খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম

খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম - আসসালামু আলাইকুম প্রিয় পাঠক আপনারা যারা এই পোস্টটি পড়ছেন তারা নিশ্চয়ই খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চান। যদি আপনি খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চান তাহলে এই পোস্টটি শুধুমাত্র আপনার জন্যই।

খতমে খাজে গান পড়ার নিয়ম

সূচিপত্রঃ খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম

আজকে আমরা "খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম" "খতমে খাজেগান কি" "খতমে খাজে গান কিসের জন্য পড়া হয়" সে সম্পর্ক নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করব।

খতমে খাজেগান হল বিশেষ উদ্দেশ্য পূরণের জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করা। আমরা বিভিন্ন ভাবে আল্লাহর কাছে দোয়া এবং জিকির করে থাকি। খতমে খাজা এমন একটি বিশেষ দোয়া যার মাধ্যমে আল্লাহ তায়ালা আমাদের দোয়া গুলো বেশিরভাগ কবুল করে থাকেন। তাহলে চলুন আর দেরি না করে খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম গুলো জেনে নিন।

খতমে খাজেগান কি

আমরা অনেকে আছি যারা খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম সম্পর্কে জানি না। খতমে খাজেগান এমন একটি দোয়া যা আহলে সুন্নাত পালন করে থাকে। এখন আমরা জানবো খতমে খাজেগান কি?

খতমে খাজেগান হলো বিশেষ উদ্দেশ্য পূরণের জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া ও জিকির করা। যা হল তরিকত পন্থী ওলামায়ে আহলে সুন্নাত ও আউলিয়ায়ে কেরামের অভ্যাস করা একটি উত্তম আর্দশ। তাই এর নামকরণ করা হয়েছে খতমে খাজেগান। 

এর ফারসি শব্দ হলো খাজা এবং এর বহুবচন শব্দ হলো খাজেগা এবং খতম হলো শেষ বা পূর্ণ করা এর পূর্ণরূপ হল খতমে খাজে গান। যেটা বিশেষ উদ্দেশ্য পূরণের জন্য আল্লাহর কাছে দোয়ার মাধ্যমে এবং আল্লাহর জিকির করা।

আরো পড়ুনঃ ইশরাকের নামাজ পড়ার নিয়ম

খতমে খাজেগান কিসের জন্য পড়া হয়

আমরা অনেকেই অনেকভাবে আল্লাহর কাছে দোয়া কবুলের উদ্দেশ্যে অনেক জিকির আসগার করে থাকি। খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম, খতমে খাজে গান কিসের জন্য পড়া হয় তা হয়তো আমরা অনেকেই জানিনা। আপনারা যারা খতমে খাজে গান পড়ার নিয়ম, খতমে খাজে গান কিসের জন্য পড়া হয় জানতে চান তাহলে আমাদের পোস্টটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

খতম অর্থ (পূর্ণ) করা বা শেষ করা এবং ফারসি শব্দ হল (খাজা) এবং বহুবচন হল (খাজেগা)। খতমে খাজেগান কিসের জন্য পড়া হয় এটি হল আমাদের কোন বিশেষ উদ্দেশ্য পূরণের জন্য আমরা আল্লাহর কাছে দোয়ার মাধ্যমে আল্লাহর কাছে জিকির করে থাকি। 

তরিকত পন্থী ওলামায়ে আহলে সুন্নাত ও আউলিয়ায়ে কেরামের অভ্যাস করা একটি উত্তম আর্দশ। তাই এর নামকরণ করা হয়েছে খতমে খাজেগান।

খতমে খাজেগান পড়ার কারণ এবং কিসের জন্য পড়তে হয়। খতমে খাজেগান পড়ার মাধ্যমে আমরা রোগ ব্যাধি এবং বড় ধরনের বালা-মুসিবত থেকে রক্ষা পেতে পারি। আমরা বিভিন্ন সময়ে রোগ ব্যাধি এবং বালা মুসিবতে পড়ে থাকি খতমে খাজে গান পড়ার মাধ্যমে আমরা এইসব রোগ ব্যাধি এবং বালা মসিবত থেকে আল্লাহ আমাদের উদ্ধার করেন।

খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম

আমরা উপরে খতমে খাজেগান কিসের জন্য পড়তে হয়, খতমে খাজে গান কি সে বিষয়ে জানতে পেরেছি। এখন আমরা জানবো খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম সম্পর্কে। তাহলে চলুন জেনে নেই খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম সম্পর্কে।

খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম

১। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রজিউন- ১০০বার

২। ইস্তেগ্ফার- ১১বার

৩। ইয়া আরহামার রহিমিন- ১০০বার

৪। ইয়া হাল্লালাল্ মুশ্কিলাত্- ১০০বার

৫। সূরা ফাতিহা- ১০০বার

৬। দরূদ শরীফ- ১০০বার

৭। সূরা আলম নাশরাহ- ৭০বার 

সূরা ইখলাছ- ১০০বার

৮। পুণরায় সূরা ফাতিহা- ৭বার

৯। পুনরায় দরূদ শরীফ- ১০০বার

১০। তারপর এই দোয়া (একশত বার): فَسَهِّلْ يَا اِلٰهِىْ كُلَّ صَعْبٍ بِحُرْ مَتِ سَيِّدِ الْاَ بْرَارِ سَهِّلْ سَهِّلْ بِفَضْلِكَ يَاعَزِيْزُ

উচ্চারণঃ ফাসাহ্হিল ইয়া ইলাহি কুল্লা ছা’বিন বিহুরমাতি সায়্যেদিল আবররি সাহ্হিল- সাহ্হিল বিফাদ্বলিকা ইয়া আজীজ।

১১। يَا قَاضِىَ الْحَاجَاتْ ইয়া ক্বদ্বিয়াল হাযাত- ১০০বার

১২। يَا كَفِىَ الْمُهِمَّاتْ ইয়া কাফিয়াল মুহিম্মাত- ১০০বার

১৩। يَا دَافِعَ الْبَلِيَّاتْ ইয়া দাফিয়াল বালিয়্যাত- ১০০বার

১৪। يَا مُجِيْبَ الدَّعْوَاتْ ইয়া মুযিবাদ দা’ওয়াত- ১০০বার

১৫। يَا رَافِعَ الدَّرَجَاتْ ইয়া রাফিয়াদ্ দারযাত- ১০০বার

১৬। يَا حَلَّالَ الْمُشْكِلَاتْ ইয়া হাল্লালাল্ মুশ্কিলাত্- ১০০বার

১৭। يَا مُسَبِّبَ الْاَسْبَابْ ইয়া মুসাব্বিবাল আসবাব- ১০০বার

১৮। يَا شَافِعَ الْاَمْرَاضْ ইয়া শাফিয়াল আমরাজ- ১০০বার

১৯। يَا مُفَتِّحَ الْاَبْوَابْ ইয়া মুফাত্তিহাল্ আব্ওয়াব- ১০০বার

২০। رَبِّ اِنِّىْ مَغْلُوْبٌ فَانْتَصِرْ রব্বি ইন্নি মাগ্লুবুন ফানতাছির- ১০০বার।

২১। يَا غَوْثُ اَغِثْنِىْ وَاَمْدُدْنِىْ ইয়া গউছু আগিছ্নী ওয়া আম্দুদ্নীয়া- ১০০বার

২২। اِنَّالِلّٰهِ وَاِنَّااِلَيْهِ رَاجِعُوْنْ ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রজিউন- ১০০বার

২৩। لَااِلٰهَ اِلَّاۤ اَنْتَ سُبْحَانَكَ اِنِّىْ كُنْتُ مِنَ الظّٰلِمِيْنْ লা-ইলাহা ইল্লা আ আংতা সুব্হানাকা ইন্নি কুংতু মিনাজ জোয়ালিমীন- ১০০বার

২৪। فَاسْتَجَبْنَا لَهٗ وَنَجَّيْنٰهُ مِنَ الْغَمِّ وَكَذٰ لِكَ نُنْجِى الْمُؤْمِنِيْنْ ফাসতাজাবনা লাহু ওয়ানাজ্জাইনাহু মিনাল গম্মি ওয়া কাজালিকা নুনজিল মু’মিনীন- ১০০বার

২৫। يَا اَرْ حَمَ الرَّحِمِيْنْ ইয়া আরহামার রহিমিন- ১০০বার

২৬। শেষ: ১০০বার দরূদ শরীফ পাঠ করে খতম শেষ করে খাস দিলে মুনাজাত করবেন, ইনশাআল্লাহ্, আল্লাহপাক কবুল আপনার দোয়া করবেন এবং এর ফলাফল হতে থাকবে।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে জীবনে সুখী হওয়া যায়

খতমে খাজেগান পড়ার ফজিলত

যেহেতু আমরা ইতিপূর্বে জেনেছি যে, খতমে খাজেগান কি এবং খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম সম্পর্কে। তাই এখন আমরা আর্টিকেলের এই অংশে খতমে খাজেগান পড়ার ফজিলত সম্পর্কে জানবো। খতমে খাজেগান কেন পড়া হয়? খতমে খাজেগান পড়ার ফজিলত কি? হ্যা, আপনার এই সকল প্রশ্নের জবাব নিয়ে আমরা বিস্তারিত বলবো। খতমে খাজেগান পড়ার ফজিলত গুলো হলোঃ

১। কঠিন রোগ-বালাই থেকে মুক্তি পেতে খতমে খাজেগান পড়া হয়ে থাকে।

২। হঠাৎ কিংবা আকস্মিত কোনো বিপদ-আপদ থেকে রক্ষা পেতে খতমে খাজেগান পড়া হয়।

৩। জীবনে চলতে গেলে আমরা নানান ধরনের সমস্যা এবং অসুবিধার মধ্যে পরে যাই। বিভিন্ন ধরনের অসুবিধা থেকে মুক্তি পেতে খতমে খাজেগান পড়া হয়ে থাকে।

৪। দুঃচিন্তা সহ আরো নানান রকম মনের অবসাদ দূর করার জন্য খতমে খাজেগান পড়া হয়।

৫। অর্থনৈতিক বা টাকা-পয়সার সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে খতমে খাজেগান পাঠ করা হয়।

প্রিয় পাঠক মূলত উপরোক্ত ফজিলত গুলো লাভ করার উদ্দেশ্য মুমিনগণ খতমে খাজেগান পড়ে থাকে। যদিওবা অনেক আলেমগণ খতমে খাজেগান পড়ার আরো অনেক ফজিলতের কথা বলেছেন। তবে আমরা সাধারণ কিছু ফজিলত এখানে আলোচনা করেছি। আশা করি খতমে খাজেগান পড়ার ফজিলত সম্পর্কে আপনারা বিস্তারিত ভাবে জানতে পেরেছেন।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক আপনারা যারা এই খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম পোস্টটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়েছেন তারা নিশ্চয়ই খতমে খাজেগান পড়ার নিয়ম, খতমে খাজেগান কেন পড়তে হয়, খতমে খাজেগান কি সে সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। 

খতমে খাজেগান হল বিশেষ উদ্দেশ্য পূরণে জন্য দোয়ার মাধ্যমে আল্লাহর জিকির করা। যা হল তরিকত পন্থী ওলামায়ে আহলে সুন্নাত ও আউলিয়ায়ে কেরামের অভ্যাস করা একটি উত্তম আর্দশ। তাই এর নামকরণ হয়ে উঠে খতমে খাজেগান।

পোষ্ট ক্যাটাগরি: