Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/08/Ho-to-Go-Viral-on-TikTok.html

টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়

টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় — আমাদের মাঝে কিংবা আমাদের আশেপাশের প্রায় অনেকেই আছেন যারা টিকটকে ভিডিও তৈরি করতে অনেক বেশিই পছন্দ করেন। আর তারা মাঝে মধ্যে একটি সমস্যায়ও পরে থাকে। তা হচ্ছে টিকটকে তাদের তৈরি করা ভিডিওগুলোকে ভাইরাল করার সমস্যা নিয়ে। অনেকেই রয়েছে যারা জানেন না যে কিভাবে টিকটকে ভাইরাল হওয়া যায় এবং কি কি পদ্ধতি অনুসরণ করলে টিকটকে ভিডিও ভাইরাল হবে। তো এই সমস্যা নিয়ে আপনার আর কোনো চিন্তার কারণ নেই। আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে আলোচনা করবো টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় সম্পর্কে। চলুন তাহলে জেনে নেই টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিতঃ

১। কতক্ষণ সময় নিয়ে ভিডিওগুলো দেখলো

২। আপনি ট্রেন্ডগুলোতে যুক্ত করে টিকটকে ভাইরাল হতে পারেন

৩। টিকটক আইডি ফ্রিজ হয়ে যাওয়া থেকে এড়ানো

টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়

পদ্ধতি ১

টিকটকে মানুষ কতক্ষণ সময় ধরে আপনার ভিডিও গুলোকে দেখলো, যখন আপনি কোনো ভিডিও পাবলিশ করেন, সেই সময়ে অ্যালগরিদম খুবই স্বল্প সময়ের জন্যে FOR YOU পেজে সামগ্রীটি বৃদ্ধি করতে কাজ করে। এটি সেই অ্যালগরিদম গুলোকে নির্ধারণ করতে পারে যে সামগ্রীটি ভিউয়ারদের সঙ্গে কতটা প্রাসঙ্গিক এবং যদি লোকেরা সত্যিই এটাকে দেখতে এবং শেয়ার করতে চায়। অ্যালগরিদম এখানে কি কি মেট্রিক রেকর্ড করছে তা হচ্ছে দেখার সময় ও সমাপ্তির হার।

যদি বেশিরভাগ ভিউয়ার আপনার ৩০ সেকেন্ডের ভিডিওটি কেবলমাত্র কয়েক সেকেন্ড দেখে এবং সম্পূর্ণ ভিডিও না দেখে, তবে অ্যালগরিদম আপনার ভিডিওটিকে ভিউয়ারদের কাছে অস্বস্তিকর এবং অপ্রাসঙ্গিক বলে উপস্থাপিত করবে। এই কারণে অ্যালগরিদম এটি প্রাসঙ্গিক ও আকর্ষক বলে নির্ধারণ করার সঙ্গে সঙ্গে আপনার ভিডিও বেশি দেখার সময় ও সমাপ্তির হার সহ বিভিন্ন ভিডিওর মাঝে হারিয়ে যাবে।

সুতরাং, এখানে নিয়মটি হচ্ছে আপনাকে আপনার ভিউয়ারদেরকে প্রথম ৩ সেকেন্ডের মাঝে আকর্ষিত করতে হবে। যদি লোকেরা আপনার ভিডিওটির বেশিরভাগ অংশ দেখেছে ও সমাপ্তির হার অতি উচ্চ, আপনি কোনো বিজয়ী হয়ে আছেন এবং অ্যালগরিদম আপনার ভিডিওটিকে অবিচ্ছিন্নভাবে আপনার ভিডিওকে উৎসাহ দিয়ে পুরস্কৃত করবেন। এটা ১ ধরণের ‘স্নোবল’ প্রভাব তৈরি করবে এবং আরো মানুষকে দেখানো হবে যাতে করে আপনি ভাইরাল স্ট্যাটাসে যাওয়ার পথে ভালো আছেন।

আরও পড়ুনঃ ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার বাড়ানোর উপায়

পদ্ধতি ২ 

আপনি টিকটকে নতুন ট্রেন্ডগুলোতে যোগ দিয়ে সহজেই টিকটকে ভাইরাল হতে পারেন যেমনঃ নাচ, কৌতুক ও সংগীতের মাধ্যমে এক সঙ্গে  ধারণ করে। সুতরাং অবশ্যই কোনো ব্র্যান্ডের পক্ষে দৃশ্যমানতা বৃদ্ধি করতে এবং ট্রেন্ডি এবং তাদের লক্ষ্যযুক্ত জনসংখ্যার সঙ্গে প্রাসঙ্গিক বলে মনে হয় এই জন্যে ঝাঁপিয়ে পড়া উপকারী। কিন্তু আমরা যখন ব্র্যান্ড খুবই স্পষ্টভাবে দেরি করে দেখি তখন অনেক সময় ব্র্যান্ডগুলো প্রবণতাটিতে ঝাঁপিয়ে পড়ে চিহ্নটি হারিয়ে যায়।

টিকটকে এটি অত্যন্ত দ্রুততার চলে আসে, এর অর্থ হচ্ছে নতুন ট্রেন্ডগুলোর প্রতি একদিনেই সারফেস করে চলেছে এবং তাই তারা বাস্তবের দ্রুতই পুরোনো হয়ে যায়। ফলস্বরূপ যখন কোনো টিকটক ব্যবহারকারী ও বিশেষত একটি ব্র্যান্ড কোনো পুরানো প্রবণতার উপরে ঝাঁপ দেয়, তখন তাদের স্পর্শে থেকে বাহ্যিক ঝুঁকি থাকে এবং তারা তাদের ভিউয়ারদের হৃদয় জয় করার বিকল্পভাবে বিচ্ছিন্ন হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

পদ্ধতি ৩

টিকটকে আইডি ফ্রিজ হয়ে যাওয়া থেকে এড়ানো। যদিও এটা সর্বনিম্ন সম্ভাব্য ফলাফল এটি যখনি ঘটে তখন সত্যিই হতাশাবোধ ঘটে এবং টিকটক অ্যাপটিতে আপনার পারফরম্যান্সকে দুর্দান্তভাবে প্রভাবিত করে। টিকটক আইডি ফ্রিজ অর্থ হচ্ছে আপনার পোস্টগুলোর অ্যাক্সেসকে কমিয়ে দিয়েছে এবং এটি ভিউয়ারদের কাছে পৌঁছে দেয়া বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

টিকটক আইডি ফ্রিজ তখনি ঘটে যখন কোনো অ্যাকাউন্টকে স্প্যাম বলে বা ‘স্প্যামি’ আচরণগুলো প্রদর্শন করে। আপনি যদি একসঙ্গে প্রচুর পোস্ট ডিলিট করে ফেলেন এবং আপনি যদি লাইক করেন এবং এক সঙ্গে প্রচুর লোককে অনুসরণ করেন, এবং আপনি যদি কপিরাইটযুক্ত সামগ্রী/গান ব্যবহার করেন। এছাড়াও যদি আপনি নিষিদ্ধ হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করেন।

আরও পড়ুনঃ মোবাইলে আসা বিরক্তিকর SMS বন্ধ করার নিয়ম

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া