১৪ ফেব্রুয়ারি নিয়ে ইসলাম কি বলে

১৪ ফেব্রুয়ারি নিয়ে ইসলাম কি বলে এই সম্পর্কে অনেকেই বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন করে থাকেন। আপনি যদি ভালোবাসা দিবস সম্পর্কে ইসলাম কি বলে জেনে না থাকেন তবে আজকের এই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়তে পারেন।

১৪ ফেব্রুয়ারি নিয়ে ইসলাম কি বলে

আমরা যে দিবস আনন্দের সাথে উদযাপন করি এটা ইসলাম কি সমর্থন করে এটা কি আমরা একবারও ভেবে দেখেছি। ১৪ ফেব্রুয়ারি ইসলাম কি বলে এই নিয়ে সুন্দরভাবে সাজিয়েছি আজকের এই পর্বটি। তাহলে চলুন জেনে নেই বিশ্ব ভালোবাসা দিবস নিয়ে ইসলাম কি বলে এই সম্পর্কে।

(toc) #title=(এক নজরে সম্পূর্ণ লেখা পড়ুন)

১৪ ফেব্রুয়ারির ইতিহাস - ভালোবাসা দিবসের ইতিহাস

ভালোবাসা দিবসের একটি প্রাচীন ইতিহাস রয়েছে, ইতালির রোম শহরে সেন্ট ভ্যালেন্টাইন নামে একজন খ্রিষ্টান চিকিৎসক পাদ্রী বাসবাস করত। সে রোম শহরে  খ্রিষ্টান ধর্ম প্রচার করত। যা রোম শহরে কঠোরভাবে নিষিদ্ধ ছিল।

সেন্ট ভ্যালেন্টাইন খ্রিষ্টান ধর্ম প্রচারের অভিযোগে তৎকালীন রোম সম্রাট দ্বিতীয় ক্রাডিয়াস তাকে বন্দি করে। তিনি কারাবন্দী থাকা অবস্থায় একজন কারারক্ষীর দৃষ্টিহীন মেয়েকে সুস্থ্য করে তোলেন। এতে করে তার জনপ্রিয়তা বেড়ে যায়।

আর তাই রাজা ঈর্ষান্বিত হয়ে সেন্ট ভ্যালেন্টাইনকে মৃ- ত্যুদন্ড দেয়। আর এই দিনই ছিল ১৪ ফেব্রুয়ারি। এর পরবর্তী সময়ে পোপ সেন্ট জেলাসিউও সেন্ট ভ্যালেটাইনের স্মরণে ১৪ ফেব্রুয়ারিকে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস ঘোষণা করে। পরবর্তীতে বিভিন্ন ঐতিহ্যের ছোয়ায় বিভিন্ন দেশে আস্তে আস্তে প্রেম ও ভালোবাসার দিবস হিসেবে পরিণত হয়েছে।

১৪ ফেব্রুয়ারি নিয়ে কিছু কথা

১৪ ফেব্রুয়ারি বা ভ্যালেন্টাইন্স ডে তে কিছু কথা জানতে চাইলে আজকের পোস্টের এই অংশটুকু ভালোভাবে পড়ুন। আপনারা সকলেই জেনে থাকবেন ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। আমরা সকলেই ভ্যালেন্টাইন্স ডে নামে বেশী এই দিনটাকে চিনে থাকি।

১৪ ফেব্রুয়ারি এই দিনটি আসলে মানুষের মনে অন্যরকম এক ধরনের উদ্দীপনা ও অনুভুতি কাজ করে থাকে। ভালোবাসা দিবস শুধুমাত্র যে প্রিয়জনের জন্য ব্যাপারটা কিন্তু এমন নয় বরং পরিবারে সকল সদস্য মা, বাবা,  ভাই,বোন সবাই একসাথে উদযাপন করাই হচ্ছে ভালোবাসা দিবস। ভালোবাসা সকল মানুষের মধ্য ছড়িয়ে পড়ুক এই কামণা করি।

১৪ ফেব্রুয়ারি ইসলাম কি বলে - ভালোবাসা দিবস নিয়ে ইসলাম কি বলে

আজকে আমরা যে দিনটাকে ১৪ ফেব্রুয়ারি বা বিশ্ব ভালোবাসা দিবস বলে উদযাপন করছি। আপনি কি একবারের জন্যও ভেবে দেখেছেন ইসলাম এই ভালোবাসা দিবস নিয়ে কি বলেছে। যদি আপনি জেনে না থাকেন তবে আজকে জেনে নিন।

ইসলাম এই ১৪ ফেব্রুয়ারি  নিয়ে কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করেছে। এর প্রধান কারণ হচ্ছে এই ভালোবাসা দিবসের নামে ছেলে-মেয়েরা অবাধ মেলামেশা করে এবং অনৈতিক কাজে লিপ্ত থাকে যার কারণে ইসলাম কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করেছে। ইসলামিক পরিভাষায় বিবাহের আগে ছেলে-মেয়েদের অবাধ মেলামেশা হারাম।

তাইতো বিভিন্ন স্কলাররা এই ভালোবাসা দিবসকে নির্লজ্জ বা বেহাপনার দিবস বলে আখ্যা দিয়েছেন। বিবাহের উদ্দেশ্য বিয়ের আগেই দেখা-সাক্ষাৎ কথা বার্তা, প্রেম-ভালোবাসা ইসলামে সম্পূর্ণরুপে হারাম। বিয়ের পরেই প্রেম-ভালোবাসা করা যাবে এটাই কুরআন হাদিসে পাওয়া যায়। তাই ভ্যালেন্টাইন ডে বা বিশ্ব ভালোবাসা দিবস মুসলিমদের জন্য হারাম। আশা করি ১৪ ফেব্রুয়ারি ইসলাম কি বলে এটা বুঝতে পারলন।

ইসলামের দৃষ্টিতে ভালোবাসা দিবস পালন করা যাবে কি?

ইসলামের দৃষ্টিতে ১৪ ফেব্রুয়ারি বা ভালোবাসা দিবস পালন করা সম্পূর্ণ হারাম। অন্যন্য দেশের মত আমাদের এই দেশেও আনুষ্টানিকভাবে ভালোবাসা দিবস পালন করা হয়ে থাকে। মুসলিম সমাজ ধ্বংস করার জন্য বর্তমান রুপ হচ্ছে এই ভালোবাসা দিবস।

বর্তমানে ভালোবাসা দিবস মানে তরুণ-তরুণীরা অবৈধ মেলামেশা, নির্লজ্জতা, বেহাপনায় লিপ্ত থাকে যা ইসলাম কোনভাবেই সমর্থন করে না। তাই ইসলামের দৃষ্টিতে মুসলিমদের এই বিশ্ব ভালোবাসা দিবস বা ১৪ ফেব্রুয়ারি ভ্যালেন্টাইন্স ডে পালন করা যাবে না।

বহুল জিজ্ঞাসিত প্রশ্নসমূহ - FAQ

১৪ ফেব্রুয়ারি বা বিশ্ব ভালোবাসা দিবস নিয়ে ইসলাম কি বলে এই সম্পর্কে আপনার মনে বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন উঁকি দিতে পারে। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই সমস্ত প্রশ্নের উওর।

ভ্যালেন্টাইন্স ডে এর ইতিহাস কি?

ইতালির রোম শহরে সেন্ট ভ্যালেন্টাইন নামে একজন খ্রিষ্টান চিকিৎসক ছিলেন। সে রোম শহরে খ্রিষ্টান ধর্ম প্রচার করত। এই খ্রিষ্টান ধর্ম প্রচারের অভিযোগে তাকে রাজা গ্রেফতার করে এবং তাকে কারাবন্দী করে। এসময়ে এক কারারক্ষীর অন্ধ মেয়েকে সে সুস্থ করে তোলে।

এই জন্য জন্য তার জন্য জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়েই চলে। তাই ঈর্ষান্বিত হয়ে সেন্ট ভ্যালেন্টাইনকে মৃ- ত্যুদন্ড দেয়। আর এই দিনই ছিল ১৪ ফেব্রুয়ারি। পরবর্তীতে তার সৃত্মিচরণ করা হয়, আর এই দিন থেকেই ভ্যালেন্টাইন্স ডে বা বিশ্ব ভালোবাসা দিবস শুরু হয়।

ভ্যালেন্টাইন্স ডে কত তারিখে?

ভ্যালেন্টাইন্স ডে বা বিশ্ব ভালোবাস দিবস ফেব্রুয়ারি মাসের ১৪ তারিখে। এই দিনে সারা বিশ্বে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস পালন করা হয়।

ভালোবাসা কি?

ভালোবাসা হচ্ছে একধরনের অনুভূতি হিসেবে বিবেচনা করা হয়। যেটা একজন মানুষ অন্য আরেক জনের প্রতি অনুভব করে। কারো প্রতি যত্নশীলের এক অনুভূতির নাম ভালোবাসা।

14 February কি কি দিবস?

সাধারণ অর্থে ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। তবে আমাদের বাংলাদেশে পহেলা ফাল্গুন বা বসন্ত দিবস পালন করা হয়।

১৪ ফেব্রুয়ারি ইসলাম কি বলে?

১৪ ফেব্রুয়ারি ইসলাম এই দিবস হারাম ঘোষণা করেছে। ১৪ ফেব্রুয়ারি ইসলাম কোনভাবেই সমর্থন করে না।

শেষ কথা

ইসলামে বিবাহের বহির্ভূত সম্পর্ক হারাম করা হয়েছে। ১৪ ফেব্রুয়ারি যেটা আমরা বিশ্ব ভালোবাসা দিবস বলে থাকি এই সম্পর্কে ইসলামে কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করা আছে। আজকের এই পোস্ট পড়ে আপনি বুঝতে পেরেছেন ১৪ ফেব্রুয়ারি নিয়ে ইসলাম কি বলে এই সম্পর্কে।

বিশ্ব ভালোবাসা দিবস ইসলামে ও মুসলিম জাতির জন্য নিষিদ্ধ। আজকের পোস্ট পড়ে আপনি জানতে পারলে ১৪ ফেব্রুয়ারি নিয়ে ইসলাম কি বলেছে। আপনার কাছে যদি এই পোস্টটি তথ্যবহুল মনে হলে আপনার বন্ধুদের সাথে এই সচেতনমূলক পোস্ট শেয়ার করে জানিয়ে দিতে পারেন। ধন্যবাদ।

পোষ্ট ক্যাটাগরি:

এখানে আপনার মতামত দিন

0মন্তব্যসমূহ

আপনার মন্তব্য লিখুন (0)