Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2022/12/sbe-borat.html

2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ

2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ - প্রিয় পাঠক আজকের এই আর্টিকেলে 2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ এই বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। আপনারা অনেকেই 2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ নিশ্চয়ই এটি গুগল সার্চ করছেন। তাদের জন্য আজকে আমরা এ পোস্টে আলোচনা করব 2023 সালের শবেবরাত কত তারিখ। তাহলে চলুন দেরি না করে জেনে নিই 2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ।

পেজ সূচিপত্রঃ 2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ

আপনি যদি 2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ জানতে চান তা হলেও সম্পূর্ণ আতিকের মনোযোগ সহকারে পড়ুন। তাহলে চলুন দেরি না করে 2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

ভূমিকাঃ 2023 সালের শবেবরাত কত তারিখ

শবে বরাত এই রাতটি হচ্ছে মুসলমানের কাছে একটি সৌভাগ্যের রাত।হিজরী বর্ষের সাবান মাসের 14 তারিখ মুসলমানরা এই সৌভাগ্যের রাতটা পালন করে। আর এই দিনটি 2023 সালে আসতে চলেছে, 2023 সালে এ দিনটি কবে আসতে চলেছে চলুন জেনে নিই। 2023 সালের শবেবরাত 8 ই মার্চ পালন করা হবে যত সম্ভব।

আর যদি পড়ে চাঁদ না দেখা যায় তাহলে দিন বাড়তেও পারে। শবে বরাতে দিনটিকে সরকারি ছুটির দিন। এই দিনটিকে প্রায়ই বিশ্ব পালন করে থাকেন। এবং বাংলাদেশে খুব ধুমধাম করে এই দিনটি পালন করে। এই দিনে সব আত্মীয় স্বজনদের ডেকে ভাল-মন্দ খাবার খায়। আবার কেউ কেউ এ দিনটিতে আতশবাজি করে। যদিও এগুলা নিষেধ তারপরেও এ সবাই আনন্দ করে।

আরো পড়ুনঃ রোজার ঈদ কবে হবে ২০২৩ 

এই দিনটি মুসলমানদের জন্য সৌভাগ্যের রাত। এই রাতে নফল নামাজ পড়ে দোয়া দুরুদ পরে।এই রাতে মুসলিমরা মন খুলে আল্লাহর কাছে চাই। আমাদের এই পোস্টে আরো আলোচনা করব শবে বরাত কি, শবে বরাত সম্পর্কে হাদিস ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করব তাহলে চলুন দেরি না করে বিস্তারিত জানি।

শবে বরাত অর্থ কি

আমাদেরকে আগে এটা জানতে হবে যে শবে বরাত অর্থটা কি? শবে বরাত অর্থ টা হচ্ছে সবে অর্থ মানে রাত এবং বরাত অর্থ হচ্ছে মুক্তি বা সৌভাগ্য। অর্থাৎ শবে বরাত মানে হচ্ছে সৌভাগ্যের একটি রাত। শাবান মাসের 14 তারিখ রাতকে বলা হয় শবে বরাত। শবেবরাতে কথাটি আরবি ভাষা না। শবেবরাতে কথাটি এসেছে ফারসি ভাষা থেকে।

শবে বরাত মানে আরবি ভাষায় হচ্ছে লাইলাতুল বারাআত। শাবান মাস একটি গুরুত্বপূর্ণ ফজিলত মাস। আমাদের নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাহু সাল্লাম এই মাসে বেশি বেশি নফল রোজা করতেন। আল্লাহ তাআলা এই রাতের মুসলমানদের জন্য অশেষ রহমতে দরজা খুলে দেন। এই রাতে সব মুসলিমরা নিজেদের সব সব ভুল এবং পাপ ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

বিশেষ করে বাংলাদেশ এই রাতটিকে জাঁকজমক করে পালন করা হয়। এই রাতে মুসলমানরা নফল নামাজ এবং জিকির করেন। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত গোটা রাত জেগে কাটায়। দোয়া-দুরুদ পড়েন একই সাথে ঋতু আত্মীয়-স্বজনদের জন্য বাবা-মা, চাচা চাচি ,দাদা-দাদী, নানা নানি এদের জন্য কবর জিয়ারত করে। এই দিনে মুসলমানদের বাড়িতে ভালো-মন্দ খাবার হয়।

অনেকে দান খায়রাত করে থাকে। আল্লাহতালার যেকোনো সময় তাঁর বান্দার দোয়া প্রার্থনা করতে পারেন। তারপরেও কিছু কিছু সময় আছে যা দোয়া কবুলের অন্যতম সময় তার মধ্যে একটি সময় হচ্ছে শবে বরাত। মুসলমানরা এটি একটি অন্যতম রাত হিসেবে দেখেন। সারারাত আল্লাহর ইবাদত-বন্দেগিতে মশগুল থাকে।

শবে বরাত সম্পর্কে হাদিস

এখন আমরা আলোচনা করব শবে বরাত সম্পর্কে হাদিস। এদিনে আমাদের নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম কি কি করতে বলেছেন এবং কি কি করেছেন তা বিষয়গুলো জানব। তাহলে চলুন আমরা এসব বিষয়গুলো জেনে নিই। শবে বরাতের রাত্রিতে ইবাদত-বন্দেগী করা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর সাহাবা এবং তাবে-তাবেঈন যুগ থেকে প্রচলন রয়েছে।

আরো পড়ুনঃ ২০২৩ সালের রমজান ঈদ কত তারিখ

কিন্তু শবে বরাতের কথা কোরআনে উল্লেখ নেই। আরবিতে জানুন নামাজ রোজা নেই এই শব্দগুলো ফারসি হয় কোরআনে হাদীসেও নেই। এই রাতে ইবাদত করা ইবাদত। অথচ শবেবরাত সহি হাদিস দ্বারা প্রমাণিত হওয়ার পরও সে সম্পর্কে বিদআত বলা অজ্ঞতার পরিচয়। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম হাদীসের প্রতি থেকে আগত এবং হাদীস দ্বারা প্রমাণিত এই ফজিলতপূর্ণ রাত কে কেউ অস্বীকার করতে পারে না।

নিম্নে হাদিস বর্ণনা করা হলোঃ হযরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু তা'আলা বলেন, একরাতে রাসূল সাল্লাল্লাহু সালামকে না পেয়ে খুঁজতে বের হলাম। খুঁজতে খুঁজতে জান্নাতুল বাকিতে গিয়ে আমি তাকে দেখতে পেলাম। তিনি বললেন কি ব্যাপার হাইসা তোমার কি মনে হয় আল্লাহ এবং তার রাসুল তোমার ওপর কোনো অবিচার করবেন।

হযরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু তা'আলা বলেন, "আমার ধারণা ছিল আপনি অন্য কোনো বিবির ঘরে গিয়েছিলেন। যখন শাবান মাসের 15 রাত আসেন অর্থাৎ যখন শবেবরাত হয় তখন আল্লাহ তাআলা এই রাতে দুনিয়াতে নেমে আসেন। তারপর আমাদের সবাইকে ক্ষমা করার জন্য বলেন। এবং সেই রাতে যে বান্দা আল্লাহর কাছে ক্ষমা চায় তাদেরকে ক্ষমা করে দেয়।"

2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ

প্রিয় বন্ধুরা উপরের আলোচনায় আমরা অনেকগুলো বিষয় সম্পর্কে জেনেছি। আপনারা যারা আমাদের এই আর্টিকেল পড়ছেন তারা নিশ্চয়ই 2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ? এ বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চেয়ে গুগলের সার্চ করে আমাদের এই আর্টিকেল ওপেন করেছেন। তাহলে আপনার জন্য নিচে 2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ? তা আলোচনা করা হলো।

এই বছর শবে বরাত ২০২৩ সালের মার্চ মাসের ৮ তারিফ পালন করা হবে। ১৪৪৪ হিজরী সালের চাঁদ দেখার উপর সম্পূর্ণ নির্ভর করে। ২০২৩ সালের ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ধারণা করা হচ্ছে মার্চ মাসের ৮ তারিখ শবে বরাত পালন করা হবে।

শবেবরাত কেন পালন করা হয়

আজকের এই আর্টিকেলে আমরা 2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ? এ বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করছি। আপনি কি জানেন শবেবরাত কেন পালন করা হয়? আপনি না জানলে এই পোস্টটি পুরোটা পড়ুন। এখন আপনাদের সাথে শবেবরাত কেন পালন করা হয় এই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাহলে চলুন বিস্তারিত যাক। শাবান মাসের 14 তারিখের দিবাগত রাত্রিকে শবেবরাত বলা হয়। এই রাত একটি গুরুত্বপূর্ণ ফজিলত রাত।

আরো পড়ুনঃ ২০২৩ সালের রোজার সময়সূচী

আল্লাহ তা'আলা বলেন হা মিম শপথ করেছি  উজ্জ্বল কিতাবের নিশ্চয় আমি নাযিল করেছি বরকতময় রাতে। এটি একটি বরকত ময় রাত-এই রাতে তোমরা আমার কাছে যা চাইবা আমি তাই দেবো। হযরত ইকরিমা রাযিআল্লাহু তা'আলা আনহু কয়েকজন তফসিরবিদ থেকে বর্ণিত আছে সূরা দুখানের দ্বিতীয় আয়াতে বরকতের রাত্রী বলে শবেবরাত বোঝানো হয়েছে। শবে বরাত হচ্ছে ফারসি শব্দ। এর আরবি শব্দ হচ্ছে লাইলাতুল বরাত। আশা করি আপনারা নিশ্চয়ই শবেবরাত কেন পালন করা হয় এই বিষয় সর্ম্পকে জানতে পেরেছেন।

শেষ কথাঃ 2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ

আজকের এই আর্টিকেলে 2023 সালের শবে বরাত কত তারিখ, সবে বরাত অর্থ কি, শবেবরাত কেন পালন করা হয়, শবে বরাত সম্পর্কে হাদিস উক্ত বিষয় নিয়ে আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি আপনারা উক্ত বিষয় গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। আপনারা যদি 2023 সাল শবে বরাত এবং আরো অন্যান্য উক্ত বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে না পারেন তাহলে এই পোস্টটি আবার পুনরায় পড়ুন। ধন্যবাদ এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য

0 Comments