Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2021/07/nid-card-correction-2021.html

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন অনলাইনে আবেদন | অনলাইনে আইডি কার্ড সংশোধনের নিয়ম

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন অনলাইন আবেদন — জাতীয় পরিচয় পত্র (NID Card বা National Identity Card), বর্তমান সময়ে এন আই ডি কার্ডের প্রয়োজনীয়তা যেন অনেক বেশিই উপলব্ধি করছি আমরা সবাই। এই করোনাকালীন লকডাউনের সময়টাতে প্রচুর মানুষ আছেন যারা Freelancing ফ্রিলান্সিং এর দিকে ঝুঁকছে, তাই ব্যাংক একাউন্ট এবং ইন্টারন্যাশনাল কারেন্সি লেনদেন করার জন্যে এই ভোটার আইডি কার্ডের প্রয়োজন। তাই যারা NID অর্থাৎ ভোটার আইডি কার্ড এখনো হাতে পায়নি, তারা সবাই ব্যাকুল হয়ে আছে।

এছাড়াও ভোট প্রদান, চাকরি ক্ষেত্রে, ভিসা, পাসপোর্ট, জমির মালিকানা নির্ধারণ এমনকি নাগরিকত্ব নির্ধারণও করা হয় এই এনআইডি কার্ড (NID Card) বা জাতীয় পরিচয়পত্রের মাধ্যমেই।

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ২০২১ | জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন

এনআইডি কার্ড অর্থাৎ এই অতি প্রয়োজনীয় জিনিসটা নিজের হাতে পাওয়ার জন্য অনেক সময় তো নষ্ট হয়ই, অনেক বেশি বেগও পোহাতে হয়। তার উপরে যদি কোনো কারণে সেখানে অর্থাৎ এনআইডি কার্ডে কোনো তথ্য ভুল চলে আসে, সেটা সংশোধন করার জন্য কতটা ভোগান্তি হয়, সেটা সকলের জানা। অনেক সময় তোহ আবার এনআইডি কার্ড সংশােধন করার জন্য টাকাও খরচ করতে হয় অনেক। তবে হ্যাঁ, আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদেরকে বলবো কিভাবে খুবই সহজে ঘরে বসে NID Service এর মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন অনলাইন আবেদন, জাতীয় পরিচয় পত্র আবেদন, জাতীয় পরিচয় প্ত্র সার্চ ও জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করতে পারবেন।

এই ইন্টারনেটের যুগে সকল কিছুই আমাদের একদম হাতের নাগালে চলে আসছে। যেকোনো তথ্য জানার জন্যে শুধুমাত্র সঠিক ওয়েবসাইটটিকে খুঁজে বাহির করতে হয়। তাই জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত সকল তথ্য জানার জন্য নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে যেতে হবে। জাতীয় পরিচয় পত্র দেখার জন্য নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইট ঠিকানায় প্রবেশ করতে এখানে ক্লিক করুন

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ২০২১ | অনলাইনে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন
জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন অনলাইনে আবেদন

নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে কারা রেজিস্টার করে সেবা-সুবিধা গ্রহণ করতে পারবে?

যাদের বয়স কমপক্ষে ১৮ অথবা তার বেশি, যারা ইতিমধ্যে ভোটার হয়েছেন, তারা তাদের জাতীয় পরিচয় পত্র বিষয়ক যেকোনো তথ্য ও সেবা পাওয়ার জন্য রেজিস্টার করতে পারবেন।

ওয়েবসাইটটিতে প্রবেশ করে আপনি মেনুবারে অনেকগুলো অপশন দেখতে পারবেন। আপনার প্রয়োজন অনুসারে সেই সকল অপশনে ক্লিক করবেন। প্রথমেই বলি, যদি আপনি নতুন ভোটার হয়ে থাকেন বা জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্যে নিবন্ধন অথবা জাতীয় পরিচয় পত্র আবেদন করতে চান, তাহলে আপনি কি করবেন?

অনলাইনে জাতীয় পরিচয়পত্র আবেদন করার নিয়ম | জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন করার নিয়ম

যদি আপনার বয়স ১৮ অথবা তার উপরে হয়ে থাকে, তাহলে কেবলমাত্র আপনি জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্যে আবেদন বা জাতীয় পরিচয় পত্র নিবন্ধন করতে পারবেন। আপনি হয়তোবা জেনে রাখবেন যে, নিবন্ধনের জন্য এজেন্টরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে নতুন ভোটারদের থেকে তথ্য সংগ্রহ করে থাকে। এই ক্ষেত্রে আপনি এজেন্টের আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে পারেন বা নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইট থেকে ভোটার হওয়ার জন্য নিবন্ধন ফর্ম পূরণ করতে পারেন।

নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর, নতুন নিবন্ধন অপশনে ক্লিক করার পরে আপনার সামনে একটি নির্দেশনা পেজ চলে আসবে। নির্দেশনা গুলোকে পড়ে পেজের নিচে ডান দিকে আমি রাজি এবং নিবন্ধন ফরম পূরণ করতে চাই সেই অপশনে ক্লিক করুন। পুনরায় আপনি কিছু গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা দেখতে পারবেন। ভালোভাবে সেটি পড়ে নিন এবং বুঝে নিচের আবেদন করুন অপশনটিতে যাওয়ার পর একটি ছোট্ট ফরম দেখতে পারবেন। ফরমটিতে আপনার সম্পূর্ণ নাম ইংরেজিতে এবং জন্ম তারিখ টাইপ করতে হবে। তারপর ক্যাপচা ভেরিফিকেশনটি সম্পূর্ণ করে পরবর্তী পেজে চলে যান।

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন অনলাইনে আবেদন

এই ভাবে ৩টি ধাপে আপনার প্রয়োজনীয় ব্যাক্তিগত তথ্য, বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা ও অন্যান্য সকল তথ্য বাংলা ইউনিকোডে টাইপ করে সেটা pdf file আকারে Save করে নিন। আর হ্যাঁ মনে রাখবেন, তথ্যগুলো খুবই অত্যন্ত সাবধানের সাথে পূরণ করতে হবে, নয়তোবা আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র ভুল তথ্য আসবে। প্রয়োজনে সব তথ্য পূরণের পরে (Preview) প্রিভিউ করে পুনরায় যাচাই-বাছাই করে নিন। তারপর pdf file টিকে প্রিন্ট করে আপনার নিকটস্থ নির্বাচন অফিসে গিয়ে জমা দিন।

নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে কারা একাউন্ট রেজিস্টার করবেন?

নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন –

  • যারা জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য নিবন্ধন করছেন এবং ছবিও তুলছেন। কিন্তু এখনও NID card এনআইডি কার্ড হাতে পাননি, তারা সর্বশেষ অবস্থা জানার জন্যে। অর্থ্যাৎ জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরি হয়েছে কি-না সেটা সার্চ করার জন্য।
  • স্মার্ট কার্ড কবে পাবেন সেই তারিখ জানার জন্য।
  • যেকোনো প্রয়োজনে অনলাইন কপি জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার জন্য।
  • জাতীয় পরিচয় পত্র এর মধ্যে কোনো প্রকার ভুল থাকলে সেটা সংশোধন করার জন্য।
  • এছাড়াও জাতীয় পরিচয় পত্র সংক্রান্ত যেকোনো প্রয়োজনে।

একাউন্ট রেজিস্টার করার জন্য নিচে দেয়া ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন বা নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে রেজিস্টার অপশনে ক্লিক করতে পারেন। রেজিস্টার করতে এখানে ক্লিক করুন। 

নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে একাউন্ট রেজিস্টার করার নিয়ম

রেজিস্টার পেজে প্রবেশ করে নিচে ডান দিকে রেজিস্টার ফরম পূরণ করতে চাই সেই অপশন ক্লিক করুন। তারবার রেজিস্টার করুন অপশনে গিয়ে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র এর নাম্বার (NID Card Number) অথবা রশিদে থাকা ফরম নাম্বারও জন্ম তারিখের অংশটুকু পূরণ করুন।

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন অনলাইনে আবেদন

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন অনলাইনে আবেদন

তারপর আপনি নতুন একটি পেজে প্রবেশ করবেন। সেখান থেকে আপনাকে আপনার বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা Select করে Next পেজে যান। সেখানে আপনার মোবাইল নাম্বারটি টাইপ করুন। আপনার নাম্বারে Sms এর মাধ্যমে একটি ভেরিফিকেশন কোড চলে আসবে আপনার ফোনে। সেই কোডটি টাইপ করে আপনাকে Verify করে নিতে হবে। 

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন অনলাইনে আবেদন

এরপর আপনাকে একটি অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে, অ্যাপটি হচ্ছে NID Wallet। গুগল প্লে স্টোর থেকে খুব সহজেই NID Wallet অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারবেন। Scan লিখা অপশনে ক্লিক করে আপনার Face Verify করে নিলেই, জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্যে তোলা ছবিটি সহ আপনার প্রোফাইল তৈরি হয়ে যাবে (আপনার যদি জাতীয় পরিচয় পত্র তৈরি করা হয়ে থাকে তবে)। 

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন অনলাইনে আবেদন

এইভাবে মাত্র কয়েকটি সহজ ধাপে নিমিষেই আপনি আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র সার্চ করতে পারবেন অথবা জাতীয় পরিচয় তৈরি হয়েছে কি-না সেটা জানতে পারবেন। যদি এরকম হয় যে, আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রটি তৈরি হয়েছে, কিন্তু এখনো আপনি জাতীয় পরিচয় পত্র হাতে পাননি, তবে সেটা আপনার প্রয়োজন হলে এটি আপনি আপনার প্রোফাইল থেকেই ডাউনলোড করতে পারবেন।

নির্বাচন কমিশনের অভিযোগ কেন্দ্রের ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম

আচ্ছা, আপনার যদি জাতীয় পরিচয়পত্রে কোনো ধরনের ভুল থেকে থাকে তখন সেটা সংশোধন করবেন কিভাবে? অথবা যদি কোনো কারণে আপনার এনআইডি কার্ড NID বা ভোটার আইডি কার্ডটি নষ্ট বা হারিয়ে হয়ে যায়? তবে আপনার চিন্তার কোনো কারণ নাই। এটির সমাধানও আপনি চাইলে অনলাইনের মাধ্যমে করতে পারবেন। 

তবে হ্যাঁ এই কাজটি করার জন্য আপনাকে অন্য আরেকটি ওয়েবসাইটে Registration রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে। সেটি হচ্ছে নির্বাচন কমিশনের অভিযোগ কেন্দ্রের ওয়েবসাইটে। http://grs.gov.bd/register.do এই লিঙ্কে দেখুন তারপর আপনি একটি ফরম পূরণ করে রেজিস্টার করতে পারবেন।

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ২০২১ | জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন এর নিয়ম

আপনার যদি জাতীয় পরিচয়পত্রের মধ্যে কোনো তথ্য ভুল হয়ে থাকে, তবে সেটি সংশোধনের করার জন্য আপনাকে নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে যেতে হবে প্রথমেই। সেখান থেকে ডাউনলোড অপশনে গিয়ে সেখান থেকে আপনি আইডি কার্ড সংশোধন এর জন্য আবেদন ফরম অপশনে ক্লিক করলে ফরমটি অটোমেটিকভাবে ডাউনলোড হয়ে যাবে। ফরমটি সঠিকভাবে পূরণ করে সেটি যথাযথ অভিযোগ কেন্দ্রের ওয়েবসাইটে মেইল করে পাঠিয়ে দিতে হবে।

অভিযোগ কেন্দ্রের ওয়েবসাইটের মেইল আইডিঃ assist4grs@gmail.com। প্রয়োজনে কল করেও সঠিক তথ্য জানতে পারেন। অভিযোগ কেন্দ্রের ওয়েবসাইট ফোন নম্বরঃ +88029113781। এছাড়াও, ফেসবুক পেজের মাধ্যমে আপনার প্রয়োজন সকল কথা বা তথ্য জানাতে পারেন তাদেরকে। ফেসবুক পেজ আইডি হচ্ছেঃ National ID Card - জাতীয় পরিচয়পত্র। এক্ষেত্রে ফেসবুক পেজে আপনার সমস্যাগুলোকে সুন্দরভাবে গুছিয়ে লিখে তাদেরকে মেসেজ করতে হবে।

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করুন সম্পূর্ণ নতুন নিয়মে ভিডিও দেখে

জাতীয় পরিচয়পত্র হারালে করণীয় | ভোটার আইডি কার্ড হারালে করণীয়

এবার চলুন জানা যাক আপনার ভোটা আইডি কার্ড হারিয়ে গেলে বা নষ্ট হলে অথবা জাতীয় পরিচয় পত্র হারিয়ে গেলে বা নষ্ট হয়ে গেলে আপনি করবেন অর্থাৎ তখন আপনার করণীয় কি? নির্বাচন কমিশনারের ওয়েবসাইটের ডাউনলোড অপশন থেকে হারানো আইডি কার্ড উত্তোলনের আবেদন ফরম অপশনে ক্লিক করে ফরমটি ডাউনলোড করে নিন। একইভাবে সেই ফরমটিকে অভিযোগ কেন্দ্রের ওয়েবসাইটে মেইল করুন।

স্মার্ট কার্ড বিতরণের সময়সূচী ২০২১ | স্মার্ট কার্ড কবে পাবেন জানার জন্য করণীয়

আপনার স্মার্ট কার্ড বিতরণ এর তারিখ জানার জন্যে নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটের স্মার্ট কার্ড বিতরণের তথ্য অপশন থেকে সহজেই জানতে পারবেন। আপনার NID Card Number, জন্ম তারিখ এবং একটি ক্যাপচা ভেরিফিকেশন করে সহজেই স্মার্ট কার্ড বিতরণের তারিখ এবং সময়সূচি জানতে পারবেন। এছাড়াও 105 এ কল করে সর্বশেষ অবস্থা জানতে পারেন যেকোনো নাম্বার থেকে। এসএমএস এর মাধ্যমেও আপনি পেতে পারেন স্মার্ট কার্ড বিতরণের সময়সূচির তথ্য।

এসএমএস করার নিয়মঃ আপনার মোবাইল ফোনের মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুন SC পুরাতন NID Number তারপর পাঠিয়ে দিন ১০৫ এই নাম্বারে।

আশা করি উপরোক্ত তথ্য থেকে আপনি এখন নিজেই খুব সহজে জাতীয় পরিচয় পত্র নিবন্ধন, জাতীয় পরিচয় সার্চ, জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন অনলাইনে আবেদন এবং জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করতে পারবেন।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া