ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম | ফোঁড়া সারানোর ঔষধ

ফোঁড়া সারানোর ঔষধ, ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম সম্পর্কে যারা ডিটেইলসে জানতে চান তাদের আজকের আলোচনা পর্বে জানাই স্বাগতম।

হ্যালো এভরিওয়ান আসসালামু আলাইকুম, আপনি কি ফোড়ার সমস্যায় ভুগছেন? আপনি কি জানতে চান, কোন এন্টিবায়োটিক ঔষধটি আপনার কাজে আসবে! যদি আপনার উত্তর হয় “হ্যাঁ” তাহলে বলবো আজকের পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

কেননা ফোড়া সারানোর ঔষধ হিসেবে আমরা ৫টি ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম সাজেস্ট করব। পাশাপাশি জানাবো ফোড়ার অ্যান্টিবায়োটিক ঔষধ গুলো কতদিন পর্যন্ত খেতে হয়, সেবন বিধি কি, ঔষধ গুলো কিনতে মোটামুটি কত টাকা খরচ পড়ে এবং এই ঔষধ গুলো কোন কোম্পানির তৈরিকৃত ইত্যাদি যাবতীয় বিষয় সম্পর্কে। তাহলে আসুন জেনে নেই ফোঁড়ার এন্টিবায়োটিক ট্যাবলেট নাম সম্পর্কে।

ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম

(toc) #title=(এক নজরে সম্পূর্ণ লেখা পড়ুন)

ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম

ফোড়া সারানোর জন্য বিভিন্ন ঘরোয়া উপায় রয়েছে। তবে যখন ফোঁড়ার আকার আকৃতি এবং ক্ষত অনেক বেশি গভীর হয় তখন এন্টিবায়োটিক ঔষধ খাওয়ার প্রয়োজন পড়ে। বর্তমানে ফোড়া সারানোর এন্টিবায়োটিক ঔষধ হিসেবে যে ওষুধগুলো বেশি ব্যবহৃত হয়ে আসছে, সেগুলো হলো:

  • Cephran 500 mg Capsule
  • Sefril 250 mg Capsule
  • Doxin 100/ Doxycycline 100 mg
  • Flucloxacillin 500mg /Flux 500 Capsule
  • Levofloxacin 500mg tablet
  • cef 3 200 mg Capsule

Cephran 500 mg Capsule

ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম

ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের মধ্যে সবচেয়ে পরিচিত ও ঔষধ সেফরান। সেফরান এই ঔষধটি ৮ থেকে ১৫ বছর বয়সীরা ২৫০ mg খেতে পারবেন ফোড়ার সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে। এই ঔষধটি দিনে তিন থেকে চারবার টানা ৭ থেকে ১৪ দিন পর্যন্ত সেবন করা যাবে।

আরো পড়ুনঃ ফোড়া পাকানোর ট্যাবলেট - ফোড়া পাকানোর ঘরোয়া উপায়

অন্যদিকে যাদের বয়স ১৫ বছর অথবা ১৫ বছরের বেশি, তারা সেফরান 500 mg খেতে পারবেন দিনে একটি করে মোট চারবার। সেবনের সময়সীমা ৭ থেকে ১৪ দিন পর্যন্ত। এই ওষুধটি মূলত সেফরাডিন গ্রুপের অপসোনিন ফারমালিটেড এর তৈরি কৃত ঔষধ। যার বাজার মূল্য প্রতি ক্যাপসুল ১৫.০৫ টাকা এবং স্ট্রিপ প্রাইজ ১০৫.৩৫ টাকা মাত্র। 

Sefril 250 mg Capsule

ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম

সেফ্রিল ২৫০ মি: গ্রা: ক্যাপসুলও একই গ্রুপের ঔষধ। অর্থাৎ সেফরান ৫০০ এমজি ক্যাপসুল যে গ্রুপের তৈরি ঔষধ সেই একই গ্রুপের ঔষধ সেফরিল। যেটি ১৫ বছর বা তার বেশি বয়সী মানুষেরা ৫০০ mg ক্যাপসুল ঔষধটিও দিনে চারবার টানা সাত থেকে ১৪ দিন সেবন করতে পারবেন। এক কথায়, সেফরান এবং এই ওষুধের সেবন বিধি একই।

আর প্রতি ওষুধের দামের কথা বললে বলা যায়। সেফরিল ক্যাপসুলের প্রতি পিস এর দাম ৮. ০৩ টাকা এবং স্ট্রিপ প্রাইস এর দাম ৩২.১২ টাকা। এছাড়াও এই ওষুধটি সিরাপ, সাসপেনশন এবং ড্রপ আকারেও পাওয়া যায়। 

Doxin 100/ Doxycycline 100 mg

ফোঁড়া সারানোর ঔষধ

ফোড়া সারানোর আরো একটি পরিচিত এন্টিবায়োটিক ঔষধ ডক্সিন, পুরো নাম ডক্সসাইক্লিন ১০০ মিঃগ্রা: যা অপসোনিন ফরমালিটেড এর তৈরি কৃত একটি ক্যাপসুল ঔষধ। মূলত এই ওষুধটি ৫ বছর থেকে ১৫ বছর বয়সীরা দিনে দুইবার টানা ৭ থেকে ১৪ দিন সেবন করতে পারবেন। অন্যদিকে ১৫ বছর বয়সীর বেশি মানুষেরা 100 mg করে টানা দিনে দুইবার সাত থেকে ১৪ দিন পর্যন্ত খেতে পারবেন।

তবে ডক্সিন ১০০ মিলিগ্রাম ক্যাপসুল ঔষধের মাত্রা একেকজনের সমস্যার উপর ভিত্তি করে একেক রকম দেওয়া হয়ে থাকে। মানে এটি সাধারণ ডোজ, গুরুতর সংক্রমণ এবং ব্রণ ও অজটিল জেনিটাল ক্ল্যামিডিয়া ননগনোকোকাকাল ইউরিক্থাইটিস এই চার ধরনের ওপর ভিত্তি করে চিকিৎসকরা সেবন বিধি প্রদান করে থাকেন। তাই এ ব্যাপারে চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করুন।

আর হ্যাঁ, Doxin 100/ Doxycycline 100 mg | ডক্সিসাইক্লিন ১০০ মি.গ্রা. ক্যাপসুল এর ইউনিট প্রাইস ২.২১ টাকা এবং স্ট্রিপ প্রাইস ২২.১০ টাকা। যেটা আপনি নিকটস্থ যে কোন ফার্মাসিউটিক্যালস এর দোকান থেকে সংগ্রহ করতে পারবেন এছাড়াও এই একই ঔষধ ৫০ এমজি আকারেও সংগ্রহ করা যাবে।

Flucloxacillin 500mg /Flux 500 Capsule

ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম

ফ্লুক্লক্সাসিলিন ৫০০ mg ক্যাপসুলটি ফোড়ার আরো একটি অ্যান্টিবায়োটিক ঔষধ। এই ওষুধটি অপসোনিন ফর্মালিটেড এর তৈরি কৃত ঔষধ। যার গ্রুপের নাম ফ্লুক্লক্সাসিলিন সোডিয়াম, মূলত এই ঔষধটি সংক্ষেপে Flux নামে পরিচিত। ফোড়া সারানোর এই অ্যান্টিবায়োটিক ঔষধটি চিকিৎসকরা মাঝে মধ্যেই সমস্যার উপর ভিত্তি করে খাওয়ার পরামর্শ প্রদান করে থাকেন। আর এই ওষুধটি মূলত এভেলেবেল রয়েছে ক্যাপসুল সিরাপ ও ইনজেকশন হিসেবে। ক্যাপসুল হিসেবে 250 এবং 500 mg আকারে পাওয়া যায়।

আরো পড়ুনঃ পাতলা পায়খানা হলে করণীয় কি - পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নাম

যার সেবন বিধি বা সেবন মাত্রা হলো, ৭ থেকে ১৪ বছর বয়সীরা ২৫০ mg দিনে চারবার টানা ৭ থেকে ১৪ দিন খেতে পারবেন অপরদিকে ১৫ বছর বয়সীরা বা তার অধিক বয়সীরা খেতে পারবেন দিনে ৫০০ mg ক্যাপসুল একটা করে মোট ৭ থেকে ১৪ দিন। যার বাজার মূল্য প্রতি ক্যাপসুল এর দাম ১১.৫০ টাকা এবং স্ট্রিপ প্রাইস ৪৬.০০ টাকা। 

Levofloxacin 500mg tablet

ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম

ফোড়া সারানোর ৫ নাম্বার এন্টিবায়োটিক ঔষধ হলো লেভোফ্লক্সাসিন, যেটা লিভক্সিন ৫০০ মিলিগ্রাম ট্যাবলেট হিসেবেও পরিচিত। এই ঔষধটি আক্রান্তকারী ব্যক্তিকে ৭ থেকে ১৪ দিন পর্যন্ত টানা খেতে হয়। যাদের বয়স দশ বছর অথবা ১৫ বছর তাদেরকে Levofloxacin ২৫০mg প্রতিদিন একটা খাবার পর খেতে হয়। অন্যদিকে যাদের বয়স ১৫ বছরের বেশি তাদেরকে প্রতিদিন একটা করে খাবারের পর ৫০০mg সেবন করতে হয়।

এই ওষুধটিও ট্যাবলেট, সল্যুশন এবং আইভি ইনজেকশন আকারে পাওয়া যায়। যা ইনসেপ্টা ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেড এর তৈরি কৃত একটি সুপরিচিত ঔষধ। এই ঔষধের ইউনিট প্রাইজ ১৭.০ টাকা এবং স্ট্রিপ প্রাইস ১৭০ টাকা। 

cef 3 200 mg Capsule

ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম

গুগলে অনেকেই সার্চ করে থাকেন cef 3 200 mg ক্যাপসুলের কাজ কি? মূলত এই ওষুধটিও ফোঁড়ার সারানোর কার্যকরী ঔষধ হিসেবে সেবনের পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকরা, যেটা cefixime trihydrate গ্রুপের স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস পিএলসি এর তৈরিকৃত একটি ঔষধ। এই ওষুধটি 400 এমজি ক্যাপসুল আকারে, সিরাপ আকারে এবং ড্রপ আকারেও পাওয়া যায়।

তবে যাদের ফোড়ার সমস্যা রয়েছে তাদেরকে চিকিৎসকরা এই ঔষধ খাওয়ার পরামর্শ হিসেবে ১০ বছর থেকে ১৫ বছর বয়সীদের ২০০ mg প্রতিদিন একটা করে টানা সাতদিন খেতে বলেন এবং ১৮ এর বেশি বয়সী মানুষদেরকেও প্রতিদিন একটা করে সাত দিন খেতে বলেন। যার বাজার মূল্য প্রতি ট্যাবলেটের দাম ৪৫ টাকা এবং স্ট্রিপ প্রাইস ৩১৫ টাকা।

পরিশেষে

তো অডিয়েন্স বন্ধুরা, ওরা সারানোর ঔষধ এবং ফোঁড়ার অ্যান্টিবায়োটিক ঔষধের নাম ইতিমধ্যে আমরা তুলে ধরেছি। পাশাপাশি ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম ও সেগুলোর দাম কত সেটাও জানিয়েছি। সেবন বিধির বিষয়ে আমরা যে সকল ইনফরমেশন সংগ্রহ করতে পেরেছি সেটাও জানিয়েছি আপনাদেরকে।

তবে আমরা পরামর্শ দিব এর মধ্যে থেকে যেকোনো এন্টিবায়োটিক খাওয়ার পূর্বে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কেননা প্রত্যেকটি ওষুধের কিছু না কিছু সাইড ইফেক্ট থেকে থাকে। আর আপনার ফোড়ার ধরন বা ফোঁড়ার ক্ষতের বিষয় বিবেচনা করে ঔষধের ডোজ কম বেশি হতে পারে। আর তাই এ ব্যাপারে আপনাকে সঠিক পরামর্শ দিতে পারবেন একজন অভিজ্ঞ চিকিৎসক।

তো আজকের আলোচনায় এ পর্যন্তই, আশা করছি খোরা সারানোর ঔষধ এবং ফোড়ার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম সম্পর্কিত আজকের পোস্টটি পড়ে আপনারা এতোটুকু হলেও উপকৃত হবেন। তো যদি আমাদের পোস্টগুলো পড়ে উপকৃত হয়ে থাকেন তাহলে আমাদের ওয়েবসাইট ফলো করুন। সবাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন আল্লাহ হাফেজ। পাশাপাশি আমাদের ওয়েবসাইটের আরেকটি পোষ্ট পড়তে পারেন জিংক বি ট্যাবলেট খেলে কি মোটা হয়

পোষ্ট ক্যাটাগরি:

এখানে আপনার মতামত দিন

0মন্তব্যসমূহ

আপনার মন্তব্য লিখুন (0)