অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম

হাসিবুর
By -
0

অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম - প্রিয় পাঠক, আপনি কি অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন। কিভাবে অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করব এই চিন্তা করছেন বা ঘরে বসে কাপড়ের ব্যবসা করার জন্য জন্য কি কি প্রয়োজন।

অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম

সূচীপত্রঃ অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম

যদি আপনি উপরোক্ত পদক্ষেপ গুলো চিন্তা করে থাকেন তবে, আপনার জন্য সাজানো হয়েছে আজকের এই পোস্ট।আমাদের দেশে অনেক উদ্যক্তা আছেন তারা কাপড়ের ব্যবসা করতে চায় কিন্তু কিভাবে শুরু করবে এই বিষয়ে সঠিক তথ্য না পাওয়ার কারণে অনেকেই ব্যবসা শুরু করতে পারছেন না। 

তবে আপনি যদি মনোযোগ সহকারে আজকের এই পোস্ট পড়েন তবে আপনিও অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পারবেন। চলুন তাহলে অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম গুলো জেনে নিইঃ

অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম

অনলাইনে বিভিন্ন উপায়ে কাপড়ের ব্যবসা করা যায় যদি আপনি কাপড়ের ব্যবসা শুরু করতে চান তবে প্রথমে আপনার কিছু পরিমাণ পুঁজি থাকতে হবে। যেহেতু আপনি অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করবেন সেজন্য আপনাকে মার্কেটে দোকান ভাড়া নিতে হবে না। 

এক্ষেত্রে আপনার টাকা অনেকটাই সেইফ হচ্ছে। আপনি ঘরে বসেই এই ব্যবসা শুরু করে দিতে পারেন। সকল কিছু আপনাদের সাথে তুলে ধরব আজকের এই পোস্টে। তাহলে চলুন অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা সম্পর্কে জেনে আসি।

অনলাইন কাপড়ের ব্যবসা

বর্তমানে অনলাইনের বিভিন্ন প্লাটফর্মে কাপড়ে ব্যবসা খুবই জনপ্রিয় হয়ে গিয়েছে। তাই অনেকেই এই ব্যবসা শুরু করার চিন্তা করছেন। অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করতে হলে আপনাকে এই ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে আপনাকে জানতে হবে। 

এই ব্যবসা শুরু করতে কি কি লাগবে, ঘরে বসে কি কাপড়ের ব্যবসা শুরু করা যাবে, কত টাকা হলে অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করা যাবে এই সব বিষয়ে আপনাকে ভালোভাবে জেনে নিতে হবে। তারপর আপনি আপনি অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ বাংলাদেশের সেরা ১০ গার্মেন্টস

কাপড়ের ব্যবসা কিভাবে শুরু করব

আপনারা যারা নতুন অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করতে চাচ্ছেন, তারা অনেকেই জানতে চেয়েছেন অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম - কিভাবে আমরা কাপড়ের ব্যবসা শুরু করব এই সম্পর্কে। এই সম্পর্কে এখন আমরা আপনাদের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করছি। তাহলে দেখে নিন অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়মগুলো কি কি। তা নিম্নরূপঃ

ট্রেড লাইসেন্স

আপনি যদি অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে আপনাকে সর্বপ্রথম আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য একটি ট্রেড লাইসেন্স করতে হবে। ট্রেড লাইসেন্স হচ্ছে আপনি যে অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করতে চাচ্ছেন তার জন্য সরকারের কাছ থেকে অনুমতি পাওয়া। 

ট্রেড লাইসেন্স করার জন্য একেক জায়গায় একেক ধরনের ফি লাগতে পারে। আপনি বাংলাদেশে যে কোন ব্যবসা করেন না কেন আপনাকে ব্যবসা করতে হলে ট্রেড লাইসেন্স করতেই হবে। না হলে আপনি এই ব্যবসা সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন না।

স্প্রেডশিট তৈরি করা

আপনাকে একটি স্প্রেডশিট তৈরী করতে হবে। কারণ অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করতে হলে আপনাকে বিভিন্ন কাস্টমারে কাছে বিভিন্ন ধরনের কাপড় বিক্রি করা লাগতে পারে সেজন্য একটি লিস্ট তৈরী করতে হবে। 

সেখানে কাস্টমারের নাম, ফোন নাম্বার এবং যাবতীয় প্রয়োজনীয় তথ্য থাকবে। এতে করে আপনি আপনার অনলাইন কাপড়ের ব্যবসায় কাস্টমার বৃদ্ধি পাবে। অন্য দিকে আপনার অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসার পাবলিসিটিও হবে।

ডেলিভারি পার্টনার

অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার জন্য একজন ডেলিভারি পার্টনার খুবই প্রয়োজন। আপনার অনলাইন শপে যখন কাস্টমারেরা তাদের পছন্দমত কাপড়ের অর্ডার দিবে তখন সেই কাপড় তাদের হাতে পৌঁছে দেওয়ার দায়িক্ত আপনার। 

যেহেতু আপনি সকল কাজ একাই করছেন তাই আপনি চাইলে আপনি নিজেই ডেলিভারীর কাজটা করতে পারেন। তবে আপনার এখানে অনেক সময় নষ্ট হবে। তাই আপনি চেষ্টা করবেন একজন ডেলীভারি ম্যানের সাথে চুক্তি করা অথবা ডেলিভারি সংস্থার সাথে চুক্তি করে কাস্টমারের প্রোডাক্ট তার হাতে তুলে দিতে হবে। 

আপনার যদি কাস্টমারের প্রোডাক্ট ডেলিভারি দিতে সমস্যা হয় তবে আপনি কুরিয়ার সার্ভিস ব্যবহার করে কাস্টমারের প্রোডাক্ট দিতে পারেন। বাংলাদেশের সেরা কয়েকটি কুরিয়ার সার্ভিস হচ্ছে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস, SA পরিবহন, জননী এক্সপ্রেস, ইউএসবি এক্সপ্রেস, ডিএইচএল বাংলাদেশ ইত্যাদি। 

ডিজিটাল মার্কেটিং

অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং হচ্ছে একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যেম। আপনি যেহেতু অনলাইনে ব্যবসা করছেন তাই আপনাকে বেশী ডিজিটাল মার্কেটিং এর দিকে ফোকাস বেশী দিতে হবে।

অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করে আপনি তখনই লাভবান হবেন যখন আপনি সঠিকভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করবেন। ডিজিটাল মার্কেটিং হচ্ছে ডিজিটাল উপায়ে প্রোডাক্ট প্রচার করে সেখান থেকে বিক্রি করা। 

কয়েকটি ডিজিটাল মার্কেটিং করে অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসাকে আরও বৃদ্ধি করা যেতে পারে যেমন: পেইড মার্কেটিং, ভিডিও মার্কেটিং, কন্টেন্ট মার্কেটিং, সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন, ই-মেইল মার্কেটিং, ফেসবুক মার্কেটিং ইত্যাদি।

আরো পড়ুনঃ নিজেই নিজের আত্মকর্মসংস্থান করার উপায়

ফেসবুকে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম

ফেসবুকে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করতে চাচ্ছেন, তাহলে আপনার প্রয়োজন একটি বিজনেস ফেসবুক পেইজ। ফেসবুকে কাপড় বা অন্যন্য ব্যবসা করতে হলে আপনাকে একটি ফেসবুক বিজনেস পেইজের প্রয়োজন হবে। 

আপনি এই পেইজ টাকে ভালোভাবে কাস্টমাইজ করবেন। এরপর আপনি যে ধরনের কাপড়গুলো বিক্রি করবেন সেই কাপড়গুলোর ভালো ভালো ছবি আপ্লোড দিবেন। এরপর আপনার কাস্টমার আপনার কাছে আসবে যখন তার কাছে যখন আপনার প্রডাক্ট ভালো লাগবে। 

আপনি আপনার কাপড়ের ব্যবসার সেল বাড়াতে হলে ফেসবুকের বুস্ট করতে পারেন। দেখবেন খুব দ্রুতই আপনি সেল জেনারেট করতে পারছেন।

ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যেমে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম

আপনারা অনেকেই জানতে চেয়েছেন ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যেমে কি কাপড়ের ব্যবসা করা যাবে। আমি বলব হ্যাঁ করা যাবে। তবে আপনাকে আপনার এই গ্রুপে অনেক এক্টিভ থাকতে হবে। আপনার ফেসবুক গ্রুপে যদি ১ লক্ষ মেম্বার থাকে এবং এই মেম্বারগুলোর মধ্যে যদি ১০ হাজার লোক এক্টিভ থাকে।

তাহলে এই লোকগুলোর মধ্যে কি ২০০ জন আপনার অনলাইন শপ থেকে প্রডাক্ট কিনবে না। আপনার যদি ৫০ টি প্রতিদিন আসে তাহলে আপনার মাসে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন। শুধুমাত্র কাপড়ের ব্যবসা করে।

পুরাতন কাপড়ের ব্যবসা

পুরাতন কাপড়ের ব্যবসা করতে চান, বাংলাদেশের অনেক অলিতে-গলিতে লোক আছে তার পুরাতন কাপড়ের ব্যবসা করে থাকেন। আপনিও এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। আপনি যদি শহরের বিভিন্ন অঞ্চলের দিকে লক্ষ করেন,

তবে দেখবেন তারা কয়েকজন ভ্যানগাড়িতে টিশার্ট বা বিভিন্ন ধরনের পুরাতন কাপড় বিক্রি করছে। তারা কম টাকা কিনে এনে এখানে তারা বেশ ভালো দামে বিক্রি করে লাভবান হচ্ছে।

শেষ কথাঃ অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম

পরিশেষে আমি আপনাদের সাথে কিছু কথা বলতে চাই, আজকের আলোচনায় আমি আপনাদের সাথে অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম, কিভাবে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করবেন এই নিয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। 

আশা করি আপনারা যারা অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করার চিন্তা করছেন তারা যদি আজকের এই পোস্ট মনযোগ সহকারে পড়েন তবে আপনিও জানতে পারবেন অনলাইনে কাপড়ের ব্যবসা করার নিয়ম। ধন্যবাদ!

ব্লগ ক্যাটাগরি:

এখানে আপনার মতামত জানান

0মন্তব্যসমূহ

আপনার মন্তব্য লিখুন (0)

#buttons=(ঠিক আছে, ধন্যবাদ) #days=(20)

টেকনিক্যাল কেয়ার বিডি তে আপনাকে স্বাগতম. ❤️
Ok, Go it!