Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/06/how-to-verify-facebook-account-blue-tick-2021.html

ফেসবুক আইডি ভেরিফাই করার নিয়ম | ফেসবুক ভেরিফাই করার নিয়ম ২০২১

ফেসবুক আইডি ভেরিফাই করার নিয়ম — আপনার ফেসবুক আইডি নিরাপদ ও সুরক্ষিত রাখার জন্য ফেসবুক আইডি ভেরিফাই করার বিকল্প অন্য কিছুই নেই। বর্তমান সময়ে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে ফেসবুক ইউজারকারীর সংখ্যা ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাচ্ছে প্রতিনিয়ত। সেই সঙ্গে ফেসবুক ফেক আইডি বা ফেসবুক ফেক প্রোফাইলের সংখ্যাও কিন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ধরুন আপনার একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট আছে। কিন্তু এখন আপনি দেখতে পারছেন আপনার নাম, ছবি এমনকি জন্ম তারিখ মিল রেখে আরও একটি অথবা অনেক ফেসবুক আইডি বর্তমানে ইন্টারনেটে সক্রিয় অবস্থায় রয়েছে।

ফেসবুক আইডি ভেরিফাই করার নিয়ম

কিন্তু ফেসবুক কর্তৃপক্ষ সারাক্ষণ চায় যাতে অরজিনাল একাউন্ট মালিকের অ্যাকাউন্ট রেখে বাকি সকল ফেইক অ্যাকাউন্টগুলো বন্ধ করে দিতে। যখন ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এমন পদক্ষেপ গ্রহণ করবে, তখন দেখা যাবে আপনার অরজিনাল ফেসবুক একাউন্টটিও বন্ধ হয়ে গেছে অথবা বন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। এমতাবস্থায় আপনার আসল ফেসবুক আইডিটি নিরাপদ রাখার জন্য আপনার ফেসবুক আইডি অথবা ফেসবুক একাউন্টটি ভেরিফাই করার গুরুত্ব ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পায়।

ফেসবুক ভেরিফাই কি

ফেসবুক ভেরিফাই হচ্ছে মূলত আপনার সঠিক ইনফরমেশন যা আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলার সময় প্রদান করে বা দিয়েছেন, সেসব আপনার এন আই ডি কার্ডের সঙ্গে মিল আছে এবং তা ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে নিশ্চিত করার মাধ্যমে আইডিকে সুরক্ষিত করে।

তোহ চলুন জেনে নেই কীভাবে সঠিক নিয়মে নির্ভুলভাবে আপনার আসল ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বা ফেসবুক আইডিটি ২০২১ সালের নিয়ম অনুসারে ভেরিফাই করবেন। আপনি অনেকগুলো নিয়ম অনুসরণ করে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ভেরিফাই করার জন্যে আবেদন করতে পারবেন। তবে হা আমি এখানে শুধুমাত্র একটি নিয়ম দেখাবো যেটা গুগল ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করে।

ফেসবুক ভেরিফাই করার নিয়ম ২০২১ | ফেসবুক ভেরিফাই করার সঠিক নিয়ম

১। প্রথমে আপনি একটি নোটপ্যাড অথবা যেকোনো উপায়ে আপনার ফেসবুক একাউন্টের প্রোফাইল লিংকটি কপি করে রাখুন বা কোথাও লিখে রাখুন।

২। এবার আপানার মোবাইল অথবা ল্যাপটপ/কম্পিউটারের যেকোনো একটি ব্রাউজার ওপেন করুন। এক্ষেত্রে আমি আপনাকে সাজেস্ট করব গুগল ক্রোম ব্রাউজার ওপেন করার।

৩। তারপর গুগল ক্রোম ব্রাউজারের সার্চ বক্সে গিয়ে লিখুন facebook verified আর সার্চ করুন।

৪। সার্চ রেজাল্টগুলোর তালিকার প্রথমের দিকে থাকা সাইটে ক্লিক করে প্রবেশ করুন অথবা এখানে ক্লিক করুন।

৫। এখানে আপনি দেখতে পারবেন অনেকগুলো অপশন। এখান থেকে আপনি চলে যান How do I request a verified badge এই অপশনে।

৬। এখানে ক্লিক করলে দেখতে পারবেন কীভাবে আপনার ফেসবুক একাউন্ট ফেরিফাই করবেন facebook id verification তার একটি সঠিক দিক নির্দেশনা দেওয়া রয়েছে। এর মাঝে দেখতে পাবেন উপরের লাইনে দেয়া আছে Contact Form এই লেখাতে ক্লিক করুন।

৭। তারপর Request a Blue Verification Badge নামের একটি নতুন ট্যাব ওপেন হবে।

৮। এখান থেকে আপনাকে আপনার ফেসবুক ভেরিফিকেশনের কাজগুলো করতে হবে।

৯। এখানে আপনি দেখতে পারবেন “verification type” দিয়ে ২টি অপশন দেওয়া আছে। একটি হচ্ছে Page অন্যটি হচ্ছে profile। এখান থেকে যদি আপনি আপনার ফেসবুক profile অর্থাৎ ফেসবুক একাউন্ট ভেরিফাই করতে চান, তবে Profile টিকে চেক মার্ক করুন।

১০। এরপর নিচের অপশনটি Select a category for the page or profile এখানে আপনার পছন্দ অনুযায়ী অথবা আপনার সঙ্গে যে অপশনটি যায়, সেটি সিলেক্ট করুন। এক্ষেত্রে আমি আপনাকে সাজেস্ট করবো এই অপশন "entertainment" সিলেক্ট করুন।

আরও পড়ুনঃ ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার উপায়

১১। এবার নিচের অপশনটি "which country is this entity from?" এখানে আপনি যেখানে বসবাস করেন অর্থাৎ যদি আপনি বাংলাদেশি হয়ে থাকেন তাহলে "বাংলাদেশ" সিলেক্ট করবেন।

১২। তারপর আপনার সামনে একটি আইডেন্টি ফাইল Identity File or Image Upload অর্থাৎ ছবি আপলোড করতে হবে। এখানে আপনি আপনার এন আই ডি কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স অথবা পাসপোর্ট আপলোড করতে পারেন। যদি এনআইডি কার্ড দিতে চান, তবে একটি ছবির মধ্যে এন আই ডি কার্ডের দুই পাশের ছবির হার্ডকপি থাকতে হবে।

১৩। এইবার একটু নিচের দিকে স্ক্রল করে চলে আসুন এবং দেখতে পারবেন কয়েকটা খালি বক্স রয়েছে। এখান থেকে প্রথম খালি বক্স অর্থাৎ "Please share why this facebook page or profile should be verified" এখানে আপনার ফেসবুক ভেরিফাই করার যথেষ্ট কারনগুলোকে উল্লেখ করুন। তবে আপনার সুবিধার্থে আমি নিম্নে একটা ছবি দিয়ে দিলাম। এই লেখাগুলো আপনি সেখানে লিখে দিতে পারেন।

১৪. ব্যাস আপনার কাজ শেষ, এখন আপনি নিচের দিকে স্ক্রল করুন এবং সেটা সেন্ড করে দিন।

তারপর ফেসবুক কর্তৃপক্ষ আপনার ফেসবুক একাউন্ট অবজারবেশন facebook identity observation করবে। তাদের অবজারবেশনের পর যদি তাদের কাছে মনে হয় আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ভেরিফাই করা যাবে, তবে কয়েকদিনের মাঝে আপনার ফেসবুক আইডি অথবা ফেসবুক একাউন্টটি ভেরিফাই হয়ে যাবে। আর এই পদ্ধতি অনুসরণ করেই আপনি ফেসবুক একাউন্ট অথবা ফেসবুক আইডি ভেরিফাই করতে পারবেন সহজেই।

ফেসবুক ভেরিফাই করার শর্তাবলি | ফেসবুক একাউন্ট ভেরিফিকেশন

১। অবশ্যই আপনার ফেসবুক একাউন্টের টু- স্টেপ ভেরিফিকেশন Two Step Verification Factor অন রাখতে হবে।

২। আগে কোন রকম ফেসবুক রুল ব্রেক করা থাকলে তবে সেগুলোকে ডিলিট করে দিতে হবে।

৩। এন আইডি কার্ডের নামের সঙ্গে হুবহু ফেসবুক আইডির নামের মিল রাখতে হবে।

৪। এন আইডি কার্ডের জন্ম সাল, তারিখ, মাসের সঙ্গে ফেসবুক অ্যাকাউন্টের দেওয়া সকল তথ্যগুলো হুবহু মিল রাখতে হবে।

ফেসবুক একাউন্ট ভেরিফাই করার সুবিধা | ফেসবুক ব্লু ভেরিফাই করার নিয়ম

১। ফেসবুক একাউন্ট ভেরিফাই করার মাধ্যমে আপনাকে কেউ ফেইক রিপোর্ট দিলে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ সেটি কখনও গ্রহণ করবে না। যার কারণে ফেসবুক আইডি নিরাপদ ও সুরক্ষিত থাকবে।

২। ফেসবুকে ফেইক আইডিগুলোকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বন্ধ করবে।

৩। প্রতিনিয়ত ফলোয়ার সংখ্যা বাড়তে থাকবে।

৪। আইডি নাম দিয়ে সার্চে করলে আপনার ফেসবুক একাউন্ট বা ফেসবুক আইডিটি সবার প্রথমে থাকবে।

৫। ফেসবুকের নতুন নতুন সকল ফিচারগুলি উপভোগ করতে পারবেন।

৬। এছাড়াও আর অনেকগুলো সুবিধা পেয়ে যাবেন ফেসবুক একাউন্ট ভেরিফাই করার মাধ্যমে।

আরও পড়ুনঃ ফেসবুক থেকে আয় করার উপায়

ফেসবুক ভেরিফাই করতে কি কি দরকার বা প্রয়োজন

ফেসবুক ভেরিফাই করার জন্য বেশি কিছুর প্রয়োজন হয়না। শুধুমাত্র এনআইডি কার্ডের ছবি, ফেসবুক প্রোফাইলের লিংক, দেশের নাম এবং আপনি কেন আপনার এফসবুক আইডিটি ভেরিফাই করা উচিত তার যথেষ্ট সংক্ষিপ্ত একটা লেখা। এই সকল ঠিকঠাক থাকলে যে কেউ একজন ফেসবুক ইউজারকারী খুব সহজেই ৩ থেকে ৫ মিনিটের মধ্যে ফেসবুক আইডি ভেরিফাই করার জন্য আবেদন করতে পারবে।

ফেসবুক ভেরিফাই করা কি আমাদের জন্য ক্ষতি

মোটেও নয়। বরং ফেসবুক আইডি ভেরিফাই করার মাধ্যমে আমরা আমাদের ফেসবুক আইডিকে পূর্বের থেকে অনেক বেশি নিরাপদ ও সুরক্ষিত রাখতে পারবো।

ফেসবুক আইডি ভেরিফাই সম্পর্কে আরো জানতে দেখুন

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া