Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2022/09/bitcoin-account-create.html

বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম

বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম - প্রিয় পাঠক, আপনারা অনেকেই জানতে চেয়েছেন বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে। বর্তমানে বিটকয়েন বেশ জনপ্রিয় একটি ডিজিটাল ক্রিপ্টোকারেন্সি। আমাদের দেশের অধিকাংশ লোক জানে না বিটকয়েন কি?

বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম

সূচীপত্রঃ বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম

বিটকয়েন কোন কাজে ব্যবহার করা হয়, কিভাবে বিটকয়েন কেনা-বেচা হয়, কিভাবে বিটকয়েন একাউন্ট খুলবো বা কিভাবে বিটকয়েন একাউন্ট খুলতে হয় ইত্যাদি। আজকের পোস্ট পড়ে আপনি জানতে পারবেন, বিটকয়েন কি, বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম। 

প্রিয় পাঠক কিভাবে বিটকয়েন আয় করা যায় "বিটকয়েন কি" "বিটকয়েন কি বাংলাদেশে বৈধ" "বিটকয়েন উপার্জন" "বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম" "১ বিটকয়েন সমান কত টাকা" "বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে" "বিটকয়েন কোন কোন দেশে বৈধ" "বিটকয়েন আয় করার সহজ উপায়" "কিভাবে বিটকয়েন একাউন্ট খুলবো" সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে লেখাটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুনঃ

বিটকয়েন কি?

বিটকয়েন একটি ডিজিটাল মুদ্রা যাকে আমরা কেবল ডিজিটালি ব্যবহার করতে পারি। অন্যন্য দেশের যেমন মুদ্রা যেমনঃ ডলার, রুপি, ইউরো, দিনার, টাকা ইত্যাদি। বিটকয়েন ও একটি মুদ্রা তবে এই মুদ্রা ডিজিটাল ব্যবহার করা হয়। 

আমরা অনেকেই বিটকয়েনকে ডিজিটাল মুদ্রা বা ক্রিপ্টোকারেন্সি নামে বেশী চিনে থাকি। এখানে লেনদেনের জন্য কোনো ধরনের অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান বা নিকাশ ঘরের দরকার হয় না এবং এটি কোন দেশের সরকার কর্তৃক ইস্যুকৃত মুদ্রা নয়। 

নিকাশ ঘর (English: Clearing house) হলো আর্থিক বাজারে ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যকার একটি মনোনীত মধ্যস্থতাকারী। এটি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দিষ্ট একটি ঘর বা ব্যবস্থা যেখানে বসে আন্তঃব্যাংকিং দেনা-পাওনা নিষ্পত্তি করা হয়।

আরো পড়ুনঃ আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

বিটকয়েন কে আবিষ্কার করেন

আমরা অনেকেই আছি বিটকয়েন আবিষ্কার করেন কে এই বিষয়টি জানতে আগ্রহী। তবে জেনে নিন এক কথায় বলা যায় বিটকয়েন এর কোনো মালিক নেই। এটি শুধু ডিজিটাল ভাবে ব্যবহার করা যায়। 

কেন বিটকয়েন ব্যবহার করবেন?

বিটকয়েন ব্যবহারের মাধ্যমে অনলাইনে যেকোনো পেমেন্ট করা যায়। বিটকয়েনে পার টু পার নেটওয়ার্ক বেসিক লেনদেন করা হয়। এর মানে হচ্ছে কোন ব্যাংক, কোম্পানী এবং কোন ধরনের ক্রেডিট কার্ড ছাড়াই সরাসরি লেনদেন করা যায়। 

এর বড় সুবিধা হচ্ছে বিটকয়েনের মাধ্যমে দ্রুতই পেমেন্ট করা সম্ভব। যারা অনলাইনে ডেভেলপার আছেন তারা তাদের বিভিন্ন লেনদেন গুলো বিটকয়েন এর মাধ্যমে পেমেন্ট করে থাকে। এছাড়াও যারা অনলাইন থেকে বিভিন্ন জিনিস কেনাকাটা করেন তারা পেমেন্ট মেথড হিসেবে বিটকয়েন ব্যবহার করে থাকেন। 

বিটকয়েনের বেশী সুবিধা হচ্ছে আপনি এবং যিনি আপনার পেমেন্ট গ্রহণ করবেন সে ছাড়া তৃতীয় কোনো ব্যক্তি আপনাদের লেনদেনের বিষয়গুলো জানতে পারবে না। তবে আপনাকে বিটকয়েন ব্যবহার করতে হলে আপনাকে একটি বিটকয়েন অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে।

বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম

আপনারা অনেকেই জানতে চেয়েছেন কিভাবে বর্তমানে সহজ পদ্ধতিতে আমরা একটি বিটকয়েন একাউন্ট খুলব এবং কিভাবে আমরা বিটকয়েন ব্যবহার করব ইত্যাদি বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানতে চেয়েছেন। তাহলে চলুন বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে জেনে আসি। 

আপনি যদি বিটকয়েন অ্যাকাউন্ট খুলে ব্যবহার করতে চান তাহলে আপনাকে একটি কয়েনবেজ একাউন্ট খুলতে হবে। এর কারণ হচ্ছে কয়েনবেজ অ্যাকাউন্ট খুললে কয়েনবেস একাউন্ট থেকে বিটকয়েন ওয়ালেট আদান প্রদান বা লেনদেন করা যায়।

কয়েনবেজ অ্যাকাউন্ট খুললে আপনি শুধু বিটকয়েন ব্যবহার করতে পারবেন ব্যাপারটা এমন না। বিটকয়েন ছাড়াও অন্যন্য কয়েন ব্যবহার করতে পারবেন। যেমনঃ লাইটকয়েন, ডগি-কয়েন, বিটকয়েন ক্যাশ, ইথিরিয়াম ছাড়াও আরও অনেক ধরনের ডিজিটাল কারেন্সি ব্যবহার করতে পারবেন। 

বিটকয়েন বা কয়েনবেজ অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য সর্বপ্রথম আপনাকে coinbase.com এই ওয়েবসাইট যেতে হবে। এই ওয়েবসাইটে ভিজট করার পর উপরে ডান পাশে “Get staretd” অপশনে ক্লিক করবেন।

বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম

এরপর একটি ফর্ম আসবে আপনি এখানে আপনার ফার্স্ট নেম, লাস্ট নেম, ই-মেইল এড্রেস এরপর পাসওয়ার্ড দিতে হবে (পাসওয়ার্ড অব্যশই শক্তিশালী দিবেন) যেমনঃKKarim0134@#$ এর ধরনের পাসওয়ার্ড দিবেন। এরপরে নিচে থাকা অপশনে টিক চিহ্ন দিয়ে create account অপশনে ক্লিক করুন। 

এরপরে আপনাকে email address verify করার জন্য বলা হবে। coinbase থেকে আপনার মেইলে একটি ইমেইল পাঠানো হয়েছে ভেরিফাই করার জন্য। আপনি জি-মেইল এর ইনবক্স চেক করে verify email address অপশনে ক্লিক করুন। যদি কয়েনবেজের ভেরিফিকেশন ম্যাসেজটি আপনার ইমেইলে ইনবক্সে না পান তবে আপনি স্প্যাম বক্স চেক করুন।

ই-মেইল ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হয়ে গেলে আপনার সামনে নতুন একটি পেজ চলে আসবে। সেখানে আপনাকে আপনার মোবাইল নাম্বার ভেরিফাই করার করার জন্য বলা হবে। আপনি আপনার অ্যাক্টিভ মোবাইল নাম্বার দিয়ে ভেরিফাই করে নিবেন। 

এরপর আপনার মোবাইল নাম্বারে ৭ ডিজটের একটি ওটিপি পাঠানো হবে।

এখন আপনার মোবাইলের ম্যাসেজ অপশান চেক করুন। আপনি কয়েনবেজ থেকে একটি ম্যাসেজ দেখতে পারবেন। এখানে একটি ওটিপি পাঠানো হয়েছে আপনি ঐ ওটিপি দেখে দেখে সঠিকভাবে এখানে বসিয়ে দিবেন। বসানোর পর SUBMIT বাটনে ক্লিক করবেন। 

Congratulations! আপনার বিটকেয়েন বা কয়েনবেজ অ্যাকাউন্ট। এবার আপনাকে কয়েনবেজ এর হোমপেজে নিয়ে যাবে। সেখান থেকে উপরে ডান দিকে profile আইকনে ক্লিক করে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য গুলো ঠিক করে নিন। এরপর আপনার তথ্যগুলো ভালোভাবে চেক করে নিন।

আরো পড়ুনঃ এক্সপার্ট অপশন কি

বিটকয়েন কি বাংলাদেশে বৈধ - বিটকয়েন কোন কোন দেশে বৈধ

যুক্ত্রারাজ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ইউরোপ অস্ট্রেলিয়াসহ বিভিন্ন দেশে বিটকয়েন এর আনুষ্ঠানিকভাবে বৈধ করা হয়েছে। এখন আমাদের সকলের প্রশ্ন হচ্ছে বিটকয়েন কি বাংলাদেশে বৈধ? এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ সরকার বিটকয়েনকে বৈধতা দেয়নি। তাই বাংলাদেশে বিটকয়েন ব্যবহার করা বা বিটকয়েনের মাধ্যমে অর্থ লেনদেন সম্পূর্ণ অপরাধ। 

তাই বাংলাদেশে বর্তমানে বিটকয়েন ব্যবহার করা যাচ্ছে না। তবে ভবিষ্যতে বিটকয়েনের ব্যবহার সবচেয়ে বেশী হবে। কারণ দিন দিন সবকিছুই অনলাইন হয়ে যাচ্ছে তাই অনলাইনে পেমেন্ট করার জন্য অব্যশই বিটকয়েন ব্যবহার করতেই হবে। 

বিটকয়েন মাইনিং কি?

আমরা অনেকেই বিটকয়েন ব্যবহার করে অনলাইনে অনেক জায়গায় পেমেন্ট করি আর এই পেমেন্টগুলো ট্রানজেকশন গুলো ভেরিফাই করা হয়। যারা এই ট্রানজেকশন গুলো ভেরিফাই বা যাচাই করে তাদেরকে বিটকয়েন মাইনিং বলা এই কাজগুলো যারা করে তাদের হাই পারফরম্যান্সের কম্পিউটারের প্রয়োজন হয়ে থাকে। আমি আশা করি বিটকয়েন মাইনিং সম্পর্কে আপনাদের বুঝাতে পেরেছি। 

১ বিটকয়েন সমান কত টাকা

আপনারা অনেকেই জানতে চান যে ১ বিটকয়েন সমান বাংলাদেশের কত টাকার সমান তাহলে জেনে নিন বর্তমানে এক বিটকয়েন সমান বাংলাদেশের ১৮,৭৮,০৮৫.৫৩ টাকা। তবে বিভিন্ন সময়ে বিটকয়েনের মূল্য বিভিন্ন হতে পারে।

আরো পড়ুনঃ ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই

বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম ভিডিও

শেষ কথাঃ বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম

পরিশেষে আমি আপনাদের সাথে কিছু কথা বলতে চাই, আজ আমরা আপনাদের জানালাম বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে। আপনারা যারা বিটকয়েন বা কয়েনবেজ থেকে অর্থ লেনদেন করবেন তারা আগে ভালোভাবে যাচাই-বাছাই করে তারপর আপনি বিটকয়েনের অর্থ লেনদেন করবেন। আশা করি আমি আজ আপনাদের বিটকয়েন একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে আপনাদের বিস্তারিত জানাতে পারলাম। সবাই ভালো থাকবেন,সুস্থ্য থাকবেন ধন্যবাদ!

0 Comments