পেটে ইনফেকশন হলে করণীয়

পেটে ইনফেকশন হলে করণীয় - পেটে ইনফেকশন হলে করণীয় সম্পর্কে অনেকেই জানতে চাই। আমাদের পেটে অনেক সময় বিভিন্ন কারণে ইনফেকশন দেখা যায়। পেটে ইনফেকশন হলে করণীয় সম্পর্কে না জেনে থাকার কারণে ঘরোয়া ভাবে এটি ভালো করতে পারি না।

পেটে ইনফেকশন হলে করণীয়

সূচিপত্রঃ পেটে ইনফেকশন হলে করণীয়

আপনি যদি পেটে ইনফেকশন হলে করণীয় সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাহলে চলুন দেরি না করে পেটে ইনফেকশন হলে করণীয় সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

ভূমিকাঃ পেটে ইনফেকশন হলে করণীয়

বিভিন্ন কারণে আমাদের পেটে ইনফেকশন হতে পারে বিশেষ করে খাবার এবং পানি থেকেই আমাদের পেটের ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। এই ইনফেকশন থেকে কিভাবে মুক্তি পেতে হয় এছাড়া আপনার ইনফেকশন হলে কি করবেন অর্থাৎ পেটে ইনফেকশন হলে করণীয়, সম্পর্কে আজকের এই আর্টিকেলে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

এছাড়া পেটে ইনফেকশন হলে লক্ষণ, পেটে ইনফেকশন প্রতিরোধের উপায়, পেটে ইনফেকশন হওয়ার কারণ এছাড়া পেটে ইনফেকশন হলে করণীয় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। তাহলে চলুন উক্ত বিষয়গুলো জেনে নেওয়া যাক।

আরো পড়ুনঃ জরায়ু ইনফেকশনের লক্ষণ

পেটে ইনফেকশন হলে লক্ষণ

পেটে সংক্রমণ ভাইরাস দ্বারা সৃষ্টি হয়। এবং সেখান থেকে পরিপাক নালী জ্বালাপোড়া হয় এছাড়া আরো অনেক লক্ষণ দেখা যায়। পেটে ইনফেকশন হলে লক্ষণ প্রকাশ পায়। যে লক্ষণগুলো দেখে আমরা বুঝবো যে পেটে ইনফেকশন হয়েছে। তাহলে চলুন পেটে ইনফেকশন হলে লক্ষণ গুলো জেনে নেওয়া যাক।

১। পেটে ইনফেকশন হলে জ্বর হতে পারে।

২। পেটে ইনফেকশন হওয়ার ফলে ওজন অতিরিক্ত মাত্রায় কমে যেতে পারে।

৩। পেটে ইনফেকশন হওয়ার অন্যতম একটি লক্ষণ হল খিদে কমে যাওয়া।

৪। বমি হওয়া অথবা সবসময় বমি বমি ভাব হওয়া।

৫। পেটে ইনফেকশনের অন্যতম একটি লক্ষণ তলপেটে ব্যথা হওয়া।

৬। মলে রক্ত বা ডায়রিয়া পেটের ইনফেকশনের অন্যতম একটি লক্ষণ।

৭। যদি প্রতিদিন গাঢ় রঙের প্রসব বা মল আসতে শুরু করে তাহলে বুঝতে হবে পেটে ইনফেকশন হয়েছে।

৮। যদি আপনার মুখে অতিরিক্ত পরিমাণে দুর্গন্ধ হয় এবং লিভারের সমস্যা হয় তাহলে ইনফেকশনের লক্ষণ।

৯। যদি টকের রং বিবর্ণ হয়ে যায় এবং সাদা দাগ দেখা যায় তাহলে এটি ইনফেকশনের লক্ষণ।

পেটে ইনফেকশন প্রতিরোধের উপায়

পেটে ইনফেকশন হলে খুব সহজেই প্রতিরোধ করা যায়। এর জন্য আপনাকে পেটে ইনফেকশন প্রতিরোধের উপায় গুলো সম্পর্কে জানতে হবে। এটা ইনফেকশন হলে করণীয় জানার আগে আমাদেরকে এটি প্রতিরোধ করতে হবে। আপনাদের সুবিধার্থে নিচে এটা ইনফেকশন প্রতিরোধের উপায় উল্লেখ করা হলো।

১। পেটে ইনফেকশন হলে গরম পানি পান করতে হবে। তবে অতিরিক্ত গরম নয় আপনি যেন সহ্য করতে পারেন এরকম গরম পানি পান করতে হবে।

২। খাবার রান্না করার সময় বিশেষ করে তরকারিতে কম মসলা দিতে হবে। অর্থাৎ কম মসলাযুক্ত খাবার খেতে হবে।

৩। পেটের ইনফেকশনের কারণে অনেক সময় আমাদের শরীর থেকে অতিরিক্ত পানি সোডিয়াম পটাশিয়াম ইত্যাদি খনিজ পদার্থগুলো বের হয়ে যায় যার ফলে পানি শূন্যতা সহ বিভিন্ন রকম সমস্যা দেখা যায়। তাই আমাদের উচিত অতিরিক্ত পানি পান করা।

৪। আমাদেরকে অবশ্যই খাবার রুটিন নিয়ম অনুযায়ী মেনে চলতে হবে। সঠিক সময়ে খাবার গ্রহণ করতে হবে। প্রতিদিনের খাবার প্রতিদিন সঠিক সময়ে খেতে হবে।

৫। গরম চা কফি এবং অ্যালকোহল যুক্ত খাবার থেকে নিজেকে বিরত রাখতে হবে। অতিরিক্ত অ্যালকোহল পান পেটে ইনফেকশন হওয়ার অন্যতম একটি কারণ।

আরো পড়ুনঃ ঘন ঘন প্রস্রাব হওয়ার কারণ

পেটে ইনফেকশন হওয়ার কারণ

বিভিন্ন কারণে পেটে ইনফেকশন হতে পারে। কিন্তু সকল কারনের মূল কারণ হলো খাবার এবং পানির মাধ্যমে আমাদের পেটে ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। কারণ খাবার এবং পানির মাধ্যমে আমাদের পেটে বেশিরভাগ জীবানু প্রবেশ করে যার ফলে পেট ব্যথা সহ বিভিন্ন রকমের সমস্যা দেখা যায়।

পেটে ইনফেকশন হওয়ার অন্যতম একটি কারণ হলো অতিরিক্ত পরিমাণে তেল যুক্ত খাবার খাওয়া। এছাড়া বাইরের খাবার খাওয়ার ফলে পেটে ইনফেকশন হতে পারে। পচা দুর্গন্ধযুক্ত খাবার খাওয়ার ফলে পেটে ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

যদি কয়েক দিনের বাসি খাবার খাওয়া হয় তাহলে পেটে ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই থাকে। তাই আমাদেরকে বাসি খাবার থেকে দূরে থাকতে হবে। অতিরিক্ত পরিমাণের বাইরের খাবার খাওয়া এবং মসলাযুক্ত খাবার খাওয়ার ফলে পেটে ইনফেকশন হয়।

প্যাকেটজাত খাবার খাওয়া অথবা ফাস্টফুড খাওয়ার ফলে পেটে ইনফেকশন হতে পারে। অতিরিক্ত পরিমাণে অ্যালকোহল পান করার ফলে আমাদের পেটে ইনফেকশন হতে পারে। দূষিত খাবার এবং দূষিত পানি খাওয়ার ফলে পেটে ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে।

অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বসবাস করা এবং সেই পরিবেশে খাদ্য গ্রহণ করা পায়খানা করে ভালোভাবে হাত না ধোয়া এবং সে হাত দিয়েই খাবার গ্রহণ করার ফলে পেটে ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়। সাধারণত খাবার এবং পানিকেই পেটের ইনফেকশনের মূল কারণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

পেটে ইনফেকশন হলে করণীয়

যদি কখনো পেটে ইনফেকশনের লক্ষণ গুলো দেখা যায় তাহলে আমরা প্রথমে ঘরোয়া পদ্ধতিতে বিভিন্ন বিষয়কে বিবেচনা করে পেটের ইনফেকশন এর বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারি। এটা ইনফেকশন হলে অনেক সময় আমাদের ডায়রিয়া অথবা পেট খারাপ হয়ে থাকে। আপনাদের জন্য পেটে ইনফেকশন হলে করণীয় গুলো উল্লেখ করা হলো।

ডায়রিয়া ও পেট খারাপ নিয়ন্ত্রণ করতে হবে - পেটে ইনফেকশন হলে অনেক সময় আমাদের ডায়রিয়া দেখা যায় যার ফলে আমাদের শরীর নিস্তেজ হয়ে পড়ে। তাই আমাদেরকে পেটে ইনফেকশন হলেও ডায়রিয়া ভালো করার জন্য স্যালাইন খেতে হবে।

পানি শূন্যতা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে - পেটে ইনফেকশন হওয়ার ফলে ডায়রিয়া হয় যার ফলে আমাদের শরীর থেকে অতিরিক্ত পানি বের হয়ে যায়। যেন পানি শূন্যতা হওয়ার ফলে আমাদের শরীর দুর্বল হয়ে না পড়ে তাই আমাদেরকে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে।

ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া - পেটের ইনফেকশনের লক্ষণ গুলো দেখা দিলে আমাদেরকে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। যে কোন ওষুধ খাওয়ার আগে প্রথমে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে তারপরে ওষুধ সেবন করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ কিডনি রোগের কারণ ও প্রতিকার

শেষ কথাঃ পেটে ইনফেকশন হলে করণীয়

পেটে ইনফেকশন হলে করণীয়, পেটে ইনফেকশন হওয়ার কারণ, এটি ইনফেকশন প্রতিরোধের উপায়, পেটে ইনফেকশন হলে লক্ষণ, সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। প্রিয় বন্ধুরা আশা করি আপনারা বিষয়টি সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। আপনাদের বিষয়গুলো জানাতে পেরে আমরা আনন্দিত। এই বিষয়গুলো যারা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।

এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। এরকম স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক পোস্ট আরো পড়তে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইট ফলো করুন।

পোষ্ট ক্যাটাগরি:

এখানে আপনার মতামত দিন

0মন্তব্যসমূহ

আপনার মন্তব্য লিখুন (0)