আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে না। তাহলে চলুন অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন এর জন্য কি কি প্রয়োজন তা জেনে নেই।

১। আপনি যদি আবেদন করতে চান তাহলে আপনার নাম এবং মোবাইল নাম্বার দিতে হবে।

২। আপনি যদি আবেদনকারী হন তাহলে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর এবং স্থায়ী ঠিকানা থাকতে হবে।

৩। আপনার ঠিকানা থাকতে হবে

৪। আপনার সংযোগস্থলের জমির মালিকানা তথ্য দিতে হবে।

৫। ট্রান্সফর্মার সংযোগ নিতে চান সেই জায়গার আপনার পার্শ্ববর্তী গ্রাহকের বই নং এবং হিসাব নং দিতে হবে।

৬। আপনার নিকটবর্তী পর হতে আপনার বাসার দূরত্ব মেপে নিতে হবে।

৭। আপনার ভাষায় ব্যবহৃত লোড সংখ্যা গণনা করে নিতে হবে।

৮। আপনার ছবি জাতীয় পরিচয় পত্র নিজের জমির মালিকানা সবকিছুই স্ক্যান করে আপলোড করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ অনলাইনে ইনকাম করার উপায় ২০২২

অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন

এখন আমরা আমাদের এই এয়ারটেল এর মূল আলোচনার বিষয় অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন কিভাবে করবেন এই বিষয় সম্পর্কে জানব। আপনি যদি অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই কিছু নিয়ম-কানুন মেনে চলতে হবে। এ ধাপগুলো অনুসরণ না করলে আপনার আবেদন কখনো গ্রহণযোগ্য হবে না।

ধাপ ১ - অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন

আপনাকে প্রথমে যে কোন ব্রাউজার এ গিয়ে www.rebpbs.com এই ওয়েবসাইট ওপেন করতে হবে। ওয়েব সাইটে যাওয়ার পর আপনাকে মেনু থেকে আবেদন ক্লিক করতে হবে। এরপর দেখবেন ওপর একটি লাল চিহ্ন আছে এই চিহ্নে ক্লিক করে আপনাকে পূরণ করতে হবে।

আপনার এলাকা অনুযায়ী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি এবং জোন অফিস সিলেক্ট করতে হবে। আপনি কি বাসা বাড়ির জন্য নেবেন না বহুতলা ফ্ল্যাটের জন্য নিবেন এ বিষয়টি সিলেক্ট করতে হবে। তারপরে আবেদনকারীর নাম এবং পিতা-মাতার নাম বাংলায় লিখতে হবে। যেখানে যেখানে ইংরেজিতে তথ্য দেওয়ার কথা বলা হয়েছে সেখানে ইংরেজিতে লিখতে হবে।

এরপরে আবেদনকারীর ঠিকানা লিখতে হবে। এরপরে প্রস্তাবিত বিদ্যুৎ সংযোগের বিবরণ মৌজার নাম, জমির দাগ নম্ব্‌ লিখতে হবে সকল সংখ্যা এবং নাম্বারে ইংরেজিতে লিখতে হবে। এরপরের সর্বশেষ আপনাকে কানেকশন এর ধরন স্থায়ী বা অস্থায়ী সেটা উল্লেখ করতে হবে। সর্বশেষ নিচে যে ক্যাপচার টি দেখতে পাচ্ছেন সম্পূর্ণ পূরণ করে সংরক্ষন করুন এখানে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ ২ - অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন

সকল তথ্য সংরক্ষণ করার পর আপনি একটি ট্রাকিং নাম্বার এবং পিন নাম্বার পাবেন। এগুলো আপনাকে মোবাইলে ছবি তুলে রাখতে হবে অথবা সেভ করে রাখতে হবে। এর সাথে সাথে আপনাকে পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের আবেদন ফরম টি ডাউনলোড করে প্রিন্ট করে রাখতে হবে।

ধাপ ৩ - অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন

এরপরে আপনাকে বাসায় বিদ্যুৎ ওয়ারিং সম্পন্ন হয়েছে কিনা এ বিষয়ে নিশ্চিত করতে হবে। যার মাধ্যমে আপনাকে ট্রাকিং নাম্বার ও পিন নাম্বার লিংকে বসাতে হবে। এখানে ট্রাকিং নাম্বার এবং পিন নাম্বার সঠিকভাবে পৌছানোর পরে আপনাকে সম্পূর্ণ বাটনে ক্লিক করতে হবে। যার মাধ্যমে আপনার বাড়িতে ওয়ারিং এর কাজ সম্পন্ন হয়েছে এ বিষয়টি সম্পর্কে নিশ্চিত হবে।

ধাপ ৪ - অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন

এরপরে আপনাকে পল্লী বিদ্যুৎ মিটার আবেদন ফি জমা দিতে হবে। আপনি চাইলে অফিসে সরাসরি গিয়ে পল্লী বিদ্যুৎ মিটারের আবেদনের ফি জমা দিতে পারবেন অথবা আপনি অনলাইনে অর্থাৎ রকেটের মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ অনলাইনে বাসের টিকিট কাটার নিয়ম

শেষ কথাঃ অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন

প্রিয় পাঠক আজকের এই পোস্টে আমরা অনলাইনে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের আবেদন এর সাথে আরও অনেকগুলো বিষয় আলোচনা করেছি আশা করি আপনি আমাদের এই পোস্ট থেকে উক্ত বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। যদি না জেনে থাকেন তাহলে সম্পূর্ণ পোস্টটি আবার মনোযোগ সহকারে পড়ুন। এখন আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। 

পোষ্ট ক্যাটাগরি: