Technical Care BD https://www.technicalcarebd.com/2020/03/blog-post_5.html

ভাইরাস ও ম্যালওয়্যার এর মধ্যে পার্থক্য কি

ভাইরাস তৈরি হয় কম্পিউটার এর কিছু ক্ষতিকর কোডের সমন্বয়ে যা ওই কম্পিউটার এর কোড সম্মলিত সফটওয়্যার ইন্সটল করার পর তা কাজ করে। কম্পিউটার এ একবার ভাইরাস আক্রমন করতে পারলে সেই ভাইরাস নিজে নিজে তার প্রতিরুপ সৃষ্টি করতে পারে এবং নিজে নিজে অনন্যা মাধ্যমে সমস্ত কম্পিউটার এ প্রবেশ করে। আর আপনার সকল কাজ ব্যবহার করা গুরুপ্তপূর্ণ ফাইল এমন কি অপেরাটর কে নিমিষেই অকেজো করে দিতে পারে। 
ভাইরাস ও ম্যালওয়্যার এর মধ্যে পার্থক্য কি

কম্পিউটার এর মাঝে একবার ভাইরাস আক্রমন করতে পারলে সেটাকে খুজে বের করা অনেক কঠিন বেপার হিসাবে হয়ে পরে। এর কারন আমি আপনাকে আগেই বলেছি যে ভাইরাস নিজে নিজে এর প্রতিরুপ তৈরি করতে পারে। সেই সাথে আপনার সমস্ত ফাইল কে আক্রান্ত করে আপনার সাথে সংযুক্ত অন্য কম্পিউটার এ চলে যেতে পারে। অনন্যা সকল ম্যালওয়্যার এর মতো ভাইরাস এর মূল চিন্তা ভাবনা আপনার কম্পিউটার কে অকেজো করে দিয়া। ভাইরাস উইন্ডোজ অপেরাটিং সিস্টেম কে বেশি পরিমান এ আক্রান্ত করে থাকে। 

ম্যালওয়্যার ক্ষতিকারক সফটওয়্যার এর সংক্ষিপ্ত রুপ যা প্রধানত সাইবার অপরাধিদের দারা তৈরি করা একটি সফটওয়্যার। যা কম্পিউটার এর ব্যবহার কারির তথ্য এবং ক্ষতি সংগ্রহ করা বা সিস্টেম অ্যাপ্লিকেশন এর ক্ষতি সাধন করে থাকে বা করতে পারে। এই সফটওয়্যারটিকে সফটওয়্যার এর অনুপস্থিতে অভিপ্রায় ম্যালওয়্যার হিসাবে বিবেচনা করা হয়। ম্যালওয়্যার গুলি যেমন ভাইরাস, ট্রোজান ঘোড়া, স্পাইওয়্যার, আডওয়্যার এবং ক্রাইমওয়্যাক। 

ভাইরাস একটি সফটওয়্যার প্রোগ্রাম যা ম্যালওয়্যার এর উপসেট হিসাবে নির্ধারণ করতে পারি। বিভিন্ন ধরনের ভাইরাস প্রোগ্রাম গুলি বিদ্যামান আছে কিন্ত সাধারন ভাইরাস প্রোগ্রাম গুলি প্রোগ্রামের সাথে সংযুক্ত বা সংযুক্ত থাকে যাতে ভাইরাস প্রোগ্রাম গুলো হয়। সাধারণত প্রোগ্রাম চালু করা হবে যখন সক্রিয় করা হবে।

এই সাধারন ভাবে ব্যবহারিত প্রোগ্রাম আপনার কম্পিউটার এ ব্যবহার করা প্রোগ্রাম এর বা অ্যাপ্লিকেশন এর সাথে সংযুক্ত হয়ে যেতে পারে। বেশির ভাগ ভাইরাস ই-মেইল এর মাধ্যমে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পরে আর তাদের মধ্যে কেউ হচ্ছে ফ্লপি ডিস্ক, ডিভিডি, সিডি, USB স্টোরেজ ড্রাইভ এর মাধ্যমে ছড়িয়ে পরে। এই ডিভাইস গুলির মাধ্যমে নেটওয়ার্ক ফাইল সিস্টেম এ একটি ফাইল সংক্রমিত করে একটি স্টোরেজ নেটওয়ার্ক এর মধ্যে সাধারণত ব্যবহার করা ফাইল টি সংক্রমিত করে অনন্যা ফাইল বা কম্পিউটার এ সহজে প্রবেশ বা ছড়িয়ে পরতে পারে।

যখন এ কোন কম্পিউটার এ প্রব্লেম হয়ে থাকে তখন বেশির ভাগ মানুষ ভাইরাস কে দোষারুপ করে থাকি। আর কম্পিউটার এর জন্য প্রথমত এই সম্ভবত কারন ভাইরাস ,এই কথা সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং এটি কম্পিউটার এর জন্য হুমকি। সব কম্পিউটার এর হুমকি ভাইরাস হিসাবে না, একটি নতুন শব্দ তাদের সব আবরন coined ছিল ম্যালওয়্যার। 

এখন আপনি হয়তো মনে মনে ভাবতে পারেন যে ভাইরাস কিভাবে কাজ করে থাকে বা পরিচালনা করে। একটি ভাইরাস সব সময় আরালে কাজ করে থাকে বা দৃশ্যর পিছনে কাজ করে আর ব্যবহার কারি জানতে পারবে না যে তার ইউজার করা ডিভাইস টি ভাইরাস দারা আক্রান্ত হয়েছে কি না। তবে যদি ব্যবহার কারির ডিভাইস এ কোন রকম অ্যান্টিভাইরাস থেকে যায় তাহলে হইতো বুঝতে পারবে যে তার ডিভাইস টি ভাইরাস দারা সংক্রমিত। 

যদিও অনন্যা ম্যালওয়্যার যেমন কৃমিগুলি একই ভাবে কাজ করে তবে অনেক ক্ষেত্রে এটি ব্যবহার করা হয় না। ট্রোজান ঘোড়া, স্পাইওয়্যার, আডওয়্যার এবং ক্রাইমওয়্যাক অনেক অনুমোদিত ব্যবহার কারিদের দারা ফাসি কার্যকর করা হয় যা তাদের অন্য কিছু হতে প্রত্যাশা করে। 

সংক্রমণের জন্য ভাইরাস গুলির অবশ্যই হোস্ট ফাইল প্রয়োজন। একটি হোস্ট ফাইল থাকা মানে হলো একটি তুলনা করা কঠিন কঠিন কারন এর সাথে তুলনা করার জন্য কোন সতন্ত্র ফাইল নেই। একটি ভাইরাস ফাইল চালানোর জন্য অবশ্যই হোস্ট ফাইল এর নির্ভর হতে হয়। আপনার ডিভাইস এর ভাইরাস সরানোর ভালো একটি উপায় হল ফাইল গুলি চালু করা থেকে বিরত থাকা। অনন্যা ম্যালওয়্যার হোস্ট ফাইল এর উপর নির্ভর করে না এবং সঞ্চালনের জন্য অনন্যা উপায়ে কাজ করে না। 

কিন্ত ব্যবহার কারীরদের আকর্ষণীয় মনে হবে এমন একটি ফটো বা ভিডিও মেসারকিং হিসাবে দারা কেীতুক ব্যবহার করে থাকে। যদিও ভাইরাস নেটওয়ার্ক নিরাপত্তার জন্য এখন ও একটি বড় হুমকি হলেও এটি কোন এক ধরনের ম্যালওয়্যার হিসাবে বিদ্যামান না। কম্পিউটার এ অনেক সময় নানা রকম হুমকি দেখা দেয় তা সব ই কিন্ত ভাইরাস না। আমাদের টেকনিক্যালি সঠিক হতে হলে ভাইরাস এর পরিবরতে ম্যালওয়্যার শব্দ ব্যবহার করা ভালো। 

স্পাইওয়্যার 

এই শব্দ টি দেখে আপনি বুঝতে পারছেন যে এর কাজ কি। যদিও অনেক স্পাইওয়্যার তুলনামূলক ভাবে ক্ষতিকর হয় না আবার কিছু কিছু স্পাইওয়্যার মারাত্মক সিকিউরিটি রিস্ক এর কারন হয়ে দারায়। এটি সাধারণত ইন্টারনেট সার্ফিং এর উপর নজরদারি করে থাকে আর অ্যাড রিলেটেড ব্যাপার গুলা এর সাথে সম্পৃক্ত। এটি অনেক সময় ট্রোজান হর্স এর চেয়ে বিপদজনক হয়ে দারায় যখন এটি আপনার ব্যবহার করা গুরুপ্তপূর্ণ ফাইল, ছবি,ইমেইল এবং অনন্যা ইনফরমেশন সার্ভার কিংবা অন্য অপরিচিত ব্যবহার কারির কাছে পাঠিয়ে দেয়। 

সংক্ষিপ্ত বিবরণ 
  • ম্যালওয়্যার হচ্ছে এমন একটি সফটওয়্যার যা আপনার কম্পিউটার এর নানা রকম তথ্য বা অ্যাপ্লিকেশন সিস্টেম এ ক্ষতি সাধন করতে পারে
  • ভাইরাস হলো ম্যালওয়্যার এর উপসেট
  • ভাইরাস গুলি অ্যাপ্লিকেশন এর ফাইল এর মাঝে সংযুক্ত থাকে যাতে যখন এটি শুরু হয় তখন ভাইরাস সক্রিয় হয়ে যায়
  • ভাইরাস স্ব স্ব প্রচার করা হয় না
  • ভাইরাস থেকে আপনার কম্পিউটার কে সুরক্ষা রাখার জন্য আপনি অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যারে ইন্সটল করে নিতে পারেন। এটি বারবার আপনার কম্পিউটার সিস্টেম কে বার বার স্কান করবে যার ফলে পিসি ভালো থাকবে 
  • আপনার পিসিতে অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার টি বিশেষ করে সমস্ত ইনকামিং ইমেইল গুলি স্কান করে করার জন্য প্রধানত ব্যবহার করেন
  • ভাইরাস থেকে আপনার পিসি বা অনন্যা ডিভাইস গুলি কে রক্ষা করার জন্য অপ্রয়োজনীয় লিঙ্ক বা অযথা কোন সফটওয়্যার ডাউনলোড করবেন না আর সেটা আপনার পিসি বা অনন্যা সিস্টেম এ ইন্সটল করবেন না

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া