Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2020/11/Laptop%20and%20Desktop%20Tips%20.html

ল্যাপটপ ও ডেক্সটপ টিপস | কিভাবে ল্যাপটপ এর যত্ন নিবেন

আমরা অনেক এই শখের বসত বা নানা রকম কাজের জন্য কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ক্রয় করে থাকি।কিন্তু আমাদের কে ঝামেলা ছাড়াই একটি ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ ব্যবহার করার পর তার যত্ন নেয়া প্রয়োজন হয়ে থাকে। ল্যাপটপে এবং ডেস্কটপে কোন রকম সমস্যা দেখা দেয়ার আগেই তা মেরামত করতে হবে। 

তবে আপনি যদি আগে থেকেই এই বিষয়ে সতর্ক হয়ে থাকেন তাহলে এটির সমস্যা সমাধান করা খুব সহজ হয়ে যাবে। অনেক সময় দেখা যায় যে আপনার কম্পিউটারে গেমিং করছেন এবং পাশাপাশি নানা রকম কাজ করে থাকেন। যার ফলে আপনার নানা রকম সমস্যা হয়ে থাকে যেমন পড়ালেখার ক্ষেত্রে। 
সেরা ওয়েবসাইট যেগুলা আমাদের প্রতিদিন দরকার হতে পারে
তবে আপনি এই সমস্যা এর জন্য ভাবলেন যে আমার ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ কোন এক যায়গায় তুলে রাখবেন বা সিন্ধুকে তুলে রাখবেন। আর আপনি এই লম্বা সময়ে এর জন্য ল্যাপটপ বা কম্পিউটার আপনার ডিভাইস টি অনেক দিন ধরে ব্যবহার করতে পারলেন না। আর এর জন্য আপনার ডিভাইস এর যা যা সমস্যা হতে পারে। আর এর সমাধান আপনি যে উপায়ে করবেন তা আমরা আজকের এই আর্টিকেলে তুলে ধরবো। চলুন তাহলে দেখে নেয়া যাক আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে বিস্তারিত;

ঠান্ডা স্থানে রাখা 
ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ সব সময় এমন জায়গায় রেখে চালানো উচিত যেখানে আবহাওয়া ঠান্ডা এবং বাতাস চলাচলের সুব্যবস্থা রয়েছে। এমন যায়গায় রাখার কারন হচ্ছে আপনার ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ অতিরিক্ত গরম হওয়ার যাওয়ার আসঙ্কা থেকে রক্ষা পেয়ে থাকে। তবে হ্যাঁ এর মানে এই না যে আপনি সব সময় এসি বা শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত স্থান থেকে চালাতে হবে এটি ভাবার কোন কারন নেই। 

তরল পদার্থ থেকে ডিভাইস দূরে রাখা 
আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপ কে সুরক্ষিত রাখার জন্য আপনার ডিভাইস থেকে অবশ্যই তরল পদার্থ দূরে রাখতে হবে। কেননা যদি কফি, পানি, চা সহ নান রকম ধরনের তরল পদার্থ আপনার ডিভাইস এর উপর পরে যায় তাহলে নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। যেমন ল্যাপটপ এর ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র যন্ত্রাংশ গুলি তরল পদার্থ এর সংস্পর্শে থেকে শর্টসার্কিট এর সৃষ্টি করতে পারে। যার পরিনতি আপনার সকল ডিভাইস পুরে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এক্ষেত্রে পুরো ডিভাইস যেমন ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ সম্পূর্ণ অচল হয়ে যেতে পারে। তবে এর কোন চিন্তার কারন নেই। এর সহজ সমাধান হচ্ছে আপ্নার ল্যাপটপ বা কম্পিউটার কে সব সময় তরল পদার্থ থেকে দূরে রাখতে হবে। 

এন্টিভাইরাস ব্যবহার
এই পদ্ধতি ব্যবহার করা কম্পিউটার ডেক্সটপ এর জন্য অবশ্যই গুরুপ্তপূর্ণ বিষয়। একটি ল্যাপটপ Laptop বা ডেস্কটপ Desktop এ এন্টিভাইরাস সফটওয়ার ব্যবহার উচিত। আপনি আপনার কম্পিউটার দিয়ে নানা রকম কাজ করে থাকেন যেমন ওয়েবসাইট ভিজিট, বিভিন্ন ফাইল ডাউনলোড, বিভিন্ন ড্রাইভ এর মাধ্যমে নানা রকম ফাইল এক কম্পিউটার থেকে অনন্য কম্পিউটারে শেয়ার করেছেন। 

আর এই রকম নানা রকম কাজ করার সময় হয়তো আপনার কম্পিউটারে নানা রকম ভাইরাস প্রবেশ করে থাকে। আর বর্তমান সময়ে ভাইরাস গুলি ব্যবহার কারীর চোখ ফাকি দিয়ে তার কম্পিউটারে প্রবেশ করে। এর ফলে নানা রকম ফোল্ডার এর আক্কেস নিয়ে থেকে। যার কারনে আপনার কম্পিউটার পরবর্তীতে ব্যবহার এর অনুপযোগী হয়ে পরে। তবে এই সমস্যা সমাধান এর জন্য বিভিন্ন এন্টিভাইরাস ব্যবহার করতে পারেন। এন্টিভাইরাস ব্যবহার করার ফলে আপনার কম্পিউটারে কোন রকম বাজে অনুপযোগী ফাইল প্রবেশ করতে পারবে না। 

আমরা অনেক এই আছি যারা কম্পিউটার নষ্ট না হয়ে যাওয়া পর্যন্ত তা সার্ভিসিং করি না। কিন্তু এটি করা আসলে উচিত না। দীর্ঘ সময় আপনার ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ ডিভাইস ব্যবহার এর ফলে তাতে নানা রকম ধরনের ময়লা বা ধুলা-বালি জমে থাকে। যার ফলে বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্রপাতি সমস্যা দেখা দেয় বা দিতে পারে। এর জন্য বিশ্বত কম্পিউটার সার্ভিসিং এর দোকান থেকে প্রতি বছর এক বার করে পরিস্কার করে নিতে হবে। 

ব্রাশ ব্যবহার করে পরিস্কার করা 
আমরা যখন ল্যাপটপ ডেক্সটপ ব্যবহার করে থাকি তখন আমাদের মনের অজান্তেই নানারকম সমস্যা দেখা যায়। যেমন কি-বোর্ডে ময়লা জমানো, ডিসপ্লে ময়লা জমানা এবং মাদারবোর্ডে ফানে ময়লা জমিয়ে থাকা। আর এই সব গুলি আপনার উচিত নিয়মিত ভাবে পরিস্কার-পরিসন্ন রাখা। এই কাজটি আপনি সম্পূর্ণ নিজে নিজেই করতে পারবেন। 

আপনার ডিভাইসটির ধুলা বালি পরিস্কার করার জন্য ব্রাশ ব্যবহার করতে পারেন। আপনি ব্রাশ ব্যবহার করে আপনার কম্পিউটার এর বাহিরের অংশ গুলি পরিস্কার করতে পারেন। যার ফলে আপনার ল্যাপটপ ডেক্সটপ লাগবে নতুন এর মতো। 

ল্যাপটপ কভার ব্যবহার 
আপনি যদি আপনার ল্যাপটপ কে ধুলাবালি, ময়লা, স্ক্রাচ থেকে দূরে রাখতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই একটি ল্যাপটপ কভার ব্যবহার করতে হবে। কারন ল্যাপটপ কভার অনেক ক্ষেত্রেই ধুলাবালি, ময়লা থেকে সুরক্ষা প্রদান করে। তবে হ্যাঁ আপনাকে অবশ্যই মনে রাখতে হবে বা জেনে নিতে হবে যে ল্যাপটপ এর আকার এর সঙ্গে ল্যাপটপ কভার এর আকার সামজস্য হতে হবে। 

অপরিষ্কার হাতে ব্যবহার না করা 
পরিস্কার পরিস্নন হচ্ছে ইমানের অঙ্গ। পরিস্কারে যত্ন মিলে। তাই আপনাকে এই কথা অনুযায়ী আপনার ডিভাইস টি চালানোর চেষ্টা করবেন। কারন ময়লা হাতে ল্যাপটপ ব্যবহার করার ফলে টাচপ্যাড না কাজ করতে পারে। পরিস্কার হাতে ল্যাপটপ ব্যবহার করার ফলে তাতে ময়লা জমিয়ে থাকার আসঙ্খা থাকে কম। আর যদি খুব তারাতারি ময়লা হয়ে যায় তাহলে সেটি রক্ষনাবেক্ষন এর জন্য অনেক সময় ব্যয় করতে হয়। 
ল্যাপটপে ভারি জিনিস না রাখা 
ল্যাপটপ কোন রকম ভারি জিনিস রাখার জন্য তৈরি করা হয়নি। ল্যাপটপ এর উপর কোন রকম ভারি বস্তু রাখার ফলে নানা রকম অসুবিধা দেখা দিতে পারে। যেমন অতিরিক্ত ভারি জিনিস রাখার ফলে ডিসপ্লেতে নানা রকম সমস্যা দেখা দিবে এবং ডিসপ্লে এর কালার নেগেটিভ দেখা দিতে পারে। এর জন্য এই বিষয়ে আপনাকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে। 

অতিরিক্ত সময় ফেলে রাখা 
আপনি যদি কোন কারনে বা কোন রকম কারন ছাড়া ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ ব্যবহার না করে ঘরের কোন এক কোনায় বা যেকোন জায়গায় ফেলে রাখেন। সেক্ষেত্রে কি হতে পারে আপনার ডিভাইসটির। আপনি যদি কোন দীর্ঘ সময় ল্যাপটপ বা ডেক্সটপে বিদ্যুৎ সংযোগ না দিয়ে থাকেন তাহলে আপনার ডিভাইস এর নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। এটি আপনার যেকোন ডিভাইস এর ক্ষেত্রে হতে পারে তা হচ্ছে অতিরিক্ত সময় ফেলে রাখার ফলে ডিভাইসটিতে নানান রকম টাইপের সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে। 

ডাটা ফেল 
এই ডাটা লস সমস্যাটি আমি নিজেও এর সম্মুখিন হয়েছি। ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ বেশিদিন ফেলে রাখার পর প্রথমে যে সমস্যাটি দেখা দিতে পারে হচ্ছে হার্ড ডিস্ক ড্রাইভ ফেইল বা লস। এটি হওয়ার পর আপনার সকল ইনফরমেশন মিশে যাবে। তাতে আপনাকে নানা রকম দুর্ভোগ পোহাতে হবে। জানা গেছে যে , অনেক সময় পরিবেশ এবং আদ্রতার কারনে হার্ড ডিস্ক ড্রাইভ লস হয়ে যেতে পারে। অনেক সময় হঠাৎ করে তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ার ফলে হার্ড ডিস্ক ড্রাইভ এর মধ্যে যন্ত্রাংশে আয়তন ছোট এবং বড় হয়ে যেতে পারে। আর এর ফলে হার্ড ডিস্কে রিড /রাইট এর সমস্যা দেখা দিতে পারে। 

ব্যাটারি ড্যামেজ হয়ে যাওয়া 
এটি একটি কমন সমস্যা তা হচ্ছে ল্যাপটপ ফেলে রাখার পর ব্যাটারি ড্যামেজ। ল্যাপটপ ফেলে রাখার পর পর সময়ে ব্যাটারি ড্যামেজ হয়ে যেতে শুরু করে। আপনারা এই কথাটি অবশ্যই ভালো ভাবে জানেন যে, ল্যাপটপ এর ব্যাটারিতে বিশেষ ধরনের কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয়ে থাকে। যার ফলে এটির ব্যবহার যতদিন ভালোভাবে চলবে এর ব্যাটারি ততদিন তেমন ভালো চলবে। আর এটি সহজ ভাষায় বলতে গেলে। আপনি ল্যাপটপ জতদিন ফেলে রাখবেন তাতে আপনার ডিভাইস এর ব্যাটারি ডেড হয়ে যাবে। 

অনন্য সমস্যা 
অনেক দিন ল্যাপটপ ফেলে রাখার পর যে শুধু উপরের সমস্যা গুলি দেখা দিবে তা কিন্তু না। এগুলার পাশাপাশি নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। আপনি কিভাবে ল্যাপটপ ফেলে রাখবেন সেই অনুযায়ী আপনার ল্যাপটপ এর যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। যেমন অনেক সময় ল্যাপটপ ফেলে রাখার পর ব্যাটারি ড্যামেজ বা নষ্ট হয়ে যেতে পারে, স্ক্রিন ড্যামেজ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে, কুলিং ফ্যানে বেশি পরিমান ধুলা বালি ময়লা জমে যেতে পারে যার ফলে আপনার ল্যাপটপ এর সম্পূর্ণ কার্যক্ষমতা নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এছাড়া ফ্যান গুলি সম্পূর্ণ ভাবে আজ করা বন্ধ করে দিতে পারে। 

পরিশেষে এটাই বলবো ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ বেশি দিন ফেলে রাখা উচিত না। এটা আপনি নিজেই বুঝতে পারলেন। তবে আপনি যদি ল্যাপটপ এর ব্যবহার না করতে চান তাহলে আপনি ব্যাটারি খুলে রেখে দিন। আর ব্যাটারিতে রিচারজ/ডিসচার্জ করতে ভুলবেন না। 

আমাদের আজকের আর্টিকেল এই টুকুই ভালো লাগলে সেয়ার করবেন কমেন্ট করে আপনার মতামত জানাবেন। ধন্যবাদ 

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

1 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

সর্বশেষ আপডেটেড অফার পেতে চান?

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া