Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/06/how-to-make-my-android-phone-run-faster.html

স্মার্টফোন স্লো হয়ে গেলে ফাস্ট করবেন যেভাবে | ফোন ফাস্ট করার উপায়

ফোন ফাস্ট করার উপায় — অনেক দামি স্মার্টফোনও কিন্ত দিন দিন ব্যবহার করার ফলে স্লো হয়ে যায়। যদি আপনি মনে করেন আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনটি যদি স্লো এবং কাজ করতে ফোনের মধ্যে অসুবিধা হয় তাহলে আজকের এই আর্টিকেল থেকে জেনে নিন মোবাইল ফোন ফাস্ট করার সহজ উপায়। চলুন জেনে নেই- মোবাইল স্লো হওয়ার কারণ, মোবাইল স্লো হলে কি করব, ফোন আপডেট করার নিয়ম।

ফোন ফাস্ট করার উপায়

মোবাইল স্লো হলে কি করবেন? মোবাইল ফাস্ট করার উপায়

প্রথমত, আপনার স্মার্টফোনটি রিস্টার্ট করুন। শুরুতেই আপনার ফোনের অন্য কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করার পূর্বে, ফোনটি শাট ডাউন করে নিন অথবা আপনার মোবাইলফোন রিসেট করার চেষ্টা করুন।

মোবাইল ফোনের সিস্টেম আপডেট রাখুন

স্মার্টফোন যদি স্লো বা ধীর গতির হয়ে যায় তাহলে সম্ভবত আপনার ফোনের সর্বশেষ আপডেট আন্ড্রয়েড সফ্টওয়্যার ইনস্টল করতে হয়তো ভুলে গেছেন। কোন আপডেট আছে কি-না তা দেখার জন্য আপনার ডিভাইসের এই অপশনে গিয়ে Settings  > About device > Software update দেখে নিন।

আপনার আন্ড্রয়েড ফোনকে ফাস্ট করার জন্য দরকার হবে না এমন সব পুরাতন পিকচার, অ্যাপ ও অন্য সকলকিছু ডিলিট করে দিন- তারপরেও যদি আপনার ফোন স্লো হয় তবে আপনার সেই ফাইলের প্রয়োজন হবেনা এমন সব ফাইল ডিলিট করে ফেলুন। পুরনো ছবি ও মিউজিক, ভিডিও ফাইল ডিলিট করে ফেলতে ভুলে যাওয়াটা স্বাভাবিক ব্যাপার তবে আপনার মোবাইল ফোনের আবার নতুন করে চলমান স্পীড ফিরে আনার জন্য এটা একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।

এছাড়াও মোবাইলে থাকা বিভিন্ন রকম অ্যাপসের কারণে কমতে পারে আপনার মোবাইল ফোনের স্পীড। কারণ অনেক অ্যাপস আছে যেগুলো অনেক সময় আপনার স্মার্টফোনের ব্যাকগ্রাউন্ডে চলতে থাকে যা আপনার ফোনের গতি স্লো করে দিতে পারে। এছাড়াও মোবাইল ফোনে অনেক অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ আছে যেগুলো আপনার ফোনের অনেকখানি জায়গা দখল করে নেই তাই এসকল অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস ডিলিট করে ফেলাই উত্তম।

আরও পড়ুনঃ মোবাইল ফোন কেন স্লো চার্জ হয়, ৪ টি জিনিস আপনার জানা দরকার

অ্যাপ্লিকেশন কেচ ডিলিট করুন

আপনার মোবাইল ফোন অনেক সময় একটি অ্যাপ্লিকেশনের সঙ্গে যুক্ত ছবি ও টুকরো তথ্য সেভ করে রাখে। যাতে করে এটা আপনাকে ঐ অ্যাপ চালু করার সময়ে বার বার নতুন করে ডাউনলোড করতে না হয়। এটা হচ্ছে সাধারণত একটি ইতিবাচক বৈশিষ্ট্য। কিন্তু এতে করে আপনার মোবাইল ফোন স্লো হয়ে যায়। তাই যদি আপনার মনে হয় আপনার ফোনটি স্লো হয়ে গেছে তাহলে এসকল ছবি এবং টুকরো তথ্য মুছে দিন। আপনাকে এখানে গিয়ে কেছ ফাইল Settings > Storage > Cached data ক্লিয়ার করুন আপনার অ্যাপ ক্যাশে।

কাস্টম রম ইনস্টল করার চেষ্টা করুন

আপনার মোবাইল ফোন যদি একটি অনেক পুরনো অ্যান্ড্রয়েড ফোন হয়ে থাকে যা নতুন আপডেট নেওয়ার উপযোগী না তাহলে আপনার ফোনের মধ্যে একটি কাস্টোম রম ইনস্টল করে নিন যেটি সাম্প্রতিক সময়ের সফ্টওয়্যার চালানোর অনুমতি প্রদান করবে এবং সেই সঙ্গে এটা আপনার মোবাইল ফোনের বর্তমান পারফরম্যান্স অনেক খারাপ হলেও সেটি দ্রুত রান করতেও সাহায্য করবে।

ক্রোম ব্রাউজার সমস্যার সমাধান

আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ক্রোম ব্রাউজার যদি স্লো হয়ে যায় তাহলে এই সমস্যা সমাধান করার জন্যে একটি উপায় অবশ্যই আছে। আপনার মোবাইল ফোনের ক্রোম ব্রাউজারকে ফাস্ট করার জন্য আপনার ফোনের বেশি মেমোরি ব্যবহার করার অনুমতি প্রদান করতে পারেন।

তার জন্য শুধু ক্রোম ব্রাউজার ওপেন করুন একটি নতুন ট্যাব শুরু করুন আর URL বারে আপনি নিম্নলিখিত কমান্ড লিখুব: chrome://flags/#max-tiles-for-interest-area। তারপর একটি মেনু চলে আসবে যাতে আপনি কতটুকু মেমরি ব্যবহার করতে চান সেটি পরিবর্তন করতে পারেবন এখানে ডিফল্ট “128” এর জায়গাতে “512” সিলেক্ট করুন।

প্রসেসিং ক্ষমতাকে বেশি ব্যবহার করে এমন অ্যাপের ব্যাপারে লক্ষ্য রাখুন প্রায় সময়, আপনার ফোনের বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন থেকে পাওয়া অদ্ভুত বাগ বা বিষয়গুলো দেখতে পারেন। আসলে কোন অ্যাপ্লিকেশন এর কারণে এমনটা হয় সেটা বলা কঠিন।

যদি মনে হয় যে আপনার মোবাইলের মধ্যে এমনটা ঘটছে তাহলে এই Watchdog Task Manager অ্যাপটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করে দেখতে পারেন। এই অ্যাপটি আপনার মোবাইলের ফোনের মধ্যে প্রতিটি অ্যাপ কি পরিমাণ কম্পিউটার শক্তি এবং রিসোর্স ব্যবহার করছে সেটি মনিটর করে জানতে সাহায্য করে।

আরও পড়ুনঃ এন্টিভাইরাস এর সুবিধা ও অসুবিধা

অ্যানিমেশন বন্ধ করুন

আপনার এন্ড্রয়েড ফোনটি ফাস্ট করার জন্য অ্যানিমেশন ব্যবহার করা বন্ধ করুন। আন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে অ্যানিমেশন থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য আপনার মোবাইল ফোনে একটি সম্পূর্ণভাবে নতুন সেটিংস মেন্যু আনলক করতে পারেন। Settings > About phone গিয়ে যেয়ে নিচের দিকে স্ক্রোল করে Build Number অপশনে ঠিক ৭ বার ট্যাপ করুন অথবা কিছু মোবাইল ফোনে এটি Settings > About Phone > Version। এই কাজটি করার পরে আপনি মোবাইল ফোনের সিস্টেম সেটিংস থেকে একটি “ডেভেলপার অপশন” মেন্যুর অ্যাক্সেস পাবেন। এই মেন্যুতে আপনি উইন্ডো অ্যানিমেশন স্কেল, অ্যানিমেশন চেঞ্জ স্কেল ও অ্যানিমেশন সময়কাল স্কেল দেখতে পাবেন প্রতিটি ট্যাপ করে .5x এ সেট করে দিন অথবা বন্ধ করে দিন।

ব্যাকগ্রাউন্ডে ডেটা নিষ্ক্রিয় করুন

ব্যাকগ্রাউন্ড ডেটা ব্যবহার করা আপনার স্মার্টফোন ধীরগতির হওয়া একটি অন্যতম কারণও হতে পারে। আপনি এটার ব্যবহার সীমিত অথবা বন্ধ করতে পারলে বা বন্ধ করলে আপনার মোবাইল ফোনের গতি শুধুমাত্র বাড়াবেই না বরং এই পদ্ধতি আপনার প্রতি মাসের ডেটা ব্যবহার কমাতে সহায়তা করতে পারে। কোন অ্যাপসগুলো ব্যাকগ্রাউন্ডে ডেটা ব্যবহার করছে তা দেখার জন্য আপনি Settings > Data Usage অপশনে গিয়ে সেটি দেখতে পারবেন।

ফ্যাক্টরি রিসেট করুন

উপরোক্ত সকল পদক্ষেপ যদি ব্যর্থ হয়, মোবাইল ফোনটি ফ্যাক্টরি রিসেট করার চেষ্টা করুন। আপনার ফোন অসহনীয়রূপে ধীরগতির হয়ে গেলে, একটি ফ্যাক্টরি রিসেটের চেষ্টা করুন। মোবাইল ফোন রিসেত করার ফলে আপনার সকল তথ্য, অ্যাপ, ফটো, মিউজিক, ভিডিও সহ ডিলিট করে ফেলবে তাই আগে থেকে সব কিছুর ব্যাকআপ নিয়ে রাখুন। একটি ফ্যাক্টরি রিসেট মূলত আপনার মোবাইল ফোনটিকে সেই অবস্থায় নিয়ে যাবে যখন আপনার মোবাইল ফোনটি কেনার সময়ে ছিলো। মোবাইল ফোন রিসেট করার জন্য আপনি Settings > Backup থেকে Reset > Factory reset এখানে গিয়ে ডিভাইসটি রিসেট করুন।

আরও পড়ুনঃ বিজ্ঞাপন দেখে টাকা আয়

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া