Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/09/%20Visa-card-vs-MasterCard.html

ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ডের মধ্যে পার্থক্য

ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ডের মধ্যে পার্থক্য — ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ড হচ্ছে ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ড প্রস্তুতকারী। এটা লেনদেন সম্পাদন কারি কোম্পানী। আমরা যারা অনলাইনে কাজ করে থাকি তাদের কাছে ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ড খুবই পরিচিত একটা নাম। এই কার্ডগুলা দিয়ে আমরা বিভিন্ন জিনিস অনলাইন থেকে ক্রয় করে থাকি। আর এই দুইটাই নেটওয়ার্ক পেমেন্ট যার পরেও এদের মধ্যে কিছু পার্থক্য আছে। আসুন জেনে নেই ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ডের মধ্যে পার্থক্য দেখে নেই।

ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ডের মধ্যে পার্থক্য

ভিসা কার্ড

ভিসা কার্ড হচ্ছে ভিসা কর্তৃক ব্র্যান্ড এবং ভিসা নেটওয়ার্ক দ্বারা পেমেন্ট চালিত কার্ড। ভিসা কার্ডের গ্রাহক বিলিয়নে উপস্থিত এবং তারা মাস্টার কার্ডের সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বী। ভিসা কার্ড হচ্ছে একটি পেমেন্ট প্রসেসিং নেটওয়ার্ক। সারা বিশ্বেই ভিসা কার্ড গ্রহণ করে থাকে এটি মাস্টার কার্ড এর মতো ব্যাংকগুলো গ্রাহকদের পেমেন্ট পরিষেবা ব্যাংকের দিকে যায় এবং সেটা ভিসা কার্ডে নয়। 

যারা ভিসা কার্ড ব্যবহার করে থাকেন তারা ব্যাংক থেকে ভিসা সেবা পেমেন্ট পেয়ে থাকবেন। এবং সেখানে একটা মজার ব্যাপার হলো ভিসা কার্ড গুলা ভিসা নয় বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইস্যু করে থাকে। সারা বিশ্বের মধ্যে ২০০ দেশ অসংখ্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দেখা যাচ্ছে এই ভিসা কার্ড মাধম্যে পেমেন্ট করে থাকে। আর ভিসা কার্ড ব্যবসায়িক এবং পার্সোনাল উভয় ক্ষেত্রে ব্যবহার হয়।

আরও পড়ুনঃ স্মার্ট টিভি কেনার আগে যা জানা জরুরি

মাস্টার কার্ড

ভিসা কার্ডের পরেই ২ নম্বর অবস্থানে আছে মাস্টার কার্ড। ২৩ মিলিয়নের বেশি বিশ্বব্যাপী এই মাস্টার কার্ড ব্যবহার করা যায়। এই মাস্টার কার্ড এর গুরুত্বপূর্ণ হলো এটা সরাসরি গ্রাহকের কাছে ক্রেডিট কার্ড তেমন একটা ইস্যু করেনা। মাস্টার কার্ড এর যে অফারগুলা বা সেবা দিয়ে থাকে সেগুলা ব্যাংকগুলো থেকে দেয়া হয়। নিজেদের গ্লোবাল পেমেন্ট নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে তাদের পেমেন্ট লেনদেন সহজতর করে। ব্র্যান্ডেড পেমেন্ট কার্ডগুলা সরবরাহের ক্ষেত্রে মাস্টার কার্ডগুলা তাদের প্রতিষ্ঠানের সাথে আর্থিক ভাবে একজোট হয়ে কাজ করে করে থাকে।

ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ড এর মধ্যে পার্থক্য কোথায়

এই ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ড ব্যবহারের ক্ষেত্রে দেখা যায় তেমন কোনো পার্থক্য নেই। আমরা অনলাইন পেমেন্টের জন্যে কোথাও গিয়ে মার্কেটে কেনাকাটার সময় ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ড দুইটাই ব্যবহার করা যায়। দেখা যাই ভিসা কার্ডে গ্রাহক বেশি থাকে। ৯৯% জায়গায় ভিসা কার্ড ব্যবহারের সুযোগ থাকে কিন্তু সেখানে মাস্টার কার্ড ব্যবহারের সুযোগ ও থাকে। এই দুই কার্ডের সুবিধার ব্যাপারটা ব্যাংকের উপর নির্ভর করে। যারা ডেবিট, ক্রেডিট, প্রিপেইড কার্ড ব্যবহার করে থাকে তাদেরকে অফার করা হয়ে থাকে ভিসা কার্ড, মাস্টার কার্ড। কার্ডগুলা বেসিক থেকে প্রিমিয়াম শুরু ৩ লেভেলের সুবিধা দিয়ে থাকে দুই পেমেন্টের প্লাটফ্রম এই।

ভিসা কার্ড যে মিড রেঞ্জ প্যাকেজ আছে সেটার নাম সিগনেচার। এখানে বিভিন্ন সুবিধা আছে সেটা হচ্ছে- বিভিন্ন অনলাইন পোর্টাল গুলো ডিসকাউন্ট দেয়, ভ্রমণ এবং ক্রিয়া ইভেন্টে ডিল করে থাকে। মাস্টার কার্ড এর মিড রেঞ্জ প্যাকেজ এর নাম ওয়ার্ল্ড। এটার সুবিধা হচ্ছে- ১২০ দিনের একটা মূল্য সুরক্ষা দিয়ে থাকে, ভ্রমণ করতে গিয়ে হোটেল রুমের আপগ্রেড, দেরি করে চেকআউট সুবিধা। যাইহোক সারাবিশ্বে ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ড গ্রহণ করবে। কিছু জায়গা আছে যেখানে দুইটা কার্ড এই গ্রহণ করে।

পরিশেষে বলা যায়, লেনদেনের ক্ষেত্রে ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ড দুইটাই খুব নিরাপদ। দুইটা কার্ড কার্যক্রমের দিক থেকে একই বলা যায়। এই কার্ড দুইটা ব্যবহার করে বাংলাদেশের এটিএম বুথ থেকে টাকা তুলা যাবে। তাই বলা চলে ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ড এর মধ্যে একটি আপনার চাহিদা পূরণে সক্ষম। আপনি উভয় কার্ড নিতে পারেন চাইলে।

আরও পড়ুনঃ বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া