Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/08/islamic%20post-bangla.html

ইসলামিক পোস্ট | ইসলামিক পোস্ট বাংলা | ইসলামিক আমল

ইসলামিক পোস্ট | ইসলামিক পোস্ট বাংলা | ইসলামিক আমল

বসার আদব সমূহ 

বসার আদব তিন প্রকার 

(১) দুই হাটু ফেলিয়া নামাজের সময়। 
(২) এক হাঁটু উঠাইয়া লেখার সময়। 
(৩) দুই হাটু উঠায়া খাওয়ার সময় (এই তিন প্রকারে বসা সুন্নাত)। 

ইস্তিনজার আদব

১. পাঁচ দিকে ফিরিয়া ইস্তিঞ্জা করা নিষেধ। 
২. কিবলার দিকে মুখ করিয়া। 
৩. কিবলার দিকে পিঠ করিয়া।
৪. চন্দ্র ও সূর্যের দিকে মুখ করিয়া। 
৫. প্রবল বাতাস এর দিকে মুখ করিয়া।
৬. একেবারে উলঙ্গ হইয়া।

১০ জায়গায় ইস্তিঞ্জা করা নিষেধ

(১) মানুষ চলাচলের রাস্তায়।
(২) ছায়াদার ও ফল গাছের নিচে।
(৩) অজু ও গোসলের স্থানে।
(৪) গর্তের ভিতরে।
(৫) গোরস্থানে।
(৬) দাঁড়াইয়া বা হাটিয়া।
(৭) বিনা উযরে পানিতে।
(৮) ঘরে বা বিছানায়।
(৯) মসজিদের আঙ্গিনায়। 
(১) জনসম্মুখে। 

ছয় জিনিস নিয়ে ইস্তিঞ্জায় যাওয়া নিষেধ 

১. আল্লাহ তায়ালার নাম। 
২. নবী গনের নাম। 
৩. ফেরেশতা গনের নাম।
৪. কুরআনের আয়াত। 
৫. হাদিসের আয়াত। 
৬. দোয়া কালাম (লিখিত বা অংকিত)।

ইস্তিঞ্জার সময় আট কাজ করা নিষেধ 

(১) কথা বলা। 
(২) জিকির করা বা তাসবীহ পড়া। 
(৩) কুরআন শরীফ তেলাওয়াত করা।
(৪) সালাম দেওয়া। 
(৫) সালামের উত্তর দেওয়া। 
(৬) খাওয়া পান করা। 
(৭) মিসওয়াক করা। 
(৮) লেখাপড়া। 

১০ জিনিস দ্বারা ইস্তিঞ্জা করা নিষেধ 

১. হাড্ডি। 
২. কয়লা। 
৩. কাগজ। 
৪. কাচ।
৫. গাছের কাঁচা পাতা।
৬. খাদ্যদ্রব্য। 
৭. শুকনা কবর। 
৮. জমজমের পানি। 
৯. ডান হাত দ্বারা। 
১০. ব্যবহৃত ঢিলা দ্বিতীয়বার ব্যবহার করা। 

ইস্তিঞ্জার সময় আট কাজ করা সুন্নাত

(১) বাম পা দিয়ে প্রবেশ করা। 
(২) জুতা স্যান্ডেল পায়ে রাখা। 
(৩) মাথা ঢাকিয়া রাখা।
(৪) দিলে দিলে ইস্তেগফার করা। 
(৫) ঢিলা কুলুখ ব্যবহার করা। 
(৬) পানি খরচ করা। 
(৭) ডান পা দিয়ে বাহির হওয়া। 
(৮) আগে-পরে দোয়া পড়া।

নামাজ সম্পর্কিয় মাসায়েল

অজু-গোসলের মাসায়েল | ওযুর ফরজ 

১. মাথার চুলের গোড়া হইতে থুতিত নিচ পর্যন্ত দুই পার্শ্বের দুই কান পর্যন্ত মুখ সম্পূর্ণ ধৌত করা। 
২. দুই হাতের কনুই সহ ধৌত করা।
৩. মাথার চারি অংশ হইতে এক অংশ মাছেহ করা। 
৪. দুই পায়ের টাখনুসহ ধৌত করা।

ওযুর সুন্নাত

(১) ওযুর নিয়ত করা। 
(২) মিসওয়াক করা।
(৩) বিসমিল্লাহ শরীফ পাঠ করা। 
(৪) দুই হাতের কব্জা পর্যন্ত প্রথম তিনবার ধৌত করা। 
(৫) মুখে তিনবার পানি দিয়ে কুলি করা। 
(৬) নাকের ভিতরে পানি দিয়ে আঙ্গুল দাঁরা সাফ করা। 
(৭) প্রত্যেক অঙ্গ তিনবার ধৌত করা। 
(৮) দাঁড়ি খেলাল করা। 
(৯) এক অঙ্গ শুকাইবার আগে অন্য অঙ্গ ধৌত করা।
(১০) হাতে পায়ের আংগুল খিলাল করা। 
(১১) সম্পূর্ণ মাথা মাছেহ করা। 
(১২) দুই হাতের চার আঙ্গুল দ্বারা দু’কান মাছেহ করা। 
(১৩) অযুর তরতীব ঠিক রাখা।

অজু ভাঙ্গার কারণ

১। সামনে পেশাবের রাস্তা, পিছনে পায়খানার রাস্তা এই দুইটি রাস্তা দিয়ে কোন কিছু বাহির হওয়া 
২। শরীর হইতে রক্ত বা পুঁজ পানি বাহির হইয়া গড়িয়ে পড়া 
৩। মুখ ভরে বমি হওয়া 
৪। থুথুর সং রক্তের ভাগ সামান্য বা বেশি হইলে 
৫। চিৎ অথবা কাত হয়ে হেলান দিয়ে ঘুম যাওয়া 
৬। পাগল, মাতাল ও বেহুশ হওয়া 
৭। নামাজের ভেতর উচ্চস্বরে হাসি দিয়া 

তায়াম্মুম

(১) নাপাক হইতে পাকা হাছিলের নিয়ত করা 
(২) পাক মাটিতে হাত মারিয়া নূর সম্পূর্ণ মাছেহ করা 
(৩) পাক মাটিতে হাত মারিয়া হাতের কনুইসহ মাছেহ করা

গোসলের ফরজ 

(১) মুখের ভিতর পানি দিয়ে গড় গড়াইয়া কুলি করা 
(২) নাকের গরম জায়গা পর্যন্ত পানি পৌঁছানো 
(৩) নাকে কানে বালি থাকিলে নাড়াইয়া পানি পৌঁছানো এবং হাতে আংটি বা চুড়ি থাকিলে পানি পৌঁছানো
(৪) আর সম্পূর্ণ শরীর ধৌত করা 

গোসলের ওয়াজিব

প্রশ্নঃ গোসল ওয়াযিব হওয়ার কারণ কয়টি এবং কি কি কারণ 

উত্তরঃ গোসল ওয়াযিব হওয়ার কারণ আমরা বলব না 

গোসলের সুন্নাত 

(১) নিয়ত করা
(২) দুই হাতের কব্জি পর্যন্ত ধৌত করা 
(৩) গোসলের পূর্বে পেশাব করিয়া আবদাস্ত করা এবং শরীরের কোনো স্থানে নাপাকি লাগিয়া থাকিলে তাহা ধৌত করা 
(৪) গোসলের পূর্বে ওযু করা সম্পূর্ণ শরীর তিনবার ধৌত করা

নামাজের ফরজ

(১) পাক জায়গায় নামাজ পড়া 
(২) কাপড় পাক থাকা 
(৩) পাক শরীরে নামাজ আদায় করা 
(৪) সতর ঢাকা 
(৫) ঠিক ওয়াক্তে নামাজ পড়া 
(৬) নিয়ত করা 
(৭) কেবলা সামনে রেখে নামাজে দাঁড়ান (এই সাতটি বাহিরে)
(৮) নামাজ দাঁড়াইয়া পড়া 
(৯) নিয়তের সময় তাকবীর দেওয়া 
(১০) কোরআন শরীফ হইতে কেরাত পড়া 
(১১) রুকু করা 
(১২) প্রত্যেক রাকাতে দুইটি সেজদা করা 
(১৩) শেষ বৈঠক করা 

নামাজের ওয়াজিব 

(১) আলহামদু শরীফ পাঠ করা 
(২) আলহামদুর সঙ্গে অন্য সুরা মিলাইয়া পড়া 
(৩) প্রত্যেক ফরজ নামাযের প্রথম দুই রাকাতে কেরাত পড়া 
(৪) কেরাত পড়া ইমামের জন্য 
(৫) রুকু-সিজদার দেরি করা 
(৬)রুকু হইতে সোজা হইয়া খাড়া হওয়া
(৭) দুই সিজদার মাঝখানে সোজা হয়ে বসা 
(৮)প্রথম বৈঠক করা 
(৯)দু’বৈঠকেই তাশাহুদ পাঠ করা
(১০)প্রত্যেক রাকায়াতের ফরজের তরতীব ঠিক রাখা
(১১)প্রত্যেক রাকায়াতের ওয়াজিবগুলি ঠিক রাখা
(১২)আচ্ছালামু আলায়কুম বলিয়া নামাজ শেষ করা
(১৩)বেতের নামাজের তৃতীয় রাকায়াতে তাকবিরের পর হাত বাঁধিয়া দোয়া কুনুত পাঠ করা
(১৪)দু’ঈদের নামাজে তাকবীরে তাহরীমা ব্যতীত আরো ছয় তাকবীর দেওয়া

নামাজের সুন্নাতে মুয়াক্কাদা 

(১) মেয়ে লোক সিনা বরাবর, পুরুষ লোক দু’কান বরাবর হাত উঠানো
(২) মেয়ে লোক ছিনার উপরে, পুরুষের নাভির নিচে হাত বাধিয়া নামাজ শুরু করা
(৩) ছানা পড়া
(৪) প্রত্যেক নিয়তের প্রথম রাকাতে আউযুবিল্লাহ পড়া 
(৫) প্রত্যেক নিয়তের প্রত্যেক রাকায়াতে বিসমিল্লাহ পড়া 
(৬) আলহামদু শরীফের পরে আমিন বলা
(৭) রুকু সিজদায় যাইবার সময় আল্লাহু আকবার বলা 
(৮) রুকুর তাছবীহ তিনবার পড়া 
(৯) কওমাতে তাহমীদ পড়া 
(১০) সেজদার তাসবিহ পড়া 
(১১) দরুদ শরীফ পাঠ করা
(১২) দোয়ায়ে মাসুরা পাঠ করা

নামাজ ভঙ্গের কারণ 

(১) নামাজের ভিতরে কথা বলা 
(২) কোন লোককে সালাম দেওয়া 
(৩) অন্য লোকের সালামের উত্তর দেওয়া 
(৪) নামাজের ভিতর উহ আহ শব্দ করা 
(৫) বিনা ওজরে কাশি দেওয়া 
(৬) আমলে কাছীর, অর্থাৎ বেশি কাজ করা 
(৭) বিপদে বা বেদনায় শব্দ করিয়া কাঁদা 
(৮) তিন তাছবীহ পরিমাণ (সময়) ছত্র খোলা রাখা 
(৯) সুসংবাদ বা দুঃসংবাদের উত্তর দেওয়া 
(১০) মুক্তাদী ব্যতীত অন্য লোকের লোকমা লওয়া 
(১১) নাপাক যায়গায় সেজদা করা 
(১২) নামাজের ভিতর সাংসারিক কোনো প্রার্থনা করা 
(১৩) নামাজের ভিতর পানাহার করা 
(১৪) নামাজের ভিতরে কোরআন শরীফ দেখিয়া পড়া 
(১৫) প্রতি রুকুনে দুই বারের বেশি শরীর চুলকাইলে 
(১৬) ইমামের আগে মোক্তাদি দাঁড়াইলে
(১৭) নামাজের ভিতরে উচ্চস্বরে হাসিলে

জানাজা নামাজের ফরজ

(১) নামাযেরর নিয়ত করা
(২) নামাজ দাঁড়াইয়া পড়া
(৩) চার তাকবীর দেওয়া

জানাজার নামাজের সুন্নাত

(১) ইমাম মুর্দার ছিনা বরাবর খাড়া হওয়া
(২) ছানা পাঠ করা 
(৩) দরুদ শরীফ পাঠ করা 
(৪) দোয়া পাঠ করা 

বড় নাপাকী 

(১) মানুষের পেশাব এবং পায়খানা
(২) হারাম জানোয়ারের পেশাব-পায়খানা
(৩) হালাল জানোয়ারের পায়খানা
(৪) পাখি সমূহ হইতে হাঁস মুরগির পায়খানা
(৫) মানুষ এবং জানোয়ার হইতে প্রবাহিত রক্ত
(৬) মণি, শরাব

বড় নাপাকীর হুকুম

আবার বড় নাপাকি ৬ কিসিনে দুই প্রকার। এক প্রকার গাঢ় নাপাকি, আর এক প্রকার পাতলা, গাঢ় নাপাকি সিকি পরিমাণ লাগলে নামাজ আদায় হবে, মাকরূহে তাহরীমার সহিত সিকি হইতে লাগিলে নামাজ দূরস্ত হইবে না। পাতলা নাপাকী কাঁচা টাকার পরিমাণ লাগলে নামাজ আদায় হইবে। মাকরূহে তাহরীমীর সহিত টাকা হইতে অধিক লাগিলে নামাজ দুরস্ত হইবে না। 

ছোট নাপাকী

(১) হালাল জানোয়ারের পেশাব
(২) হারাম পাখি সমুহের পায়খানা

ছোট নাপাকীর হুকুম 

মানুষের অঙ্গ যথা, দুই হাতের কনুই পর্যন্ত দু’হাত দুই অঙ্গ। দুই হাতের কুনুর উপরে দু’বাজ দুই অঙ্গ। দু’হাটুর নীচ পর্যন্ত, দু’পা দুই অঙ্গ। দু’হাটুর উপরে দু’রান দুই অঙ্গ তেমনি কাপড়ের অংশ দু’আস্তিন দুই অংশ। আঁচল দামান দুইটি অংশ আর দুইটি অংশ যথা দু’পার্শ্বে দুই কল্লী।

আরও পড়ুনঃ মেয়েদের ইসলামিক নাম | মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থ সহ

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া