Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2022/07/virus-kata-software.html

মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার

মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার - মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার ২০২২ — আমাদের আজকের এই পোস্টের টাইটেল দেখে এতক্ষনে নিশ্চয়ই ধারণা করতে পেরেছেন ঠিক কোন বিষয়টি নিয়ে আজকে আমরা আলোচনা করতে যাচ্ছি। হ্যাঁ ঠিক ধরেছেন আজকের আলোচনার মূল বিষয়বস্তু হচ্ছে মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার । তাহলে আর দেরি কেন? চলুন জেনে নেই মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার গুলো কি কি। 

মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার

প্রিয় পাঠক, আপনাদের একান্ত সহযোগিতা এই পোস্টের মাধ্যমে মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। আপনি যদি আপনার মোবাইলের ভাইরাস গুলো ডিলিট করতে চান তাহলে অবশ্যই অবশ্যই লেখাটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়ে নিবেন। আর আমাদের আজকের এই মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার নিয়ে লেখাটি আপনার ভালো লাগলে অবশ্যই কমেন্টে জানিয়ে দিবেনঃ

সূচীপত্রঃ মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার

মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার

আপনার যদি একটি এন্ড্রয়েড মোবাইল থেকে থেকে তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য। বিশেষ করে ভাইরাসের কারণে যদি আপনার মোবাইল হ্যাং হয়ে যায় অথবা অকারণে প্রয়োজনীয় ফাইল ডিলিট হয়ে যায়, বিভিন্ন সফটওয়্যার কাজ করা বন্ধ করে দেয়। তাহলে এই সমস্যার সমাধানের প্রয়োজনে সব তথ্যাদি নিয়েই আজকের এই আর্টিকেল।

মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায় সমূহ

প্রথমে জেনে যাক, ভাইরাস কাকে বলে? মোবাইল ভাইরাস হলো এক ধরনের ক্ষতিকারক সফটওয়্যার যা মোবাইল ফোন বা ওয়্যারলেস সক্ষম ব্যক্তিগত ডিজিটাল সহকারীকে লক্ষ্য করে গোপনীয় তথ্যের ক্ষতি বা ফাঁস করে। সহজ ভাষায় বলতে, ভাইরাস হলো ক্ষতিকারক কিছু প্রোগ্রামের সমন্বয়, যার জন্য মোবাইল ডিভাইসের চলমান প্রোগ্রাম গুলোকে নির্দেশিত পথে চলতে বাধা সৃষ্টি করে।

আরো পড়ুনঃ ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব

ভাইরাসের ক্ষতিকর প্রভাব সমূহ

মোবাইল ডিভাইস যখন ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত হয়। তখন মোবাইল ডিভাইসে চলমান সকল প্রোগ্রাম গুলো নির্দিষ্ট পথে চলতে বাধাগ্রস্ত হয়। তাছাড়াও মোবাইলে থাকা ছবি, ভিডিও এবং প্রয়োজনীয়সহ ফাইল অকারণে ডিলিট হতে থাকে। এছাড়াও মোবাইলে ভাইরাস প্রবেশ করার কারণে মোবাইল হ্যাং হতে দেখা যায়।

প্রিয় পাঠক যদি উপরোক্ত সমস্যাগুলো আপনার ডিভাইসে দেখা যায়। তাহলে নিশ্চিত ভাবে বলা যায় আপনার মোবাইল ডিভাইসে ভাইরাস আক্রমণ করেছে। আর ভাইরাস নিরাময়ে যে সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয় তার নাম অ্যান্টিভাইরাস। অ্যান্টিভাইরাস নামক এই সফটওয়্যার গুলো ব্যবহারের মাধ্যমে আপনি আপনার মোবাইলে বিদ্যমান ভাইরাস গুলো নিরাময় করতে পারবেন। নিচে মোবাইলের ভাইরাস কাটার সেই সব অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার গুলো তুলে ধরা হলোঃ

এন্টিভাইরাস কোনটা ভালো

প্রিয় পাঠক এখন আমি আপনাদের জন্যে বেশ কয়েকটি ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার গুলো শেয়ার করবো এবং আপনি কিভাবে আপনার মোবাইলে ভাইরাস কাটতে পারেন এই বিষয়টি দেখিয়ে দেয়ার চেষ্টা করবো।

অটো ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার – ভাইরাস কাটার অ্যাপস

সর্বপ্রথম আমি আপনাদেরকে জানাচ্ছি মোবাইলের জন্য সবচেয়ে ভালো এন্টিভাইরাস কোনটি। স্বাভাবিকভাবে যদি আপনি লেটেস্ট আপডেট স্মার্টফোন গুলি ব্যবহার করেন তবে প্রতিটি মোবাইল ফোনে একটি অফিসিয়াল এন্টিভাইরাস দেয়া থাকে। আর আপনি সবসময় চেষ্টা করবেন মোবাইলের সাথে থাকা অফিসিয়াল এন্টিভাইরাস সফটওয়্যারটি ব্যবহার করার।

মোবাইল ভাইরাস কাটার অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার

কিছুদিন আগে মোবাইল ডিভাইসে ভাইরাস নিয়ে তেমন চিন্তা ভাবনা করতে হতো না‌। কারণ সেই সময়গুলোতে শুধু কম্পিউটারেই ভাইরাস দেখা যেত। কিন্তু সময়ের তালে তালে বদলে গেছে সব। এখন শখের মোবাইলেও ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত হয়। তাই আমাদের প্রত্যেকের এইসব ভাইরাস নিরাময় করার উপায় সম্পর্কে জেনে রাখা দরকার।

মোবাইলে ভাইরাস কাটার এক অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার। আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই ভেবে থাকেন ভাইরাস ও অ্যান্টিভাইরাস দুটি এক জিনিস। কিন্তু আপনার ধারণা ভুল। অ্যান্টিভাইরাস হচ্ছে ভাইরাস নিরাময়ের প্রতিষেধক। অর্থাৎ রোগ যদি ভাইরাস হয়, এন্টিভাইরাস হবে এর ওষুধ। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক, জনপ্রিয় কিছু অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার সম্পর্কে যা মোবাইল ডিভাইসের ভাইরাস কাটার জন্য বেশ উপকারী।

Avast mobile security - ভাইরাস কাটার অ্যাপস

বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার গুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে Avast mobile security। যার মাধ্যমে আপনি আপনার মোবাইল ডিভাইসকে ভাইরাস সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করতে পারবেন। মোবাইল ডিভাইসের ভাইরাস কাটার জন্য আমি সব সময় Avast mobile security এই অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যারটি সাজেস্ট করব। 

এই সফটওয়্যারটি এতই উন্নত যে, এটি মোবাইল ডিভাইসের পাশাপাশি কম্পিউটারের ভাইরাস নিরাময় সহায়তা করে। এই অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যারে বিভিন্ন ধরনের ফিচার রয়েছে এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য Real time scan। যদি কোনো কারণে আপনার মোবাইল ডিভাইসে অথবা মেমোরি কার্ডে ভাইরাস ঢুকে।

তাহলে সাথে সাথে এই ফিচারের মাধ্যমে আপনি ভাইরাস কেটে ফেলতে পারবেন। এর পাশাপাশি আপনি এখানে Battery saver নামের একটি অপশন দেখতে পারবেন। যার মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যাটারির লাইফ অনেক ভালো রাখতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ স্মার্টফোনে সেরা মেসেজিং ও কলিং অ্যাপ

Avira antivirus security - ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার

বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে নামকরা এবং জনপ্রিয় সফটওয়্যার হচ্ছে Avira antivirus security সফটওয়্যার। যার রয়েছে মিলিয়ন মিলিয়ন ইউজার। এত বেশি জনপ্রিয় হওয়ার পেছনে কারণ রয়েছে। কেননা এই সফটওয়্যারটি আপনার মোবাইল ডিভাইসকে বিভিন্ন ধরনের সিকিউরিটি দিতে পারে। 

এই সফটওয়্যার এর প্রাইভেসি অনেক ভালো এবং এন্ট্রি থিফট নামক একটা ফিচার দেখতে পারবেন। যার মাধ্যমে আপনার ফোনটি কোনরকম ভাবে চুরি হয়ে গেলে ও এটি খুঁজে পেতে সাহায্য করবে। তাই মোবাইলে সুরক্ষার জন্য মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার হিসেবে আপনি Avira Antivirus Security সফটওয়্যারটি ব্যবহার করতে পারেন।

Kaspersky mobile antivirus - মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায়

Avast mobile security antivirus software এর মত এই সফটওয়্যারটিও বেশ জনপ্রিয় লাভ করছে। এটি বর্তমান সময়ের ফ্রি একটি এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার। এই অ্যান্টিভাইরাসের বেশ কিছু ভালো দিক আছে। যেমনঃ এই অ্যাপসটি যখন আপনার ফোনে ইন্সটল করা থাকবে। 

তখন কোন ভাইরাস আপনার ফোনে প্রবেশ করতে পারবে না এবং যদিও কোনো কারণে আপনার মোবাইল ডিভাইসে ভাইরাস প্রবেশ করে ফেলেও,তখন এই সফটওয়্যারটি আপনাকে জানিয়ে দেবে এবং আপনি স্কিন করে সেই ভাইরাসকে রিমুভ করে দিতে পারবেন।

Google Play Protect

Google Play Protect এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন অ্যাপটি আপনার ডেটা সুরক্ষার উপর সবচেয়ে বেশি নজর দেয়। Google Play Protect অ্যাপের সাহায্যে আপনি আপনার স্মার্টফোনটিকে পোটেনশিয়াল হার্মফুল অ্যাপ গুলো থেকে সুরক্ষিত রাখতে পারবেন। 

এই অ্যাপের মাধ্যমে আপনারা অ্যান্টি-থেফ্ট-টুলস পেয়ে যাবেন। আপনার স্মার্টফোনের লোকেশন যদি কেউ মনিটর করার চেষ্টা করে থাকে কিংবা অন্য কোনো ক্ষতিকারক ক্রিয়াকলাপ পরিচালনা করার চেষ্টা করে, তবে এই সফটওয়্যারটি আপনাকে সেসব ক্ষতিকারক থ্রেট থেকে বাঁচতে সাহায্য করবে।

Google Play Protect অ্যাপের ফিচার সমূহঃ ১। অটোমেটিক ভাবে PHA রিমুভ এবং ব্লক করে ২। হারিয়ে যাওয়ার কিংবা চুরি হয়ে যাওয়া মোবাইল খুঁজে পেতে হেল্প করে ৩। ডিভাইসের ডেটা রিমোটলি ডিলিট করে ফেলতে অথবা দূর থেকে ডিভাইস লক করতে সহায়তা করে ৪। ক্লাউড বেসড অ্যাপ ভেরিফিকেশন সিস্টেম পোটেনশিয়াল হার্মফুল অ্যাপ গুলো থেকে ডিভাইসকে দূরে রাখে।

Bitdefender Antivirus - মোবাইলে ভাইরাস কাটার অ্যাপস

ওয়েবসাইট ব্যবহারে নিরাপত্তা এবং ইন্টারনেট ব্যবহারে সুরক্ষিত থাকার জন্য এই সেরা এন্টিভাইরাস সফটওয়্যারটি ব্যবহার করতে পারেন। কেননা এই সেরা এন্টিভাইরাস সফটওয়্যারটি ব্যবহার করার কারণে বিভিন্ন ধরনের ম্যালওয়ার জাতীয় ওয়েবসাইট থেকে আপনার ফোনে কোনো প্রকার ভাইরাস প্রবেশ করতে পারে না। 

গুগল প্লে-স্টোরে ৪.৭ রেটিং পাওয়া এই ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার টির ইন্সটল সংখ্যা ১০ মিলিয়নের বেশি। Bitdefender মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার এর ফিচার সমুহঃ 1. Web protection 2. Account privacy 3. Online privacy 4. Auto pilot

Web protection - ওয়েব প্রটেকশনঃ মোবাইল ফোনে ভাইরাস প্রবেশ করার সবচেয়ে বেশি ইন্টারনেট ব্রাউজ করার মাধ্যমে। ইন্টারনেটের বিভিন্ন ওয়েবসাইট ব্যবহার করার ফলে এবং বিভিন্ন ম্যালওয়ার যুক্ত লিংকে ক্লিক করার কারণে মোবাইল ফোনে ভাইরাস যুক্ত হয়। আর এই সকল ক্ষতিকারক ওয়েবসাইট গুলোর ভাইরাস থেকে মোবাইলকে সুরক্ষিত রাখতে এই Bitdefender ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার টি কাজ করে।

Account privacy - অ্যাকাউন্ট প্রাইভেসিঃ আপনার মোবাইল ফোনে লগইন থাকা কোনো অ্যাকাউন্টে প্রাইভেসি নষ্ট হয়ে গেলে এই ভাইরাস ডিলিট করার অ্যাপটি আপনাকে সঙ্গে সঙ্গে জানিয়ে দিবে। অর্থাৎ আপনার মোবাইলের কোনো অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড ম্যালওয়ারের মাধ্যমে হ্যাকিং এর কিংবা অন্যান্য সমস্যার সম্মুখীন হলে এই সফটওয়্যারটি আপনাকে তা জানিয়ে দিবে। ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার ডাউনলোড করার জন্য গুগল প্লে-স্টোরে গিয়ে betdefender antivirus টাইপ করে সার্চ করুন এবং সেখান থেকে সহজেই ইন্সটল করে নিন।

Online privacy - অনলাইন প্রাইভেসিঃ ইন্টারনেট ব্যবহারে সুরক্ষিত থাকার জন্যে আমরা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভিপিএন (ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক) ব্যবহার করে থাকি। মোবাইল ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার Bitdefender থাকলে আপনাকে আলাদা ভাবে আর অন্য কোনো ভিপিএন ব্যবহার করার প্রয়োজন হবেনা। অনলাইন প্রাইভেসি অপশনটির মাধ্যমেই এই সফটওয়্যারটি ভিপিএন হিসেবে কাজ করে থাকে।

Auto pilot - অটো পাইলটঃ যদি আপনি এই অটো পাইলট অপশনটি অন রাখেন তাহলে ভাইরাস কাটার এই সফটওয়্যারটি আপনার ফোনে অটোমেটিক ভাবে ভাইরাস স্ক্যান করতে শুরু করবে। অর্থাৎ এই অপশনটি অন করে রাখলে আপনার ফোনে কোনো প্রকার ভাইরাস কিংবা ক্ষতিকারক ম্যালওয়ার প্রবেশ করলে সঙ্গে সঙ্গে সফটওয়্যারটি সেই ভাইরাস এবং ম্যালওয়্যার গুলোকে ডিলিট করে দিবে।

McAfee Mobile Security - মোবাইলে ভাইরাস মারার সফটওয়্যার

মোবাইলে ভাইরাস কাটার এন্টিভাইরাসটি এন্ড্রয়েড স্মার্টফোনের আইডেন্টিটিতে সবচেয়ে বেশি সুরক্ষা প্রদান করে। এই এন্টিভাইরাসের মাধ্যমে আপনি আপনার মোবাইল ফোনটিকে ভাইরাস থেকে দূরে রেখে আপনার আইডেন্টিটি সুরক্ষিত রাখতে পারবেন। এই অ্যাপের মাধ্যমে আপনারা একটা সিকিউর VPN (ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক) পেয়ে যাবেন।

McAfee Mobile Security ফিচার সমুহঃ ১। বিপদজনক লিংক এবং ক্ষতিকারক ওয়েবসাইট থেকে সুরক্ষা প্রদান করে ২। McAfee Mobile Security এন্টিভাইরাসের নিজস্ব ভিপিএন সুবিধা থাকার কারণে আপনার গোপনীয় তথ্যকে সুরক্ষা প্রদান করে ৩। অ্যাপটি ডিভাইসটিকে নিয়মিত স্ক্যান করে ক্ষতি কারক অ্যাপ্লিকেশান গুলোকে ব্লক করে দেয় ৪। বিপদজনক ওয়েবসাইট এবং ক্ষতিকারক লিংকগুলো থেকে আপনার গোপনীয় তথ্যকে সুরক্ষিত রাখে।

শেষ কথা

আমরা যথা সম্ভব মোবাইলে ব্যবহৃত অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার গুলো সম্পর্কে আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। যা আপনি আপনার মোবাইলে ভাইরাস কাটার জন্য ব্যবহার করতে পারেন। মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার লেখাটি শেষ পর্যন্ত এবং আমাদের সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। দেখা হবে নেক্সট কোনো টপিকে।

0 Comments

* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.??