Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/11/Advantages-and-disadvantages-of-noodles.html

নুডুলস এর উপকারিতা ও অপকারিতা

নুডুলস এর উপকারিতা ও অপকারিতা — নুডলস এমনই একটি ফাস্ট ফুড যা ছোট বাচ্চা থেকে শুরু করে বড়রাও খেতে পছন্দ করে। নুডুলস বানাতে সময় খুব কম লাগে এবং এই খাবারের টেস্টও অনেক মজার। কিন্তু নুডুলস খেলে কি কি ক্ষতি হয় এবং কি কি উপকার হয়ে থাকে তা কি জানেন? তবে ঠিক আছে, আপনি অবশ্যই জানেন যে, যদি আমরা অতিরিক্ত কিছু খায় তবে সেটা আমাদের শরীরের ক্ষতি করে। সুতরাং এটা স্পষ্ট যে নুডুলস আমাদের শরীরেরও উপকার এবং ক্ষতি করে থাকে। তবে আসুন জেনে নিই নুডুলস এর উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে।

নুডুলস এর উপকারিতা ও অপকারিতা

নুডুলস এর উপকারিতা

প্রথমত, নুডলস কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ এবং পর্যাপ্ত শক্তি সরবরাহ করে। দ্বিতীয়ত, নুডলসে এমন বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা পেটে ধীরে ধীরে হজম হয় এবং ক্ষুধা বাধা দেয়। তৃতীয়ত, চর্বিবিহীন নুডলস যা ইনসুলিনকে স্বাভাবিক ও স্থিতিশীল রাখতে পারে এবং তারপরে রক্তে সুগার দীর্ঘমেয়াদী বজায় রাখতে পারে। এছাড়াও, নুডলস মানুষের মনকে উদ্দীপিত করতে পারে এবং মানুষের মস্তিষ্কের ও স্নায়ুতন্ত্রের 50% কার্বোহাইড্রেট খাবারের প্রয়োজন হয়, আর মস্তিষ্কের এই চাহিদা নুডুলস মিটিয়ে থাকে। নুডুলস তৈরির উপাদান হচ্ছে গম বা ময়দা, আর গমে ভিটামিন বি রয়েছে যা মস্তিষ্কের কোষকে উদ্দীপ্ত করতে পারে।

নুডুলস এর অপকারিতা

১। নুডুলস খেলে স্থূলতা হতে পারে। আসলে নুডুলসে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেটের পাশাপাশি নুডুলসে থাকা চর্বি এবং স্যাচুরেটেড ফ্যাট স্থূলতা সৃষ্টি করে, তাই আপনি যদি বেশি নুডুলস খান তাহলে তা স্থূলতার কারণ হতে পারে। একই সময়ে, স্থূলতা অনেক শারীরিক রোগ যেমন ডায়াবেটিস, থাইরয়েড ইত্যাদির জন্ম দিতে পারে।

২। গর্ভবতী মহিলাদের জন্য নুডুলস খাওয়া ক্ষতিকর। প্রকৃতপক্ষে, বিশেষজ্ঞদের মতে, নুডুলসে যে পরিমাণ সোডিয়াম এবং এমএসজি অর্থাৎ (মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট) উপস্থিত রয়েছে তা গর্ভবতী মহিলাদের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। অতিরিক্ত নুডুলস খাওয়ার ফলে গর্ভপাত হতে পারে, তাই গর্ভবতী মহিলাদের অতিরিক্ত নুডলস খাওয়া এড়িয়ে চলা উচিত।

৩। নুডুলস খেলে হার্ট, কিডনি ও লিভার সংক্রান্ত রোগ হতে পারে। আসলে, নুডলসের মধ্যে প্রোপ্লাইন গ্লাইকল নামক উপাদান থাকে, যা নুডলসকে নষ্ট হতে বাধা দেয়। এই উপাদানটি হার্ট, কিডনি এবং লিভারের ক্ষতি করে, তাই নুডুলস অতিরিক্ত সেবন অঙ্গগুলির ক্ষতি করতে পারে।

৪। নুডুলস খাওয়া কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়াতে পারে, তাই অতিরিক্ত নুডলস খাওয়া এড়িয়ে চলুন। যদি একজন ব্যক্তির কোলেস্টেরলের সমস্যা থাকে, তাহলে সেই ব্যক্তির উচিত নুডুলস খাওয়া এড়িয়ে চলা।

৫। নুডুলসে কার্বোহাইড্রেটের পরিমাণ বেশি থাকে, তাই অতিরিক্ত নুডুলস খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে যায়। এ ছাড়া নুডুলসে কোনো ধরনের প্রোটিন ও মিনারেল থাকে না, তাই নুডুলস খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

৬। মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট নুডলসের স্বাদ বাড়াতে ব্যবহার করা হয়, তবে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় অ্যালার্জি, জ্বালা, মাইগ্রেন, মাথাব্যথা ইত্যাদি হতে পারে। তাই নুডলস খাওয়া এড়িয়ে চলুন।

৭। নুডুলস সোডিয়াম সমৃদ্ধ, তাই নুডুলসের অত্যধিক ব্যবহার উচ্চ রক্তচাপের কারণ হতে পারে। উচ্চ রক্তচাপে আক্রান্ত ব্যক্তিদের নুডুলস খাওয়া এড়িয়ে চলা উচিত।

৮। নুডলস ময়দা থেকে তৈরি করা হয়। যার কারণে শরীরে পানিশূন্যতার সমস্যা হতে পারে। এ ছাড়া আপনার কোষ্ঠকাঠিন্যও হতে পারে। নুডুলস ঠিকমতো রান্না না করলে নুডলসের গায়ে লাগানো মোম হজম হতে বেশি সময় লাগতে পারে। অর্থাৎ সহজে হজম করা যায় না।

৯। নুডুলসে কার্বোহাইড্রেট বেশি থাকে। এটি শরীরের চিনির মাত্রাও বাড়িয়ে দিতে পারে। নুডুলসে কোনো প্রকার প্রোটিন ও খনিজ পদার্থ থাকে না। তাই নুডুলস খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।

১০। নুডুলসে উপস্থিত প্রোপিলিন গ্লাইকল নামক উপাদান, যা নুডলসকে নষ্ট হওয়া থেকে রক্ষা করে, হার্ট, কিডনি এবং লিভারের ক্ষতি করে। এর আধিক্য এই অঙ্গগুলির ক্ষতির ঝুঁকি বাড়ায়।

১১। MSG অর্থাৎ মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট তাত্ক্ষণিক নুডলসের স্বাদ নিতে ব্যবহৃত হয়। এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া অ্যালার্জি, জ্বালা, মাইগ্রেন, মাথাব্যথা ইত্যাদির কারণে হতে পারে। 

১২। অনেক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে নুডুলসে যে পরিমাণ সোডিয়াম এবং এমএসজি থাকে তা গর্ভবতী মহিলাদের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এটি খুব বেশি গ্রহণ করলে গর্ভপাত হতে পারে।

১৩। প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট রয়েছে যেখানে ভিটামিন, খনিজ এবং ফাইবার প্রায় নেই। এতে উপস্থিত ট্রান্স ফ্যাট এবং স্যাচুরেটেড ফ্যাট আপনাকে স্থূলতার শিকার করতে পারে।

নুডলস খাওয়ার অপকারিতা

১। মাত্র দুই মিনিটে তৈরি ম্যাগি নুডুলসে রয়েছে বিপজ্জনক রাসায়নিক মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট, যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর ২। বেশি পরিমাণে নুডুলস খেলে রক্তাল্পতা হয় ৩। অতিরিক্ত নুডুলস খেলেও জয়েন্টের সমস্যা হতে পারে ৪। নুডুলস খাওয়া আমাদের স্মৃতিশক্তিও দুর্বল করে ৫। নুডুলস খাওয়া আমাদের কিডনির উপর খুব খারাপ প্রভাব ফেলে ৬। বেশি নুডুলস খেলেও শ্রবণ সমস্যা হতে পারে ৭। অতিরিক্ত নুডলস খাওয়া আমাদের লিভারের উপর খারাপ প্রভাব ফেলে ৮। নুডুলস খেলে মাথাব্যথার সমস্যাও দূর হয় ৯। নুডুলস খেলে ক্ষুধা কমে যাওয়ার সমস্যা হয়। 

১০। নুডুলস খাওয়া আমাদের স্থূলতা বাড়ায়, তাই ম্যাগি কম খাওয়া উচিত ১১। নুডুলসে msg এর পরিমাণ বেশি, যা ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়। ১২। নুডুলস খাওয়া আমাদের পরিপাকতন্ত্রের উপর খুব খারাপ প্রভাব ফেলে, যার কারণে আমাদের খাবার সঠিকভাবে হজম হয় না এবং আমাদের পেট ব্যাথা শুরু করে ১৩। 15-20 দিনে একবার নুডুলস খেলে আমাদের শরীরে খুব একটা প্রভাব পড়ে না, তবে প্রতিদিন এটি খেলে তা আমাদের জন্য ক্ষতিকর ১৪। সকালের নাস্তায় নুডুলস খাওয়া আমাদের শরীরে খুব খারাপ প্রভাব ফেলে, কারণ এতে কার্বোহাইড্রেট থাকে, যা সহজে হজম হয় না।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া