Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/03/coronavirus-er-lokkhon-ki-bangla-covid-19-bangla.html

করোনা ভাইরাসের লক্ষণ ও করণীয় | নতুন করোনা ভাইরাসের লক্ষণ | করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

করোনা ভাইরাস কি? নতুন এই করোনাভাইরাস মূলত শরীরের শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমণ ঘটিয়ে থাকে এছাড়াও আরও অনন্য লক্ষ্যণ দেখা যায়। করোনাভাইরাস এর লক্ষ্যণ গুলো হয় অনেকটা নিউমোনিয়ার রোগের মতো। করোনার শুরুটা হয় জ্বর দিয়ে, সঙ্গে থাকতে পারে সর্দি, মাথাব্যথা, গলা ব্যথা এছাড়াও দেখা দিতে পারে শরীর ব্যথা ও শ্বাসকষ্টও। আর এই সময় প্রত্যেককে আতঙ্কিত না বরং সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে নিজেকে এবং আশে পাশের সকল মানুষকে সুরক্ষিত রাখতে হবে। 

নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে করণীয় 

  • সংক্রমণ থেকে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে সাবান ও পানি দিয়ে ঘন ঘন হাত ধুতে হবে
  • মাংস ও ডিম এবং অন্য সকল খাবার সমূহ অবশ্যই যথাযথ সঠিক তাপে ও ভালো ভাবে রান্না করে খাবার গ্রহণ করতে হবে 
  • হাঁচি ও কাশির সময় অবশ্যই হাত বা টিস্যু দিয়ে মুখ ও নাক ঢেকে রাখতে হবে। এরপর ব্যবহার করা টিস্যুটি ফেলে দিতে হবে এবং অবশ্যই হাত ধুয়ে নিতে হবে
  • যে কোন অসুস্থ ব্যক্তির সেবা করার পর হাত ধুয়ে নিতে হবে। কোন প্রাণির যত্ন নিলে বা স্পর্শ করলে ও প্রাণীবর্জ্য ধরার পরও হাত ধুয়ে নিতে হবে 
  • শরীরে যে কোন সংক্রমণ এড়াতে রান্না ও খাওয়ার আগে এবং পরে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিতে হবে
  • করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে কমপক্ষ্যে ৬ ফিট দূরে থেকে কথা বার্তা এবং চলাচল করতে হবে

নিজেকে পাশাপাশি করোনাভাইরাস থেকে অন্যকে সকললে সুরক্ষিত রাখতে করনো সম্পর্কে কিছু পরামর্শ

  • করোনা ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকার জন্য ব্যবহার করা টিস্যু খোলা ঝুড়ি অথবা ডাস্টবিনে না রেখে দিয়ে ঢাকনা যুক্ত আছে এমন ঝুড়িতে টিস্যু ও কফ ফেলে দিতে হবে
  • নিজে সুরক্ষিত না থেকে বা হাতে গ্লাভস না পরে কোন অসুস্থ ব্যক্তির মুখ ও দেহ স্পর্শ করা থেকে সকলকে বিরত থাকতে হবে। 
  • একইভাবে গবাদিপশু অসুস্থ পশু ও বন্যপশুকে ধরার আগেও নিজেকে অবশ্যই সুরক্ষিত রাখতে হবে
  • রান্না ঘরের কাজে বিশেষ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে
  • সবজি, কাঁচা মাংস রান্না করা খাবার এবং সবজি কাটার জন্য প্রত্যেক কে ভিন্ন ভিন্ন চপিং বোর্ড ও ছুরি ব্যবহার করতে হবে 
  • সবজি, কাঁচা মাংস রান্না করা খাবার হাতে ধরার আগে অবশ্যই প্রত্যেকবার ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে
  • রোগে হয়ে মারা গিয়েছে এমন প্রাণী বা একে বারেই অসুস্থ এমন প্রাণীর মাংস একে বারেই খাওয়া চলবে না বা এই ধরনের মাংস খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে
  • করোনা ভাইরাস এই রোগের প্রাদুর্ভাব রয়েছে। এমন এলাকা গুলোতে উপযুক্ত তাপে সিদ্ধ করা বা ভালোভাবে সিদ্ধ করা ডিম, সবজি বা মাংস খেলে কোন রকম ঝুকি নেই 
  • বাজারে বা কাঁচা বাজার দিয়ে বাজার করার সময় কোন প্রাণী বা প্রাণীর মাংস হাতে দিয়ে ধরলে তা খুব দ্রুততার সাথে হাত ধুয়ে ফেলতে হবে
  • বাজারে কাঁচা করার জন্য অবস্থানের সময় অযথা হাত মুখে-চোখে স্পর্শ করা থেকে মনে রাখতে হবে এবং এই কাজ করা থেকে নিজেকে বিরত থাকতে হবে
  • কাজের যায়গাটি দিনে অন্তত কমপক্ষে একবার হলেও পরিস্কার বা জীবানুমুক্ত করতে হবে 
  • প্রতিদিন এর পরনের পোশাক অবশ্যই প্রতিদিন বদল করতে হবে এবং তা প্রতিদিন ধুয়ে নিতে হবে
  • সংক্রমণ এড়াতে মুখে মাস্ক এবং হাতে অবশ্যই গ্লাভস ব্যবহার করা উচিত বা ব্যবহার করতে হবে

করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আতঙ্কের মধ্যে ভ্রমন বিষয়ে সচেতন হতে হবে

  • যদি জ্বর- সর্দি অনুভুত হয় তাহলে যে কোন ধরনের বাতিল করা উচিত বা ভালো। পাশাপাশি ডাক্তার এর শরণাপন্ন হয়ে স্বাস্থ্যপরিক্ষা করে সঠিক ঔষধ খেতে হবে
  • জ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন এমন কারো সাথে বা এমন কোন ব্যক্তির সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে
  • মাস্ক ব্যবহার করার সময় অবশ্যই নাক ও মুখ ভালো ভাবে ঢেকে রাখতে হবে বা ঢেকে নিতে হবে। একবার মাস্ক পড়ার পর তা হাত দিয়ে বার বার স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকতে হবে
  • একবার একটি মাস্ক ব্যবহার করার ফলে তা ফেলে দিতে হবে। মাস্ক ধরার পর সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিতে হবে
  • যদি ভ্রমন করার সময় নিজেকে অসুস্থ বোধ হয় তবে তাহলে সঙ্গে সঙ্গে কতৃপক্ষেকে জানাতে হবে
  • এর আগে রোগের ইতিহাস থাকলে সেটাও ডাক্তার কে জানাতে হবে
  • যেখানে সেখানে বা জনসমাগম স্থানে থুথু বা কফ ফেলা যাবে না
  • অসুস্থ প্রাণী ধরা থেকে সতর্ক থাকতে হবে

আসুন আমরা নিজে সুস্থ থাকি এবং অপরকে সুস্থ থাকার জন্য সচেতন করি। 

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া