ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার

আপনাদের মধ্যে অনেকের হয়তোবা ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার লাগতে পারে। বিশেষ করে, আপনারা যারা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার জন্য কনটেন্ট তৈরি করেন, কিংবা অন্য কোন কারণে। যাই হোক, এমন অনেক মানুষ রয়েছেন, যারা নিজেদের ভয়েস দিয়ে ভিডিও করতে চান না অথবা কোন একটি ভয়েস এর টোন বা কণ্ঠ পরিবর্তন করতে চান।

ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার

আপনি যদি এরকম কখনো একটি নির্দিষ্ট ভয়েসকে বিভিন্ন ভয়েস চেঞ্জ করতে চান, তাহলে আপনার জন্য ও দরকার ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়্যার। যেসব সফটওয়্যারগুলো দিয়ে আপনি যেকোনো ভয়েসকে রোবোটিক ভয়েস, কার্টুন ভয়েস, শিশুদের ভয়েস এবং আরো বিভিন্ন ভয়েসে পরিবর্তন করতে পারবেন।

অনেকে হয়তোবা এমনটি চিন্তা করছেন যে, তারা এই ধরনের সফটওয়্যার ব্যবহার করে তাদের বন্ধু-বান্ধব এবং আত্মীয়-স্বজনের সাথে মজা করতে পারবে। যাইহোক, আপনি এসব ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়্যার যেকোনো কাজে ব্যবহার করুন না কেন, সেটি আপনার ব্যাপার। তবে এ ধরনের ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়্যার ব্যবহার করে আপনি বিভিন্ন ভিডিওতে ভয়েস যুক্ত করতে পারবেন, যা আপনার ব্যক্তিত্বকে আলাদাভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারে।

আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের সামনে এমন কিছু ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়্যার বা সেরা কয়েকটি ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার নিয়ে আলোচনা করব, যেগুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি আপনার ভয়েসকে বিভিন্নভাবে কাস্টমাইজ করতে পারবেন।

(toc) #title=(সুচিপত্র)

1. Morph VOX - ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার

ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়্যার গুলোর মধ্য থেকে Morph VOX হলো এমন একটি সফটওয়্যার, যেটি যথেষ্ট জনপ্রিয় এবং অনেক অ্যামাজিং ফিচার রয়েছে। ভয়েস চেঞ্জ করার জন্য এই সফটওয়্যারটি বিনামূল্যেই পাওয়া যায়। MorphVox Junior হলো বিনামূল্যের এবং MorphVox Pro হলো একটি পেইড ভার্সন।

তবে, কিছু সীমাবদ্ধতার কারণে আপনার কাছে হয়তোবা MorphVox Junior ভালো নাও লাগতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি এই টুলটির ফ্রি ভার্সন ব্যবহার করেন, তাহলে এখানে ভয়েস চেঞ্জ করার জন্য আপনি শুধুমাত্র তিনটি অপশন পাবেন। অর্থাৎ, ফ্রি ভার্সন দিয়ে আপনি শুধুমাত্র Male, Female এবং Kid এই তিনটি ভয়েস অপশন সিলেক্ট করতে পারবেন।

আপনি যদি এটি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আরো ভালো এক্সপেরিয়েন্স পেতে চান, তাহলে অবশ্যই তাদের প্রিমিয়াম ভার্সন নিতে পারেন। তবে, আমি মনে করি না যে আপনাকে আপনার ভয়েস চেঞ্জ করার জন্য এই সফটওয়্যারটিই কিনে নেওয়া উচিত হবে। বরং, আপনার ভয়েস চেঞ্জ করার জন্য আরও কিছু বিকল্প ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়্যার রয়েছে, যেগুলো আপনি ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারেন এবং যেগুলোর মাধ্যমে ও আপনি ভয়েস চেঞ্জ করতে পারবেন।

MorphVox ব্যবহার করে আপনি আপনার ভয়েস এর নয়েজ ফিল্টার করতে পারবেন এবং আপনার কম্পিউটারে থাকা বিল্ট ইন মাইক্রোফোন দিয়ে ভয়েস রেকর্ড করতে পারবেন। এই ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়ারটি আপনাকে শুধুমাত্র WAV ফরমেটে রেকর্ড করা অডিও গুলোকে Allow করে। আর এই ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়্যারটি শুধুমাত্র উইন্ডোজ ডিভাইসের জন্য Available রয়েছে।

আরো পড়ুনঃ মোবাইলে ভাইরাস কাটার সফটওয়্যার

2. Voicemod - ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার

Voicemod হলো একটি ভয়েস চেঞ্জার সফটওয়্যার, যা উইন্ডোজ ব্যবহারকারীদের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। অনলাইনে গেম স্ট্রিমিং করেন এমন অনেক ব্যবহারকারী তাদের ভিডিওতে ভয়েস পরিবর্তন করার জন্য এই সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে থাকেন। এছাড়াও এটি স্ট্রিমিং এবং অনলাইন চ্যাট করার জন্য একটি দুর্দান্ত অপশন। Voicemod এর সাথে Compatible এমন কিছু চ্যাটিং এবং স্ট্রিমিং সফটওয়্যার রয়েছে, যেগুলো আপনি রিয়েল টাইম ভয়েস চেঞ্জ করার জন্য এটিকে ব্যবহার করতে পারেন।

এই ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যারটি Discord, Twitch, VRChat, Skype এর জন্য ও Compatible। তবে সাম্প্রতিক সময়ে ডেভেলপারদের দ্বারা আপডেট করার কিছু প্রোগ্রামের কারণে ডাউনলোড করার ক্ষেত্রে অনেকেই অনেক অনেক অনুৎসাহিত করেন। আর তাই, তারা আপনাকে এই প্রোগ্রামটি ডাউনলোড না করে অন্যান্য বিকল্প সফটওয়্যার ডাউনলোড করার পরামর্শ দেয়। তবে, আপনিও ভয়েস চেঞ্জ করার জন্য নিচের আরও বিকল্প সফটওয়্যার গুলো ব্যবহার করতে পারেন।

3. Voxal Voice Changer - ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার

Voxal Voice Changer একটি বিনামূল্যের ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার, যা উইন্ডোজ এবং ম্যাক উভয় ডিভাইসের জন্য Available রয়েছে। আপনি এই সফটওয়্যারটি ব্যবহার করার মাধ্যমে ও রিয়েল টাইম পরিবর্তন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনি চাইলে সরাসরি পিসি থেকে অডিও নিয়ে সেটিকে অন্য কোন ভয়েসে কনভার্ট করতে পারেন অথবা মাইক্রোফোন ব্যবহার করেও এটি করতে পারেন।

অনেকদিন আর ভিডিও স্ট্রিমিং করার জন্য এই ভয়েস চেঞ্জার সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে থাকেন। আর এখানে Voice Type এবং Effect এর ও কোন অভাব নেই। আপনি যদি ব্যবহার করে পুরুষ কিংবা মহিলা উভয় ভয়েসে পরিবর্তন করতে পারবেন।

Voxal Voice Changer সফটওয়্যার ইউজার ইন্টারফেস ও অনেক সহজ এবং যেকোনো ব্যবহারকারী খুব সহজেই এটি ব্যবহার করতে পারেন। আর এই ভয়েস চেঞ্জার সফটওয়্যারটি অন্যান্য সকল ভয়েস চেঞ্জার সফটওয়্যার এর চাইতে সাইজের ছোট এবং সেজন্য এটি আপনার কম্পিউটারের পারফরম্যান্স কেও তেমন প্রভাবিত করে না।

তবে এখানে আপনাকে বলে রাখি যে, আপনি যদি এই সফটওয়্যারটি ব্যবসায়িক মডেলে ব্যবহার করতে চান, তাহলে আপনাকে তাদের সাবস্ক্রিপশন কিনতে হবে। আর শুধুমাত্র বাড়িতে আপনার জন্য ব্যবহার করলে এটি ফ্রিতেই ব্যবহার করা যাবে।

আরো পড়ুনঃ ইমু অটো কল রেকর্ডার - ইমু ভিডিও কল রেকর্ডিং সফটওয়্যার

4. Clownfish Voice Changer - ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার

Clownfish হলো একটি মাল্টি প্ল্যাটফর্ম অ্যাপ্লিকেশন, যেটি আপনার কম্পিউটারে থাকা যেকোনো অ্যাপ্লিকেশনের ভয়েস চেঞ্জ করার জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে। অর্থাৎ, আপনি কম্পিউটারে মাইক্রোফোন ব্যবহার করে যে যে সফটওয়্যারে ভয়েস দেন, সেগুলোর সমস্ত অ্যাপ্লিকেশনে আপনার ভয়েস চেঞ্জ করা যেতে পারে।

উদাহরণস্বরূপ, আপনি এটি ব্যবহার করে স্কাইপ এবং ভাইবার এর মতো অ্যাপ্লিকেশন গুলোতে রিয়েল টাইম ভয়েস পরিবর্তন করতে পারেন। সেই সাথে, বিভিন্ন সফটওয়্যার দিয়ে লাইভ করার ক্ষেত্রে ও এটি দিয়ে ভয়েস পরিবর্তন করা যেতে পারে।

Clownfish Voice Changer সাধারণত ডিফল্টভাবে ভয়েসে ইফেক্ট যুক্ত করার মতো অতিরিক্ত সুবিধা প্রদান করে না, আপনি এটি কোথায় থেকে খুঁজে পেতে পারেন এবং সেগুলো কীভাবে ডাউনলোড করবেন তার নির্দেশনা প্রদান করে। অন্যান্য সকল সফটওয়্যার থেকে এটি ইন্সটল করার প্রক্রিয়ার সহজ এবং এটি আপনার কম্পিউটারের সিপিইউ পারফরমেন্সের উপর ও তেমন প্রভাব ফেলে না। Clownfish Voice Changer সফটওয়্যারটি শুধুমাত্র উইন্ডোজ ব্যবহারকারীদের জন্য Available রয়েছে।

আরো পড়ুনঃ ১০ টি সফটওয়্যার এর নাম

5. All in-One Voice Changer - ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার

স্কাইপ এর ভয়েস চেঞ্জ করার জন্য আপনি All in-One Voice Changer এপ্লিকেশনটি ব্যবহার করতে পারেন। মূলত এই সফটওয়্যারটি হল এমন একটি ভয়েস চেঞ্জার, যা বিশেষভাবে অনলাইন চ্যাটিং এর জন্য তৈরি করা হয়েছে। 

তাই আপনি এই সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে আপনার বন্ধুবান্ধব কিংবা আত্মীয় স্বজনের কাছে Prank কল করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন। এমনকি এ সমস্ত সেটিংস অ্যাপ ব্যবহার করে কোন একজন ব্যক্তিকে কল দেওয়ার সময় এবং কথা বলার মাঝখানে নিজের ভয়েস পরিবর্তন করতে পারেন। এই ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়্যারটি আপনাকে এই ধরনের সুবিধা ও দিয়ে থাকে।

আপনার ভয়েস চেঞ্জ করার জন্য All in-One Voice Changer একটি দারুণ সফটওয়্যার হতে পারে। এমনকি আপনি সরাসরি বিভিন্ন চ্যাটিংস অ্যাপ ব্যবহার করে লাইভ ভয়েস পরিবর্তন করার পাশাপাশি কম্পিউটার থেকে অডিও নিয়েও সেগুলো সফটওয়্যার এর মাধ্যমে ভয়েস পরিবর্তন করতে পারবেন।

এই ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়্যার এর এত এত সুবিধা থাকলেও আপনার জন্য এটি ব্যবহার করার কঠিন হতে পারে। ‌কেননা, এই ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়্যারটি বিনামূল্যের নয় এবং এটি শুধুমাত্র আপনাকে বিনামূল্যের ট্রায়াল প্রদান করে।

শেষ কথাঃ ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার নিয়ে

আমরা অনেকেই স্ট্রিমিং করার সময় ভয়েস চেঞ্জ করা কিংবা লাইভ ভিডিও কল করার সময় যাতে ভয়েস চেঞ্জ হয়, এমন ধরনের সফটওয়্যার অনুসন্ধান করে থাকি। তাই আজকের এই আর্টিকেলটিতে আমি আপনাদের জন্য এরকমই কিছু ভয়েস চেঞ্জিং সফটওয়্যার নিয়ে আলোচনা করলাম, যেগুলো দিয়ে আপনি ভয়েস চেঞ্জ করতে পারেন। এ সমস্ত সফটওয়্যার গুলোর ব্যবহার পদ্ধতি দেখার জন্য আপনি চাইলে ইউটিউবের ভিডিও দেখতে পারেন। এখানে আমি শুধুমাত্র আপনাকে ভভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার গুলোর তালিকা প্রদান করলাম। ধন্যবাদ।

পোষ্ট ক্যাটাগরি: