Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/04/movement-pass-application-lockdown.html

মুভমেন্ট পাস আবেদন | মুভমেন্ট পাস আবেদন ফরম | মুভমেন্ট পাস আবেদন করার নিয়ম

মুভমেন্ট পাস আবেদন - বাংলাদেশ সরকার করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধ করার জন্য সর্বাত্মক নতুন বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। গত ৫ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিল এক সপ্তাহের জন্য সারা দেশে লকডাউনের ঘোষণা দেয়া হলেও লকডাউনে করোনাভাইরাসের তেমন কোন পরিবর্তন লক্ষ্যে করা যায়নি। কিন্ত বাংলাদেশ সরকার ১৪ এপ্রিল থেকে আবার নতুন করে সারাদেশে কঠোরভাবে লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছে।

মুভমেন্ট পাস আবেদন | মুভমেন্ট পাস আবেদন ফরম | মুভমেন্ট পাস আবেদন করার নিয়ম

আর এই লকডাউনে কেউ জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাড়ির বাহিরে যেতে পারবে না। লকডাউন চলাকালীন জরুরি প্রয়োজনে চলাচল করার জন্য বাংলাদেশ সরকার চালু করেছে মুভমেন্ট পাস। লকডাউনে কোথাও যাওয়ার প্রয়োজন হলে বাংলাদেশ পুলিশের দেয়া মুভমেন্ট পাস এর জন্য আবেদন সম্পূর্ণ করতে হবে তাহলে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যাওয়া সম্ভব হবে। বাংলাদেশে মুভমেন্ট পাস দেয়া শুরু করছে পুলিশ। মুভমেন্ট পাসে আবেদন করার জন্য তারা একটি অ্যাপ সেবাও চালু করেছে।

মুভমেন্ট পাস নেয়ার জন্য কিভাবে আবেদন করবেন, কিভাবে মুভমেন্ট পাসে আবেদন করলে আপনার দেয়া তথ্য আপ্প্রুভ হবে। এই সকল বিষয়ে নিয়ে আমরা আজকের এই আর্টিকেলে আলোচনা করবো। তাই যারা মুভমেন্ট পাস আবেদন করার জন্য আগ্রহী তারা অনুগ্রহ করে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি বিস্তারিত পড়ে নিবেন; 

মুভমেন্ট পাস কি

করোনাকালীন সময়ে লকডাউনে জরুরি প্রয়োজনে বা জরুরি সেবা গ্রহণ করার জন্য এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাওয়ার জন্য বাংলাদেশ পুলিশকৃত একটি অনুমতিপত্র গ্রহণ করার প্রক্রিয়াকে বলা হয় মুভমেন্ট পাস। ১৩ এপ্রিল ২০২১ রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স মিলনায়তনে "মুভমেন্ট পাস" অ্যাপের শুভ উদ্বোধন করা হয়। 

লকডাউনে পুলিশের মুভমেন্ট পাস কেন প্রয়োজন | পুলিশের মুভমেন্ট পাস আবেদন

করোনাভাইরাস বাংলাদেশে বর্তমানে খুব ভয়াবহ রুপ ধারন করছে। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সরকার সকল প্রকার পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। আর এই জন্য বাংলাদেশ সরকার নতুন বিধিনিষেধ আরোপ করেছে তা হচ্ছে পুরো বাংলাদেশ লকডাউন। বাংলাদেশ সরকারের নতুন এই বিধিনিষেধে বলা হয়েছে যে কেউ জরুরি সেবা গ্রহণ করা ছাড়া এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যেতে পারবে না এমনকি বাড়ির বাহিরও হতে পারবে না।

আর কেউ যদি একান্ত জরুরি প্রয়োজনে বাড়ির বাহিরে যেতে চায় তাহলে তাকে মুভমেন্ট পাস নিতে হবে। মুভমেন্ট পাস পেতে হলে বাংলাদেশ পুলিশের ওয়েবসাইটে আবেদন সম্পূর্ণ করে নিতে হবে। মুভমেন্ট পাস নেয়ার জন্য আবেদন সম্পূর্ণ হলে কর্তৃপক্ষ সকল তথ্য যাচাই-বাছাই করে দেখবে। আবেদনকারী যদি এই মুভমেন্ট পাসের জন্য উপযোগী হয়ে থাকে তাহলে তাকে মেভমেন্ট পাস প্রদান করা হবে। 

যে সকল কাজের জন্য মুভমেন্ট পাস প্রদান করা হবে | মুভমেন্ট পাস আবেদন

পুলিশ সদর দফতর থেকে জানা যায় যে, মুদি দোকানে কেনাকাটা, করোনাভাইরাসের টিকা গ্রহণ, কাঁচা বাজার, ওষুধপত্র, চিকিৎসা সেবা, চাকরি, কৃষিকাজ, পণ্য পরিবহন ও সরবরাহ, ত্রাণ বিতরণ, মৃত ব্যাক্তি সৎকার, ব্যবসাসহ অন্যান্য ক্যাটাগরিতে নাগরিকগণ মুভমেন্ট পাস গ্রহণ করার সুযোগ পাবেন। 

  • মুদি দোকানে কেনাকাটা ও কাঁচা বাজারে কেনাকাটা
  • ওষুধ ও চিকিৎসা কাজে মুভমেন্ট প্রদান করা হবে
  • কৃষিকাজ
  • পণ্য পরিবহন ও সরবরাহ
  • ত্রাণ বিতরণের ক্ষেত্রে "মুভমেন্ট পাস" প্রদান করা হবে
  • পাইকারি বা খুচরা ক্রয়
  • মৃত ব্যাক্তিকে সৎকারে মুভমেন্ট পাস প্রদান করা হবে 
  • ব্যবসায়ীক কাজে
  • সাংবাদিকদের দায়িত্ব পালনের জন্য ‘মুভমেন্ট পাস’ নেয়ার প্রয়োজন হবে না

মুভমেন্ট পাস আবেদন করার নিয়ম | মুভমেন্ট পাস আবেদন apps

মুভমেন্ট পাস নেয়ার জন্য এই ওয়েবসাইটে ঢুকে মুভমেন্ট পাসের জন্য আবেদন করতে হবে। মুভমেন্ট পাশে আবেদন করার জন্য প্রথমে একটি সচল মোবাইল ফোন নম্বর দিতে হবে। তারপর আবেদনকারীর মোবাইলে একটি ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড বা ওটিপি যাবে। সঠিক ভাবে ওটিপি OTP প্রবেশ করা হলে মুভমেন্ট পাসের জন্য আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে। মুভমেন্ট পাস অ্যাপে আবেদনকারী কোন স্থান থেকে অন্য কোন স্থানে যাবে তা জানতে চাইবে।

সেই সকল তথ্য আবেদনকারীকে ধাপে ধাপে পূরণ করতে হবে। তারপর আবেদনকারীর একটি ছবি আপলোড করে আবেদন সাবমিট করতে হবে। তারপর আবেদনকারীর আবেদনটি যদি গ্রহণযোগ্য হয় তাহলে একটি ফিরতি মেসেজ আবেদনকারীকে পাঠানো হবে। সেই ফাইলটা ডাউনলোড করে প্রিন্ট করতে হবে। 

আর এই প্রিন্ট কপিই মুভমেন্ট পাস হিসেবে গণ্য করা হয়ে থাকবে। কেউ যদি একবার মুভমেন্ট পাস গ্রহণ করে তাহলে সেটির সময়সীমা থাকবে মাত্র ৩ ঘন্টা। অর্থাৎ মুভমেন্ট পাসে তারিখ ও সময় দেয়ার পর থেকে পরবর্তী সময় তিন ঘণ্টা গণনা শুরু হবে। এছাড়াও কেউ যদি ঘর থেকে বের হতে চায় এবং বাইরে থেকে ঘরে আসতে চায় তাহলে তার জন্য আলাদা ভাবে লাগবে মুভমেন্ট পাস।

মুভমেন্ট পাস না নিয়ে বাহিরে বের হলে কি হবে

  • পুলিশের দেয়া মুভমেন্ট পাস না দিয়ে বাহিরে বের হলে যেকোন মুহূর্তে পুলিশের কাছে জবাদিহিতা হতে পারেন
  • মুভমেন্ট পাস না থাকার কারনে জরিমানা করতে পারে
  • মুভমেন্ট পাস না থাকার কারনে প্রশাসন আপনাকে যেকোন ধরনের শাস্তি দিতে পারে। আর আপনাকে তখন সেই শাস্তি মাথা পেতে নিতে হবে এই মুভমেন্ট পাস না থাকার কারনে
  • মুভমেন্ট পাস না থাকার কারনে অপমানিত হতে পারেন
  • মুভমেন্ট পাস না থাকার কারনে আপনার যাত্রাটি বাতিল করে আবার পুনরায় ঠিকানায় পাঠানো হতে পারে
পুলিশের দেয়া মুভমেন্ট পাসের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য | মুভমেন্ট পাস আবেদন ফরম

কোন থানা বা এলাকা থেকে কোথায় যাবেন, যে এলাকা ও থানায় যাবে সেই সংশ্লিষ্ট নাম, লিঙ্গ, বয়স, ভ্রমণের কারণ কি "মুভমেন্ট পাস" ব্যবহারের তারিখ ও সময় "মুভমেন্ট পাস" এর মেয়াদ শেষের তারিখ ও সময়, জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর, নিজস্ব গাড়ির তথ্য এবং নিজের ছবি এসকল তথ্য প্রদান করতে হবে।

মুভমেন্ট পাসধারী ব্যক্তি বাধামুক্তভাবে রাস্তাঘাটে চলাচল করার সুযোগ পাবেন। তবে সকলেই কিন্ত এই মুভমেন্ট পাস পাওয়ার সুযোগ পাবেন না। শুধুমাত্র জরুরি প্রয়োজনে সাথে সংশ্লিষ্টদের দেয়া হবে এই মুভমেন্ট পাস। যে ব্যাক্তি মুভমেন্ট পাস পাবেন শুধুমাত্র তিনিই এটির ব্যবহার করতে পারবেন এবং তার প্রয়োজনীয় কাজ করার সুযোগ পাবেন। একজন এর মুভমেন্ট পাস অন্যজন ব্যবহার করার কোন সুযোগ নেই। পুলিশ সদর দফতর থেকে জানিয়েছে যে মুভমেন্ট পাস কোনোভাবেই হস্তান্তরযোগ্য করা যাবে না।

মুভমেন্ট পাস নেয়ার সময় যদি ব্যক্তি চায় তার নিজস্ব গাড়ি ব্যবহার করবেন তাহলে আবেদনকারী সেটাও করতে পারবে। এছাড়াও পুলিশ সদর দফতর থেকে আরও জানিয়েছে যে, আরও মুভমেন্ট পাস ব্যবহার করে নাগরিকগণ এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যেতে পারবেন ঠিক। কিন্ত একটি মোবাইলফোন নম্বর এবং গাড়ি নম্বর দিয়ে একবারের বেশি এই মুভমেন্ট পাস নেয়া যাবে।

প্রয়োজনে ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরে নিতে হবে এবং ঘরে ফিরে স্যানিটাইজার দিয়ে ভালোভাবে হাত পরিষ্কার করে নিতে হবে। এর কারন হলো যেন আপনার দাঁরা আপনার পরিবারের অন্যান্য কেউ করোনাভাইরাসে সংক্রমিত না হয় সেদিকে লক্ষ্যে রাখতে হবে।

সাংবাদিকদের মুভমেন্ট পাস লাগবে না

জরুরি প্রয়োজনে সাংবাদিকদের মুভমেন্ট পাস নেয়ার প্রয়োজন হবে না। মুভমেন্ট পাস শুধুমাত্র যারা প্রয়োজনে জরুরি সেবায় ঘরের বাইরে যাবেন তাদের নিতে হবে।

এছাড়া যাদের একান্তই প্রয়োজনে বাড়ির বাহিরে যাওয়া প্রয়োজন আছে, শুধুমাত্র তাদের জন্যই এই মুভমেন্ট পাসের সেবা চালু করেছে বাংলাদেশ পুলিশ। এক যায়গা থেকে অন্য যায়গাতে যাতায়াত করার জন্য অফিসিয়াল অথবা জরুরি সেবা গ্রহণ করার জন্য মুভমেন্ট পাস নেয়া লাগবে। আর এই ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের এই মুভমেন্ট পাস নেয়া লাগবে না।

আরও পড়ুনঃ সর্বনাশ ভুলেও এসব লিখে ইন্টারনেটে সার্চ করবেন না

মুভমেন্ট পাস নিতে হলে যা যা করতে হবে | মুভমেন্ট পাস আবেদন করার নিয়ম

  • একটি মোবাইল ফোন নম্বর দিতে হবে। তারপর আবেদনকারীর সেই নম্বরে একটি OTP (One Time Password) প্রদান করা হবে। সেই ওটিপি OTP সঠিক ভাবে প্রবেশ করাতে হবে।
  • তারপর আবেদনকারীর জন্ম-তারিখ ২ বার লেখার প্রয়োজন হবে। যেমন, জন্ম তারিখ যদি ১০-১০-১৯৯০ হয় তাহলে ১০১০১৯৯০ এইভাবে লিখতে হবে।
  • আবেদনকারী যে থানা বা যে এলাকার বসবাস করেন সেখানকার নাম ঠিকানা উল্লেখ করতে হবে।
  • জরুরি কাজে যে এলাকায় যেতে চান সেই এলাকা বা থানার নাম উল্লেখ করা লাগবে। সেই সাথে আবেদনকারী পুরুষ না নারী তা নিশ্চিত করতে হবে।
  • আবেদনকারী যেহেতু জরুরি কাজে বা জরুরি প্রয়োজনে বাহিরে বের হবেন সেক্ষেত্রে অবশ্যই সেই কাজের নাম উল্লেখ করে নিতে হবে। মুভমেন্ট পাসে ১৩টি কাজের কথা উল্লেখ করা আছে। এর মধ্যে যদি আপনার জরুরি কাজটি উল্লেখ করা না থাকে তাহলে অন্য সকল অপশন সিলেক্ট করে নিতে হবে। আপনার প্রয়োজনীয় কাজটি শেষ হতে কত সময় লাগবে তা সেখানে উল্লেখ করতে হবে।
  • মুভমেন্ট পাস পেতে আপনার পরিচয়পত্র সকল তথ্য নিশ্চিত করতে হবে। এক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্রের পাশাপাশি জন্মনিবন্ধন সনদ, পাসপোর্ট নম্বর অথবা ড্রাইভিং লাইসেন্স এর নম্বর জমা দিতে হবে।
  • জরুরি কাজে বের হওয়ার সময়ে আপনার নিজের গাড়ি ব্যবহার করবেন কি না তা নিশ্চিত করে নিতে হবে। আর যদি নিজের গাড়িটি ব্যবহার করেন তাহলে সেক্ষেত্রে গাড়ির নম্বর ব্যবহার করতে হবে।
  • এই সকল শর্ত পূরণের পরে আবেদনকারীর একটি ছবি জমা দিয়ে সাবমিট বাটনে ক্লিক করলেই আবেদনকারী ফিরতি একটি মেসেজ পেয়ে মুভমেন্ট পাস পেয়ে যাবে।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

সর্বশেষ আপডেটেড অফার পেতে চান?

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া