ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম - প্রিয় পাঠক, আপনি কি ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন। আমাদের দেশের যতগুলো ব্যাংকিং সিস্টেম রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম ব্যাংক হচ্ছে ডাচ বাংলা ব্যাংক। 

ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

আরো পড়ুনঃ কোন ব্যাংকে টাকা রাখলে লাভ বেশি

সূচীপত্রঃ ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

  • ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলতে কি কি লাগে
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট চার্জ কত
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খোলার নিয়ম
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খুলতে কি কি লাগবে
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট চার্জ
  • ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম
  • রকেট একাউন্ট খোলার নিয়ম
  • মোবাইল দিয়ে রকেট একাউন্ট খোলার নিয়ম
  • রকেট একাউন্টে টাকা দেখার নিয়ম
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক সেলারি একাউন্ট খোলার নিয়ম
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক সেলারি একাউন্ট খুলতে কি কি লাগবে
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক কারেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক কারেন্ট একাউন্ট খুলতে কি কি লাগবে
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খুলতে কত টাকা লাগে
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার দেখার নিয়ম
  • ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট টাকা চেক করার নিয়ম
  • অর্থাৎ বাংলাদেশের অন্যতম ব্যাংকিং সেবা গুলোর মধ্যে যে নামটি এখন সমান ভাবে জনপ্রিয় সেটি হলো ডাচ বাংলা ব্যাংক। বাংলাদেশের অন্যান্য ব্যাংকের মত ডাচ বাংলা ব্যাংক ব্যাংকিং খাতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এখানে, একাউন্ট করতে হলে আপনার আইডিয়া থাকা জরুরী।

    কারণ, ডাচ বাংলা ব্যাংকে অনেক ধরনের একাউন্ট তৈরি করা যায়। স্টুডেন্টদের জন্য আলাদা একাউন্ট, সেভিংস এর জন্য আলাদা একাউন্ট। আপনি যদি ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম না জানেন সে ক্ষেত্রে ভুল ভাবে একটি একাউন্ট করে পরতে হতে পারে নানাবিধ ঝামেলার মধ্যে।

    আপনারা অনেকেই জানতে চানতে চেয়েছেন ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম বা কিভাবে ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট খুলব এই সম্পর্কে। আপনি যদি আজকের পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়েন তবে আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংকের সকল নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানতে পারবেন। তাহলে চলুন জেনে আসি ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম।

    আমাদের আজকের আর্টিকেলের মূল বিষয় হলো ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম। আপনারা অনেকেই মূলত জানেন না কোন ধরণের একাউন্ট এর জন্য কি কি ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন পরে।যেহেতু আলাদা আলাদা ক্যাটাগরিতে একাউন্ট খুলতে হয় তাই প্রতিটি বিষয় আপনার জেনে রাখা অনেক প্রয়োজন। চলুন তাহলে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিইঃ

    আমাদের আজকের এই আর্টিকেলের আলোচ্য বিষয়সমূহ হচ্ছে অর্থাৎ আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে যা যা পাবেনঃ "ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট খোলার নিয়ম", "ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম", "ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম", "ডাচ বাংলা ব্যাংক সেলারি একাউন্ট খোলার নিয়ম", "ডাচ বাংলা ব্যাংক কারেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম", "ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট খোলার নিয়ম"

    "অনলাইনে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম", "ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খুলতে কত টাকা লাগে", "ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার দেখার নিয়ম", "ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট চার্জ", "ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলতে কি কি লাগে", "ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট চার্জ", "ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট ফরম", "ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২"।

    আরো পড়ুনঃ বাংলাদেশে অনলাইনে লোন পাওয়ার উপায়

    ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

    আপনারা অনেকাই ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে চান তবে সঠিক তথ্য এবং কি কি কাগজপত্র লাগবে তা না জানার কারণে একাউন্ট খুলতে পারেন না। তবে আপনি আজকের পোস্ট থেকে জেনে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খুলতে কি কি লাগবে।

    সাধারণত ডাচ বাংলা ব্যাংকে দুই ধরনের ব্যাংক একাউন্ট খোলা যায় সেভিংস একাউন্ট এবং স্টুডেন্ট একাউন্ট। আপনারা যে একাউন্ট খুলতে সেই একাউন্ট খুলতে কি কি লাগবে তা আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংকের একাউন্ট ম্যানেজারের কাছে থেকে জেনে নিতে পারেন।

    আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট জোগাড় করে আপনার নিকটস্থ ডাচ বাংলা ব্যাংকের শাখায় চলে যান, এরপর তারা আপনাকে একটি ফরম দিবে আপনি আপনার সঠিক তথ্য দিয়ে ফরম পূরণ করবেন। এরপর তারা আপনার ছবি এবং নমিনীর ছবি চাইবে এগুলো তাদের দিবেন। এরপর আপনার আঙ্গুলের ফিঙ্গার প্রিন্ট নিবে। তারপর আপনার ডাচ বাংলা ব্যাংকের একাউন্টটি সম্পূর্ণভাবে অ্যাক্টিভ হবে।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

    আপনি যদি ছাত্রবস্থায় একটি ব্যাংক একাউন্ট খোলার চিন্তা করেন তবে আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংকের স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলতে পারেন। ছাত্রবস্থায় বিভিন্ন কাজের জন্য ব্যাংকিং সিস্টেমের প্রয়োজন হয় তাই যারা ব্যাংক একাউন্ট খুলতে চাচ্ছেন তারা স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলতে পারেন।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলতে কি কি কাগজপত্র লাগবেঃ

    ১। সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের দুই কপি ছবি (রঙ্গিন) 

    ২। আপনার সর্বশেষ স্কুলে বেতন দেওয়ার স্লিপ

    ৩। নমিনির ০১ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রে ফটোকপি 

    ৪। স্টুডেন্ট আইডি কার্ড (যদি থাকে)

    ৫। শনাক্তকরণের জন্য একজন ব্যক্তির প্রয়োজন হবে তাই ব্যক্তির ০১ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি প্রয়োজন হতে পারে। 

    ৬। ডাচ বাংলা ব্যাংকে নতুন একাউন্ট খুললে ১০০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা জমা রাখতে হয়।

    নোটঃ আপনি যদি অনার্স পড়ুয়া হয়ে থাকেন তবে আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংকের স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলতে পারবেন না।

    এসব কাগজপত্র সংগ্রহ করার পর আপনার নিকটস্থ ডাচ বাংলা ব্যাংকের শাখায় যাবেন অথবা সরাসরি আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংকের মেইন ব্রাঞ্চেও যেতে পারেন। আপনার কাছে যটি সুবিধা মনে হবে আপনি সেটি করতে পারবেন। 

    ব্রাঞ্চে যাওয়ার পর ডাচ বাংলা ব্যাংকের একাউন্ট ম্যানেজার আপনাকে একটি ফরম দিবে। আপনি আপনার সঠিক তথ্য দিয়ে ঐ ফরম টি সঠিকভাবে পূরণ করেবন। আপনার ফরম পূরণ করা হয়ে গেলে আপনার কাছ থেকে তারা ফরমসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহ করবে। 

    এরপর আপনার আঙ্গুলের ফিঙ্গার প্রিন্ট নিবে। আপনার একাউন্ট খোলার প্রক্রিয়া শেষ। এরপর ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টার মধ্যেই আপনার ডাচ বাংলা ব্যাংকের স্টুডেন্ট অ্যাকউন্ট অ্যাক্টিভ হয়ে যাবে। একাউন্ট অ্যাক্টিভ হলে আপনি যে নাম্বার দিয়ে ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট খুলছেন সেই নাম্বারে এসএমএসের মাধ্যেমে আপনাকে নিশ্চিত করা হবে।

    আরো পড়ুনঃ রকেটে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করার নিয়ম

    ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট চার্জ কত

    আপনারা যারা নতুন ডাচ বাংলা ব্যাংকে স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলবেন তারা অনেকেই জানতে চেয়েছেন ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট চার্জ কত টাকা। স্টুডেন্ট একাউন্ট ওপেন করতে কোনো প্রকার চার্জ দিতে হয় না। মাত্র ৫০০ টাকা ডিপোজিট করেই একটি স্টুডেন্ট একাউন্ট ওপেন করা যায়।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট লিমিটেশন

    ডাচ বাংলা ব্যাংকে স্টুডেন্ট একাউন্টে কিছু লিমিটেশন আছে যেগুলো আলোচনা করা হলোঃ 

    ১। স্টুডেন্ট একাউন্টে প্রতিমাসে মাত্র ২ লক্ষ টাকা যুক্ত করা যাবে এবং উত্তোলন করা যাবে 

    ২। স্টুডেন্ট একাউন্ট থেকে প্রতিদিন ৫০,০০০ টাকা উত্তোলন করা যাবে 

    ৩। প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৫ টি এটিএম কার্ড ব্যবহার করে টাকা উত্তোলন করা যাবে।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খোলার নিয়ম

    আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খুলতে চাচ্ছেন কিন্ত কি কি কাগজপত্র লাগবে তা না জানার কারণে একাউন্ট করতে পারছেন না। তবে জেনে নিন ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খোলার নিয়ম। 

    ডাচ বাংলা ব্যাংকের অধীনে আপনার সকল ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য এবং অতিরিক্ত সুযোগ সুবিধা পাওয়ার জন্য আপনি সেভিংস একাউন্ট খুলতে পারেন। স্টুডেন্ট একাউন্টে অনেক লিমিটেশন রয়েছে যা সেভিংস একাউন্টে নেই। এছাড়াও অনেক সুবিধা পেতে পারেন সেভিংস একাউন্ট খুললে।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খুলতে কি কি কাগজপত্র লাগবে

    আপনি যদি ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খুলতে চান তাহলে আপনার বেশ কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র লাগবে। যেসব কাগজপত্র ছাড়া আপনি সেভিংস একাউন্ট খুলতে পারবেন না। তা নিম্নরুপঃ

    ১। সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের ০২ কপি রঙ্গিন ছবি 

    ২। আইডি কার্ডের ফটোকপি (নিজের) [অনেক সময় মূল কপি লাগতে পারে] 

    ৩। ড্রাইভিং লাইসেন্স বা অন্যন্য যেকোন জাতীয় সনদপত্র (যদি থাকে) 

    ৪। ব্যবসিয়াক প্রতিষ্ঠান থাকলে ট্রেড লাইসেন্স বা ই-টিন সার্টিফিকেট 

    ৫। নমিনির এক কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি ও আইডি কার্ডের ফটোকপি (এক কপি) 

    ৬। একাউন্ট তৈরীর জন্য ৫০০ টাকা জমা রাখতে হবে 

    উপর্যুক্ত কাগজপত্র নিয়ে আপনার ডাচ বাংলা ব্যাংকের যেকোনো শাখায় যাবেন, এরপর ডাচ বাংলা ব্যাংকের এজেন্টদের বলবেন, “আমি ডাচ বাংলা ব্যাংকের সেভিংস একাউন্ট খুলতে চাই” তারা আপনাকে একটি ফরম দিবে। 

    এই ফরমে আপনার সকল তথ্য সঠিকভাবে বসিয়ে দিবে। এরপত তাদের কাছে জমা দিবেন। জমা দেওয়ার ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টার মধ্যেই আপনার সেভিংস একাউন্ট অ্যাক্টিভ হয়ে যাবে। আপনি এই একাউন্ট দিয়ে টাকা-পয়সা লেনদেন করতে পারবেন।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট চার্জ

    ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট চার্জ দুই ধরণের সেভিংস একাউন্টে দুটি ভিন্ন এমাউন্ট দরকার হবে। যেমন, সেভিংস ডিপোজিট একাউন্ট জেনারেল এর ক্ষেত্রে ৫০০ টাকা, আর সেভিংস প্লাস ডিপোজিট একাউন্ট এর ক্ষেত্রে ৫০০০ টাকা।

    ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

    ডাচ বাংলা ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংক হচ্ছে “রকেট”। আপনি চাইলে ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ঘরে বসেই খুলে নিতে পারেন। আর আপনি যদি নিজে রকেট অ্যাকাউন্ট খুলতে না পারেন তবে আপনি যেকোন রকেট এজেন্টের কাছ থেকে রকেট একাউন্ট খুলে নিতে পারেন।

    রকেট একাউন্ট খোলার নিয়ম

    আপনি যদি ঘরে বসে রকেট একাউন্ট খুলতে চান তবে আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সহ বেশ কয়েকটি জিনিস লাগবে যেমনঃ 

    ১। স্মার্টফোন 

    ২। সিম কার্ড (নিজের) 

    ৩। ইন্টারনেট সংযোগ 

    ৪। রকেট মোবাইল অ্যাপ 

    ৫। জাতীয় পরিচয়পত্র (নিজের)

    মোবাইল দিয়ে রকেট একাউন্ট খোলার নিয়ম

    আপনি যদি মোবাইল দিয়ে ঘরে বসেই ডাচ বাংলা ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংক রকেট একাউন্ট খুলতে চান তাহলে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুনঃ

    ১। প্রথমে গুগল প্লেস্টোর বা অ্যাপ স্টোর থেকে “রকেট” অ্যাপ ডাউনলোড করুন

    ২। এরপর আপনি যে সিম দিয়ে রকেট একাউন্ট খুলতে চান সেই নাম্বার বসিয়ে দিন

    ৩। এরপর সিমের অপারেটর সিলেক্ট করুন

    ৪। এবার আপনার কাছে একটি ফোন কল আসবে এই ফোনের মাধ্যমে আপনাকে জানিয়ে দেওয়া হবে যেকোনো একটি কোড দেওয়ার কথা। আপনি নিবন্ধন করতে হলে আপনাকে অবশ্যই Go to verification page এই অপশনটি দিতে গিয়ে তারপরে যেকোনো ০৪ সংখ্যার একটি সিকিউরিটি কোড এবং পিন কোড নির্বাচন করুন। 

    ৫। আপনার ফোনে কলে থাকাবস্থায় যখনই আপনি আপনার সিকিউরিটি কোডটি নির্বাচন করে নিবেন, তখন আপনাকে তারা মূল পেজে নিয়ে যাবে এখান থেকে আপনাকে “নিবন্ধন সম্পন্ন করুন” আপনার অপশনটিতে চাপ দিতে হবে।

    ৬। এরপর রকেটের নীতিমালাগুলো আপনার সামনে আসবে আপনি এগুলো ভালোভাবে পড়ে I AGREE তে ক্লিক করবেন।

    ৭। এরপর আপনার আইডি কার্ডের সামনের অংশ এবং ছবি তুলে সাবমিট করুন।

    ৮। এবার আপনার একটি সেলফি তুলুন।

    ৯। এরপর আপনার অ্যাড্রেস বসিয়ে দিন। (যদিও বসানো থাকবে)

    ১০। আপনি পুরুষ না মহিলা সিলেক্ট করুন।

    ১১। আপনার পেশা সিলেক্ট করুন।

    ১২। আপনার মাসিক বেতন কত সিলেক্ট করুন।

    ১৩। সর্বশেষ আপনি একটি ৪ ডিজিটের গোপন পিন কোড সেট করুন। 

    এরপর পরবর্তী বাটনে ক্লিক করলে রকেট অ্যাকাউন্ট খোলা সম্পন্ন হবে। আপনি এবার এই রকেট একাউন্ট দিয়ে টাকা পয়সা লেনদেন করতে পারেন। আপনি নতুন রকেট একাউন্ট খুললে ২৫ টাকা আপনার রকেট একাউন্টে বোনাস পাবেন।

    রকেট একাউন্টে টাকা দেখার নিয়ম

    আপনারা অনেকেই আছেন রকেট একাউন্টে টাকা দেখতে পারেন না। আপনি যদি রকেট অ্যাপ ব্যবহার করে থাকেন তবে খুব সহজে অ্যাপের মাধ্যেমে টাকা দেখতে পারেন। আর যারা অ্যাপ ব্যবহার করেন না তারা *322# ডায়াল করে টাকা দেখতে পারবেন।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক সেলারি একাউন্ট খোলার নিয়ম

    ডাচ বাংলা ব্যাংক সেলারি একাউন্ট কিভাবে খোলা হয় এই সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন, তবে জেনে নিন। সেলার একাউন্ট কখনো ব্যক্তিগত ভাবে খোলা যায়না। সেলার একাউন্ট হয় কোনো কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানের সাথে।

    ব্যাংক গুলোর সাথে একটি চুক্তি হয় এবং সেই প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের প্রত্যেক ইমপ্লয়দের পেমেন্ট পরিশোধ করে সেলারি একাউন্টের মাধ্যেমে। সেজন্য প্রতিষ্ঠানগুলোর ইমপ্লয়দের জন্য একটি করে সেলারি একাউন্ট খোলা হয়।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক সেলারি একাউন্ট খুলতে কি কি কাগজপত্র লাগবে

    • পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি 
    • আইডি কার্ডের ফটোকপি 
    • নমিনি ও তার আইডি কার্ডের ফটোকপি ইত্যাদি।

    যেহেতু আপনি যে প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন সেই প্রতিষ্ঠান আপনার কাছ থেকে যেসব ডকুমেন্ট চাইবে আপনি সেগুলো জমা দিলেই ডাচ বাংলা ব্যাংক সেলারি একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক কারেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

    আপনি যদি আপনার ব্যক্তিগত বা প্রতিষ্ঠানের জন্য ডাচ বাংলা ব্যাংক কারেন্ট একাউন্ট খুলতে চান তাহলে আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সহ ডাচ বাংলা ব্যাংকে যেতে হবে এরপর আপনাকে তারা একটি ফরম পূরণ করতে দিবে ফরম পূরণ করা হয়ে গেলে তাদের কাছে ফরম জমা দিতে হবে। এরপত ০৩ দিনের মধ্যেই আপনার ডাচ বাংলা ব্যাংকের কারেন্ট একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক কারেন্ট একাউন্ট খুলতে কি কি কাগজপত্র লাগবে

    ডাচ বাংলা ব্যাংকের কারেন্ট একাউন্ট খুলতে যেসব কাগজপত্র লাগবে তা নিচে দেওয়া হলোঃ ১। NID কার্ডের কপি/পাসপোর্ট/জন্ম সনদ ২। ছবি ২ কপি (পাসপোর্ট) ৩। বিদ্যুৎ বিলের কপি ৪। টিআইএন সার্টিফিকেট কপি ৫। ট্রেড লাইসেন্স ৬। নমিনির এক কপি রঙ্গিন পাসপোর্ট সাইজের ছবি ও তার আইডি কার্ডের ফটোকপি।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খুলতে কত টাকা লাগে

    নতুন ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্টে মাত্র ৫০০ টাকা ডিপোজিট করে একাউন্ট ওপেন করা যায়।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার দেখার নিয়ম

    আপনি যদি আপনার ডাচ বাংলা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট দেখতে চান তাহলে আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংকের যে এজেন্টে একাউন্ট খুলেছেন সেই এজেন্টদের সাথে কথা বললে আপনার ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার বলে দিবে। এছাড়াও আপনি মোবাইলের এসএমএস সার্ভিসের মাধ্যেমে একাউন্ট নাম্বার দেখতে পারবেন।

    ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট টাকা চেক করার নিয়ম

    ডাচ বাংলা ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট চেক করতে হলে আপনাকে “নেক্সাস পে” অ্যাপে একাউন্ট এক্টিভ করতে হবে। নেক্সাস পে অ্যাপে একাউন্ট আক্টিভ করতে হলে ১৬২১৬ এই নাম্বারে কল দিতে পারেন। এরপর অ্যাপে লগিন করে আপনার ডাচ বাংলা ব্যাংকে কত টাকা রয়েছে তা চেক করতে পারেন।

    তাছাড়াও এসএমএস এর মাধ্যমে আপনার ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট ব্যালেন্স জানতে হলে আপনার একাউন্টে রেজিস্ট্রেশন করা নাম্বারটি ব্যবহার করুন। এখন প্রথমে আপনার মোবাইলের ম্যাসেজ অপশনে চলে যান। সেখান থেকে ডায়াল করুন BAL<space>123456(account number) এবং পাঠিয়ে দিন 3225 এই নাম্বারে।

    ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট ফরম পিডিএফ ডাউনলোড

    ডাচ বাংলা ব্যাংকের ফরম খুজছেন, তাহলে এখান থেকে ডাচ বাংলা ব্যাংকের ফরম পিডিএফ ডাউনলোড করে নিন। 

    শেষ কথাঃ ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২

    পরিশেষে আমি আপনাদের সাথে কিছু কথা বলতে চাই,আজকের পোস্টে আমি আপনাদের জানানোর চেষ্টা করেছি ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে সকল তথ্য। কিভাবে ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট খুলবেন, ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে কত টাকা লাগবে।

    ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে কি কি কাগজপত্র লাগবে তার সকল কিছু বিস্তারিতভাবে বলার চেষ্টা করছি আজকের পোস্টে। আপনারা যারা নতুন ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট করবেন তারা আজকের পোস্ট মনোযোগ সহকারে পড়লে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম জানতে পারবেন। ধন্যবাদ!

    এখানে আপনার মতামত দিন

    0মন্তব্যসমূহ

    আপনার মন্তব্য লিখুন (0)