অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কোর্স : অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কিভাবে শিখবেন

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কোর্স কোনটা ভালো হবে বা অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কিভাবে শিখবেন এগুলো যদি আপনার প্রশ্ন হয় তাহলে এই ব্লগ পোস্টটি আপনার জন্যই। এই লেখা থেকে আপনি আরো জানতে পারবেন, কত ধরনের অ্যাপ ডেভেলপার আছে? Android apps development শিখতে কত সময় লাগে? কোড ছাড়া অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস তৈরি করা যায় কিনা। আপনার সবচেয়ে উদ্বেগের বিষয় অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কোর্স করতে কত টাকা লাগে তাও জানতে পারবেন এই পোস্ট থেকে।

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কোর্স

(toc) #title=(সূচিপত্র: অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কোর্স )

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস কি?

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস বলতে বোঝায় এন্ড্রয়েড ফোনে আপনার কাজের জন্য যে সকল সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয় সেগুলোকে। এন্ড্রয়েড ফোনে বিভিন্ন ধরনের এন্ড্রয়েড অ্যাপস থাকতে পারে। অ্যান্ড্রয়েড ফোনগুলোতে কিছু এন্ড্রয়েড অ্যাপস বাই ডিফল্ট ফোনে সেট করা থাকে আবার কিছু এন্ড্রয়েড অ্যাপস আপনি প্লে স্টোর থেকে ইন্সটল করে নিতে পারবেন। আপনার প্রয়োজন মত উপকারী android apps গুলো আপনি সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন।

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কি?

আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের অ্যাপস গুলো বিভিন্ন ব্যক্তি তৈরি করেছে। স্মার্টফোন বা অ্যান্ড্রয়েড এর জন্য সফটওয়্যার বানানোর কাজটাই হচ্ছে অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট।

অ্যাপ ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট এর মধ্যে পার্থক্য

আপনি কি জানেন, অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডিজাইন ও অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপমেন্ট এর মধ্যে পার্থক্য কি? অনেকেই মনে করে এন্ড্রয়েড অ্যাপস ডিজাইন ও অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপমেন্ট একই জিনিস। কিন্তু অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডিজাইন ও এন্ড্রয়েড ডেভেলপমেন্ট এর কাজ সম্পূর্ণ আলাদা।

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডিজাইন হল একটি সফটওয়্যার এর বাহ্যিক দিকটা দেখতে কেমন হবে সেটা ঠিক করা এবং অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপমেন্ট হচ্ছে একটি অ্যাপসের ভিতর থেকে কিভাবে কাজ করবে সেটা নির্ধারণ করা।

আরো পড়ুনঃ মাসে ৩০ হাজার টাকা আয় করার ২৫টি সেরা ও কার্যকরী উপায়

এন্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপার কারা?

যারা স্মার্টফোনের বা অ্যান্ড্রয়েড ফোনের অ্যাপস তৈরি করে এবং সেই অ্যাপসগুলো কিভাবে ভেতর থেকে কাজ করবে সেগুলো নির্ধারণ করে তাদেরকে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভেলপার বলা হয়। বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপার এর চাহিদা ক্রমান্বয়ে বেড়েই যাচ্ছে। কারণ বর্তমান বিশ্বে এন্ড্রয়েড ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে সেই সাথে বাড়ছে এন্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভেলপারদের চাহিদা।

কত ধরনের অ্যাপ ডেভেলপার আছে?

বিভিন্ন ধরনের এন্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপার আছে। সাধারণত বিভিন্ন নিশ অনুযায়ী অ্যাপ ডেভেলপাররা ভিন্ন হয়ে থাকে। কিন্তু মূলত তিন ধরনের অ্যাপ ডেভেলপার রয়েছে। যেমন: অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপার, গেম ডেভেলপার, IOS ডেভেলপার।

১. অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপার: বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপারদের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপ করতে হলে আপনাকে অবশ্যই কিছু প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ শিখতে হবে। যেমন জাভা, কোটলিনের মত প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ সম্পর্কে অবশ্যই আপনার ধারণা থাকতে হবে। যেহেতু এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের ইউজার বেশি তাই এর চাহিদা দিন দিন বাড়ছে।

২. গেম ডেভেলপার: বর্তমানে গেম ডেভেলপারদের চাহিদা ও প্রচুর। ছোট বড় প্রায় সবাই এখন অ্যান্ড্রয়েড ফোন বা স্মার্টফোনে গেম খেলে। গেম ডেভেলপ করা জন্য আপনাকে অবশ্যই জাভার মত প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ শিখতে হবে। আপনি যদি জাভার গভীর জ্ঞান রাখেন তাহলে আপনি নিঃসন্দেহে বড় বড় গেম তৈরি করতে পারবেন। সাধারণত গেম ডেভেলপাররা একটি নির্দিষ্ট অপারেটিং সিস্টেমের জন্য ভিডিও গেম তৈরি করে থাকে।

অ্যাপ মার্কেটের একটা বড় অংশ দখল করে আছে গেম। তাছাড়া গেমে রেভিনিউ বেশি হয়। প্রধানত দুইটি উপায়ে গেম তৈরি করা যায় ন্যাটিভ উপায় এবং গেম ইঞ্জিন ব্যবহার করে। ন্যাটিভ উপায়ে তৈরি করার জন্য আপনাকে জানতে হবে জাভা অথবা কটলিন। আর গেম ইঞ্জিন ব্যবহার করে গেম ডেভেলপমেন্ট করতে চাইলে আপনার হাতে বেশ কিছু অপশন থাকবে। যেমন:

  • Unreal Engine
  • Unity
  • Godot
  • GameMaker
  • Studio Amazon
  • Lumberyard

আমরা অনেকেই পাবজি খেলেছি। এই পাবজি গেমটি Unreal Engine ব্যবহার করে তৈরি। আবার অনেকেই Among us গেমটি খেলেছি। এটি তৈরি হয়েছে Unity ব্যবহার করে। আপনি যদি গেম ডেভেলপার হিসেবে আপনার ক্যারিয়ার গঠন করতে চান তাহলে যে কোন একটি গেম ইঞ্জিন শিখে ফেলুন দ্রুতই।

৩. IOS ডেভেলপার: আইওএস ডেভেলপার বলা হয় তাদেরকে যারা শুধু অ্যাপল ফোনের সফটওয়্যার বা অ্যাপস তৈরি করে। অ্যাপল ফোনের অ্যাপস তৈরির জন্য অবশ্যই আপনাকে সুইফট, সি এর মত প্রোগ্রামিং ভাষা জানতে হবে।

আরো পড়ুনঃ ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে শিখব | ডিজিটাল মার্কেটিং a to Z

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট ক্যারিয়ার

ক্যারিয়ার হিসেবে অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট খুবই চমৎকার। আপনার যদি প্রযুক্তি নিয়ে আগ্রহ থাকে, স্মার্টফোনের অ্যাপগুলো নিয়ে ঘাটাঘাটি করতে আপনার বেশ ভাল লাগে তাহলে আপনার উচিত অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট শেখা।

আমরা সবাই জানি, বর্তমান বিশ্বে স্মার্টফোনের ইউজার ক্রমাগত বাড়ছে আর মানুষের চাহিদা পূরণের জন্য তৈরি হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের এন্ড্রয়েড অ্যাপস/Android apps . অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট শিখে আপনি অভিজ্ঞতা অর্জন করে অনায়াসেই মাসে ১ থেকে ৫ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন শুধু মার্কেটপ্লেসে কাজ করেই। এছাড়াও বিভিন্ন ভাবে আপনি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট করে ইনকাম করতে পারবেন। google adsense দিয়েও অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ থেকে ইনকাম করা যায়।

আরো পড়ুনঃ ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব - ভিডিও এডিটিং কোর্স

অ্যাপ ডেভেলপার কত টাকা ইনকাম করে ?

পৃথিবীর প্রায় সকল দেশেই অ্যাপ ডেভেলপারদের চাহিদা রয়েছে। আমেরিকাতে একজন এন্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপার এর মাসিক গড় বেতন প্রায় ১২,৫০০ ডলার। এছাড়া ও প্রতিবছর আমেরিকাতে একজন এন্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপার ১৫০,০০০ ডলার ইনকাম করে থাকে। এবার আসি বাংলাদেশের কথায়, বাংলাদেশ থেকে আপনি অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট করে নিঃসন্দেহে মাসে ৫০,০০০ থেকে ১০ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনার দক্ষতা যদি অনেক বেশি হয় তাহলে এর চেয়েও বেশি ইনকাম করার সম্ভাবনা রয়েছে।

অ্যাপ তৈরি করে আয় করার উপায়

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ থেকে টাকা উপার্জনের বেশ কয়েকটি উপায় রয়েছে। এগুলো হলো পেইড অ্যাপ্লিকেশন, ইন অ্যাপ পার্সেস, এড দেখানো।

১. পেইড অ্যাপ্লিকেশন: কিছুৃ ডেভেলপার তার অ্যাপটিকে বিক্রি করে। এক্ষেত্রে আমরা যখন দেখি কোন অ্যাপ ব্যবহার করার সময় তা নির্দিষ্ট মেয়াদে কিংবা একেবারে কিনে নিতে হয় তখন সেগুলোকে বলে পেইড অ্যাপ্লিকেশন। কোন অ্যাপ কেনা হলে তা ওই developer এর একাউন্টে জমা হয়।

২. ইন অ্যাপ পার্সেস: কিছু অ্যাপ আমরা হয়তো ফ্রিতে ডাউনলোড করতে পারি। কিন্তু সেই অ্যাপ গুলোর বিশেষ ফিচার পেতে হলে সেগুলোর জন্য টাকা দিতে হয় এ ধরনের অ্যাপকে বলা হয় ইন অ্যাপ পার্সেস।

৩. এড দেখানো: অধিকাংশ অ্যাপ ডেভেলপাররা এড দেখানোর মাধ্যমে ইনকাম করে। এছাড়াও অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, subscription বা ভার্চুয়াল প্রোডাক্ট বিক্রি করেও অ্যাপ ডেভেলপাররা ইনকাম করে। যে অ্যাপ যতবেশি বার ব্যবহৃত হয় সেটা থেকে ততবেশি ইনকাম হয়।

অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট শেখার জন্য কি যোগ্যতা লাগে?

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট শেখার জন্য অনেক বেশি শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রয়োজন হয় না। মোটামুটি ইংরেজির দক্ষতা থাকতে হয়। কেননা ইংরেজিতে কোড লেখা হয়। এছাড়াও কিছুটা গনিতের জ্ঞান থাকতে হবে।

আরো পড়ুনঃ বর্তমানে সেরা ২৫টি ইউনিক বিজনেস আইডিয়া ২০২৪

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট শিখতে কত সময় লাগে?

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট শিখতে কত সময় লাগবে তা নির্দিষ্ট ভাবে বলা যায় না। আপনি যদি প্রতিদিন ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা সময় দিতে পারেন তাহলে ৬ মাসের মধ্যেই মোটামুটি মানের একজন ডেভেলপার হতে পারবেন। তবে বিশেষ দক্ষতা অর্জনের জন্য অবশ্যই আপনাকে অন্তত দুই বছর কাজ করতে হবে।

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট শিখতে কত টাকা লাগে?

বর্তমানে অনলাইনে অনেক অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট পাওয়া যায়। অনলাইনে এরকম কয়েকটি কোম্পানির নাম হলো : 

  • Udemy
  • Coursera

এছাড়া Youtube এর প্লেলিস্ট থেকেও অনেক কিছু জানা যায় apps development সম্পর্কে। ফ্রি মেথড অথবা পেইড মেথড যেকোন ভাবে আপনি শিখতে পারবেন।

পেইড মেথড: যেকোন আইটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে আপনি Android apps ডেভেলপমেন্ট শিখতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনার পেইড মেথড এ ১০,০০০ থেকে ৫০ হাজার টাকা খরচ হতে পারে।

ফ্রি মেথড: এক্ষেত্রে গুগল কিংবা Youtube বেশ ভালো উৎস হিসেবে কাজ করে। কিন্তু এগুলো আপনাকে কোন প্রকারের গাইডলাইন দেবে না।

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কিভাবে শিখবেন

বাংলাদেশে ও অনেক অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট কোর্স রয়েছে। অসংখ্য আইটি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে থাকলেও কিছু কিছু আইটি প্রতিষ্ঠান অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কোর্স এর জন্য খুবই ভালো। বাংলাদেশের মধ্যে অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট কোর্স এর জন্য সবচেয়ে ভালো প্রতিষ্ঠানগুলো হলো: 

১. Bongo Academy

বাংলাদেশে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট কোর্স করার জন্য সবচেয়ে ভালো প্রতিষ্ঠান হল বঙ্গ একাডেমী। আপনি অবশ্যই বঙ্গ একাডেমির জুবায়ের হোসেনকে চিনে থাকবেন। চমৎকার সব অ্যাপ তৈরি করে তিনি তাক লাগিয়েছেন পুরো বিশ্বকে। সর্বনিম্ন২৫০০ থেকে ৬০০০ টাকার ভিতরে আপনি সবচেয়ে ভালো অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কোর্স পেয়ে যাবেন।

২. Coderstrust

এটি অ্যাপস ডেভলপমেন্ট কোর্স শেখার জন্য একটি নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান। কিন্তু এ প্রতিষ্ঠানে কোর্স করতে হলে আপনাকে অনেক বেশি টাকা খরচ করতে হবে। এক্ষেত্রে প্রায় ২৫ হাজার টাকার মত লাগবে। তবে প্রতিষ্ঠানটি আপনাকে দীর্ঘমেয়াদি সাপোর্ট প্রদান করবে।

৩। ইশিখন.কম

বেসিক অথবা প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ সম্পর্কে কিছুটা ধারণা থাকলে eshikhon.com এর অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কোর্সটি আপনিও করতে পারবেন। এই প্লাটফর্মটি তাদের ১০,০০০ টাকার কোর্সটিতে ছাড় দিয়ে মূল্য নির্ধারণ করেছে মাত্র ৪,৯৯০ টাকা। আরো কিছু আইটি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে রয়েছে যারা এন্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট কোর্স টি করায়। যেমন: creative it institutedusra soft ltd ইত্যাদি।

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট করতে কি কি জিনিস লাগবে?

এপস ডেভেলপমেন্ট শিখতে কিছু জিনিস আপনার অবশ্যই প্রয়োজন হবে।

  •  একটি ভালো ডেস্কটপ অথবা ল্যাপটপ
  • একটি স্মার্টফোন চাইলে আপনি ভার্চুয়াল স্মার্টফোন ইউজ করতে পারেন
  • ভালোমানের ইন্টারনেট কানেকশন

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট শিখতে কি কি শিখতে হবে?

আপনি যে ট্রেনিং সেন্টার থেকে শিখবেন তারা আপনাকে গাইডলাইন দিয়ে দিবে কি কি শিখতে হবে অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট করতে। আপনাকে অবশ্যই Android studio software সম্পর্কে জানতে হবে।এছাড়াও কিছু প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ। যেমন জাভা, কটলিন জানা থাকতে হবে। আপনার আরো জানতে হবে গুগল এডমোব, গুগল প্লে কনসোল, ফায়ারবেজ ইত্যাদি।

Apps Development সম্পর্কিত FAQ

১. মোবাইল দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস তৈরি করা যাবে কি?

আপনি মোবাইল দিয়েও অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস তৈরি করতে পারবেন। বেশ কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যেখান থেকে আপনি কোডিং ছাড়াই মোবাইল বা কম্পিউটার দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস তৈরি করতে পারবেন।

২. সেরা মোবাইল অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট প্লাটফর্ম কোনগুলো ?

অনেক মোবাইল অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট প্লাটফর্ম রয়েছে। কিন্তু সেরা মোবাইল অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট প্লাটফর্মগুলো হলো: AppMaster, Bubble, Flutter.

৩. মোবাইল দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস তৈরি শেখা যাবে কি?

হ্যা, মোবাইল দিয়ে ও অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস তৈরি শেখা যাবে। তবে এক্ষেত্রে আপনার কাজ করতে অসুবিধা হবে। বুঝতেই পারছেন বড় পর্দায় কাজ করা আর ছোট পর্দায় কাজ করার মাঝে কেমন সমস্যা হতে পারে।

৪. অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট করতে কোন কোন programming language শিখতে হয়?

অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট করতে java, kotlin, c, c++, Swift Objective C, HTML, CSS, PHP, C#

৫.কোডিং ছাড়া অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট করা যায় কোন ওয়েবসাইুটগুলোতে ?

1. appsgeyser.com

2. mobincube.com

পরিশেষে

এতক্ষণে অবশ্যই আপনারা অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কোর্স ও অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কিভাবে শিখবেন তার বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। খুব দ্রুত এটি শিখে ইনকাম শুরু করুন। অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট জগতে আপনাকে স্বাগতম। আজকের লেখা সম্পর্কে আপনার আরো কোন বিষয় জানার থাকলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। ধন্যবাদ

পোষ্ট ক্যাটাগরি:

এখানে আপনার মতামত দিন

0মন্তব্যসমূহ

আপনার মন্তব্য লিখুন (0)