Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/12/5-Places-You-Should-Never-Keep-Your-Phone.html

ভুল করেও এই ৫টি জায়গায় স্মার্টফোন রাখবেন না

যেসব জায়গায় স্মার্টফোন রাখা উচিত নয় — বিজ্ঞানের এই বিশ্বে মানুষ প্রযুক্তিগত সুবিধার উপর এতটাই নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে যে প্রযুক্তি তাদের জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে স্মার্টফোন আমাদের জীবনে এমন একটা জায়গা করে নিয়েছে যে এটি ছাড়া মানুষের বেঁচে থাকাই কঠিন হয়ে পড়েছে। স্মার্টফোন ডিভাইসটি সব সময় আমাদের সাথে থাকে। অবস্থা এমন যে আজ আমরা খাবার খেতে ভুলে গেলেও ইন্টারনেটে সার্চ দিতে ভুলি না।

৫টি জায়গায় স্মার্টফোন রাখবেন না

আজকাল সবাই স্মার্টফোন ব্যবহার করে। তাই আজ আমরা আপনাকে স্মার্টফোন সম্পর্কিত কিছু বিশেষ তথ্য দিতে যাচ্ছি, যা আপনার নিরাপত্তার জন্য খুবই উপকারী। আপনি যদি স্মার্টফোন ব্যবহার করেন তাহলে এই বিশেষ বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে।

আমরা আপনাকে বলতে চাই যে আপনার স্মার্টফোনকে অন্য কোনো ইলেকট্রনিক ডিভাইসের কাছে রাখবেন না। কারণ ইলেকট্রনিক ডিভাইস থেকে নির্গত রেডিয়েশন আপনার স্মার্টফোনের ম্যাগনেটিক সেন্সরকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। এই কারণে, আপনার ফোনে সংযোগ এবং সিগন্যাল ব্লকের সমস্যা আছে। আজকে আমরা সেই সব জায়গার কথা বলব যেখানে স্মার্টফোন রাখা উচিত নয়, সেখানে আপনার নিরাপত্তার ঝুঁকি রয়েছে। যেসব জায়গায় স্মার্টফোন রাখা উচিত নয়-

১। সরাসরি সূর্যালোক এক্সপোজার এড়িয়ে চলুন

অতিরিক্ত গরমের কারণে স্মার্টফোনের ব্যাটারি নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে এবং স্মার্টফোনের মাদার বোর্ডের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। লক্ষণীয় যে, বেশিক্ষণ ফোনে কথা বলার কারণেই যে অতিরিক্ত গরম হয় তা নয়, স্মার্টফোনকে সরাসরি সূর্যের আলোতে রেখে বা সরাসরি সূর্যের আলোতে ব্যবহার করলেও এই সমস্যা হয়। এজন্য আপনার স্মার্টফোনকে সরাসরি সূর্যের আলো থেকে রক্ষা করতে হবে।

আরও পড়ুনঃ মোবাইলে আসা বিরক্তিকর SMS বন্ধ করার নিয়ম

২। গাড়ির গ্লাভ কম্পার্টমেন্টে

একটি গাড়ির গ্লাভ কম্পার্টমেন্টে একটি স্মার্টফোন রাখা খুব বিপজ্জনক প্রমাণিত হতে পারে, কারণ এই স্থানটি সম্পূর্ণরূপে বন্ধ এবং একই সময়ে এটি গাড়ির অংশ যা অত্যন্ত গরম থাকে। এখানে বাতাস খুব কমই যথেষ্ট কাছাকাছি পায়। সুতরাং আপনি যদি আপনার স্মার্টফোনটি এখানে রাখেন তবে এটি আর রাখবেন না। এই কারণে আপনার স্মার্টফোনের অভ্যন্তরীণ অংশগুলি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চুম্বক বা ইলেকট্রনিক ডিভাইসের কাছে স্মার্টফোন রাখলে ফোনের এনএফসি চিপ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পাশাপাশি সিগন্যাল ফেইলিউরের কারণে ইন্টারনেট সংযোগও কঠিন হয়ে পড়ে।

৩। স্মার্টফোনকে ফ্রিজ থেকে দূরে রাখুন

অনেক সময় দেখা গেছে কেউ কেউ ফোনকে অতিরিক্ত গরম থেকে বাঁচাতে ফ্রিজে রেখে দেন। কিন্তু আপনার এই পদক্ষেপ খুবই বিপজ্জনক। এটা মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে ফোনের জন্য খুব গরম বা খুব ঠান্ডা কোনটাই উপকারী নয়। এটি যেমন বিপজ্জনক তেমনি আপনি যদি আপনার ফোনটি ফ্রিজে রাখেন তবে ফোনের ব্যাটারি ফুলে যাওয়ার এবং ক্ষতি হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।

৪। গ্যাস এবং চুলার কাছে ফোন রাখবেন না

আপনি হয়তো জানেন যে মোবাইল ফোন সিস্টেমকে সেলুলার টেলিফোন সিস্টেমও বলা হয়। ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক রেডিয়েশন এই সেল ফোনের রেঞ্জে 2.5 GHz ব্যবহার করা হয়। স্মার্টফোন থেকে হালকা স্পার্কের ঘটনা খুব কমই শোনা যায়। কিন্তু রান্নাঘরে গ্যাসের চুলার কাছে ফোন রাখলে সব সময় স্ফুলিঙ্গ ও আগুনের আশঙ্কা থাকে। অতএব, এই জিনিসটি আপনার মনে রাখবেন যে কখনই আপনার ফোনকে গ্যাসের চুলা থেকে দূরে রাখতে ভুলবেন না।

৫। স্মার্টফোনটি বাথরুমে নিয়ে যাবেন না

একটি গবেষণা অনুসারে, বাড়ির বেশিরভাগ ব্যাকটেরিয়া টয়লেট সিটে এবং বাথরুমে থাকে। আর এমন অবস্থায় আপনি যদি আপনার স্মার্টফোনটিকে বাথরুমে নিয়ে যান, তাহলে সেই ব্যাকটেরিয়া আপনার ফোনে লেগে যেতে পারে। এবং আপনি যখন বাইরে আসবেন তখন আপনি আপনার হাত এবং পা পরিষ্কার করতে পারবেন, কিন্তু আপনি আপনার স্মার্টফোন পরিষ্কার করতে পারবেন না, কারণ এটি ধোয়ার প্রয়োজন হবে। যা কেউ করবে না। তাই মনে রাখবেন আপনার স্মার্টফোনটি কখনই সাথে বাথরুমে নিয়ে যাবেন না।

এই হল সেই জায়গা যেখানে স্মার্টফোন রাখা উচিত নয় – এটি হল আপনার স্মার্টফোন সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, যা খুবই বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। বন্ধুরা, আমাদের এই আর্টিকেলটি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। যাতে কেউ এ ধরনের ভুল করে থাকলে তা সেটা বন্ধ করতে পারে। আর স্মার্টফোনের কারণে সৃষ্ট বিপদ থেকে নিজেকে নিরাপদ রাখুন।

আরও পড়ুনঃ ফ্ল্যাগশিপ ফোন কি | কেন ব্যবহার করবেন ফ্লাগশিপ ফোন

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?