আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম - আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর নিয়ম – প্রিয় পাঠক আপনি কি আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম জানতে চাচ্ছেন? কিভাবে বিদেশ থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাবেন তার উপায় খুজছেন। অনেক বাংলাদেশী ভাই-বোনেরা আছেন যারা আমেরিকায় থাকেন, তারা যখন বাংলাদেশে টাকা পাঠাবেন তখন তারা কিভাবে আমেরিকা থেকে টাকা পাঠাবেন তা অনেকেই জানেন না।

আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

তবে আপনি আজকের পোস্ট মনোযোগ সহকারে পড়লে জানতে পারবেন আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম। আমরা আজকের পোস্টে আপনাদের জানানোর চেষ্টা করব আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম, বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম। চলুন তাহলে আর দেরি না করে জেনে নিইঃ 

সূচীপত্রঃ আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর নিয়ম

আপনি যদি একজন বাংলাদেশী প্রবাসী হয়ে থাকেন তাহলে আপনার কাছে আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর নিয়ম জানাটা খুবই জরুরী। আপনি বিভিন্ন উপায়ে আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে পারেন। 

তবে, আমরা আপনাদের জানাবো খুব সহজ উপায়ে কিভাবে আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাবেন। আপনি আজকের উপায় থেকে বাংলাদেশ সহ সারা বিশ্বের যেকোনো জায়গায় টাকা পাঠাতে পারবেন। তাহলে জেনে নিন আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম গুলো। 

ব্যাংকের মাধ্যম আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

আপনি যদি ব্যাংক ট্রান্সফারের মাধ্যমে আমেরিকা থেকে টাকা পাঠাতে চান তাহলে এই নিয়মগুলো অনুসরণ করতে পারেন। আপনি যে দেশের ব্যাংকে টাকা পাঠাতে চাচ্ছেন সেই ব্যাংকের মানি এক্সচেঞ্জ অফিসে যান। এরপর আপনি যে পরিমাণ টাকা পাঠাবেন সেই পরিমাণ টাকা জমা দেন এবং একটি কেওয়াইসি পূরন করতে হবে। 

এখানে আপনার যাবতীয় তথ্য দিতে হবে যেমনঃ ব্যাংক নাম, সুইফট কোড, ব্যাংকের ব্রাঞ্চ ইত্যাদি দিয়ে সাবমিট করতে হবে। অনেক ব্যাংক একটি গোপন পিন নাম্বার দিয়ে থাকে যে পিন নাম্বারটি আপনি যার অ্যাকাউন্ট নাম্বারে টাকা পাঠাবেন তাকে দিবেন। 

সে ওই পিন নাম্বার দিয়ে টাকা তুলতে পারবে। সব ব্যাংকের ক্ষেত্রে এই নিয়মটি নাও হতে পারে। তাই টাকা পাঠানো পূর্বে মানি এক্সচেঞ্জ কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে বিস্তারিত আরও জেনে নিবেন।

আরো পড়ুনঃ গ্রামে বাড়ি করার জন্য ব্যাংক লোন

আমেরিকা থেকে ডাচ বাংলা ব্যাংকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

ডাচ বাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে আমেরিকা থেকে টাকা পাঠাতে চাইলে, ডাচ বাংলা ব্যাংক সমর্থিত আমেরিকায় অবস্থানরত মানি এক্সচেঞ্জ অফিসে গিয়ে কেওয়াইসি পুরণ করতে হবে এবং টাকা জমা দিয়ে রিসিপ্ট সংগ্রহ করতে হবে। এরপর আপনি যার অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাবেন তার সকল তথ্য দিবেন। 

যেমন: অ্যাকাউন্ট নাম, অ্যাকাউন্ট নাম্বার, ব্যাংক নাম, সুইফট কোড, ব্যাংকের ব্রাঞ্চ ইত্যাদি। এরপর তার ডাচ বাংলা ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট নাম্বারে টাকা চলে যাবে। একাউন্টের টাকা যুক্ত হলে এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে। 

সেই ব্যক্তি এসএমএস পাওয়ার পর পরই ডাচ বাংলা ব্যাংকের যেকোনো শাখা, এটিএম বুথের এর মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করতে পারবেন। আমেরিকা বা বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর জন্য সে ২% টাকা রেমিটেন্স পাবেন।

আমেরিকা থেকে ইসলামী ব্যাংকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

আমেরিকা থেকে ইসলামী ব্যাংকে টাকা পাঠাতে চাইলে আপনার নিজস্ব একটি ইসলামী ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে। এবং আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে ইসলামী ব্যাংকে টাকা পাঠাতে হলে আপনার ইসলামী ব্যাংকের ইন্টারন্যাশন্যাল টাকা পাঠানোর অ্যাপ এম ক্যাশ অ্যাপে লগিন করে আপনি আমেরিকা থেকে ইসলামী ব্যাংকে টাকা পাঠাতে পারেন। 

সেন্ড ওয়েব এর মাধ্যমে আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

সেন্ড ওয়েব এর মাধ্যমে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে চাইলে আপনাকে প্রথমেই Send Wave এ অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। আপনারা চাইলে গুগল প্লেস্টোর থেকে সেন্ড ওয়েব অ্যাপস ইন্সটল করে আরও সহজে ব্যবহার করতে পারেন। সেন্ড ওয়েবের মাধ্যমে বাংলাদেশসহ আরও বিভিন্ন দেশে টাকা পাঠানো যায়। 

কিন্ত বাংলাদেশ থেকে টাকা পাঠানোর সুযোগ নেই। আপনি কোনো প্রকার অতিরিক্ত খরচ ছাড়াই বাংলাদেশে টাকা নিতে পারবেন। আপনি যদি অন্যান্য মোবাইল অ্যাপসের এর মাধ্যমে আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে চান তাহলে আপনাকে অতিরিক্ত টাকা চার্জ দিতে হবে। 

সেদিক থেকে চিন্তা করলে এই সেন্ড ওয়েব মানি ট্রান্সফার মাধ্যমটি অনেক অনেক ভালো। আপনি সেন্ড ওয়েব এর মাধ্যমে আমেরিকা থেকে টাকা পাঠাতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ বিনা জামানতে ঋণ দেয় কোন ব্যাংক

আমেরিকা থেকে টাকা বিকাশে টাকা পাঠানোর নিয়ম

আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে বিকাশের মাধ্যমে টাকা পাঠাতে চাইলে আপনি নিচের নিয়মগুলো অনুসরণ করুন। বাংলাদেশের বাইরে বিদেশে বা আমেরিকাতে অনেক আর্থিক প্রতিষ্ঠান আছে যাদের বিকাশের সাথে আর্থিক লেনদেন সম্পর্ক আছে। 

আপনারা এসব প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে বিকাশের মাধ্যমে টাকা পাঠাতে পারবেন। প্রথমে আপনারা অনুমোদিত এবং পার্টনার ব্যাংক ব্র্যাঞ্চ, মানি এক্সচেঞ্জ, এটিএম এজেন্ট এর কাছে যাবেন এবং তাদের এজেন্টেদের বলবেন, আমি বিকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে চাই।

তারা আপনার কাছে বিকাশ নাম্বার চাইবে (যে বিকাশ নাম্বারে আপনি টাকা পাঠাতে চান) এবং সেই বিকাশ অ্যাকাউন্টের মালিকের নাম বলতে হবে। এরপর আপনি যত টাকা পাঠাতে চান সেই টাকার পরিমাণ তাদের দিবেন, তারা সেই টাকা আপনার বলা বিকাশ নাম্বারে পাঠিয়ে দিবে। 

এছাড়াও আপনি যদি সহজ উপায়ে আমেরিকা থেকে বিকাশে টাকা পাঠাতে চান, তাহলে আপনি ওয়াইজ অ্যাপ, ট্যাপ ট্যাপ অ্যাপ ব্যবহার করতে পারেন। এই অ্যাপ গুলোতে কোনো প্রকার চার্জ ছাড়াই আমেরিকা থেকে টাকা পাঠাতে পারবেন।

মানিগ্রাম – MoneyGram এর মাধ্যমে আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

অনেকেই জানতে চেয়েছেন মানিগ্রাম – MoneyGram এর মাধ্যমে কি আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানো যায়? হ্যাঁ, মানিগ্রাম দিয়ে আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানো যায়। সারা বিশ্বের অধিক দেশে মানিগ্রাম এজেন্ট এর সহায়তায় মানিগ্রাম ব্যবহার করে টাকা পাঠানো যাবে আমেরিকা বা বিদেশ থেকে বাংলাদেশে। 

মানিগ্রামের মাধ্যমে টাকা পাঠাতে চাইলে প্রথমে মানিগ্রামের এজেন্টের কাছে যেতে হবে আপনার মানিগ্রাম আইডি এবং টাকা নিয়ে এরপর এজেন্টের কাছে আপনি যে পরিমাণ টাকা পাঠাতে চান সে টাকা জমা দিবেন। 

মানিগ্রামের মাধ্যমে টাকা ট্রান্সফার করা যায় ব্যাংকের মাধ্যমে অথবা মোবাইল ওয়ালেট ব্যবহার করে। যার কাছে আপনি টাকা পাঠাবেন তার ব্যাংকের নাম ও অ্যাকাউন্ট নাম্বার প্রয়োজন হবে।

জুম – Xoom এর মাধ্যমে আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

বাংলাদেশে পেপাল এর সেবা না থাকলেও পেপাল দ্বারা চালিত ইন্টারন্যাশনাল মানি ট্রান্সফার সার্ভিস জুম রয়েছে। আবার খুব কম সময়ের মধ্যে Xoom ব্যবহার করে পাঠানো অর্থ পৌঁছে যায় গ্রহীতার নিকট। 

আপনি যদি আমেরিকা থেকে জুমের মাধ্যমে টাকা পাঠাতে চান তাহলে জুম এর ওয়েবসাইটে আপনার যাবতীয় সকল তথ্য দিয়ে অ্যাকাউন্ট করবেন। এবং আপনার জুম অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য অ্যাকাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করতে পারেন। 

যারা ফ্রিল্যান্সারর আছেন তারা চাইলে জুম ইন্টারন্যাশনাল মানি ট্রান্সফার সার্ভিস ব্যবহার করে আপনার আমেরিকার ক্লায়েন্ট বা বাহিরের দেশের ক্লায়েন্টদের কাছে থেকে টাকা রিসিভ করতে পারেন। 

ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন এর মাধ্যমে আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর সবচেয়ে সহজ এবং দ্রুততার মাধ্যম হচ্ছে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন। আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর অন্যতম জনপ্রিয় সেরা একটি সার্ভিস হলো ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন। যে দেশ থেকে পাঠানো হবে উক্ত দেশের মুদ্রাকে টাকায় রুপান্তর করতে হবে। 

বাংলাদেশের অধিকাংশ ব্যাংকে টাকা ট্রান্সফার করা যাবে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন ব্যবহার করে। ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন সাইটে আপনার একটি অ্যাকাউন্ট করতে হবে এরপর আপনার সকল তথ্য দিয়ে ভেরিফিকেশন করতে হবে। 

এরপর আপনি আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য অ্যাকাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন।আমেরিকা থেকে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন এর মাধ্যমে টাকা পাঠাতে হলে আপনার ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন অ্যাকাউন্ট ভেরিফিকেশন কমপ্লিট হয়ে গেলে “সেন্ড মানি” অপশান দেখতে পাবেন। এখান থেকে আপনি সহজেই টাকা সেন্ড করে অন্য অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ নিজেই নিজের আত্মকর্মসংস্থান করার উপায়

ওয়াইজ – Wise এর মাধ্যমে আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর জন্য সবচেয়ে সেরা সহজ উপায় হচ্ছে ওয়াইজ অ্যাপের মাধ্যমে টাকা পাঠানো। কারণ আপনি খুব তাড়াতাড়ি আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে পারবেন। টাকা পাঠানোর জন্য গুগোল প্লেস্টোর থেকে ওয়াইজ অ্যাপ ইন্সটল করে অ্যাকাউন্ট করতে হবে। এরপর মানি ট্রান্সফারের মাধ্যমে আপনি আমেরিকা থেকে টাকা পাঠাতে পারবেন। আর এখানে মজার ব্যাপার হচ্ছে আপনি চাইলে বিকাশে টাকা পাঠাতে পারবেন। 

রেমিটলি – Remitly এর মাধ্যমে আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

কম সময়ের মধ্য আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর জন্য সেরা অনলাইন মাধ্যম হচ্ছে রেমিটলি-Remitly। রেমিটলি হলো একটি ডিজিটাল রেমিট্যান্স বা বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর ডিজিটাল মাধ্যম। যা আমেরিকা বা অন্যন্য দেশের টাকা বাংলাদেশে পাঠানোর জটিল প্রক্রিয়া অনেক সহজ করে। 

রেমিটলি – Remitly এর কোন লোকেশন থেকে চালিত না হওয়ায় জন্য রেমিটলি এর খরচ বেশ কম। বাংলাদেশের অনেক ব্যাংক আছে রেমিটলি এর ব্যাংকিং পার্টনার তার মধ্য আছে সোনালী ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড, ডাচ বাংলা ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক ইত্যাদি। আপনারা আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে চাইলে রেমিটলি ব্যবহার করতে পারেন।

আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর চার্জ বা খরচ কত

আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর জন্য কোন অতিরিক্ত চার্জ নেই। কিন্তু টাকা বিকাশ থেকে ক্যাশ আউট করতে বা বিভিন্ন অ্যাপের অথবা ওয়েবসাইটের সাইটের কিছু সার্ভিস চার্জ বাবদ কিছু টাকা খরচ হতে পারে। 

শেষ কথাঃ আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

পরিশেষে আমি কিছু কথা বলতে চাই, আজকের আলোচনায় আমরা আপনাদের সাথে জানানোর চেষ্টা করেছি আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম বা আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য। আম আশা করব আপনি যখন আমেরিকা থেকে টাকা পাঠাবেন তখন আরো যাচাই বাছাই করে তারপর আমেরিকা থেকে টাকা পাঠাবেন। ধন্যবাদ!

পোষ্ট ক্যাটাগরি:

এখানে আপনার মতামত দিন

0মন্তব্যসমূহ

আপনার মন্তব্য লিখুন (0)