ফেসবুক রিলস থেকে ইনকাম করার উপায়

হাসিবুর
By -
0

অনেকেই ফেসবুক রিলস থেকে ইনকাম করার উপায় সম্পর্কে জানতে চান। আজ আমি আপনাদেরকে পরিচয় করিয়ে দিবো সোশ্যাল মিডিয়ায় ফেসবুকের একটি ফিচার, যার নাম ফেসবুক রিলস। ফেসবুক হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ার বিশ্বের অন্যতম একটি সেরা প্ল্যাটফর্ম। আর ফেসবুকের জনপ্রিয় একটি ফিচার হচ্ছে রিলস।

(toc) #title=(সুচিপত্র)

ফেসবুক রিলস থেকে ইনকাম করার উপায়

ফেসবুক রিলস কি?

ফেসবুকে শর্ট ভিডিও আপলোড করার নামই হচ্ছে ফেসবুক রিলস। নারী-পুরুষ, ছোট-বড় সকলেই মেতেছেন রিলস তৈরি এবং শেয়ার করতে। এই রিলসে হাজার হাজার কমেন্ট করছে ও ভিউ পড়ছে। ফেসবুকে রিলস ফিচার এনেছে মূলত লাইকি এবং টিকটকের মত প্ল্যাটফর্মকে টেক্কা দিতে। ফেসবুকের রিলস ভিডিও ৩ সেকেন্ড থেকে ৬০ সেকেন্ড সময় পর্যন্ত দীর্ঘ হয়।

ফেসবুক রিলস থেকে টাকা ইনকাম করার একাধিক সুযোগ দিচ্ছে। ১৫০টি দেশের তথ্য অনুযায়ী, ব্যবহারকারীরা ইনস্টাগ্রাম ও ফেসবুকের দিনের অর্ধেকের বেশি সময় রিলস দেখে সময় কাটায়।

যদি আপনি ফেসবুকের রিলস তৈরি করে ইনকাম করতে চান, তাহলে এই প্রতিবেদনটি আপনার জন্য। আমার এই প্রতিবেদনটি পড়ে আপনার মনে ইচ্ছে হচ্ছে রিলস ভিডিও তৈরি করতে এবং ইনকাম করতে। আপনি যদি রিলস ভিডিও তৈরি করে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারেন, অবশ্যই আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ ফেসবুক পেজ কিভাবে খুলবো - ফেসবুক পেজ খোলার নিয়ম

ফেসবুক রিলস ভিডিও থেকে ইনকাম করার নিয়ম

আগে শুধুমাত্র লাইকি, ইনস্টাগ্রাম এবং টিকটকে শর্ট ভিডিও আপলোড করা যেত। কিন্তু বর্তমানে ফেসবুকের নতুন ফিচার রিলসে শর্ট ভিডিও আপলোড করা যায়। আর এই পদ্ধতিতে এখন রিলস নির্মাতারা ইনকাম করতে পারে। যদিও আরো অনেক পদ্ধতি রয়েছে ফেসবুক থেকে ইনকাম করার। যেমন:

  • ফেসবুক লাইভ এড 
  • স্টার মনিটাইজেশন 
  • ফেসবুক ইন্সট্রিম এড
  • রিলস ভিডিও

তবে ফেসবুক রিলস হচ্ছে উপরের পদ্ধতির মধ্যে সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি। ফেসবুক মনিটাইজেশন এর ক্ষেত্রে মনিটাইজেশন পেতে আপনাকে দুই মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন ৫ হাজার ফেসবুক ফলোয়ার ও ৬০ হাজার মিনিট ওয়াচ টাইম হতে হবে। কিন্তু ফেসবুক রিলস ক্ষেত্রে এটি অতি সহজেই করা সম্ভব।

আরো পড়ুনঃ ফেসবুক থেকে জিমেইল রিমুভ করার নিয়ম

ফেসবুক রিলস মনিটাইজেশন শর্ত সমূহ কি?

ফেসবুক রিলস ভিডিও মনিটাইজেশনের ক্ষেত্রে কিছু শর্ত রয়েছে। যা অন্য প্ল্যাটফর্ম এর তুলনায় অনেক সহজেই পূরণ করা যায়। শর্তগুলো নিচে দেওয়া হলঃ

  • ৩ সেকেন্ড সময় থেকে ৬০ সেকেন্ড সময় পর্যন্ত ভিডিও আপলোড করতে হবে। 
  • অবশ্যই নতুন নতুন ইউনিক কনটেন্ট হতে হবে। যা অতি সহজেই ভাইরাল হয়। (আপনার চাইলে ফানি ভিডিও করতে পারেন। যা অতি সহজেই ট্রেন্ডিং হয়।)
  • সর্বশেষ শর্ত হচ্ছে, একমাস বা ৩০ দিনের মধ্যে মোট এক লক্ষ বার ভিউ হতে হবে।

ফেসবুক রিলস থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায় - ফেসবুক রিলস থেকে ইনকাম করার উপায়

এখন আমরা আমাদের আলোচনার মূল আলোচনায় এসেছি। রিলস বোনাস প্রোগ্রাম রিলস ইনকাম করার আরেকটি উপায় হচ্ছে রিলস প্লে বোনাস প্রোগ্রাম। একটি রিলস ভিডিওতে ৩০ দিনে ১ হাজার ভিউ হলে, আপনি ফেসবুক থেকে টাকা পাবেন। এই উপায়ে সর্বোচ্চ ৩৫ হাজার ডলার পর্যন্ত দেওয়া হয় কনটেন্ট নির্মাতাকে। ফেসবুক রিলস টাকা ইনকাম করতে যা যা লাগে তা নিচে দেওয়া হল।

  • প্রথমে একটি ফেসবুক আইডি খুলতে হবে। এর পাশাপাশি একটি ফেসবুক পেইজ হলে আরো ভালো হয়। ফেসবুক আইডির ক্ষেত্রে অবশ্যই ফেসবুক আইডিটি আনলক অবস্থায় রাখতে হবে বা প্রফেশনাল মোড়ে থাকতে হবে। তবে মূল বিষয় হচ্ছে আপনি যে বিষয়ের উপরে কন্টেন্ট তৈরি করবেন। সে বিষয়ের উপর ভিত্তি করে আপনার ফেসবুক প্রোফাইলের এবং পেইজের নাম দিতে হবে।
  • প্রোফাইল বা পেজ তৈরি করা হয়ে গেলে, এখন আপনি রিলস ভিডিও আপলোড করতে পারেন। অবশ্যই রিলস ভিডিওগুলো ইউনিক এবং টেন্ডিং হতে হবে। রিলস ভিডিওর সময়সীমা ৩ সেকেন্ড থেকে ৬০ সেকেন্ড সময় পর্যন্ত। রিলস ভিডিওগুলো যতটুকু সম্ভব কোয়ালিটি হাই রেজুলেশনে রাখার চেষ্টা করবেন। (যাতে ভিডিওগুলো অতি সহজে ভাইরাল হয়ে যায়।)

  • এবার আপনাদের ৩০ দিনের মধ্যে মোট ১ লক্ষ বার ভিউ বার আনতে হবে। তার জন্য যা করনীয়ঃ ১। প্রথম ১৫ দিনের মধ্যে তিন থেকে চারটি ভিডিও আপলোড করবেন ২। রিলস ভিডিওগুলো শেয়ারের মাধ্যমে বন্ধুদের ছড়িয়ে দিন। এবং বন্ধুদের দিয়ে শেয়ার করান।

  • এবার আপনার রিলস ভিডিওতে এক লক্ষ বার ভিউ হয়ে গেলে আপনার প্রোফাইলে একটি অপশন চালু হবে Add on reels নামে। প্রোফাইলের অপশনটি চালু হওয়ার পরই আপনার ফেসবুক রিলস থেকে আয় হওয়া শুরু করবে না। তার কিছুদিনের মধ্যেই আপনি ফেসবুক রিলস থেকে মনিটাইজেশন পেয়ে যাবেন। মনিটাইজেশন পেয়ে গেলেই আপনার ফেসবুক রিলস থেকে ইনকাম করা শুরু হয়ে যাবে। প্রতিমাসে ৪ থেকে ৫ টি রিলস ভিডিও ফেসবুকে আপলোড করে। অনায়াসে মাসে ১৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা ইনকাম করে নিচ্ছে। বেকার বা স্টুডেন্টদের জন্য এটি একটি সেরা প্ল্যাটফর্ম।

  • এছাড়াও আপনারা চাইলে ফেসবুক রিলসে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ফেসবুক রিলসে একজন কনটেন্ট নির্মাতা যা যা প্রয়োজন

  • ফেসবুক পেইজে দশ হাজার ফলোয়ার। 
  • পাঁচটি ভিডিও এবং 
  • দুই মাস বা ৬০ দিনের মধ্যে ৬ লক্ষ মিনিট ভিউ।

উপরের বিষয়গুলো আপনার ফেসবুক পেইজে থাকলে, আপনি ফেসবুক রিলসে বিজ্ঞাপন ছাড়তে পারবেন। আর এই বিজ্ঞাপন থেকে যে ইনকাম আসবে, তার ৪৫ শতাংশ পাবে ফেসবুক এবং আপনি পাবেন ৫৫ শতাংশ।

ফেসবুক রিলসের আরেকটি শাখা হচ্ছে চ্যালেঞ্জ সম্প্রতি। এখানে আপনি আপনার নিজের ছবি পাবলিশ করে ইনকাম করতে পারবেন। আর এই ইনকাম একটি ফেসবুক প্রোফাইল বা পেইজ থেকে চার হাজার ডলার পর্যন্ত আয় করা সম্ভব। যা বাংলাদেশী মুদ্রায় গিয়ে দাড়ায় চার লাখ আশি হাজার টাকা। এখানে ধারাবাহিকভাবে চ্যালেঞ্জের পর চ্যালেঞ্জ আসবে।

একজন কন্টেন্ট নির্মাতা একটি চ্যালেঞ্জ সম্পন্ন করলেই পরবর্তী চ্যালেঞ্জ তার জন্য খুলে যাবে। রিলস বোনাস প্রোগ্রামের সঙ্গে যুক্ত থাকতে হবে চ্যালেঞ্জের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে হলে। মূলত একটি চ্যালেঞ্জের মেয়াদ থাকে ৩০ দিন। প্রথম চ্যালেঞ্জের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেই আবার নতুনভাবে পরবর্তী চ্যালেঞ্জ শুরু হয়ে যাবে।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করা যায়

ফেসবুক রিলস থেকে দৈনিক কত টাকা ইনকাম করা সম্ভব?

হ্যাঁ সম্ভব। যদি আপনি ফেসবুক রিলস এর নিয়ম কানুন মেনে ভিডিও আপলোড করেন এবং সেই ভিডিও ইউনিক হলে, ৩ থেকে ৬০ সেকেন্ডের সময়ের মধ্যে হলে ও এক মাস বা ৩০ দিনের মধ্যে মোট ১ লক্ষ বার ভিউ হলে।

আপনি অনায়াসে মাসে ১৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এবার মূল বিষয়টা হচ্ছে দৈনিক কত টাকা ইনকাম করা সম্ভব! আপনার কন্টেন্ট যত ইউনিট হবে, যত ভিউ হবে, তার উপর ডিপেন্ড করে আপনি দৈনিক ইনকাম বের করতে পারবেন।

ফেসবুক রিলস থেকে ইনকাম করার উপায় নিয়ে শেষকথা

ফেসবুক থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য সবচেয়ে সহজ প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে রিলস। স্টুডেন্টদের জন্য এক বিরাট আয়ের উৎস হচ্ছে ফেসবুকের রিলস। বেশিরভাগ স্টুডেন্টদের কাছেই স্মার্ট ফোন রয়েছে।শিক্ষার্থীরা চাইলেই এই স্মার্টফোনের মাধ্যমে ১৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারে, ফেসবুকের রিলস তৈরি করার মাধ্যমে।

উপরোক্ত রিলসের নিয়ম মেনে শিক্ষার্থীরা কনটেন্ট বানালে অবশ্যই ভালো কিছু করতে সক্ষম হবে। আজকাল অনেকেই নিজেদের প্রফেশন ও ক্যারিয়ার গড়ার ক্ষেত্রে অনলাইন প্লাটফর্মকে বেছে নিচ্ছে। অনলাইনে সহজে টাকা ইনকাম মধ্যে ফেসবুক অন্যতম।

youtube সহ অন্যান্য যে প্ল্যাটফর্ম আছে, সবার তুলনায় ফেসবুকে টাকা ইনকামের পরিমাণ বেশি। তাই সবাই ফেসবুকে টাকা ইনকাম করার প্রতি বেশি ঝুকছে।

ব্লগ ক্যাটাগরি:

এখানে আপনার মতামত জানান

0মন্তব্যসমূহ

আপনার মন্তব্য লিখুন (0)

#buttons=(ঠিক আছে, ধন্যবাদ) #days=(20)

টেকনিক্যাল কেয়ার বিডি তে আপনাকে স্বাগতম. ❤️
Ok, Go it!