টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের নাম

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের নাম - টেস্টোস্টেরন হরমোন এর কার্যকারিতা সম্পর্কে আমরা সকলেই কমবেশি জানি। তবে আপনি যদি এই সম্পর্কে না জানেন তাহলে টেস্টোস্টেরন হরমোন কি, টেস্টোস্টেরন হরমোন এর কাজ কি এবং টেস্টোস্টেরন হরমোন সঠিক প্রক্রিয়ায় বৃদ্ধি না পেলে কি কি সমস্যা ঘটতে পারে এ সম্পর্কে জানার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত একটি আর্টিকেল পড়ে ফেলতে পারেন।

এছাড়াও টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির উপায় এবং টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির হোমিও ঔষধ সম্পর্কিত বিষয় সম্পর্কেও জানতে পারেন A to Z। তবে হ্যাঁ আজকের আলোচনায় আমরা মূলত আপনাদেরকে জানাতে চলেছি টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের নাম। তাই যারা টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের নাম জানতে ইচ্ছুক তাদের জন্য আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি।

(toc) #title=(সুচিপত্র)

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের নাম

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের নাম

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধ হিসেবে সবথেকে জনপ্রিয় ও কার্যকরী ওষুধগুলো হলো:

  • Androcap
  • Andriol TestoCaps
  • অ্যান্ড্রফিল ক্যাপসুল
  • এন্ড্রিওল ক্যাপসুল
  • নুভির ক্যাপসুল
  • টেস্টোস্টেরন আনডেকানোট ক্যাপসুল

১। টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের নাম - Androcap

টেস্টোস্টেরন এর ঘাটতিতে এই Androcap ক্যাপসুলটি ব্যবহার করা হয়। এই ঔষধটি মুখে খেতে হয়। ঔষধটি মুখে নিয়ে ১ গ্লাস পানি দিয়ে গিলে ফেলুন। মনে রাখবেন ঔষধটি চুষে খাওয়া কিংবা ভেঙ্গে গুড়ো করে খাওয়া যাবে না।

অবশ্যই ঔষধটি ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী খাবেন। বিভিন্ন কারণে ঔষধটির মাত্রার তারতম্য হতে পারে। ডাক্তার আপনাকে যেভাবে পরামর্শ দিবেন বা দিয়েছেন ঠিক সেভাবে ঔষধটি সেবন করুন। আপনার প্রেসক্রিপশনের নির্দেশাবলী অনুসরণ করুন।

যেসকল রোগীদের এই ঔষধের প্রতি সংবেদনশীলতা থাকে তাদের জন্য এটি ব্যবহার করা যাবে না। মহিলাদের এই ঔষধ ব্যবহার করা যাবে না। এই Androcap টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে।

যেমনঃ বমি হওয়া, বমি বমি ভাব, তলপেটে ব্যথা, ক্ষুধা মন্দা, চুল পড়া, তৈলাক্ত চামড়া, ত্বকে জ্বালাপোড়া করা, চুলকানি, ব্রণ, কোষ্ঠকাঠিন্য, মানসিক/মেজাজ পরিবর্তন (যেমনঃ উদ্বেগ, বিষণ্ণতা, ক্রোধ বৃদ্ধি) জন্ডিস দেখা দিতে পারে।

Androcap টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধ টি শিশুদের ক্ষেত্রে সর্তকতার সাথে ব্যবহার করতে হবে। এই মেডিসিন আপনার রক্তে শর্করার পরিমাণ হ্রাস করতে পারে। এই ঔষধটি আপনার কোলেস্টেরলের মাত্রাকে প্রভাবিত করতে পারে এবং হ্রদরোগের ঝুকিকে বৃদ্ধি করতে পারে।

যাদের ডায়াবেটিস এর সমস্যা, হার্ট ফেইলোর, উচ্চ রক্তচাপ, ফুসফুসে ক্যান্সার, পেপ্টিক আলসার, গ্লুকোমা, বৃক্ক অথবা যকৃতের অক্ষমতা আছে, তাদের জন্য এই ঔষধটি সর্তকতার সাথে ব্যবহার করতে হবে।

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির এই ঔষধটি কখনোই অতিরিক্ত পরিমাণে ব্যবহার করবেন না। আপনি যদি মনে করেন যে এই ঔষধটি পরিমাণে তুলনায় অতিরিক্ত ব্যবহার করছেন তবে জরুরি চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহন করুন অথবা নিকটস্থ হাসপাতালে যোগাযোগ করুন। কেননা অতিরিক্ত মাত্রার ক্ষেত্রে রোগীর লক্ষণ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত।

কিছু ঔষধের ক্ষেত্রে গ্যাস্ট্রিক ল্যাভেজের মাধ্যমে পেট খালি করা হয়। রোগীকে সাবধানে পর্যবেক্ষণ করা উচিত (ইসিজি পর্যবেক্ষন সহ) এবং লক্ষণমুলক এবং সহায়ক চিকিৎসা দেওয়া উচিত।

জেনে রাখা ভালো এই ঔষধটি গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদান কালে ব্যবহার করা যাবে না। এই টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধটি মহিলাদের ব্যবহার করা উচিত নয়। অর্থাৎ গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে এটি ব্যবহার করা যাবে না। ঔষধটির প্যাক সাইজ ৩০টি। Androcap টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের প্রতি পিসের দাম ২৫ টাকা।

২। টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের নাম - Andriol TestoCaps

টেস্টোস্টেরন এর ঘাটতিতে এই ঔষধটি ব্যবহার করা হয়। এই জাতীয় ঔষধ মুখে খেতে হয়। ঔষধটি মুখে নিয়ে ১ গ্লাস পানি দিয়ে গেলে ফেলুন। ঔষধটি সেবন করার সময় কখনোই চুষে খাওয়া বা ভেঙ্গে খাওয়া বা গুড়ো করে খাওয়া যাবে না।

ঔষধটি ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী সেবন করবেন। বিভিন্ন কারণে ঔষধের মাত্রার তারতম্য হতে পারে। তাই ডাক্তার আপনাকে যেভাবে পরামর্শ দিবেন বা দিয়েছেন ঠিক সেভাবে ঔষধ গ্রহন করবেন। আপনাকে দেয়া প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী ঔষধ সেবন করতে হবে।

যেসব ক্ষেত্রে এই ঔষধটি ব্যবহার করা যাবে না তা হচ্ছে যাদের এই ঔষধের প্রতি সংবেদনশীলতা আছে তাদের জন্য এটি ব্যবহার করা যাবে না। মহিলাদের এই ঔষধ ব্যবহার করা যাবে না।

এই Andriol TestoCaps টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধ ব্যবহার করার ফলে কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে যেমনঃ বমি ভাব, বমি হওয়া, ক্ষুধা মন্দা, তলপেটে ব্যথা, তৈলাক্ত চামড়া, চুল পড়ে যাওয়া, চুলকানি, ব্রণ সমস্যা, ত্বক জ্বালাপোড়া করা, জন্ডিস দেখা দিতে পারে, লম্বা সময়ের জন্য লি*ঙ্গ উথিত থাকতে পারে, মানসিক/মেজাজ পরিবর্তন হতে পারে (যেমনঃ রাগ বৃদ্ধি, বিষণ্ণতা, উদ্বেগ) ইত্যাদি।

ছোট শিশুদের ক্ষেত্রে এই ঔষধটি খুবই সর্তকতার সাথে ব্যবহার করা উচিত। এই ঔষধ সেবন করার কারনে রক্তে শর্করার পরিমাণ কমিয়ে দিতে পারে। এই টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধ আপনার কোলেস্টেরলের মাত্রাকে প্রভাবিত করতে পারে এবং যাদের হার্ট ফেইলোর, ডায়াবেটিস, ফুসফুসে ক্যান্সার, উচ্চ রক্তচাপ, গ্লুকোমা, পেপ্টিক আলসার, বৃক্ক, অথবা যকৃতের অক্ষমতা আছে তাদের জন্য এই ঔষধটি সর্তকতার সাথে ব্যবহার করতে হবে।

যদি আপনি মনে করেন যে এই ঔষধটি অত্যধিক পরিমাণে ব্যবহার করেছেন তবে জরুরি চিকিৎসকের পরামর্শ নিন অথবা হাসপাতালে যোগাযোগ করুন। অতিরিক্ত মাত্রার ক্ষেত্রে রোগীর লক্ষণ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা উচিত।

কিছু ঔষধের ক্ষেত্রে গ্যাস্ট্রিক ল্যাভেজের মাধমে পেট খালি করা হয়। রোগীকে সাবধানে পর্যবেক্ষণ করা উচিত (ইসিজি পর্যবেক্ষণ সহ) এবং লক্ষণমূলক এবং সহায়ক চিকিৎসা দেওয়া উচিত। আর হ্যাঁ এই ঔষধটি মহিলাদের ব্যবহার করা উচিত নয়। গর্ভাবস্থায় এবং স্তন্যদানকালে এই ঔষধ ব্যবহার করা জাব ে না। Andriol TestoCaps টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধটির প্যাক সাইজ ৩০ টি এবং প্রতি পিসের দাম ৪০.৭৭ টাকা।

৩। আনড্রোফিল ক্যাপসুল (Androfil 40Mg Capsule)

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির একটি ঔষধ হচ্ছে অ্যান্ড্রফিল ক্যাপসুল (Androfil 40Mg Capsule). কেননা এটি পুরুষের প্রধান যৌ*ন হরমোন এবং পুরুষের হাইপোগোনাডিজম বৃদ্ধির পাশাপাশি টেস্টোস্টেরনের মাত্রার পরিমাণ বৃদ্ধি করে।

এটি মূলত ব্যবহার করা হয়, পুরুষ হরমোন ডিফিসিয়েন্সি, হরমোন লুকাইয়া সমস্যা, পুরুষ হরমোনের অভাব এবং এইডস রোগের কিছু সমস্যার প্রতিরোধক হিসেবে।

আর হ্যাঁ, এই ওষুধটি সাধারণত ট্রান্সডার্মাল প্যাচগুলির আকারে পাওয়া যায়, যা ত্বকের উপরে রাখতে হয় এবং জেল, টপিক্যাল দ্রবণ, ইনজেকশন, বুক্কাল প্যাচগুলি উপরের মাড়িতে লাগানো হয় এবং ক্ষুদ্র দলাগুলি ত্বকের নীচে বসাতে হয়।

কিন্তু চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী এটি সেবন করলে টেস্টোস্টেরন হরমোনের পরিমাণ যেমন বৃদ্ধি পায় তেমন দীর্ঘদিন যাবত সেবন করার ফলে কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। যেমন:

  • স্লিপ অ্যাপনিয়া
  • গাইনিকোমাস্টিয়া
  • শুক্রাণুর সংখ্যা কম হওয়া
  • মাড়িতে জ্বালাপোড়া
  • রক্তের মধ্যে লাল কোষের পরিমাণকে বিপজ্জনক মাত্রায় বাড়িয়ে তোলা
  • তীব্র চুলকানি
  • তরল-ভরা ফোস্কা এবং 
  • তোকে জ্বালাপোড়া ও বিভিন্ন গুটির আবির্ভাব সহ প্রভৃতি।

৪। এন্ড্রিওল ক্যাপসুল (Andriol 40Mg Capsule)

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের মধ্যে আরেকটি অন্যতম হলো এন্ড্রিওল ক্যাপসুল। এই ক্যাপসুলটি নিয়মিত খাওয়ার ফলে টেস্টোস্টেরন হরমোনের পরিমাণ বৃদ্ধি পায় ঠিকই কিন্তু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হিসেবে বেশ কিছু সমস্যা দেখা দেয়। যেমন:

  • বমি বমি ভাব
  • শুক্রাণুর পরিমাণ কম
  • ব্রণ এর সমস্যা 
  • বেদনাদায়ক বা কঠিন মূত্রত্যাগ
  • লিভার সমস্যা
  • বিষন্নতা
  • লিপিড এর মাত্রা পরিবর্তন
  • স্নায়বিক অনুভব
  • পুরুষদের মহিলাদের মত স্তনবৃদ্ধি 
  • ত্বকের চুলকানি
  • মেজাজ গরম 
  • দীর্ঘায়িত বেদনাদায়ক সমস্যা
  • পেশীতে ব্যথা
  • উচ্চ্ রক্তচাপ
  • স্তনের আবেগপ্রবণতা
  • রাগ ও উদ্বেগ বৃদ্ধি
  • চামড়ার রঙ পরিবর্তন
  • ঘন মূত্রত্যাগ
  • প্রোটিন এর অতিরিক্ত বৃদ্ধি
  • লোহিত কণিকার সংখ্যা বৃদ্ধি
  • মূত্রথলির ক্যান্সার
  • যৌ*ন ড্রাইভ ও দুর্বলতা সহ প্রভৃতি।

৫। নুভির ক্যাপসুল (Nuvir 40Mg Capsule)

নুভির ক্যাপসুল (Nuvir 40Mg Capsule) টিও টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির একটি ঔষধ। যে ওষুধটি নিকটস্থ যেকোনো ফার্মেসির দোকান থেকে সংগ্রহ করা সম্ভব। তবে হ্যাঁ, টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির আরো দুইটি ওষুধের মত এটিরও রয়েছে বিভিন্ন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া।

এছাড়াও গর্ভবতী মহিলাদের জন্য নুভির ক্যাপসুল ঔষধটি অনেকটাই ক্ষতিকর। আবার সদ্য জাত মায়ের জন্যেও খুব একটা নিরাপদ নয়। এছাড়াও লিভারের সমস্যার জন্য বিশেষভাবে দায়ী এই ওষুধটি। আর তাই সবদিক বিবেচনা করে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়ার পরবর্তীতেই এই ওষুধটি খাওয়া বাঞ্ছনীয়।

৬। টেস্টোস্টেরন আনডেকানোট ক্যাপসুল (Testosterone Undecanoate 40Mg Capsule)

ইতিমধ্যে আমরা যে তিনটি ক্যাপসুল ঔষধের নাম সাজেস্ট করেছে টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধ হিসেবে ওই তিনটি ওষুধের বিকল্প আর একটি ওষুধ হচ্ছে টেস্টোস্টেরন অডেক্যানেট ক্যাপসুল (Testosterone Undecanoate 40Mg Capsule). আর এই ওষুধে রয়েছে নানা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া।

তবে হ্যাঁ যদি আপনি চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে তাদের নির্দেশনা মাফিক এই ঔষধ খান তাহলে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

তবে আপনি যদি খুব ভালোভাবে লক্ষ্য করেন তাহলে আপনার নজরে আসবে আমাদের উল্লিখিত টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধ গুলোর প্রায় প্রত্যেকটির কিছু না কিছু প্রতিক্রিয়া রয়েছে। আর তাই সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে টেস্টোস্টেরন হরমোন প্রাকৃতিকভাবে তৈরি করা।

আর ঠিক এ কারণেই ঔষধ না খেয়েও কিভাবে টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধি করা যায় সে সম্পর্কে অবগত হওয়া জরুরী। কেননা টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির বিভিন্ন খাবার রয়েছে, রয়েছে বিভিন্ন প্রাকৃতিক উপায়। যেগুলো সম্পর্কিত আর্টিকেল আমরা আমাদের ওয়েব সাইটে ইতিমধ্যে প্রকাশ করেছি।

তাই আপনি চাইলে এখনি টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির উপায় এবং টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির হোমিও ঔষধ এই দুটি আর্টিকেল পড়ে ফেলতে পারেন। আশা করি আপনাদের বেশ উপকারে আসবে।

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধ খাওয়ার নিয়ম

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধ খাওয়ার নিয়ম মূলত প্রেসক্রিপশনে উল্লেখ করা থাকে। এছাড়াও সেবন বিধি সম্পর্কে বিস্তারিত লেখা থাকে ঔষুধের গায়ে। তাই টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধ খাওয়ার পূর্বে ওষুধের গায়ে লেখা সেবন বিধি ভালোভাবে লক্ষ্য করুন অথবা আপনার চিকিৎসকের কাছ থেকে টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধ খাওয়ার নিয়ম খুব ভালোভাবে জেনে নিন।

মনে রাখবেন ওষুধ যেমন আমাদের শরীরের জন্য উপকারী ঠিক তেমনি এটি ভুল ভাবে সেবন করলে তা আমাদের ভয়াবহ ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই অবশ্যই এ ব্যাপারে সতর্কতা অবলম্বন করা অতীব জরুরী।

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধ খাওয়ার সময়

সমস্যার উপর নির্ভর করে বা টেস্টোস্টেরন হরমোন এর উৎপাদন ক্ষমতার উপর নির্ভর করে চিকিৎসকরা পরিমাণ মত ঔষধ খাওয়ার পরামর্শ দিবেন। আর তাই কখন কোন ট্যাবলেট বা কোন ক্যাপসুল ওষুধটি খেতে হবে এবং দিনে কয়বার খেতে হবে এবং সেটা খাওয়ার আগে না পরে খেতে হবে সে সম্পর্কে আপনার চিকিৎসারত চিকিৎসকের কাছ থেকেই জেনে নিন।

আর এ সম্পর্কে পরামর্শ নিতে চাইলে অনলাইন থেকে ফ্রিতে ডাক্তারদের চিকিৎসা গ্রহণ করতে পারেন। কেননা সম্প্রতি বাংলাদেশে এমন বেশ কিছু মেডিসিন রিলেটেড ওয়েবসাইট রয়েছে যেখান থেকে আপনি ফ্রিতে চিকিৎসা গ্রহণের জন্য এমবিবিএস ডাক্তারদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন। এমন দুই একটি ওয়েবসাইট হচ্ছে doctlab.com, medex.com ইত্যাদি ইত্যাদি।

তোর সুপ্রিয় পাঠক বন্ধুরা, টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ঔষধের নাম সম্পর্কিত আলোচনার ইতি টানছি এখানেই। সবাই ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন। সবাইকে আল্লাহ হাফেজ।

আরো পড়ুনঃ

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির সাপ্লিমেন্ট

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির হোমিও ঔষধ

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির উপায়

টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির ট্যাবলেট

পোষ্ট ক্যাটাগরি: