Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2022/02/ip-address-ki-bangla.html

আইপি এড্রেস কি - আইপি এড্রেস কত প্রকার ও কি কি

আইপি এড্রেস কি - আইপি এড্রেস কত প্রকার ও কি কি — আইপি এড্রেস বা আইপি ঠিকানা হলো ইন্টারনেটে আমাদের ব্যবহৃত কম্পিউটার বা ডিভাইসের ঠিকানা। আমরা যে ইন্টারনেট ব্রাউজিং করি এখানে যেকোনো তথ্য আমরা খুবই অল্প সময়ের মধ্যেই পেয়ে থাকি। এই ডাটা গুলো আসলে কোথায় থাকে? এগুলো মূলত বিভিন্ন সার্ভারে সংরক্ষণ করে রাখা হয় এবং আমাদের চাহিদা মতো আমাদেরকে সরবরাহ করা হয়। 

আইপি এড্রেস কি

এসব সার্ভার বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন স্থানে বসানো আছে। এখন কথা হলো দুনিয়াতে তো কোটি কোটি কম্পিউটার এবং ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস। এতো ডিভাইসের মধ্যে সার্ভার আমাদের ডিভাইস শনাক্ত করে আমাদের চাওয়া সেই এক্সাক্ট ডাটা কিভাবে সরবরাহ করে? তাই এত প্রশ্নের উত্তর জানার জন্য আমাদের আজকের আর্টিকেলে থাকছে আইপি এড্রেস কি - আইপি এড্রেস কত প্রকার ও কি কি। চলুন তাহলে জেনে নেইঃ

এখানেই মূলত আইপি এড্রেস বা ঠিকানার ব্যবহার শুরু হয়। আমাদের প্রত্যেকের কম্পিউটার বা ডিভাইসের আলাদা আলাদা আইপি নাম্বার রয়েছে। যেমন আমাদের প্রত্যেকের আলাদা আলাদা নাম ঠিক তেমনি। আইপি এর পূর্ণরূপ হলো "ইন্টারনেট প্রোটোকল"। ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবস্থায় নেটওয়ার্কে অবস্থিত প্রতিটি কম্পিউটারের একটি নিজস্ব অদ্বিতীয় অ্যাড্রেস বা আইডেন্টিটি থাকে। এ অ্যাড্রেস বা আইডেন্টিকে আইপি (IP) এড্রেস বলে। প্রতিটি ডিভাইসের আইপি নম্বর আলাদা এবং কারো সাথে কারো একটুও মিল নেই। আইপি অ্যাড্রেসের দুটি অংশ রয়েছে। যথাঃ ১। নেটওয়ার্ক অংশ এবং হোস্ট অংশ।

আরো পড়ুনঃ ক্রেডিট কার্ড এবং ডেবিট কার্ডের মধ্যে পার্থক্য কি

প্রতিটি হোস্টকে আলাদাভাবে চিহ্নিত করার জন্য আইপি অ্যাড্রেস ব্যবহার করা হয়। প্রতিটি হোস্টের আবার একটি করে ফিজিক্যাল এড্রেস থাকে যাকে ম্যাক এড্রেস বলা হয়। এটি ডিভাইস তৈরিকারক কোম্পানি ঠিক করে দেয়। তাছাড়াও প্রতিটি হোস্টের আবার একটি করে লজিক্যাল অ্যাড্রেস প্রয়োজন হয়। এই লজিক্যাল অ্যাড্রেসকে বলা হয় ইন্টারনেট প্রটোকল আইপি অ্যাড্রেস। আইপি অ্যাড্রেস ব্যতীত কোন হোস্ট বা কম্পিউটার ইন্টারনেটের সাথে সংযুক্ত হতে পারে না। 

অর্থাৎ নেটওয়ার্কে প্রতিটি কম্পিউটার একে অন্যের সাথে যোগাযোগের জন্য আইপি এড্রেসের প্রয়োজন। আইপি ঠিকানাগুলিকে চারটি সংখ্যার সেট হিসাবে প্রকাশ করা হয় – উদাহরণ হিসেবে একটি ঠিকানা হতে পারে ১৯২.১৫৮.১.৩৮৷ এই সেটের প্রতিটি সংখ্যা ০ থেকে ২৫৫ পর্যন্ত হতে পারে। সুতরাং, সম্পূর্ণ আইপি ঠিকানার পরিসর ০.০.০.০ থেকে ২৫৫. ২৫৫. ২৫৫. ২৫৫ পর্যন্ত যায়। এই আইপি ঠিকানা গুলো কিন্তু এলোমেলো নয়। 

এগুলি গাণিতিকভাবে ইন্টারনেট অ্যাসাইনড নম্বর অথরিটি। এই ইন্টারনেট প্রটোকল নম্বরটি ইন্টারনেট কর্পোরেশন ফর অ্যাসাইনড নেমস অ্যান্ড নম্বরস (ICANN) এর একটি বিভাগ দ্বারা তৈরি করা হয় এবং বরাদ্দ করা হয়। ICANN হল একটি অলাভজনক সংস্থা যা ১৯৯৮ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ইন্টারনেটের নিরাপত্তা বজায় রাখতে এবং এটিকে সকলের দ্বারা ব্যবহারযোগ্য করার জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

আইপি অ্যাড্রেসে প্রধানত ২ প্রকার। ১. আইপিভি ৪ এবং ২. আইপিভি ৬ (৪,৬ এগুলো মূলত ভার্সন)। আইপিভি ৪ (IPV 4) হচ্ছে আইপি ভার্সনের ৪র্থ ভার্সন। ১৯৮৩ সালে এটি প্রথম যাত্রা শুরু করে। এই ভার্সন ব্যবহার করে একটি নেটওয়ার্কে চালু থাকা সকল ডিভাইসকে চিহ্নিত করা সম্ভব। বিশেষ কিছু এড্রেসিং সিস্টেম ব্যবহার করে এটি সাধারণত কাজ করে থাকে। ৩২ বিটের বাইনারী অংক ব্যবহার করা হয়ে থাকে এই ভার্সনে। কিছু দিনের মধ্যেই এই ভার্সনের আইপি এড্রেস এর সংখ্যা নিঃশেষ হয়ে যাবে। এই ভার্সনের উদাহরণ হলো ১৯২.১০.২৪.১। 

আইপিভি ৬ (IPV 6) হচ্ছে আইপি ভার্সনের আপডেট একটি ভার্সন। এই ভার্সনে ১২৮ বিট বাইনারি সংখ্যা ব্যবহার করে আইপি এড্রেস তৈরি করা হয়। এই ভার্সন একটু ভিন্ন ধর্মী। এখানে নম্বরের পাশাপাশি অক্ষরও ব্যবহার করা হয়। ১৯৯৫ সালে এই ভার্সনের যাত্রা শুরু করা হয়। 

আরো পড়ুনঃ ইথারনেট কি এবং কত প্রকার? ইথারনেট কিভাবে কাজ করে

কিভাবে আইপি এড্রেস কাজ করে

আইপি এড্রেস হচ্ছে এমন এক ধরণের মাধ্যম যা আপনাকে আপনার ডিভাইসের নেটওয়ার্কের আওতায় থাকা সকল অন্যান্য নেটওয়ার্ক ও ডিভাইসের সাথে সংযুক্ত করে। আইপি এড্রেস আবার ২ প্রকার। ১। পাবলিক আইপি এড্রেস ২। প্রাইভেট (ব্যক্তিগত) আইপি এড্রেস। 

ইন্টারনেট পরিষেবা প্ল্যান সহ প্রতিটি ব্যক্তি বা ব্যবসার দুই ধরণের আইপি এড্রেস থাকবে: ১. তাদের ব্যক্তিগত আইপি এড্রেস এবং ২. তাদের সর্বজনীন আইপি এড্রেস। সর্বজনীন এবং ব্যক্তিগত শব্দগুলি নেটওয়ার্ক এ অবস্থানের সাথে সম্পর্কিত — অর্থাৎ, একটি ব্যক্তিগত আইপি এড্রেস একটি নেটওয়ার্কের ভিতরে ব্যবহৃত হয় এবং একটি সর্বজনীন আইপি এড্রেস একটি নেটওয়ার্কের বাইরে ব্যবহৃত হয়। 

ব্যক্তিগত আইপি এড্রেস

আপনার ইন্টারনেট নেটওয়ার্কের সাথে সংযোগকারী প্রতিটি ডিভাইসের একটি ব্যক্তিগত আইপি এড্রেস রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে কম্পিউটার, স্মার্টফোন এবং ট্যাবলেট ইত্যাদি। তবে স্পিকার, প্রিন্টার বা স্মার্ট টিভির মতো যেকোনো ব্লুটুথ-সক্ষম ডিভাইসও এর মধ্যে পরে। বিভিন্ন প্রয়োজনে আপনার বাসায় এসব ডিভাইসের সংখ্যাও বৃদ্ধি পেতে পারে। এখন আপনার প্রয়োজনানুসারে এ সব ডিভাইস থেকে আপনি ব্রাউজিং করতে চান। 

এক্ষেত্রে আপনার রাউটারের এই আইটেমগুলিকে আলাদাভাবে সনাক্ত করার জন্য একটি উপায় প্রয়োজন। আবার প্রতিটি আইটেম একে অপরকে চিনার জন্যও একটি উপায় প্রয়োজন৷ তাহলে এখন কি করা যায়? এই রকম সমস্যা যখন তৈরি হয় তখন আপনার রাউটার ব্যক্তিগত আইপি এড্রেস তৈরি করে যা প্রতিটি ডিভাইসের জন্য অনন্য শনাক্তকারী হিসেবে কাজ করে এবং তাদের নেটওয়ার্কে আলাদা করে।

আরো পড়ুনঃ বাংলাদেশের সবচেয়ে দামি বাইক ২০২২

পাবলিক আইপি এড্রেস

পাবলিক আইপি এড্রেস হল সেই এড্রেস যা আপনার ইন্টারনেট নেটওয়ার্কের বাইরের সমস্ত ডিভাইস, আপনার নেটওয়ার্ক চিনতে ব্যবহার করবে। পাবলিক আইপি ঠিকানা দুই প্রকার - ডায়নামিক এবং স্ট্যাটিক। ডায়নামিক এবং স্ট্যাটিক আইপি ঠিকানা নিয়ে আমরা পরের কোন লিখায় আলোচনা করবো। এবার আসি ওয়েবসাইটের আইপি এড্রেস এর ক্ষেত্রে। এটি মূলত দুই ধরনের। ১. শেয়ার করা আইপি এড্রেস ২. ডেডিকেটেড আইপি এড্রেস 

শেয়ার করা আইপি এড্রেস

যে ওয়েবসাইটগুলি ওয়েব হোস্টিং প্রদানকারীদের থেকে শেয়ার করা হোস্টিং পরিকল্পনার উপর নির্ভর করে সেগুলি সাধারণত শেয়ার করা আইপি এড্রেস।

ডেডিকেটেড আইপি এড্রেস

একটি ডেডিকেটেড আইপি অ্যাড্রেস আপনাকে ডোমেন নামের পরিবর্তে শুধুমাত্র আইপি অ্যাড্রেস ব্যবহার করে আপনার ওয়েবসাইট অ্যাক্সেস করতে দেয় — আপনি যদি আপনার ডোমেইন রেজিস্টার করার আগে এটি তৈরি করতে এবং পরীক্ষা করতে চান তাহলে এটি আপনার জন্য পারফেক্ট।

0 Comments