হুন্ডি ব্যবসা হালাল না হারাম

আমাদের মধ্যে অনেকেই হুন্ডি ব্যবসা করে থাকে কিন্তু আমরা এই বিষয় নিয়ে একটু দ্বিধা দ্বন্দের মধ্যে থাকে হুন্ডি ব্যবসা হালাল না হারাম। আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনারা হুন্ডি ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন। আপনি যদি হুন্ডি ব্যবসা বিষয়ে জানতে চান তাহলে সম্পূর্ণ আর্টিকেল জুড়ে আমাদের সঙ্গে থাকুন। আমাদের মধ্যে অনেকেই হুন্ডি ব্যবসা করে থাকে কিন্তু আমরা হুন্ডি ব্যবসা হালাল না হারাম এই বিষয় সর্ম্পকে জানিনা। হুন্ডি শব্দের অর্থ হলো সংগ্রহ করা।

হুন্ডি কি?

হুন্ডি ব্যবসা হালাল না হারাম এর বিষয়ে জানার আগে প্রথমে আপনাকে হুন্ডি কি এ বিষয়ে জানতে হবে। তাহলে আপনি খুব সহজেই হুন্ডি ব্যবসা বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারবেন। হুন্ডি শব্দটি সাংস্কৃতিক শব্দ। হুন্ডি শব্দের অর্থ হলো সংগ্রহ করা। এটি বাণিজ্যিক আদান প্রদান করেন সংশ্লিষ্ট লেনদেনের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত লিখিত দলিল।

যার মাধ্যমে এক ব্যক্তি থেকে অন্য ব্যক্তির কাছে নির্দেশিত টাকা লেনদেন হয়। এই ব্যবসা মুঘল আমলের বেশ পরিচিত লাভ করে। এ ব্যবস্থা সবথেকে বেশি জনপ্রিয় হয় ব্রিটিশ আমলে। হুন্ডি ব্যবসার মাধ্যমে একজন ব্যক্তির কাছ থেকে অন্য একজন ব্যক্তির কাছে নির্দেশিত পরিমাণ টাকা লেনদেন হয়।

হুন্ডি ব্যবসা কাকে বলে?

হুন্ডি ব্যবসা বলতে একটি লিখিত শর্তহীন আদেশ যা এক ব্যক্তির নির্দেশ অনুযায়ী অন্য এক ব্যক্তি লিপিবদ্ধ করেন এবং নির্দেশনা অনুযায়ী উল্লেখিত ব্যক্তিকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ পরিশোধ করা হয়। হুন্ডি এক স্থান থেকে অন্য স্থানে অর্থ প্রেরণের একটি ব্যক্তিগত পর্যায়ের কৌশল। মনে করেন আপনি এবং আপনার ছোট ভাই একজন থাকে কাতারে এবং অন্যজন থাকেন বাংলাদেশ।

আবার মনে করেন আপনাদের একজন প্রতিবেশী সেও কাতারে থাকে। তো আপনার প্রতিবেশী কিছু টাকা বাংলাদেশে তার পরিবারের কাছে পাঠাতে চাই। তখন সে ব্যাংকে গিয়ে শুনছে যে সে যদি ১ লক্ষ টাকা পাঠাতে চাই তবে সৌদি ব্যাংক বাংলাদেশ ব্যাংক ও শুল্ক সব সহ তার খরচ হবে বিশ হাজার টাকা। তাহলে তার মোট খরচ হবে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা এবং বাড়িতে পাবে এক লক্ষ টাকা।

তাই শুনে আপনার ছোট ভাই তাকে বলল সে যদি তাকে ১ লক্ষ ৫ হাজার টাকা দেয় তাহলে সে তার পরিবারকে এক লক্ষ টাকার ব্যবস্থা করে দেবে আপনার মাধ্যমে। যার ফলে তার প্রতিবেশী চিন্তাভাবনা করে দেখল এ ব্যবস্থার মাধ্যমে তার ১৫০০০ টাকা বেঁচে যায়। তখন আপনাদের প্রতিবেশী আপনার ছোট ভাইকে ১ লক্ষ ৫ হাজার টাকা দেই।

এবং আপনার ছোট ভাই আপনাকে ফোন দিয়ে বলে তার পরিবারের কাছে এক লক্ষ টাকা দিয়ে আসতে। যার ফলে আপনার ছোট ভাইয়ের লাভ হল ৫০০০ টাকা। এবং আপনার প্রতিবেশীর ১৫০০০ টাকা বেঁচে গেল। এই ব্যবসাকে সাধারণত হুন্ডি ব্যবসা বলা হয়। আশাকরি বাকিটা বুঝতে পেরেছেন।

হুন্ডির অপকারিতা

হুন্ডি ব্যবসার অনেকগুলো উপকারিতা রয়েছে কারণ হুন্ডি ব্যবসা ব্যাংকিং নিয়ম অনুসরণ করে না তাই সরকার রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হয়ে যাই। বাংলাদেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী হুন্ডি ব্যবসা একটি দন্ডনীয় অপরাধ। এটি শুধু বাংলাদেশ নয় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নীতির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আইন জারি করা হয়েছে। হুন্ডির অপকারিতাগুলো নিচে তুলে ধরা হলো।

১। আয়কর রেয়াত পাওয়া যায় না।

২। বৈধ উপার্জন অবৈধ হিসেবে চিহ্নিত হয়।

৩। প্রবাসীরা গ্রাহক হিসেবে রাষ্ট্রীয় সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়ে যাই

৪। অর্থ পাঠানো এবং বাড়িতে অর্থপ্রাপ্তি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যায়।

৫। ব্যাংকিং সুবিধা গুলো পাওয়া যায় না

হুন্ডি ব্যবসা হালাল না হারাম

বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী হুন্ডি ব্যবসা হারাম। শুধু বাংলাদেশের নয় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে হুন্ডি ব্যবসা হারাম। একজন দেশের নাগরিক হিসেবে আমাদের উচিত বাংলাদেশের আইন মেনে চলা। এর কারণে বড় বড় চোরাচালান করে তারা অবৈধভাবে এর সুযোগ নিচ্ছে।

এটি বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী একটি হারাম কাজ এর সাথে একজন মুসলিম হিসেবে আমাদের জড়িত হওয়া উচিত নয়। একজন প্রকৃত মুসলিম হিসেবে আমাদের উচিত এ নিষেধাজ্ঞা মেনে চলা। যদিও হুন্ডি ব্যবসা সম্পর্কে হাদিসে কোন ধরনের বক্তব্য আসেনি তবে এটা বুঝা যায় যে এ ব্যবসায় একটি অবৈধ ব্যবসা।

কারণ ইসলামের দৃষ্টিতে সমাজের জন্য অকল্যাণকর সেটি একজন মুসলিম হিসেবে হারাম। তাই অবশ্যই সেটি আমাদের একজন মুসলিম হিসেবে মেনে চলা উচিত। হুন্ডি ব্যবসায়ী মাধ্যমে টাকা হস্তান্তর নিষিদ্ধ করা হয়েছে তাই আমাদের বৈধ উৎসের দিকে যেতে হবে এবং বৈধ ভাবে টাকা হস্তান্তর করতে হবে।

আল্লাহ তায়ালা কোরআন শরীফে নির্দেশ দিয়েছেন এবং আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাই সালাম এ ব্যাপারে নির্দেশ দিয়েছেন, হে বিশ্বাসীগণ! তোমরা যদি আল্লাহ পরকালে বিশ্বাস করো তাহলে তোমরা আল্লাহর অনুগত হও, আর যদি কোন বিষয়ে তোমাদের মধ্যে মতভেদ ঘটে তাহলে সে বিষয়টি আল্লাহ ও রাসূলের দিকে ফিরিয়ে দাও। এটি হলো উত্তম ও পরিণামে প্রকৃষ্টতর।

প্রিয় বন্ধুরা আশাকরি আপনি হুন্ডি ব্যবসা হালাল না হারাম এ বিষয়ে সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। ইসলামের দৃষ্টিতে হুন্ডি ব্যবসা সম্পূর্ণরূপে হারাম। যেহেতু এই ব্যবসা সমাজের জন্য অকল্যাণকর এবং রাষ্ট্রের জন্য অকল্যাণকর তাই এটি ইসলামের দৃষ্টিতে হারাম। কারণ যে ব্যবসা মানুষের জন্য অকল্যাণকর সেই ব্যবসাকে আল্লাহ তাআলা হারাম করেছেন।

শেষ কথা

হুন্ডি ব্যবসা হালাল না হারাম সহ আরো অনেকগুলো বিষয় আজকের এই আর্টিকেল আলোচনা করা হয়েছে। প্রিয় বন্ধুরা আশাকরি আপনি আজকের এই আর্টিকেল থেকে উক্ত বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানতে পেরেছেন। যদি না জেনে থাকেন তাহলে উক্ত বিষয় গুলো আবার মনোযোগ সহকারে পড়ে নিন। তাহলে হুন্ডি ব্যবসা হালাল না হারাম এ বিষয়ে জানতে পারবেন। আপনার সুবিধার্থে আবার বলে রাখি হুন্ডি ব্যবসা সম্পূর্ণরূপে হারাম। এতক্ষন আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

পোষ্ট ক্যাটাগরি:

এখানে আপনার মতামত দিন

0মন্তব্যসমূহ

আপনার মন্তব্য লিখুন (0)